Logo
শিরোনাম

আজ পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)

প্রকাশিত:রবিবার ০৯ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২০২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ১২ই রবিউল আউয়াল। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। ১৪৪৪ বছর আগের এই দিনে আরবের পবিত্র মক্কা নগরীতে বিশ্বমানবতার মুক্তির দূত বিশ্বনবী হযরত মুহম্মদ (সা.) জন্মগ্রহণ করেন। ৬৩ বছর পর একই দিনে তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন। তাই মুসলিম উম্মাহ্‌র জন্য আজকের এ দিনটি যেমন আনন্দের, তেমনি শোকের। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী  (সা.) যথাযথ মর্যাদায় পালনের জন্য নানা কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও ধর্মীয় সংগঠন আলোচনা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করেছে। দিবসটি উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট মো. আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) ইতিহাসের এক অতুলনীয় আদর্শ।

বর্বর আরব সমাজে তার আবির্ভাব বদলে দিয়েছিল গোটা সমাজব্যবস্থাকে। মানবতার মুক্তির দূত হয়ে তিনি আরব সমাজের পাশাপাশি গোটা পৃথিবীর মানুষের জন্য নিয়ে এসেছিলেন শান্তির অমোঘ বার্তা। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে অন্য ধর্মাবলম্বী অনেকেই সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানব হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী বিখ্যাত পণ্ডিত মাইকেল এইচ হার্ট তার বহুল আলোচিত দ্য হান্ড্রেড গ্রন্থে হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ হিসেবে স্থান দিয়েছেন। মহানবী (সা.)কে বলা হয় সাইয়্যিদুল মুরসালিন।

অর্থাৎ, সব নবী ও রাসুলের নেতা। তিনি নিখিল বিশ্বের নবী। তার জন্মের সময় আরব দেশ অশিক্ষা, অজ্ঞতা, কুসংস্কার ও ঘোর তমসায় নিমজ্জিত ছিল। এ কারণে ওই সময়কে বলা হয় আইয়্যামে জাহেলিয়াত বা অন্ধকারের যুগ। ওই বর্বর যুগে পৈশাচিক স্বভাবের কালিমাতে মানুষের মানবিক গুণাবলির অপমৃত্যু ঘটেছিল। সে অবস্থা থেকে মানব জাতিকে মুক্তি দিতে মহান আল্লাহ্‌ হযরত মুহাম্মদ (সা.)কে সর্বশেষ রাসুল হিসেবে পৃথিবীতে পাঠান। এ বিষয়ে পবিত্র কোরআনের সূরা আম্বিয়ার ১০৭ নম্বর আয়াতে আল্লাহ্‌ বলেছেন, আমি আপনাকে সারা বিশ্বের জন্য রহমত হিসেবে পাঠিয়েছি। মহান আল্লাহ্‌ পুরো মানবজাতির জন্য সর্বাপেক্ষা কল্যাণকর, পরিপূর্ণ জীবন বিধান সংবলিত পবিত্রতম আসমানি কিতাব আল-কোরআন নাজিল করেন মহানবী (সা.)-এর ওপর। প্রতিবছর ১২ই রবিউল আউয়ালকে গুরুত্বপূর্ণ দিন হিসেবে পালন করে মুসলিম বিশ্ব। বিশ্বজুড়ে পালিত হয় মিলাদ, জশনে জুলুসসহ বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান। পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে আজ সরকারি ছুটি।


আরও খবর

পাপ কাজ ছেড়ে দেওয়ার উপায়

রবিবার ৩০ অক্টোবর ২০২২




সারা দেশের আদালতে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশ

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সারা দেশের অধস্তন আদালতে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশনা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। ঢাকার আদালত থেকে দুই আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার পরপর এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

রোববার (২০ নভেম্বর) সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র মোহাম্মদ সাইফুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধান বিচারপতির নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন থেকে সারা দেশের অধস্তন আদালতগুলোতে নিরাপত্তা জোরদারের নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। যেন কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা না ঘটে।

আজ দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটের দিকে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রধান ফটকের সামনে থেকে মোটরসাইকেলে করে এসে ২ আসামিকে ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা। সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে হাজির করে হাজত খানায় নেওয়ার সময় চার আসামির মধ্যে দুইজনকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের প্রধান ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশীদ। তিনি বলেন, আমরা শুনেছি আদালতের গেটে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের চোখে স্প্রে করে দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নিয়েছে অপর জঙ্গিরা। চোখে স্প্রে করার কারণে দায়িত্বরতরা কিছু দেখতে পারেননি।


আরও খবর



লোকসানের শঙ্কা ইউরোপীয় খুচরা বিক্রেতাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বড়দিন ঘিরে প্রতি বছর ইউরোপের খুচরা ব্যবসায়ীরা বড় ধরনের মুনাফা অর্জনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে অগ্রসর হন। কিন্তু চলতি বছর ভিন্ন পরিস্থিতিরই আশঙ্কা করছেন তারা। খুচরা এ ব্যবসায়ীদের শঙ্কা, এক দশকের মধ্যে এবারের কেনাকাটার মৌসুমে তারা লোকসানের সম্মুখীন হতে যাচ্ছেন। ইউরোপজুড়ে চলা মন্দা পরিস্থিতি, বড়দিনের আগেভাগে শুরু হওয়া কাতার বিশ্বকাপ সব মিলিয়ে ডিসেম্বরে ক্রেতাদের ব্যয়ের পরিস্থিতি থাকবে না। আবার মন্দা পরিস্থিতিতে ক্রেতারা ব্যয়ে সাশ্রয়ী হলেও ব্যবসায়ের খরচ কমেনি, বরং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের ফলে ব্যবসায়ের খরচ বেড়েছে। সব মিলিয়ে খুচরা ব্যবসায়ীদের মুনাফা মার্জিন সংকোচনের মুখোমুখি।

কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে গত দুটি বড়দিনের সময় সামাজিক বিধিনিষেধ জারি থাকার ফলে পরিবারগুলো স্বাভাবিক ক্রয় কার্যক্রম থেকে বিরত ছিল। কিন্তু বিদ্যমান মূল্যস্ফীতি দুই অংকের ঘরে পৌঁছানোর ফলে চলতি বছরও তারা কম ব্যয়ে মনোযোগী। বড়দিনের উৎসব ঘিরে স্বাভাবিক অবস্থায় পরিবারগুলো উপহারসামগ্রী ক্রয় কিংবা খাবার ও পানীয় বাবদ যে ধরনের ব্যয় করে, এবার তারা ততটা ব্যয় করতে উৎসাহী নয়।

জার্মানিতে ২০০৭ সাল থেকে ক্রিসমাসের বিক্রি সম্পর্কিত পূর্বাভাস দিয়ে আসছে এইচডিই রিটেইল অ্যাসোসিয়েশন। ক্রিসমাসের বিক্রিতে সবচেয়ে শক্তিশালী মন্দার পূর্বাভাস প্রদানের পাশাপাশি নভেম্বর-ডিসেম্বরের মতো গুরুত্বপূর্ণ সময়ে খুচরা বিক্রি বছরে ৪ শতাংশ কমছে বলে জানায় তারা। যুক্তরাজ্যের একটি সমীক্ষা নির্দেশ করছে, প্রায় অর্ধেক বা তারও বেশি সংখ্যক ব্রিটিশ এবার বড়দিনে কম ব্যয়ের পরিকল্পনা করেছে। সেপ্টেম্বরে খুচরা বিক্রি তীব্র হ্রাসের পুনরাবৃত্তি ডিসেম্বরেও জারি থাকবে। ১৯৮৯ সাল থেকে বার্ষিক রেকর্ড শুরু হওয়ার পর এটিকে শীর্ষ পতন হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে।

অডিট প্রতিষ্ঠান কেপিএমজির রিটেল প্রধান পল মার্টিন বলেছেন, এক দশকের মধ্যে কোনো উৎসবের মৌসুমে খুচরা বিক্রেতারা সম্ভবত সবচেয়ে কঠিন সময়ের মুখোমুখি, কারণ সামনের অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলার জন্য ক্রেতারা লেনদেন, দরকষাকষি ও কম ক্রয়ের কথা ভাবছেন।

স্প্যানিশ অ্যাসোসিয়েশনের সাম্প্রতিক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দেশটির ৭৭ শতাংশ খুচরা বিক্রেতা দাম স্থিতিশীল রাখার জন্য চেষ্টা করছেন খরচের মার্জিন কমানো ও দক্ষতা উন্নয়নের। ইতালীয় খুচরা বিক্রেতাদের অ্যাসোসিয়েশন কনফেয়ারসেন্টি ও এসডব্লিউজি পোলিং ইনস্টিটিউট অক্টোবরে এ-সম্পর্কিত একটি সমীক্ষা পরিচালনা করে।

তাতে দেখা যায়, ৬৮ শতাংশ ইতালীয় অক্টোবর থেকে বছরের শেষ পর্যন্ত কম কেনাকাটার পরিকল্পনা করেছে এবং তাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই বড়দিনের উপহার বাবদ খরচ কমানোর পরিকল্পনা নিয়ে অগ্রসর হচ্ছে। তাই সব মিলিয়ে আসছে বড়দিন খুচরা ব্যবসায়ীদের জন্য অনেকটাই কঠিন সময় বলে মনে হচ্ছে। ধারণা করা হচ্ছে, ২০২৩-২৪ অর্থবছরে বাজারের অবস্থা আরো খারাপ হতে পারে। কারণ মহামারী পরিস্থিতিতে অনেকেরই সঞ্চয় ফুরিয়েছে। চলমান পরিস্থিতিতে খুচরা বিক্রেতারা অনেক বেশি ব্যবসায়িক খরচের সম্মুখীন হয়েছেন।


আরও খবর



অভিমান করে সেতু থেকে নদীতে লাফ, ৩ ঘণ্টার পর মিললো লাশ

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রবাসে থাকা মায়ের সঙ্গে অভিমান করে সেতু থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এক যুবক। শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) সকালে মানিকগঞ্জ সিংগাইরে শহিদ রফিক সেতু (ধল্লা সেতু) এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ওই যুবকের নাম রিয়াজ হোসেন (২০)।

তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর শুক্রবার সন্ধ্যায় ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ধলেশ্বরী নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন। রিয়াজ হোসেন উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের ফোর্ডনগর (খানপাড়া) এলাকার আমিরুল ইসলাম খোকনের ছেলে।

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সকালে প্রবাসে থাকা মায়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হয়। সে সময় তাদের ঝগড়া হয়। সে অভিমানে বিকালে উপজেলার ধল্লা এলাকার শহিদ রফিক সেতু থেকে আত্মহত্যার জন্য সে লাফ দেয়। পরে ধল্লা পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ও সিঙ্গাইর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর ধলেশ্বরী নদীতে থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন।

সিঙ্গাইর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



সাময়িকভাবে টুইটারের অফিসের ঝাঁপ বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লন্ডনে পিকাডিলি সার্কাসে টুইটারের অফিসে শুক্রবার কার্যত কোনও কর্মীই ছিলেন না। সংস্থার তরফে বলা হয়েছে যারা ছাঁটাই হবেন না তাদের অফিসের মেলে জানানো হবে।

আচমকাই সাময়িকভাবে অফিস বন্ধ করে দিল টুইটার। কর্মীদের ইমেল করে বলে দেওয়া হয়েছে আপনাদের ছাঁটাই করা হচ্ছে কি না তা পরে জানানো হচ্ছে। এদিকে টুইটারে নতুন কর্ণধার ইলন মাস্ক। তিনি কোম্পানির দায়িত্ব নেওয়ার পরেই কিছুটা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে বলে দাবি করা হচ্ছে।

এদিকে ওই সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানির তরফে বলা হয়েছে কর্মচারীদের ছাঁটাই করা হচ্ছে কি না তা মেল করে জানানো হবে। এ নিয়ে সময়ও বলে দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স সূত্রে খবর, ওই মেলে উল্লেখ করা হয়েছে, টুইটারকে একটি স্বাস্থ্য়কর পথে নিয়ে আসার জন্য আমরা বিশ্বজুড়ে আমাদের ওয়ার্কফোর্সকে কিছুটা কমিয়ে আনার কঠিন প্রক্রিয়ার মধ্য়ে দিয়ে যাব।

এদিকে টুইটারের নয়া পরিকল্পনা সম্পর্কে রয়টার্স সূত্রে খবর, এলন মাস্ক বর্তমানে খরচ বাঁচাতে চাইছেন। তিনি বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তি। তিনি চাইছেন ৩৭০০ টুইটার স্টাফকে ছাঁটাই করতে। সব মিলিয়ে প্রায় অর্ধেক কর্মীকে তিনি ছাঁটাই করার পক্ষে। তিনি খরচে কাটছাঁট করতে চাইছেন। নতুন একটি কর্মসংস্কৃতি আনতে চাইছেন টুইটারে। আর তার জেরেই এই সিদ্ধান্ত।

তবে টুইটার এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি। এদিকে টুইটার কর্মীরা ইতিমধ্যেই এই কর্মী ছাঁটাই নিয়ে তাদের হতাশার কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় বলতে শুরু করেছেন। #OneTeam লিখে তাঁরাও ঝাঁপিয়ে পড়েছেন সোশ্য়াল মিডিয়ায়।

টুইটারের তরফে মেল করে জানানো হয়েছে, টুইটারের অফিসে সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে। সমস্ত কর্মীদের সুরক্ষার স্বার্থে ও টুইটার সিস্টেমের স্বার্থে ও গ্রাহকদের তথ্য়ের সুরক্ষার স্বার্থে এটা করা হচ্ছে।

লন্ডনে পিকাডিলি সার্কাসে টুইটারের অফিসে শুক্রবার কার্যত কোনও কর্মীই ছিলেন না। সংস্থার তরফে বলা হয়েছে যারা ছাঁটাই হবেন না তাদের অফিসের মেলে জানানো হবে। এরপর যারা ছাঁটাই হবেন তাঁদের ব্যক্তিগত মেলে জানিয়ে দেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: টুইটার

আরও খবর



আজ নিজদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে ফ্রান্স-অস্ট্রেলিয়া

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ নভেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অন্য দলগুলো যেখানে কাতারে এসেছে বিশ্বকাপ ট্রফি জিততে, সেখানে ফ্রান্স কাতারে পা রেখেছে সোনালি ট্রফিটি নিজেদের সঙ্গে নিয়েই। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন তারা, এবারের আসরে ফ্রান্সের ওপর শিরোপা ধরে রাখার চাপটা বেশি থাকবে এটিই যেন স্বাভাবিক। সেই চাপের সঙ্গে দিদিয়ের দেশমের দলের সঙ্গে যোগ হয়েছে অদৃশ্য শত্রু ইনজুরি। এত প্রতিকূলতা সঙ্গে নিয়েই কাতারের মাটিতে নিজদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে ফরাসিরা।

আল জানুব স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় আজ দিবাগত রাত ১টায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নামবে ফ্রান্স। সকারুদের  বিপক্ষে মাঠে নামার আগে ইনজুরি শঙ্কা  ফ্রান্স কোচ দিদিয়ের দেশমকে নতুন করে ভাবিয়ে তুলেছে।

চোটের কারণে বিশ্বকাপের দলে জায়গা হয়নি তারকা মিডফিল্ডার এনগোলো কান্তে আর পল পগবার, জায়গা পাননি ডিফেন্ডার প্রেস্নেল কিম্পেম্বেও। বিশ্বকাপ ক্যাম্পেইন থেকে ইনজুরি নিয়ে ফিরে গেছেন  এই মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা স্ট্রাইকার ক্রিস্টোফার এনকুনকু। সর্বশেষ অনুশীলনে চোট পেয়ে সদ্যই দল থেকে ছিটকে গেছেন দলের সবচেয়ে বড় ভরসা ব্যালন ডিঅর বিজয়ী করিম বেনজেমা।

ইনজুরি, সাম্প্রতিক ফলাফল ও মাঠের বাইরের বেশ কিছু বিষয় নিয়েও ফরাসি দলে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। সব কিছুকে ছাপিয়ে ১৯৬২ সালে ব্রাজিলের পর প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের শিরোপাটা ধরে রাখা ফ্রান্সের জন্য কতটা সম্ভব  তা নিয়ে শঙ্কা থেকেই যায়।

গত বছর ফরাসিদের পারফরম্যান্সে বেশ চড়াই উৎরাই লক্ষ্য করা গেছে। ইউরোপীয়ান চ্যাম্পিয়নশীপে শেষ ১৬তে সুইজারল্যান্ডের কাছে পেনাল্টিতে হেরে বিদায় নেওয়া দলটি উয়েফা ন্যাশনস লিগ জিতে কিছুটা হলেও পাপ মোচন করেছে। যে কারণে লস' ব্লুসদের নিয়ে কাতার বিশ্বকাপে তেমন একটা আলোচনা শোনা যাচ্ছে না। শেষ ছয়টি ম্যাচের মাত্র একটিতে জয়ী হয়েছে দেশমের শিষ্যরা। এর মধ্যে ডেনমার্কের বিপক্ষে দুটি পরাজয় দলকে নতুন করে দু:শ্চিন্তায় ফেলেছে। কারণ বিশ্বকাপ গ্রুপ পর্বে তাদের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী ডেনমার্ক।

তবে সবকিছু ছাপিয়েও ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন তকমা লেগে আছে ফরাসিদের সঙ্গে। তাই তাদেরকে এবার শিরোপার লড়াই থেকে কোনভাবেই দূরে সরিয়ে রাখা যাচ্ছে না। এছাড়া ইনজুরিতে অনেকে ছিটকে গেলেও দলে রয়েছেন  কিলিয়ান এমবাপ্পে আর উসমানে ডেম্বেলেদের মত তরুণ তারকা, সঙ্গে পাবেন আঁতোয়ান গ্রিজম্যান আর অলিভিয়ের জিরূদের মতো অভিজ্ঞ তারকদের।

চার বছর আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে শিরোপা জয়ে অবদান রাখা মধ্যমাঠের দুই মূল কান্ডারি এনগোলো কান্তে ও পল পগবার কেউই থাকছেন না এবারের বিশ্বকাপে। চেলসির কান্তে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করছেন।

অন্যদিকে হাঁটুর ইনজুরি কাটিয়ে চলতি মৌসুমে এখনো জুভেন্টাসের হয়ে মাঠে নামতে পারেননি পগবা। আগামী সপ্তাহে দেশমের দলে পগবার ফেরার আশা করা হচ্ছিলো। কিন্তু ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে গ্রীষ্মে তুরিনের জায়ান্ট ক্লাবে যোগ দেওয়ার পর নিজেকে কোনভাবেই ফিট করে তুলতে পারছেন না পগবা।

ফরাসি অধিনায়ক হুগো লরিস স্বীকার করেছেন পগবার দলে থাকাটা জরুরী ছিল। এই দুই মিডফিল্ডার মিলে ১৪৪টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। তাদের অনুপস্থিতিতে ফ্রান্সের মধ্যমাঠে বিশাল একটি শুন্যতার সৃষ্টি করবে। এই অভাব পূরণে ইতোমধ্যেই রিয়াল মাদ্রিদের অরিলিয়েন চুয়ামেনি, এডুয়ার্ডো কামাভিঙ্গা আর জুভেন্টাসের আদ্রিয়ান র‍্যাবিওটের ওপরই ভরসা রাখবেন দেশম। ইনজুরি বাঁধা কাঁটিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হয় তুলে নিয়েই বিশ্বকাপ ধরে রাখার মিশন শুরু করতে চাই ফরাসিরা।

এদিকে, প্লে-অফে পেরুকে পেনাল্টি শ্যুট আউটে হারিয়ে বিশ্বকাপের টিকিট পেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া।সকারুদের কোচ গ্র্যাহাম আর্নল্ড প্লে-অফের ফাইনালে ১২০ মিনিটে গোলরক্ষক ম্যাথিউ ডেভিড রায়ানকে বদলি করে মাঠে নামিয়েছিলেন দ্বিতীয় পছন্দের গোলরক্ষক এ্যান্ড্রু রেডমায়নকে। সেই রেডমায়নের উপর ভর করেই বিশ্বকাপের মঞ্চে পৌঁছায় সকারুরা।

এই নিয়ে চতুর্থবারের মত বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে নাম লিখিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আগের তিন আসরেই গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নেওয়া অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে গত ৯ ম্যাচে মাত্র একটিতে  জয়ের দেখা পেয়েছে। ২০১০ সালে সার্বিয়ার বিপক্ষে সকারুরা জিতেছিলো ২-১ গোলে।

তবে সাম্প্রতিক ফর্ম এবার বেশ আশা দেখাচ্ছে সকারুদের।  বিশ্বকাপের আগে সেপ্টেম্বরে প্রতিবেশী  নিউজিল্যান্ডকে দুই ম্যাচে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। আজ নিজেদের প্রথম ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে ভালো খেলা উপহার দিতে চাই অস্ট্রেলিয়া।

চার বছর আগেও গ্রুপ পর্বে একে অপরের মোকাবেলা করেছিল ফ্রান্স ও অস্ট্রেলিয়া। আঁতোয়ান গ্রিজম্যানের পেনাল্টি ও আজিজ বেহিচের আত্মঘাতী গোলে ২-১ গোলে জিতেছিলো দিদিয়ের দেশমের শিষ্যরা। এর আগে পাঁচবারের মোকাবেলায় সকারুজরা একমাত্র জয় পেয়েছিলো ২০০১ সালের কনফেডারেন্স কাপে।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২