Logo
শিরোনাম

যেসব কারণে পদ্মা সেতু বাঁকা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এই সেতু হবে না, হলেও টিকবে না- ছিল এমন নানা মন্তব্য, মাথা কাটার মতো নানা গুজবও ছড়িয়েছিল। সব গুজব, রটনা ও চ্যালেঞ্জকে পেরিয়েই পদ্মার উপর বসলো ৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ সেতু। দক্ষিণাঞ্চলের সঙ্গে জোড়া লাগল রাজধানীর। স্বপ্নের পদ্মা সেতু এখন শুধু উদ্বোধনের অপেক্ষায়। আসছে ২৫ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পদ্মা পাড়ি দিয়ে উদ্বোধন হবে সেতুটির। সাথে রয়েছে জমকালো আয়োজন।

এর আগেই পদ্মা সেতু নির্মাণে ব্যয় ও এর নানা প্রকৌশলগত তথ্য নিয়ে চলছে আলোচনা। চায়ের কাপে উঠেছে ঝড়। এরইমধ্যে প্রশ্ন উঠেছে, পদ্মা সেতু বাঁকা কেন? সোজা করলে তো দৈর্ঘ্য কমতো, ফলে যে ব্যয় নিয়ে এতো সমালোচনা সেটা কিছুটা কমতো! কারণ রড-সিমেন্ট কম লাগতো। প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা কি বিষয়টি খেয়াল করেননি? নাকি অন্য কোনো সমস্যা ছিল?

প্রশ্ন যুক্তিযুক্ত, কারণ পদ্মা সেতুর নকশার দিকে তাকালে একে বাঁক দেখা যাবে।  অনেকেই ভাবতে পারেন, কেবলমাত্র সৌন্দর্য রক্ষার্থে পদ্মা সেতুকে বাঁকা করে বানানো হয়। কিন্তু বিষয়টা এমন নয়। এর উত্তরে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, সেতুটি সোজাও হতে পারত। কিন্তু প্রকল্পসংশ্লিষ্টরা ইচ্ছে করেই সেতু বাঁকা করে নকশা করেছেন। এমনটা করার প্রধান কারণ দুর্ঘটনার ঝুঁকি কমানো।

বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন প্রয়াত বরেণ্য প্রকৌশলী অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী।  পদ্মা সেতু প্রকল্পের আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ প্যানেলের প্রধান ছিলেন এই বিশেষজ্ঞ।  সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে  তিনি বলেছিলেন, সেতুটি যদি আমরা আকাশ থেকে দেখি তাহলে বোঝা যায়, সেতুটি ডাবলি কার্ভড। অর্থাৎ ডানে-বাঁয়ে দুবার সামান্য বাঁকানো। এমনটা শুধু পদ্মা সেতুর বেলায় করা হয়নি। যুক্তরাষ্ট্র, চীন কিংবা জাপানে  লম্বা লম্বা মহাসড়কও এভাবে বাঁকিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

এর ব্যাখ্যায় অধ্যাপক ড. জামিলুর রেজা চৌধুরী বলেছিলেন, এটি মূলত করা হয় চালকদের কথা চিন্তা করে। একদম সোজা সেতু হলে চালকেরা সেতুতে উঠে একঘেয়েমিতায় ভোগেন। ক্লান্তি ও জড়তায় ড্রাইভিং থেকে মনোযোগ হারিয়ে ফেলেন। অনেকের তো স্টিয়ারিং একইভাবে ধরে রাখার কারণে ঝিমুনি আসে। এতে দুর্ঘটনার আশঙ্কা বাড়ে। কিন্তু একটু বাঁকানো হলে চালকদের এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হয়। এর মাধ্যমে তাদের মাথা সচল থাকে শতভাগ। এড়ানো যায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা। শুধু চালকের মনোযোগ টিকিয়ে রাখার জন্যই নয়; বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ির হেডলাইট সরাসরি যেন চালকের চোখে না পড়ে সে বিষয়টিও মাথায় রেখেছিলেন ইঞ্জিনিয়াররা। সেতু বাঁকা থাকলে আলো সরাসরি চোখে পড়বে না। তাতেও দুর্ঘটনার শঙ্কা কমে যাবে।

বিশেষজ্ঞরা আরো বেশ কিছু কারণ জানিয়েছেন পদ্মা সেতু বাঁকা বানানোর। শুধু পদ্মা সেতু নয়; যে কোনো বড় সেতুই বাঁকা বানানোই যুক্তিযুক্ত। একটি সেতুকে তিন ধরনের ওজন বহন করতে হয়- নিজস্ব ওজন; যানবাহনের ওজন; নদীর বা প্রাকৃতিক দূর্যোগের চাপ বা ওজন। সেতুতে গাড়ি ওঠার সময় কম্পনজনিত চাপ সৃষ্টি হয়। বাঁকা করে তৈরি করা হলে এটি পুরো সেতুতে ছড়িয়ে পড়ে ফলে কম চাপ পড়ে। সোজা হলে পুরো সেতুতে ছড়ায় না। নির্দিষ্ট স্থানে ব্যাপক কম্পন ও চাপ পড়ে। ফলে সেতু ভেঙে পড়ার আশঙ্কা থাকে।  সেতু বাঁকা করে তৈরি হলে এতে যানবাহনের লোডগুলো সঠিকভাবে প্রতিটি পিলারে আরোপিত হয়। এছাড়া নদীতে স্রোতের সময় পিলারে প্রচন্ড চাপ পড়ে, কিন্তু বাঁকা হলে চাপ কম পড়ে। মাটিতে সব জায়গায় সমান চাপ থাকে, তাই বাঁকা করলে ভূমিকম্পের সময় সব পিলার কাঠামো ধরে রাখতে পারে। আরেকটি বড় কারণ বন্যার সময় পানির অধিক চাপেও পিলারগুলো সেতুর কাঠামোকে ধরে রাখতে সক্ষম হয়। এসব কারণে বড় সেতু যেমন পদ্মা সেতু বাঁকা করে নির্মাণ করা হয়েছে। এখানে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির কোনো বিষয় নেই। সেতুকে বেশিদিন টিকিয়ে রাখার জন্যই এমন বুদ্ধি। তাতে খরচ বাড়লেও আপত্তি নেই।

নিউজ ট্যাগ: পদ্মা সেতু

আরও খবর

পদ্মা সেতুর আদ্যোপান্ত

শনিবার ২৫ জুন ২০২২




ডলারের বিপরীতে টাকার মান ফের কমেছে

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মার্কিন ডলারের বিপরীতে টাকার মান আবারও কমেছে। মঙ্গলবার (২৮ জুন) আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে এক ডলারের জন্য ৯৩ টাকা ৪৫ পয়সা খরচ করতে হয়েছে, যা দেশে ডলারের দামের সর্বোচ্চ রেকর্ড।

সোমবার (২৭ জুন) ডলারের দাম ছিল ৯২ টাকা ৯৫ পয়সা। পরদিন কমেছে যা আরও ৫০ পয়সা। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, ২৮ জুন ব্যাংকগুলোর চাহিদা অনুযায়ী কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বিক্রি করা হয়েছে ৪ কোটি ২০ লাখ ডলার। এদিন ৯৩ টাকা ৪৫ পয়সা দাম নির্ধারিত হয়েছে। আর এটাই আন্তঃব্যাংক দর। 

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, গত এক মাসের ব্যবধানে ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমেছে ৫ শতাংশ। আর এক বছরের ব্যবধানে কমেছে ১০ দশমিক ২০ শতাংশ। গত বছরের ৩০ জুন প্রতি ডলারের জন্য ৮৪ টাকা খরচ করতে হয়েছে। এক মাস আগে ৩০ মে লেগেছিল ৮৯ টাকা। এদিকে মে মাসে ডলারের দাম বেড়ে খোলা বাজারে ১০২ টাকা অতিক্রম করে রেকর্ড গড়েছিল। পরে কিছুটা কমে বর্তমানে খোলা বাজারে বেচাকেনা হচ্ছে ৯৯ টাকায় ডলার।


আরও খবর



সংবিধানে ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল, প্রতিবেদন দাখিল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সংবিধানে সন্নিবেশিত বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে শতাধিক ভুল পেয়েছে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত উচ্চ পর্যায়ের কমিটি। আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চে আইন মন্ত্রণালয় থেকে এই প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে।

এর আগে ২০২০ সালের ১০ মার্চ সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ভুলভাবে সন্নিবেশিত হয়েছে কি-না তা যাচাই করতে একটি উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। ৭ মার্চের ভাষণের সময় উপস্থিত থাকা ব্যক্তিসহ বিশিষ্টজনদের এ কমিটিতে রাখতে বলা হয়েছিল।

এ ছাড়া সংবিধানের পঞ্চম তফসিলে থাকা ভাষণের সঙ্গে এ সংক্রান্ত সকল অডিও-ভিডিও পর্যালোচনা করে একটি প্রতিবেদনও আদালতে দাখিল করতে বলা হয়। একই সঙ্গে সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের সঠিক ভাষণ কেন অন্তর্ভুক্ত করা হবে না তা জানতে চেয়ে ৪ সপ্তাহের রুল জারি করেন হাইকোর্ট। বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

২০২০ সালের ৫ মার্চ হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস এ রিট দায়ের করেন। রাজবাড়ীর রায়নগর গ্রামের কাশেদ আলীর পক্ষে তিনি এ রিট দায়ের করা হয়।

রিট আবেদনে সংবিধানে থাকা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের ভুলটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়। পাশাপাশি সংবিধানে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের পূর্ণাঙ্গ ভাষণটি বাংলা ও ইংরেজিতে অন্তর্ভুক্তি চাওয়া হয়। রিটে আইন মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের পরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়।


আরও খবর



৩০ জুন: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ৩০ জুন ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ। গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ১৮১ তম দিন।

পৃথিবীকে আলোকিত করেছেন অনেক জ্ঞানী-গুণিজন। একের পর এক রচনা করেছেন এবং করছেন ইতিহাসের পাতা। উন্মোচিত হয়েছে জগতের নতুন নতুন দিগন্ত। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে সেই ইতিহাস চিন্তা, চেতনা ও প্রেরণার উৎস। যারা জন্মেছিলেন কিংবা চলে গেছেন আজকের এই দিনে। আবার বহু ঘটনাই রয়েছে ফেলে আসা সময়ের পথে। যেসব ঘটনা এনেছিল প্রশান্তি কিংবা রচনা করেছে অনাকাঙ্ক্ষিত দুঃস্বপ্নে নীলকাব্য। যা ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনেই।

ঘটনাবলি:

০৬৫৬ - ইসলামের চতুর্থ খলিফা হযরত আলী (রা.) খেলাফত লাভ করেন।

১২৯৪ - সুইজারল্যান্ডের বার্ন থেকে ইহুদিদের বিতাড়ন করা হয়।

১৭৫৫ - ফিলিপাইনে ক্যাথলিক ধর্মাবলম্বী সব চায়নিজ রেস্টুরেন্ট বন্ধ করে দেয়।

১৭৫৭ - বাংলার শেষ স্বাধীন নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা ত্রিশ হাজার সেনা নিয়ে ইংরেজ অধিকৃত কোলকাতা দখল করেন।

১৭৫৭ - নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা স্বীয় পত্নী ও কন্যাসহ পালিয়ে যাবার সময় পথিমধ্যে রাজমহলে রাত কাটাতে গিয়ে তিনি ধরা পড়েন।

১৭৭২ - বাংলাদেশের রংপুরে ফকির মজনু শাহ জেহাদ শুরু করেন।

১৮৫৫ - ব্রিটিশবিরোধী সাঁওতাল বিদ্রোহ সংঘটিত হয়।

১৮৮৬ - ন্যায়বান গভরমেন্ট দক্ষিণ সাহাবাজপুর পরগনা কোর্ট অব ওয়ার্ডসের শাষনাধীনে গ্রহণ করে বাবু পিতাম্বর বন্ধ্যোপাধ্যায়কে অস্থায়ী ম্যানেজার নির্ধারণ করে দৌলতখায় প্রেরণ করে।

১৮৯৪ - কোরিয়া চীন থেকে স্বাধীনতা পেয়ে জাপানের সহযোগিতা কামনা করে।

১৮৯৪ - লন্ডন টাওয়ার ব্রিজ উদ্বোধন করা হয়।

১৯০৮ - রাশিয়ার সাইবেরিয়ার বৈকাল হ্রদের উত্তর-পশ্চিমের দুর্গম পার্বত্য এলাকা টাঙ্গুস্কায় এক প্রচন্ড শক্তির বিস্ফোরন ঘটে।

১৯১৬ - রাশিয়া ও জাপানের মধ্যে শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

১৯২০ - আয়াতুল্লাহ মীর্যা মোঃ ত্বাক্বী শিরাজীর নেতৃত্বে ইরাকের জনগণ বৃটিশ দখলদারদের বিরুদ্ধে স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু করে।

১৯৩৪ - জার্মানিতে ফ্যাসিবাদী হিটলারের বিরোধীতা করায় প্রায় এক হাজার লোককে হত্যা করা হয়।

১৯৩৭ সালে এই দিনে বিশ্বের প্রথম জরুরী টেলিফোন নম্বর, ৯৯৯ লন্ডনে চালু হয়।

১৯৪১ - নাজি গ্রুপের অনুসারীরা ইউক্রেনের স্বাধীনতা ঘোষণা করে।

১৯৫৭ - আওয়ামী লীগের প্রাদেশিক প্রধান, মাওলানা ভাসানী দলের সভাপতি হিসেবে পদত্যাগ করেন।

১৯৬০ - কঙ্গো গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র বা জায়ার স্বাধীনতা ঘোষণা করে।

১৯৬৯ - নাইজেরীয় সরকার বায়াফ্রায় পাঠানো রেডক্রসের সব ধরনের সাহায্য বন্ধ করে দেন।

১৯৭১ - নিউইয়র্ক টাইমস’- এর প্রতিনিধি সিডনি শ্যানবার্গকে ঢাকা থেকে বহিষ্কার করা হয়।

১৯৭১ - মুক্তিযোদ্ধারা তিনটি দলে বিভক্ত হয়ে নীলমনিগঞ্জ, হালসা ও আলমডাঙ্গা রেল লাইন বিষ্ফোরকের সাহায্যে উড়িয়ে দিয়ে পাকসেনাদের রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।

১৯৭৪ - বিশিষ্ট রাজনীতিক ভাষাসৈনিক জাতীয় লীগ প্রধান জনাব অলি আহাদ বিশেষ ক্ষমতা আইনে গ্রেফতার হয়ে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক হন।

১৯৭৯ - সুদানের জেনারেল ওমর আল বাশীর অভ্যন্তরীন সংকটের সম্মুখীন সুদানের সাদেক আল মাহদীর সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করেন।

১৯৯১ - দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণবাদী শাসনের অবসান ঘটে।

১৯৯৩ - ভারতে বাবরী মসজিদ ভাঙ্গার প্রতিবাদে ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ থেকে লাখো জনতা অযোধ্যা অভিমুখে প্রতীকি লংমার্চ শুরু করেন।

১৯৯৭ - বর্ণাঢ্য এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে চীনের কাছে হংকং হস্তান্তর করা হয়।

২০০০ - সমাপ্য অর্থ বত্সরের কার্যাদি নির্বাহের জন্য সংযুক্ত তহবিল হইতে অর্থ প্রদান ও নির্দিষ্টকরণের কর্তৃত্ব প্রদানের জন্য আইন প্রণয়ন করা হয় ৷

২০০২ - বিশ্বের সবচেয়ে বড় পাটকল আদমজী জুট মিল বন্ধ করে দেয় বিএনপি জোট সরকার৷

২০০৪ - গণপূর্ত অধিদপ্তর মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতিকেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে।

২০০৮ - র‌্যাব সাইকি ভবনের মালিক পীরজাদা, মহাগুরু, জ্যোতিষ সম্রাট আর ভণ্ড বাবা ড. জীবন চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে ।

২০০৯ - গ্রামীণ মহিলা উন্নয়ন প্রকল্প সমাপ্ত হয়।

২০১১ - বাংলাদেশ সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী পাশ হয়।

জন্ম:

১৪৭০ - অষ্টম চার্লস, তিনি ছিলেন ফ্রান্সের রাজা।

১৮০১ - ফ্রেডেরিক বাস্টিয়াট, তিনি ছিলেন ফরাসি অর্থনীতিবিদ ও তাত্তিক।

১৮৮৪ - জর্জ ডুহামেল, তিনি ছিলেন ফরাসি লেখক।

১৮৯৩ - হ্যারল্ড জোসেফ ল্যাস্কি, তিনি ছিলেন ব্রিটিশ রাষ্ট্র বিজ্ঞানী।

১৯১১ - চেসোয়াফ মিওশ, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী পোলিশ কবি ও লেখক।

১৯১৭ - লিনা হরনে, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেত্রী, গায়ক ও ড্যন্সার।

১৯২৬ - পল বার্গ, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী আমেরিকান প্রাণরসায়নী।

১৯৩৯ - হোসে এমিলিও পাচেকো, তিনি ছিলেন মেক্সিকান কবি ও লেখক।

১৯৪৩ - আহমদ ছফা, তিনি ছিলেন বাংলাদেশী লেখক, কবি ও সমালোচক।

১৯৫৪ - সেরযহ সারগসয়ান, তিনি আর্মেনিয় রাজনীতিবিদ ও ৩য় প্রেসিডেন্ট।

১৯৬৩ - য়ংওইয়ে মাল্মস্টেন, তিনি সুইডিশ গিটারিষ্ট ও গীতিকার।

১৯৬৫ - গ্যারি এন্ড্রু প্যালিস্টার, তিনি সাবেক ইংরেজ ফুটবল খেলোয়াড়।

১৯৬৯ - সনাথ জয়াসুরিয়া, তিনি শ্রীলংকান সাবেক ক্রিকেটার ও রাজনীতিবিদ।

১৯৭৭ - জুস্টো ভিলার, তিনি প্যারাগুয়ের ফুটবলার।

১৯৭৮ - লুসিয়ানা লেওন লুসি, তিনি ছোটবেলা থেকে রাজনীতির মাঠে এবং অসংখ্য তরুণের মনে ঝড় তুলেন ।

১৯৮০ - রায়ান টেন ডেসকাট, তিনি ডাচ ক্রিকেটার।

১৯৮৩ - শেরিল কোল, তিনি ইংরেজ গায়ক, গীতিকার, ড্যন্সার ও মডেল।

১৯৮৬ - ফ্রেডয় গুয়ারিন, তিনি কলম্বিয়ান ফুটবলার।

মৃত্যু:

০৭১৩ - ইমাম জয়নুল আবেদিন, তিনি ইসলামের মহান বার ইমামদের মধ্যে অন্যতম।

১৬৬০ - উইলিয়াম অউগট্রেড, তিনি ছিলেন ইংরেজ মন্ত্রী ও গণিতবিদ।

১৭১৭ - নবাব মুর্শিদ কুলি খান, তিনি ছিলেন ছিলেন বাংলার প্রথম নবাব।

১৮৩৯ - দ্বিতীয় মাহমুদ খাঁ, তিনি ছিলেন তুর্কি সুলতান।

১৯১৭ - দাদাভাই নওরোজি, তিনি ছিলেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের প্রথম এশীয় সদস্য।

১৯১৯ - জন উইলিয়াম স্ট্রাট ৩য় ব্যারন রেলি, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ইংরেজ পদার্থবিজ্ঞানী।

১৯৩৪ - কার্ট ভন সচলেইচের, তিনি ছিলেন জার্মান জেনারেল, রাজনীতিবিদ ও ২৩ তম চ্যান্সেলর।

১৯৫৭ - দক্ষিণারঞ্জন মিত্র, তিনি ছিলেন লোককথা সংগ্রাহক ও লেখক।

১৯৫৯ - শিশিরকুমার ভাদুড়ী, তিনি ছিলেন খ্যাতনামা নাট্যকার ও অভিনেতা।

১৯৬২ - প্রমীলা নজরুল, তিনি ছিলেন বিদ্রোহী কবি কাজি নজরুল ইসলামের পত্নী ।

১৯৭১ - ভ্লাডিস্লাভ ভোল্কোভ, তিনি ছিলেন রাশিয়ান প্রকৌশলী ও মহাকাশচারী।

১৯৭৪ - এ্যালবার্ট কিং, তিনি ছিলেন মার্টিন লুথার কিং এর মা।

২০০১ - চ্যাট অ্যাটকিন্স, তিনি ছিলেন আমেরিকান গায়ক, গীতিকার, গিটার ও প্রযোজক।

২০০৩ - বাডি হাকেট, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা ও কৌতুকাভিনেতা।

২০০৯ - পিনা বাউসচ্, তিনি ছিলেন জার্মান ড্যন্সার, কোরিওগ্রাফার ও পরিচালক।

২০১৪ - পল মাযুরস্কয়, তিনি ছিলেন আমেরিকান অভিনেতা, পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার।

নিউজ ট্যাগ: ইতিহাসে এই দিনে

আরও খবর

ইতিহাসে আজকের এই দিনে: ২১ জুন

মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২




সিবিওটিতে খাদ্যশস্যের দাম ২% কমেছে

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) খাদ্যশস্যের ভবিষ্যৎ সরবরাহ মূল্য ২ শতাংশেরও বেশি কমেছে। বিশ্ব অর্থনীতিতে মন্দার ঝুঁকি খাদ্যশস্যের চাহিদাকে দুর্বল করে তুলতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অন্যদিকে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, দেশটি রাশিয়ান খাদ্য ও সার রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে না। এ কারণে বাজারে সরবরাহ নিয়ে যে উদ্বেগ তাও কিছুটা শিথিল হয়েছে। এসব বিষয় দাম কমার পেছনে প্রধান ভূমিকা পালন করেছে। খবর রয়টার্স।

তথ্য বলছে, সিবিওটিতে গতকাল গমের ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিমূল্য ২ দশমিক ১ শতাংশ কমেছে। প্রতি বুশেল লেনদেন হয়েছে ৯ ডলার ৬৮ সেন্টে। কার্যদিবসের শুরুতে পণ্যটির দাম ৯ ডলার ৬০ সেন্টে নেমে গিয়েছিল।

অন্যদিকে, ভুট্টার ভবিষ্যৎ সরবরাহ চুক্তিমূল্য ২ দশমিক ৩ শতাংশ কমেছে। প্রতি বুশেলের মূল্য স্থির হয়েছে ৬ ডলার ৭৭ সেন্টে। এর আগে দাম কমে ৬ ডলার ৭৬ সেন্টে নেমে গিয়েছিল, যা ২৮ ফেব্রুয়ারির পর সর্বনিম্ন। সয়াবিনের দাম ২ দশমিক ৩ শতাংশ কমেছে। প্রতি বুশেলের দাম ১৪ ডলার ৪২ সেন্টে নেমেছে। কার্যদিবসের শুরুতে তেলবীজটির দাম ছিল ১৪ ডলার ৩৩ সেন্ট, যা ২৭ জানুয়ারির পর সর্বনিম্ন।

নিউজ ট্যাগ: সিবিওটি

আরও খবর



একসঙ্গে নদীতে ঝাঁপ প্রেমিক যুগলের, বেঁচে ফিরে প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রিয় মানুষটিকে না পেয়ে আত্মহননের পথ বেছে নেওয়ার ঘটনা বিরল নয়। এমনকি পরিবার বা সমাজের কারণে মনের মানুষের সঙ্গে ঘর বাঁধতে না পেরে একসঙ্গে প্রেমিক যুগলের আত্মঘাতী হওয়ার নজিরও আছে। এক্ষেত্রেও একসঙ্গে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হতে গিয়েছিলেন প্রেমিক যুগল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ঘটে অভিনব ঘটনা।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের প্রয়াজরাজ এলাকার ওই প্রেমিক যুগল একে অপরকে ভালোবাসলেও ঘর বেঁধেছিলেন আলাদা আলাদা মানুষের সঙ্গে। পরিবার ও সমাজের চাপে প্রিয় মানুষকে নিজের করে না পাওয়ায় একসঙ্গে আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন তারা।

আত্মহত্যার দিন-তারিখ-সময়ও ঠিক করে ফেলেন তারা। দুজনে হাজির হন যমুনা নদীর একটি ব্রিজের ওপর। বিরহের চেয়ে মরণও ভালোনীতিতে বিশ্বাস করে নদীতে ঝাঁপ দেন প্রেমিকা। কিন্তু ঝাঁপ দিয়েই বুঝতে পারেন প্রেমিক প্রতারণা করেছেন তার সঙ্গে; নদীতে ঝাঁপ না দিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন ব্রিজের ওপরেই।

ভাবছেন প্রেমিকা নদীতে ডুবে আক্ষরিক অর্থেই মৃত্যুকে বরণ করে নিয়েছেন। এখানেও আছে চমক। মোটেও পানিতে ডুবে মৃত্যুকে বরণ করে নেননি তিনি। বরং সাঁতরে দিব্যি পার হয়ে গেছেন নদী!

তবে চমকের এখানেই শেষ নয়। নদী পার হয়েই ক্ষান্ত হননি ৩২ বছর বয়সী প্রেমিকা।  ছয় বছর বয়সী এক মেয়ের মা ওই প্রেমিকা নদী পার হয়েই ধর্ণা দিয়েছেন পুলিশের কাছে।  রীতিমতো প্রতারণার অভিযোগে দুই বছরের ছোট প্রেমিকের বিরুদ্ধে এফআরআই দায়ের করেছেন তিনি।

পুলিশ জানায়, ওই নারী বর্তমানে হাসপাতাল চিকিৎসাধীন। অন্যদিকে প্রেমিকের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা ও মোবাইল ফোন নষ্ট করার অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ।


আরও খবর