Logo
শিরোনাম

বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর নিয়েছে ফেসবুক

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিজনেস আইডেন্টিফিকেশন নম্বর (বিআইএন) নিয়েছে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক। অলনাইনে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফেসবুক তিনটি পৃথক বিআইএন নিবন্ধন পেয়েছে।

রবিবার (১৩ জুন) ঢাকা দক্ষিণের কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের অতিরিক্ত কমিশনার প্রমিলা সরকার বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গত শনিবার (১২ জুন) ফেসবুক তিনটি পৃথক প্রতিষ্ঠান থেকে নিবন্ধন পেতে অনলাইনে আবেদন করে। আমরা যাচাই-বাছাই শেষে রোববার সকালে এটি অনুমোদন দিয়েছি।

 যে তিন প্রতিষ্ঠানের নামে নিবন্ধন নিয়েছে- ফেসবুক টেকনোলজিস আয়ারল্যান্ড লিমিটেড, ফেসবুক আয়ারল্যান্ড লিমিটেড এবং ফেসবুক পেমেন্টস ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

নিউজ ট্যাগ: বিআইএন ফেসবুক

আরও খবর

আমার দেখা তসলিমা নাসরিন

শনিবার ০৫ জুন ২০২১




সজীব গ্রুপের চেয়ারম্যানসহ ৮ আসামি ৪ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:শনিবার ১০ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের হাসেম ফুডসের কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৫২ জন নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার আট আসামির প্রত্যেকের চারদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শনিবার (১০ জুলাই) বিকেলে শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্টেট ফাহমিদা খানমের আদালত এ আদেশ দেন। এর আগে তাদের ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবদেন করে পুলিশ।

কোর্ট ইন্সপেক্টর আসাদুজ্জামান এতথ্য নিশ্চিত করেন।

আসামিরা হলেন-সজীব গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আবুল হাসেম এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাহেনশাহ আজাদ, আবুল হাসেমের চার ছেলে (গ্রুপের ডিএমডি) হাসিব বিন হাসেম ওরফে সজীব, (পরিচালক) তারেক ইব্রাহীম, তাওসীব ইব্রাহীম, তানজীম ইব্রাহীম; হাসেম ফুডসের উপ-মহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম) মামুনুর রশিদ এবং সিভিল ইঞ্জনিয়ার ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিন।

এর আগে পুলিশবাদী হয়ে আটজনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

গত ৮ জুলাই বিকেলে ওই কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটে। ঘটনার প্রথম দিন তিনজনের মৃত্যু হয়। আহত হন অর্ধশত শ্রমিক। ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের ১৮টি ইউনিট ২০ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এরপর গত ৯ জুলাই সকালে ওই ভবনের চারতলা থেকে ২৬ নারীসহ ৪৯ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সব মিলিয়ে এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৫২ জনে। ২৯ ঘণ্টা পর ৯ জুলাই রাতে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে আগুন।


আরও খবর



করোনা নিয়ন্ত্রণে এলে প্রাথমিক-মাধ্যমিক স্কুল খোলা হবে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, টিকা কর্যক্রম সম্পন্ন হলে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে। আর করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‍খুলে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে আসন্ন ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনাকালে প্রধানমন্ত্রী এ তথ্য জানান।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ মতো ভ্যাকসিন দেওয়ার বয়সের একটি সীমাবদ্ধতা রয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্কুল থেকে শুরু করে উচ্চ শিক্ষায় যারা আছে সবাই যেন ভ্যাকসিন পায় এবং দ্রুত যেন আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলতে পারি; সেই ব্যবস্থা নেবো।

সরকার শিক্ষাকে সব থেকে গুরুত্ব দেয় উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নসহ সার্বিক মানবসম্পদ উন্নয়নকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বাজেটে।

করোনাকালে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, করোনা মহামারির প্রাদুর্ভাবের শুরু থেকেই শিক্ষার্থীদের পাঠ্যক্রমের ধারাবাহিকতা রক্ষায় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। আমার গৃহ আমার স্কুল,ঘরে বসে শিখি সহ সংসদ টেলিভিশনের মাধ্যমে দূরশিক্ষণের কার্যক্রম চলছে। বাংলাদেশ বেতার, কমিউনিটি রেডিও এবং অনলাইনের মাধ্যমে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখা হয়েছে। এতে করে প্রায় চার কোটি শিক্ষার্থীর দীর্ঘ একবছর শিক্ষা কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত রাখা সম্ভবপর হয়েছে।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিরতণ করেছি এবং বৃত্তি, উপবৃত্তি দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু না থাকায় শিক্ষার্থীদের খুবই কষ্ট হচ্ছে উল্লেখ করে সরকার প্রধান বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল মাদ্রাসা খুলে দেওয়া হবে।


আরও খবর



কঠোর লকডাউন নিয়ে যা বললেন তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
শুরুতে সরকারের পক্ষে সোমবার সকাল থেকে সারাদেশে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু ৩০ জুন চলতি অর্থবছরের শেষ দিন হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আজ সোমবার (২৮ জুন) থেকে আগামী তিনদিনের জন্য সারাদেশে সীমিত পরিসরে লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। এ সময়ের পর আগামী ১ জুলাই থেকে সারা দেশে শুরু হবে কঠোর লকডাউন। লকডাউন নিয়ে সরকারের এমন দ্বৈত নীতির কারণ জানালেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

সোমবার (২৮ জুন) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, জুন ক্লোজিংয়ের কারণেই সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শুরুতে সরকারের পক্ষে সোমবার সকাল থেকে সারাদেশে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু ৩০ জুন চলতি অর্থবছরের শেষ দিন হওয়ায় বৃহস্পতিবার থেকে কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এজন্য সোমবার থেকে সীমিত লকডাউন চলছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ১ তারিখ থেকে কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ, বিজিবির পাশাপাশি মাঠে কাজ করবে সেনাবাহিনীও।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বিশেষজ্ঞদের সুপারিশে গত শুক্রবার সোমবার থেকে সারাদেশে কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু পরদিন শনিবার এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে সরকার।


আরও খবর



একদিনে এক এক করে তিন ভাইয়ের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১০ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নাটোরে একদিনে এক এক করে তিন ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে।  দুজন মারা গেছেন করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবং অন্যজন দুই ভাইয়ের মৃত্যুর খবর শুনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে জানা গেছে।

মৃত তিন ভাই হলেন-  নাটোর শহরের ঐতিহ্যবাহী পচুর হোটেলের স্বত্বাধিকারী শরিফুল ইসলাম ওরফে পচু (৫৬), বড় ভাই মো. বাবলু (৭০) ও ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলম (৪৬)।

পচুর হোটেল সূত্রে জানা যায়, হোটেলটির স্বত্বাধিকারী শরিফুল ইসলাম ওরফে পচু গত ৪ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে তাকে সেবা করার জন্য থাকা ছোট ভাই জাহাঙ্গীরও করোনা আক্রান্ত হয়ে ৭ জুলাই একই হাসপাতালে ভর্তি হন। তাকে হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে শরিফুলকেও আইসিইউতে নেওয়া হয়।

শুক্রবার (৯ জুলাই) ভোরের দিকে মেজ ভাই শরিফুলের মৃত্যু হয়। এর পর পরই এই মৃত্যুর খবর শোনার সঙ্গে সঙ্গে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হন বড় ভাই বাবলু। তাকে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। শুক্রবার জুমার নামাজের পর শহরের ভবানীগঞ্জের কবরস্থানে মৃত দুই ভাইয়ের দাফন অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সন্ধ্যার সাড়ে ৭টার মৃত্যুবরণ করেন রামেক হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা ছোট ভাই জাহাঙ্গীরও।

বাবলু, শরিফুল ও জাহাঙ্গীর নাটোর শহরের ভবানীগঞ্জ মহল্লার মৃত আবদুর রশিদের ছেলে। একদিনে ভোর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এক এক করে তিন ভাইয়ের এমন মৃত্যুতে এলাকায় চলছে শোকের মাতম।  


আরও খবর



ফাঁসি সমাজকে অপরাধ থেকে রক্ষা করে না : প্রধান বিচারপতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিচারে সাজা বা ফাঁসি দিয়ে অপরাধ থেকে সমাজকে রক্ষা করা যায় না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

মঙ্গলবার সন্তান হত্যার দায়ে বাবার মৃত্যুদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে করা আপিলের শুনানিতে প্রধান বিচারপতি এ মন্তব্য করেন।

প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারপতির ভার্চুয়াল আপিল বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। এতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ। তিনি ভারত ও বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালতের বিভিন্ন রায়ের পর্যবেক্ষণ ও সিদ্ধান্ত তুলে ধরেন শুনানিতে।

শুনানিকালে প্রধান বিচারপতি বলেন, সেনটেন্স (সাজা), হ্যাংগিং (ফাঁসি) কিন্তু সোসাইটিকে রক্ষা করে না।

ওয়াইফ কিলিং (স্ত্রী হত্যা) কি বন্ধ হয়েছে? এমন প্রশ্ন তুলে প্রধান বিচারপতি বলেন, ওয়াইফ কিলিংয়ে কোনো সাক্ষীও তো লাগে না। প্রসিকিউশন (রাষ্ট্রপক্ষ) ডাক্তারের রিপোর্ট নিয়ে এলেই হাজবেন্ডের (স্বামী) ফাঁসি, নইলে যাবজ্জীবন। আমার তো মনে হয় এটার একটা পরিসংখ্যান নেওয়া উচিত। ৮০ শতাংশ মামলায় হাজবেন্ডের সাজা হয়। এই যে সাজা হচ্ছে, ফাঁসি হচ্ছে, যাবজ্জীবন হচ্ছে, ওয়াইফ কিলিং কি কমেছে? সুতরাং এটা ভুল ধারণা যে সাজা দিলেই আমরা একদম দুধের মধ্যে ভাসতে থাকব।

শুনানির এক পর্যায়ে প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, যেখানে ডেথ সেনটেন্স (মৃত্যুদণ্ড) হবে, সেখানে তো ডেথ সেনটেন্স দিতেই হবে। অর্থাৎ যেখানে অপরাধ মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার মতো, সেখানে আদালতকে মৃত্যুদণ্ড দিতেই হবে।

পরে সর্বোচ্চ আদালত মামলার আসামি মো. জসীম রাড়ির সাজা কমিয়ে ১০ বছরের কারাদণ্ডের রায় দেন।


আরও খবর