শিরোনাম

যেখানে তদবির দরকার, সেখানে তদবির চালাব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, যেখানে তদবির দরকার, সেখানে তদবির চালাব। যুক্তরাষ্ট্রের প্রথা অনুযায়ী কাজ করাতে গেলে লবিস্ট নিয়োগ করে তদবির করাতে হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের (বিলিয়া) এক অনুষ্ঠান শেষে আজ শুক্রবার সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

অনুষ্ঠান শেষে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে লবিস্ট নিয়োগ কি কাজে দিলএমন প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যদিও র‍্যাবের ওপর একটি নিষেধাজ্ঞা এসেছে, কিন্তু মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, র‍্যাব গত কয়েক বছরে সন্ত্রাস কমিয়েছে। তারা স্বীকার করেছে, স্বাধীন গবেষণা। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর সেগুলো চিন্তা-ভাবনা করবে। মার্কিন লক্ষ্য পুরো বিশ্বে সন্ত্রাস কমানো। র‍্যাব সন্ত্রাসী দূর করা, মাদক নির্মূল, মানব পাচার রোধ বেশ সফলতার সঙ্গে করছে। র‍্যাব বাংলাদেশের জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। মার্কিনরা বিষয়টি বুঝবে এবং তাদের অবস্থার পরিবর্তন হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। বাংলাদেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার মতো কোনো ধাক্কা এলে বাংলাদেশের যদি কোথাও কোনো  দুর্বলতা থাকে, অবশ্যই সেগুলো নিয়ে কাজ করা হবে।

গত সাত বছর ধরে বাংলাদেশ যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট প্রতিষ্ঠান নিয়োগ করে রেখেছে, আরও কোনো লবিস্ট প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগের পরিকল্পনা আছে কি না, জানতে চাইলে এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, আমি এসব বলতে পারব না। প্রত্যেক দেশই এ ধরনের লবিস্ট নিয়োগ করে। যুক্তরাষ্ট্রের একটি চর্চা এইটা। আর প্রত্যেক দেশেই এটা নিয়ম, আমাদের দেশে আমরা তদবির বলি। আর ওই দেশে (যুক্তরাষ্ট্রে) ইনস্টিটিউশন (প্রতিষ্ঠান) তদবির করে। যেখানে তদবির দরকার, সেখানে তদবির আমরা চালাব। দেশগুলোতে  কাজ করতে গেলে অনেক সময় তদবির লাগে। আইনি প্রক্রিয়ায় আমরা কীভাবে কাজ করতে পারি তা খতিয়ে দেখছি।

২০১৬ সালে সরকার ও ২০১৮ সালে বিএনপির যুক্তরাষ্ট্রে লবিস্ট নিয়োগ করা নিয়ে প্রশ্ন করলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি অত সব জানিটানি না। আপনাদের মাধ্যমে এসব শুনিটুনি। যে যাই কিছু করতে চাক না কেন, আইনি প্রক্রিয়ায় সবার লবিস্ট নিয়োগের অধিকার রয়েছে। এর বিরুদ্ধে বলার কিছু নাই। বিএনপি করুক অন্য লোকজন করুক, এটা তাদের বিষয়, আমাদের নয়।

আইনি প্রতিষ্ঠান বিলিয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশকে তুলে ধরা নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, করোনার কারণে আমাদের মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে। কোনো নতুন আইন ছাড়া আদেশ দেওয়া হচ্ছে মাস্ক পরাসহ শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা নিয়ে। এতে মানুষের ব্যক্তি স্বাধীনতায় বাধা আসছে। পুরো দুনিয়ায় যে নতুন ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে, সেটিকে কীভাবে আইনের মধ্যে আনা যায় এবং মানুষের অধিকার কীভাবে রক্ষা করা যায়, তাতে ভূমিকা রাখতে পারে বিলিয়া।


আরও খবর



যে কোনো নাগরিক তার অভিমত ব্যক্ত করতে পারেন: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০২ জানুয়ারী 2০২2 | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে রাষ্ট্রপতির সংলাপ ব্যর্থ নাকি সফল তা দেখতে সবাইকে অপেক্ষা করতে বললেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। রোববার (২ জানুয়ারি) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা আকবর আলি খান বলেছেন, নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে রাষ্ট্রপতির সংলাপ খুব একটা কাজে দেবে না। নির্বাচনে কমিশনে কারা থাকবেন সেই বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত রয়েছে। তারাই নিয়োগ পাবেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে আইনমন্ত্রী বলেন, এই ব্যাপারে দুটো কথা বলবো। একটা হচ্ছে যে, বাংলাদেশে বাক স্বাধীনতা আছে। বাংলাদেশের যে কোনো নাগরিক তার অভিমত ব্যক্ত করতে পারেন। আমরা মনে হয় তিনি অভিমত ব্যক্ত করেছেন। তিনি এটা করতেই পারেন।

মন্ত্রী বলেন, আমি আপনাদের বলবো এই সংলাপ ব্যর্থ হচ্ছে নাকি সফল হচ্ছে, তা সংলাপ শেষ হওয়ার পর রাষ্ট্রপতি কী পদক্ষেপ নেন সেটা দেখার পর আপনারা বুঝবেন। সেই পর্যন্ত আপনাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে।

দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি সংলাপে যাচ্ছে না- এ বিষয়ে আইনমন্ত্রী বলেন, আমি বিএনপির উদ্দেশ্যে এই কথাই বলতে চাই, দেখেন দেশ হচ্ছে সবার ঊর্ধ্বে। দেশের স্বার্থে আপনারা যদি এই সংলাপে আসেন, সেটা আপনাদের জন্য ভালো হবে, সবার জন্য ভালো হবে। সেটা যদি না করেন, তবে তা ওনাদের (বিএনপির) সিদ্ধান্ত।

অনেকে বলেন টক্সিক সিচুয়েশন। ওনারা (বিএনপি) যদি মনে করেন, এটা টক্সিক সিচুয়েশন, তাহলে আমার মনে হয় টক্সিক সিচুয়েশন থেকে বেরোনোর জন্য ওনাদের কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে। সংলাপে গেলে আমরা মনে হয় সেটা পজিটিভ হবে, যোগ করেন আনিসুল হক।

নির্বাচন কমিশন গঠন নিয়ে আইন হলে কী এই প্রশ্নগুলো আসতো? এখনও আইন করার সুযোগ আছে কিনা- জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, এই সময়ের মধ্যে আইন করার সুযোগ নেই। আইন হবে না এই কথা তো আমি বলিনি। আমি বলেছি, এই আইনটা হবে। এই আইনটা এমন একটা আইন হওয়া উচিত, যেটা গ্রহণযোগ্য হবে সবার কাছে। শুধু এক দলের কাছে গ্রহণযোগ্য হলে তো এটা সার্বজনীন আইন হলো না। সেক্ষেত্রে আমি মনে করি, আইন হবে। কিন্তু এই যে কমিশন তা সংলাপের উপর নির্ভর করবে। দেখা যাক কী হয়।


আরও খবর



বিবাহবিচ্ছেদের পর দু’জনেই ভাল আছি : নাগা-সামান্থা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিবাহবিচ্ছেদের কারণে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়ার কথা অকপটে স্বীকার করে নিয়েছিলেন সামান্থা প্রভু। কিন্তু চার বছরের দাম্পত্য কেন ভাঙল, তা নিয়ে একটি বাক্যও উচ্চারণ করেননি কখনও। অভিনেত্রীর মতোই কুলুপ এঁটেছিলেন তাঁর প্রাক্তন স্বামী নাগা চৈতন্য। তবে বিচ্ছেদ ঘোষণার প্রায় চার মাস পর এই সিদ্ধান্ত নিয়ে মুখ খুললেন দক্ষিণী তারকা।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে গিয়ে এ প্রসঙ্গে নাগা বলেন, কঠিন সময়ে পুরো পরিবার আমার পাশে ছিল। আমাদের দুজনের ভালর জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। ও খুশি। আমিও ভাল আছি। পেশাগত ভাবেও আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। অর্থাৎ বিচ্ছেদ নিয়ে কথা বললেও এখনও এই পদক্ষেপের কারণ স্পষ্ট করে জানালেন না দক্ষিণী তারকা।

তবে ইন্ডাস্ট্রির গুঞ্জন, পর্দায় সামান্থার খোলামেলা সাহসী দৃশ্য করা নিয়ে আপত্তি ছিল নাগা এবং তাঁর মা-বাবার। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির চাপিয়ে দেওয়া এই ফতোয়া উপেক্ষা করেই দ্য ফ্যামিলি ম্যান ২-এ যৌন দৃশ্যে অভিনয় করেন সামান্থা। অল্লু অর্জুনের পুষ্পা: দ্য রাইজ ছবিতে একটি আইটেম গানে দেখা যায় তাঁকে। অনেকেই বলেছেন, অভিনেত্রীর এই পদক্ষেপই চিড় ধরায় তাঁদের রূপকথার দাম্পত্যে।

মাস খানেক আগে একটি সাক্ষাৎকারে নাম না করেই নাগা বলেছিলেন, আমি সব ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতে রাজি। কিন্তু এমন কোনও চরিত্র করব না, যা আমার বা আমার পরিবারের সম্মান নিয়ে প্রশ্ন তুলবে, অথবা আমার পরিবারের সদস্যদের লজ্জায় ফেলবে। অভিনেতার এই মন্তব্যের সঙ্গে যাবতীয় জল্পনাকে মিলিয়ে দুয়ে দুয়ে চার করেছিলেন অনেকেই।


আরও খবর



করোনায় আরও ১ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ৯৮ জনের।

নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ১৪৬ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৯১ হাজার ৯৩ জনে।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বাড়িতে উপসর্গ বিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৭০ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৫০ হাজার ৫৩৪ জন। সারাদেশে সরকারি-বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৮৫২টি ল্যাবে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ২০ হাজার ৮৯০টি এবং নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ২০ হাজার ২০৪টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১ কোটি ১৬ লাখ ৩০ হাজার ৫৪০টি।

এতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৫ দশমিক ৬৭ শতাংশ, যা গত বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) ছিল ৪ দশমিক ৮৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৫৪ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত একজন নারী সদস্য। মৃত একজনের বয়স ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে এবং তিনি ময়মনসিংহ বিভাগের। মৃত একজন সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন।

এতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৮২ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৮৪ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন ৩ লাখ ৮৯ হাজার ৭৬৬ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৪৩ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ৩৩ হাজার ৭২৩ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর ধীরে ধীরে আক্রান্তের হার বাড়তে থাকে।


আরও খবর

দেশে মোট ৫৫ জনের দেহে ওমিক্রন শনাক্ত

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২




ফেনীতে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২ ভাই নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর বিসিক এলাকায় প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুই ভাই নিহত হয়েছেন। শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত দুই ভাই চট্টগ্রামের বাসিন্দা। একজনের নাম তুষার (৪০) আরেকজন বিপ্লব (৪২)।

জানা গেছে, ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী প্রাইভেটকারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে চার জন গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসকেরা তুষার ও বিপ্লবকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত দুজনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে। এই ঘটনায় সাজ্জাদ ও প্রণব নামে দুজন আহত হয়েছেন।


আরও খবর



শপথ নিলেন নতুন প্রধান বিচারপতি

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের ত্রয়োবিশংতম প্রধান বিচারপতি হিসেবে সংবিধান ও আইনের রক্ষণ, সমর্থন ও নিরাপত্তাবিধানের শপথ নিলেন বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

শুক্রবার বিকালে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছ থেকে তিনি নতুন দায়িত্বের শপথ নেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও অনুষ্ঠানে উপস্থিতি ছিলেন।

বঙ্গভবনের দরবকার হলে শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। পরে নিয়ম অনুযায়ী শপথনামায় সই করেন নতুন প্রধান বিচারপতি।

বৃহস্পতিবার বিকালে দেশের ২৩তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে আপিল বিভাগের বিচারক হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নাম ঘোষণা করা হয় সরকারের তরফ থেকে।

দেশের বিচারাঙ্গনের শীর্ষ এই পদে তিনি বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

শপথ নেওয়ার দিন থেকে ওই পদে বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নিয়োগ কার্যকর হবে বলে আইন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।

হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, খুলনা সিটি কর্পোরেশন, কুষ্টিয়া পৌরসভা, জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানির আইন উপদেষ্টা ছিলেন। ছিলেন বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল।


আরও খবর