শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রকে পাল্টা হুমকি উত্তর কোরিয়ার

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সমুদ্রে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনা এখন চরমে। এসব পরীক্ষায় যুক্ত বেশ কয়েকজন উত্তর কোরিয়ান কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে বাইডেন প্রশাসন। যার প্রেক্ষিতে পাল্টা হুমকি দিয়েছে কিম জন উনের দেশ। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে দ্য হিন্দু।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া প্রাথমিকভাবে মনে করেছিল, উত্তর কোরিয়া হয়তো পরমাণু অস্ত্রের পরীক্ষা করেছে। তবে কিম জং উন পরে জানান, হাইপারসনিক মিসাইলের পরীক্ষা হয়েছে।

ওই পরীক্ষার পরই উত্তর কোরিয়ায় ব্যালিস্টিক মিসাইল পরীক্ষার সঙ্গে যুক্ত বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। উত্তর কোরিয়ার ওপর আগে থেকেই একাধিক মার্কিন এবং জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা জারি আছে, নতুন এই নিষেধাজ্ঞা তার ওপর যুক্ত হলো।

সেই ঘটনার পর শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) উত্তর কোরিয়া আবারও অজ্ঞাত মিসাইল নিক্ষেপ করেছে বলে দাবি করেছে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের কর্মকর্তারা। এক সপ্তাহেরও বেশি কিছু সময়ের মধ্যে এ নিয়ে তৃতীয় দফায় ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করলো পারমাণবিক শক্তিধর এই দেশটি।

দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফস অব স্টাফ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া নিজের পূর্ব দিকে অজ্ঞাত একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। তবে এর বেশি আর কোনো তথ্য দেয়নি তারা।

জাপানের কোস্টগার্ডের মুখপাত্র জানান, ঠিক কোথায় পড়েছে ক্ষেপণাস্ত্রটি তা তারা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে।

অন্যদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ নিষেধাজ্ঞার পর এবার মুখ খুলেছে পিয়ংইয়ং। তাদের দাবি, সম্পূর্ণ বিনা কারণে যুক্তরাষ্ট্র নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদপত্রে বৃহস্পতিবার দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের একটি বিবৃতি ছাপা হয়েছে। সেখানে কার্যত যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, ওয়াশিংটনের নতুন নিষেধাজ্ঞার সামনে মাথা নত করবে না উত্তর কোরিয়া। আত্মরক্ষার্থে নতুন নতুন অস্ত্রের পরীক্ষাও অব্যাহত থাকবে।

উত্তর কোরিয়ার দাবি করছে, কোনো দেশকে লক্ষ্য করে নতুন মিসাইলের পরীক্ষা করা হয়নি। নিজেদের অস্ত্রভান্ডার এবং সামরিক শক্তির আধুনিকীকরণের উদ্দেশেই এই পরীক্ষা করা হয়েছে। কোনো দেশের যাতে ক্ষতি না হয়, সে দিকে লক্ষ্য রাখা হয়েছিল।


আরও খবর

আবুধাবিতে ড্রোন হামলায় তিনজন নিহত

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২




ওমিক্রন নিয়ে সবাইকে সতর্ক করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বব্যাপী করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন হু হু করে বাড়ছে। বাংলাদেশেও এখন পর্যন্ত ২১ জনের শরীরে ওমিক্রন ধরা পড়েছে। এ অবস্থায় দেশের মানুষকে নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের বিষয়ে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (৯ জানুয়ারি) বিভাগীয় আটটি শহরে সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০০ শয্যাবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ ক্যানসার চিকিৎসাকেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যেহেতু ওমিক্রন সারাবিশ্বে দেখা দিচ্ছে, সেজন্য সবাইকে অনুরোধ করব, আপনারা সবাই স্বাস্থ সুরক্ষাবিধি মেনে চলুন।

তিনি বলেন, শীতকালে করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়ে। এই সময়ে সাধারণত এমনি আমাদের দেশে সর্দি-কাশিরও প্রকোপ বাড়ে। সেদিকে লক্ষ্য রেখে সবাই মাস্কটা ব্যবহার করবেন। খুব বেশি বড় কোনো সমাগমে যাবেন না, সেখান থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখবেন। আর যেন বড় কোনো সমাবেশ না সেদিকেও লক্ষ্য রাখবেন। স্বাস্থ সুরক্ষাবিধি সবাই মেনে চলবেন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী সবাইকে করোনা টিকা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ওমিক্রনে শিশুরা বেশি সংক্রমিত হচ্ছে। সেজন্য আমরা ১২ বছর বয়স থেকে শিশুদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করছি। আমি সবাইকে অনুরোধ করবো, আপনারা ভয় না পেয়ে টিকাটা নিয়ে নেন। টিকা নিয়ে নিলে অন্তত জীবনটা রক্ষা পাবে।


আরও খবর



আজও দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের উত্তরের প্রান্তিক জেলা পঞ্চগড়ে দিন দিন বেড়েই চলছে শীতের দাপট। উত্তর দিক থেকে বয়ে আসা হিমালয়ের হিম ও ঘন কুয়াশার কারণে জেলাজুড়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহ বইছে। ফলে কনকনে শীতে চরম দূর্ভোগে পড়েছে জেলার সাধারণ ও খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষরা।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা সারা দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড।

এদিকে, সরেজমিনে দেখা যায় সন্ধ্যা হলেই এজেলার উপর দিয়ে হিমেল হাওয়া ও কুয়াশা আচ্ছাদিত হয় এবং তা ভোররাত থেকে আরও তীব্র হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূর্যের আলো খানিকটা উঁকি দিলেও থাকে শীত কমে না। ফলে কনকনে শীতে চরম বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া ও নিম্ন আয়ের মানুষরা।

এসব মানুষ সময় মতো যেমন শীতের কারণে কাজে যোগ দিতে পারছে না, তেমনি গরম কাপড়ের অভাবে শীতে কষ্ট পাচ্ছেন তারা। তাদের দাবি, শীত আসলেই তাদের কষ্ট বাড়ে।

এদিকে, জেলা প্রশাসক বলছেন, চলতি শীত মৌসুমে জেলার ৫ উপজেলায় ও ৩টি পৌরসভায় মোট ২৩ হাজার ৬০০ শীতবস্ত্র উপজেলা প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে গরীব,অসহায় ও শীতার্ত মানুষদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। পাশাপাশি দূর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে শীতবস্ত্রের চেয়ে চাহিদা পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। অথচ ভুক্তভোগীদের দাবি, কষ্টের দিনে তারা পায় না তেমন শীতবস্ত্র।


আরও খবর



গবেষণা জাহাজ তৈরি আমাদের সক্ষমতার পরিচয় : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের নতুন গবেষণা জাহাজ ইলিশ উৎপাদনে ব্যাপক সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার (০৪ জানুয়ারি) খুলনা শিপইয়ার্ডে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের জন্য শিপইয়ার্ড কর্তৃক নবনির্মিত ইলিশ গবেষণা জাহাজ হস্তান্তর উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আরো বলেন, "ইলিশ উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের মধ্যে শীর্ষে রয়েছে। অতীতের চেয়ে এখন বেশি ইলিশ উৎপাদন হচ্ছে। তবে ইলিশের সাময়িক উৎপাদন বৃদ্ধি নয় বরং গবেষণার মাধ্যমে আমরা ইলিশ উৎপাদনে সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে চাই। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির পাশাপাশি ইলিশের গুণগত মান আমরা নিশ্চিত করতে চাই। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে ইলিশ কখনো বিপন্ন যাতে না হয় সেজন্য আমাদের গবেষণা ইনস্টিটিউট রয়েছে, বিভিন্ন ল্যাবরেটরি রয়েছে। ইলিশ গবেষণার ক্ষেত্রে গবেষণা জাহাজ বড় ধরনের সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। আমরা চাই নদীমাতৃক বাংলাদেশে যেন পৃথিবীর সবচেয়ে সুস্বাদু ইলিশ পাওয়া যায়"।

এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, "বাংলাদেশ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। খুলনা শিপইয়ার্ডে গবেষণা জাহাজ তৈরি আমাদের সক্ষমতার পরিচয়। জাহাজ নির্মাণে ভবিষ্যতে আমরা বিদেশের উপর নির্ভর করবো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রায়ই বলেন আমাদের নিজেদের সক্ষমতা বৃদ্ধি করতে হবে। আজ দেশের মানুষের সাংবিধানিক মৌলিক চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হয়েছে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বিশ্বের বিস্ময় হবে বাংলাদেশ"।

মন্ত্রী আরো বলেন, "করোনার সময় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দরজা একদিনের জন্যও বন্ধ ছিল না। কারণ এ মন্ত্রণালয়ের কাজ স্থবির হয়ে গেলে মানুষের পুষ্টি ও আমিষের চাহিদা মেটানো মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাবে। এ খাতে কাজ করা মানুষ বেকার হয়ে যাবে। এ খাতের রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাবে। এভাবে আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতকে একটা বৈপ্লবিক পরিবর্তনের দিকে নিয়ে এসেছি"।

এ সময় চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, "এ দেশটা আইনসঙ্গতভাবে চলবে। দেশের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান। সংবিধানে যেটা নেই সে জাতীয় আবদার করলে সেটা দেয়ার কোন সুযোগ থাকবে না। অসাংবিধানিক কোন কিছু দাবী করা আইনের শাসনের পরিপন্থী। বিএনপির তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি সংবিধানসম্মত নয়। তাই এ দাবি কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। দেশে বিএনপি-জামাত অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ইমেজ সংকটে পড়েছে। এখন যদি আবার সে চেষ্টা কেউ করে এ দেশের মানুষই তাদের কঠোরভাবে মোকাবিলা করবে। বর্তমান সরকার প্রধান বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য উত্তরসূরি শেখ হাসিনা। তিনি বারবার মৃত্যুর মুখোমুখি হয়েও সমঝোতা করেন নি। কাজেই অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করে আওয়ামী লীগ বা সরকারকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কোন লাভ নেই। জনগণের ম্যান্ডেট না নিয়ে যেনতেন উপায়ে বিএনপির ক্ষমতায় আসার দুঃস্বপ্ন কখনো সফল হবে না। কারণ নেতৃত্বহীন, আদর্শহীন বিএনপিতে মানুষের আস্থা নেই"।

খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর খন্দকার আক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএফআরআই)-এর মহাপরিচালক ড. ইয়াহিয়া মাহমুদ। খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো. ইসমাইল হোসেন, খুলনা নেভাল এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, খুলনার জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, বিএফআরআই-এর ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের পরিচালক মো. আবুল বাশার এবং বিএফআরআই ও খুলনা শিপইয়ার্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের ইলিশ গবেষণা জোরদারকরণ প্রকল্পের আওতায় খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড এ গবেষণা জাহাজ নির্মাণ করেছে। ৮৬ ফুট দৈর্ঘ্যের ও ১৯ দশমিক ৬৮ ফুট প্রস্থের এ জাহাজে ফিশ ফাইন্ডার, ইকো-সাউন্ডার, নেভিগেশন এবং অত্যাধুনিক টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, অগ্নি নির্বাপক সরঞ্জামাদি, আধুনিক ইলিশ গবেষণা ল্যাবরেটরি, নেটিং সিস্টেম, পোর্টেবল মিনি হ্যাচারিসহ অন্যান্য অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন করা হয়েছে। জাহাজটি দিয়ে নদী এবং সাগরের মোহনায় ইলিশের প্রজনন এবং বিচরণক্ষেত্রের পরিবর্তন পর্যবেক্ষণ এবং নতুন নতুন ক্ষেত্র চিহ্নিত করা সম্ভব হবে। এছাড়া ইলিশের সর্বোচ্চ সহনশীল উৎপাদন, ইলিশের গতিবিদ্যা, জীবনচক্র ও উৎপাদনশীলতার ওপর পরিবেশ ও জলবায়ুগত প্রভাব নির্ণয় সংক্রান্ত গবেষণা পরিচালনা করা হবে।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রিত্ব ছাড়তে বরিস জনসনের ওপর চাপ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লকডাউন চলাকালীন ড্রিংক্‌স পার্টিতে যোগ দেওয়ার কথা স্বীকার করে ক্ষমা চাওয়ার পরে এবার বরিস জনসনকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াতে বলছেন তাঁর দলেরই জ্যেষ্ঠ নেতারা। সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে।

করোনা মহামারির মধ্যে লকডাউনে জনসমাগম ছিল আইনত নিষিদ্ধ। সামাজিক আয়োজনে আরোপ করা হয়েছিল বিধিনিষেধ। শারীরিক দূরত্ব মেনে চলার নির্দেশনা ছিল। এর মধ্যেই নিজের বাসভবনে সরকারের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি পার্টি আয়োজন করেছিলেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ঘটনাটি ২০২০ সালের ২০ মের।

১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের বাগানে আয়োজিত যুক্তরাজ্যের শীর্ষ সরকারি কর্মকর্তাদের ওই আসরে বরিস জনসন এবং তাঁর স্ত্রী ক্যারি সিমন্ডস উপস্থিত ছিলেন। অতিথি ছিলেন শতাধিক। ওই সময় যুক্তরাজ্যে কোনো আয়োজনে একসঙ্গে এত মানুষের উপস্থিতি আইনত নিষিদ্ধ ছিল।

এ তথ্য প্রকাশ হওয়ার পর ব্যাপক সমালোচিত হয়েছেন বরিস জনসন। লকডাউনের বিধি লঙ্ঘন করে এমন আয়োজনের তদন্ত শুরু করেছে দেশটির পুলিশ। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির মধ্যে এমন পার্টিতে যোগ দেওয়ার পর সমালোচনার মুখে ক্ষমা চেয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে,  উপপ্রধানমন্ত্রী ডমিনিক রাবসহ মন্ত্রিসভার সদস্যেরা বরিস জনসনের পাশে দাঁড়ালেও স্কটিশ টোরি নেতা ডগলাস রস এবং উইলিয়াম র‍্যাগ, ক্যারোলিন নোকস ও রজার গেলের মতো দলীয় সংসদ সদস্যেরা বরিসকে প্রধানমন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

ডগলাস রস বলেছেন, বরিস জনসন হাউস অব কমন্সে বুধবার ক্ষমা চাওয়ার পরে তাঁর সঙ্গে বেশ শক্ত ধরনের কথোপকথন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি নিজের অনাস্থার কথা ১৯২২ কমিটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানাবেন ডগলাস রস। এ কমিটি টোরি দলের নেতৃত্ব নির্ধারণী প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে।

ডগলাস রস বলেন, তিনি (বরিস জনসন) প্রধানমন্ত্রী। তাঁর সরকারই ওই বিধিনিষেধগুলো আরোপ করেছিল। তাঁকে তার কৃতকর্মের জন্য জবাবদিহি করতেই হবে।

যদি ৫৪ জন ব্যাকবেঞ্চ কনজারভেটিভ এমপি (সংসদ সদস্য) ১৯২২ কমিটিতে চিঠি পাঠান, তাহলে বরিস জনসনের নেতৃত্ব নিয়ে চ্যালেঞ্জ তৈরি হবে।

এদিকে, ডাউনিং স্ট্রিট পার্টিতে কোভিড-নিয়ম ভঙ্গের অভিযোগের বিষয়ে জ্যেষ্ঠ বেসামরিক কর্মচারী সু গ্রের তদন্তের ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে এমপিদের অনুরোধ করেছেন জনসনের মন্ত্রীরা। তদন্তের ফলাফল শিগগিরই প্রকাশিত হবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।


আরও খবর

আবুধাবিতে ড্রোন হামলায় তিনজন নিহত

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২




মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে আটক-৭৪

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৭৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) সকাল ৬টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) হাফিজ আল আসাদ জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে ৬৫০২ পিস ইয়াবা, ১৮২ গ্রাম ১৭৫ পুরিয়া ১০০ পাতা হেরোইন, ৮৫ কেজি ৯১০ গ্রাম গাঁজা ও ১০৩ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

আসামিদের নামে ডিএমপির থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৫৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।


আরও খবর

অ্যাটর্নি জেনারেল করোনা আক্রান্ত

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২