Logo
শিরোনাম

যমুনার পানি কমছে, তীব্র হচ্ছে নদী ভাঙন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৮০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিরাজগঞ্জ হার্টপয়েন্টে গত ১২ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি ১০ সেন্টিমিটার কমেছে। মঙ্গলবার সকালে এখানে পানি ছিল ১২.৩৫ সেন্টিমিটার। বিকালে তা কমে গিয়ে ১২.২৫ সেন্টিমিটারে দাঁড়িয়েছে। সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার হাসানুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, গত ১২ ঘণ্টায় ১০ সেন্টিমিটার পানি কমে যাওয়ায়, নদীর তীরবর্তী এলাকায় ভাঙন আরও বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে যমুনায় বন্যার পানি কমতে থাকায় শাহজাদপুর উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের আরকান্দি, ঘাটাবাড়ি, জালালপুর, পাকুরতলা, কৈজুরি ইউনিয়নের ভেকা ও হাট পাচিল গ্রামে যমুনা নদীর ভাঙন আরও তীব্র আকার ধারণ করেছে। গত ২৪ ঘন্টায় এ ৬ গ্রামের অন্তত অর্ধশতাধিক বাড়িঘর যমুনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। গৃহহীন হয়ে পড়েছে প্রায় ২ শাতাধিক মানুষ।

গত ২৪ ঘন্টায় পাচিল গ্রামে অন্তত ২০টি বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য গ্রাম মিলিয়ে প্রায় অর্ধশত বাড়িঘর যমুনাগর্ভে চলে গেছে। সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব এসব অসহায় মানুষ শিশুসন্তানদের নিয়ে খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবনযাপন করছে।  তাদের অভিযোগ চলতি পাচিল-আরকান্দি যমুনার তীর সংরক্ষণ বাঁধ নির্মাণ কাজের ঠিকাদারের লোকজন স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে ভাঙ্গণ কবলিত বাড়িঘর রক্ষায় বালির বস্তা ফেলার নাম করে জন প্রতি ২০ হাজার টাকা থেকে ৩০ হাজার টাকা করে নিলেও শেষ পর্যন্ত দাবি অনুযায়ী আরও টাকা না দেয়ায় বস্তা ফেলা হয়নি। ফলে চোখের সামনে তাদের বাড়িঘর যমুনা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

তারা আরও বলেন, সময়মতো বস্তা ফেলা হলে তাদের আজ এ অবস্থা হতো না। এজন্য তারা ঠিকাদারের লোকজনকে দায়ী করেন। এ বিষয়ে কথা বলতে চাইলে ঠিকাদারের লোকজন কেউ কথা বলতে রাজি হননি। ফলে তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।এ বিষয়ে কৈজুরি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন খোকন বলেন, পাচিল গ্রামে যমুনা নদীর তীর সংরক্ষণ কাজের ঠিকাদারের গাফিলতিতে এ বছর গ্রামের মানুষ নদী ভাঙনের কবলে পড়ে নিঃস্ব হয়েছে। তারা সময়মতো বস্তা ফেললে এ ক্ষতি হতো না।

অপরদিকে জালালপুর গ্রামের আলহাজ আলী, কামরুল ইসলাম, মহির মেম্বর, লালচান বলেন, ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে এখনো কেউ এসে দাঁড়ায়নি ফলে তাদের দিন কাটছে অর্ধাহার-অনাহারে। তারা রোদ-বৃষ্টিতে ভিজে মানবেতর জীবনযাপন করছে।

এ বিষয়ে জালালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ সুলতান মাহমুদ জানান, তিনি স্থানীয় ইউপি সদস্যদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদের জন্য দ্রুত সাহায্য সহযোগিতা চেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেছি। কিন্তু এখনো কোনো বরাদ্দ পাইনি। পেলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

এ বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, সরেজমিন এলাকা পরিদর্শন করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 


আরও খবর



প্রতিদিন কলা খাওয়ার উপকারিতা

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সকালের নাস্তায় কলা রাখেন অনেকে, কখনো হয়তো টিফিনে থাকে এই ফল। খেতে হয় বলে খাওয়া নয়, প্রতিদিন কলা খেলে মেলে অনেক উপকার। এটি হয়তো বেশিরভাগেরই জানা নেই। কলায় থাকে প্রয়োজনীয় অনেক ভিটামিন। যে কারণে চিকিৎসকেরা নিয়মিত কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন।  শরীরে শক্তির ঘাটতি হলে কলা সেটি পূরণ করতে পারে। কলায় থাকে পর্যাপ্ত ভিটামিন সি, ভিটামিন বি৬ ইত্যাদি। সেইসঙ্গে এই ফলে ডায়েটরি ফাইবার থাকে ভালো পরিমাণে। এই ফলে ফ্যাট থাকে না বললেই চলে। এছাড়া এতে নেই কোলেস্টেরলও। কলাকে বলা হয় এনার্জির পাওয়ার হাউস। হেলথ এক্সচেঞ্জ তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, প্রতিদিন কলা খেলে মিলবে নানা ধরনের উপকার। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেগুলো কী-

ভিটামিন বি৬ এর জোগান: কলায় রয়েছে পর্যাপ্ত ভিটামিন বি৬। শরীরের অনেক কাজের জন্য অপরিহার্য হলো এই ভিটামিন। বি৬ শরীরে লোহিত রক্ত কণিকা তৈরিতে সাহায্য করে। কার্বোহাইড্রেট থেকে শরীরে শক্তি তৈরি করতেও কাজ করে এটি। পর্যাপ্ত ভিটামিন বি৬ পেতে চাইলে প্রতিদিন একটি করে কলা খাওয়ার অভ্যাস করুন।

মিলবে ভিটামিন সি: আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরিতে মূখ্য ভূমিকা রাখে ভিটামিন সি। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী হলে যেকোনো রোগ-জীবাণুকে খুব সহজেই ঘায়েল করা যায়। প্রতিটি মানুষের প্রতিদিন ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া প্রয়োজন। কলায় ভিটামিন সি থাকে পর্যাপ্ত। যে কারণে কলা খেলে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা উন্নত করা অনেকটাই সহজ হয়ে যায়।

ম্যাঙ্গানিজের ঘাটতি মেটাবে: আমাদের ত্বকের কোলাজেন তৈরি করতে সাহায্য করে ম্যাঙ্গানিজ। এছাড়াও ত্বকের নানা সমস্যা দূর করতে কাজ করে এই উপাদান। আপনি যদি প্রতিদিন একটি করে কলা খান তাহলে ত্বক নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। কারণ কলায় পাওয়া যাবে ভালো পরিমাণে ম্যাঙ্গানিজ। এটি আপনার ত্বক ভালো রাখতে কাজ করবে।

জোগান দেয় পটাশিয়াম: আমাদের হার্ট ভালো রাখার জন্য যেসব উপাদান জরুরি তার মধ্যে অন্যতম হলো পটাশিয়াম। এটি রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণেও কাজ করে। তাই প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় পটাশিয়ামযুক্ত খাবার রাখা জরুরি। কলায় থাকে পর্যাপ্ত পটাশিয়াম। তাই নিয়মিত কলা খেলে তা শরীরে পটাশিয়ামের জোগান দেয়।

নিউজ ট্যাগ: কলা

আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




রাহুলকে তিন দিনে ৩০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ, ফের ডেকেছে ইডি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ন্যাশনাল হেরাল্ড পত্রিকার অর্থ তছরুপের মামলায় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকে তিন দিনে ৩০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। এতেও সন্তোষ জনক উত্তর না মেলায় আবার তাকে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, আজ বৃহস্পতিবার বিরতি দিয়ে আগামীকাল শুক্রবার ফের তাকে তলব করেছে ইডি। এর আগে সোম, মঙ্গল ও বুধবার তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

ন্যাশনাল হেরাল্ড পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত তহবিল দুর্নীতি মামলায় সোমবারই প্রথম নয়াদিল্লির ইডির সদর দপ্তরে হাজিরা দিয়েছিলেন কংগ্রেস সভাপতি। সেদিন দুই দফায় তাকে ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এরপর মঙ্গলবারও ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। বুধবারও প্রায় ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাত সোয়া ৯টা নাগাদ ইডি দপ্তর থেকে বেরিয়ে যান রাহুল।

রাহুল গান্ধী বুধবার বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ নয়াদিল্লির এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের সদর দপ্তরে পৌঁছান। সেই সময় সঙ্গে ছিলেন তার বোন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। ভাইকে সেখানে নামিয়ে দিয়েই তিনি চলে যান। এরপর দুপুর ১২টার দিকে রাহুলকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন তদন্তকারীরা।

এদিকে, রাহুল গান্ধীকে জিজ্ঞাসাবাদ করার ঘটনায় প্রায় প্রতিদিনই দিল্লিতে বিক্ষোভ করছেন কংগ্রেস নেতাকর্মীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতিও হচ্ছে তাদের।


আরও খবর



ঘরের মাঠে টানা দুই ম্যাচ হারল ভারত

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঘরের মাঠেই নাজেহাল অবস্থা ভারতের। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে দিল্লিতে রেকর্ড ২১১ রান করেও হার এড়াতে পারেনি স্বাগতিক ভারত।

দিল্লিতে ৭ উইকেটে হেরে যাওয়া ভারত রোববার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেও হার এড়াতে পারেনি। এদিন কটকের বারাবতী স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ রান করে ভারত।

টার্গেট তাড়া করতে নেমে ২৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়ে দক্ষিণ আফ্রিকা। চতুর্থ উইকেটে হেনরিক্লেসেনকে সঙ্গে নিয়ে ৪১ বলে ৬৪ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক টিম্বা বাভুমা। দলীয় ৯৩ রানে ৩০ বলে ৩৫ রান করে ফেরেন বাভুমা।

এরপর ডেভিড মিলারকে সঙ্গে নিয়ে ৫১ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে যান হেনরিক্লেসেন। জয়ের জন্য শেষ দিকে ১৮ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৫ রান। খেলার এমন অবস্থায় ৪৬ বলে ৭টি চার আর ৫টি ছক্কায় ৮১ রান করে ফেরেন এই তারকা ব্যাটসম্যান। এরপর কাগিসো রাবাদাকে সঙ্গে নিয়ে ১০ বল হাতে রেখেই ৪ উইকেটের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন ডেভিড মিলার।


আরও খবর



আরও ৪৭ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৪৭ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৮ জুন) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৪৭ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এরমধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ৪৬ জন এবং ঢাকার বাইরে সারাদেশে নতুন একজন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে দেশে সর্বমোট ১৩৯ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এরমধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ১৩১ জন এবং ঢাকার বাইরে সারাদেশে আটজন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

এ বছর ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ জুন পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সর্বমোট এক হাজার ১৬ জন। একই সময়ে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৭৬ জন রোগী। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে এ বছর একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

গত বছর ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ছিল ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৮ হাজার ২৬৫ জন এবং ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যান ১০৫ জন।


আরও খবর

করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১৮৩

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২




আদালতে তোলা হচ্ছে পি কে হালদারসহ ৬ অভিযুক্তকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

১১ দিনের জেল হেফাজত শেষে আজ আদালতে তোলা হবে প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদারসহ ছয় অভিযুক্তকে। এর আগে, দুই দফা রিমান্ড শেষে গত ২৭ মে (শুক্রবার) তাদেরকে কলকাতা নগর দায়রা আদালতে তোলা হয়। শুনানি শেষে বিচারক তাদের মঙ্গলবার (৭ জুন) পর্যন্ত জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন।

চলতি বছরের ১৪ মে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে অভিযান চালিয়ে দুদকের মামলায় পলাতক আসামি পি কে হালদারকে গ্রেপ্তার করে ভারতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। এসময় তার সহযোগীদেরও গ্রেপ্তার করা হয়।

২০২০ সালে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পি কে হালদার নামে-বেনামে পিপলস লিজিংসহ নানা আর্থিক প্রতিষ্ঠান খুলে হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাট করে বিদেশে পালিয়ে যান। ওই বছরের ৮ জানুয়ারি অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে পি কে হালদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদকের ঢাকা সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলা দায়ের করেন সংস্থার সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ চৌধুরী।

ইডির আইনজীবী অরিজিৎ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, পি কে হালদার ও তার সহযোগীরা পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় বাংলাদেশ থেকে অবৈধভাবে লোপাট করে আনা অর্থ দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। পি কে হালদারকে জিজ্ঞাসাবাদে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতাসীন ও বিরোধীদলীয় নামিদামি অনেক ব্যক্তির নাম ওঠে এসেছে।

এদিকে পি কে হালদারকে ফিরিয়ে আনতে একাধিক মাধ্যমে চেষ্টা শুরু করেছে বাংলাদেশ। দুদকের পক্ষ থেকেও চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে শেষ পর্যন্ত তাকে ফিরিয়ে দেয়া হলেও সময় লাগতে পারে বলে জানা গেছে।

নিউজ ট্যাগ: পি কে হালদার

আরও খবর