Logo
শিরোনাম

বিশ্বকাপে নিষিদ্ধ ৬ হাজার আর্জেন্টাইন সমর্থক

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ফুটবল বিশ্বকাপ যত ঘনিয়ে আসছে, ভক্তদের উন্মাদনা তত বাড়ছে। কাতারে যেতে শুরু করেছেন ফুটবলমোদি ভক্তরা। প্রিয় দলকে মাঠে থেকে সমর্থন জানাতে চলছে শেষ মুহূর্তের তোড়জোড়। এরই মধ্যে দুঃসংবাদ পেল প্রায় ৬ হাজার আর্জেন্টিনা সমর্থক। রয়টার্সের বরাতে জানা যায়, বিশ্বকাপে মাঠে বসে দেশকে সাপোর্ট দিতে পারবেন না তারা।

লাতিন আমেরিকার ফুটবল সমর্থকদের একটি সংগঠন বারাব্রাভা। উগ্রবাদী আচরণের ফলে মাঝেমধ্যেই তাদের মাঠে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়। তাদের সঙ্গে যুক্ত হওয়া, নিষিদ্ধ ব্যবসায়ে জড়িয়ে যাওয়া, ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়ায়, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করায় প্রায় ৬ হাজার সমর্থককে কাতার বিশ্বকাপে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বুয়েন্স আইরেস সরকার।

বুয়েন্স আইরেস সরকারের বিচার ও নিরাপত্তাবিষয়ক মন্ত্রী মার্সেলো ডি আলেসান্দ্রো স্থানীয় রেডিও স্টেশনে বলেন, এইসব উগ্রবাদী ভক্তরা আর্জেন্টিনা ও কাতারে ছড়িয়ে আছে। ফুটবলে আমরা শান্তি ফিরিয়ে আনতে চাই।

গত জুনে আর্জেন্টিনার নিরাপত্তা বিভাগের সঙ্গে কাতারের নিরাপত্তা বিভাগের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। একসঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করে দুই দেশের নিরাপত্তা বিভাগ। ফুটবল বিশ্বকাপে যেন কোনোপ্রকার নিরাপত্তাজনিত ঝামেলা তৈরি না হয়, সেদিকে সচেষ্ট তারা। 

উল্লেখ্য, যে ৬ হাজার ভক্তকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩ হাজার জন এর আগে নানা সময়ে এমন নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হয়েছিল।

আগামী ২০ নভেম্বর পর্দা উঠবে এবারের বিশ্বকাপের। দেশটির আটটি স্টেডিয়ামে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য লড়বে ৩২টি দল। বিশ্বকাপের প্রথম দিন স্বাগতিক কাতার মুখোমুখি হবে ইকোয়েডরের। একদিন পর ২২ নভেম্বর সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে আর্জেন্টিনা।


আরও খবর



জানুয়ারিতে গ্যাস সংকট কাটবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, আগামী জানুয়ারি থেকে শিল্প খাতে গ্যাস সংকট কেটে যাবে। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) সিরামিক এক্সপো বাংলাদেশ- ২০২২ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তৈরি পোশাকের মতো সিরামিকসহ যেসব খাতের পণ্য বিদেশে রপ্তানি করতে চায় তাদের সব সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে। বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাত হলো সিরামিক শিল্প। চাহিদার ৮৫ ভাগ পূরণ হচ্ছে দেশে উৎপাদিত সিরামিক পণ্যে। এ ছাড়া বিশ্বের ৫০ দেশের এক বিলিয়ন ডলারের সিরামিক পণ্য রপ্তানি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার সিরামিক পণ্যের উৎপাদন ও রপ্তানি বাড়াতে ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহযোগিতা দিচ্ছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএমইএ) সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিসিএমইএ মহাসচিব ইরফান উদ্দিন প্রমুখ।


আরও খবর



দামে খুশি চাষিরা

কুড়িগ্রামে ৩৯৫ বরজে পান চাষ

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কুড়িগ্রামে পান চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন চাষিরা। বংশ পরম্পরায় পান চাষে ভাগ্য বদলের চেষ্টা করছেন তারা। দীর্ঘমেয়াদী এ আবাদ লাভজনক হওয়ায় প্রতি বছর চাষে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন অনেকেই। পানের বরজে জৈব সারের সঠিক প্রয়োগ আর নিয়মিত পরিচর্যা করলে মৌসুমি আবাদের চেয়েও ভালো আয় করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন চাষিরা।

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, জেলার ফুলবাড়ী, ভুরুঙ্গামারী, উলিপুর উপজেলাসহ বেশ কিছু এলাকায় পানের চাষ হচ্ছে। জেলায় মোট ৩৯৫টি পানের বরজ আছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে পান চাষে লাভবান হবেন চাষিরা।

পান চাষি প্রলয় বর্মন বলেন, পান চাষ লাভজনক। একবার পানের বরজ লাগালে অনায়াসে ১০ থেকে ১২ বছর পান পাওয়া যায়। প্রথম বছর পান চাষে খরচ বেশি পড়লেও পরের বছর থেকে ভালো আয় করা সম্ভব। এতে ছত্রাক রোগ ছাড়া তেমন রোগবালাই নেই। নিয়মিত স্প্রে আর গাছের যত্ন নিলে ছত্রাক দূর করা সম্ভব। এ ছাড়া অতি বৃষ্টি ও অতি শীতে পানের ক্ষতি হয়। এ সময় বরজে খড়ের মাঁচায় পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখতে হয়।

ফুলবাড়ী উপজেলার নিমাই হাওলাদার বলেন, আমি ১ বিঘা জমিতে বরাই পান চাষ করেছি। পানের বরজ, বেড়া, মাঁচা তৈরিতে ১ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। গতবছর এ জমি থেকে ৪৫ হাজার টাকার পান বিক্রি করেছি। এ বছর পানের গাছ ভালো দেখা যাচ্ছে। আশা করি এ বছর আরও বেশি পান বিক্রি করতে পারব। বর্তমান বাজারে বরাই জাতের একশ পান ১৫০-২০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি সাইজের পান ১১০-১৩০ টাকা ও ছোট সাইজের পান ৮০-১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। দাম ভালো থাকায় পান গাছে কোনো রোগবালাই না হলে লাভবান হবো।

কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক বিপ্লব কুমার মোহন্ত বলেন, কুড়িগ্রামে ৮৫ হেক্টর জমিতে মোট ৩৯৫টি বরজে পান চাষ হচ্ছে। এ ছাড়া সুপারি বাগান, বাড়ির আঙিনাসহ বিস্তীর্ণভাবে পান চাষ হচ্ছে। পান চাষ বাড়ানোর জন্য জেলায় ১ হাজার হেক্টর সুপারি গাছে পান গাছ করার পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

নিউজ ট্যাগ: কুড়িগ্রাম

আরও খবর



উচ্চ আদালতের আদেশে স্ত্রীকে ফিরে পেলেন তরুণ

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ধর্মীয় নিয়ম মেনে বিয়ে করেছিলেন তরুণ-তরুণী। কিন্তু তাদের এই বিয়ে মেনে নেয়নি পরিবার। বন্দী করে তরুণীকে। শুরু হয় নির্যাতন। বিয়ে করেও এক সঙ্গে থাকা হচ্ছিলো না শ্যাম সুন্দর ও হেমা শর্মার। তবে উচ্চ আদালতে দুই তরুণ-তরুণীর ভালোবাসার জয় হয়েছে।

রবিবার (১৩ নভেম্বর) উচ্চ আদালতের দেওয়া এক আদেশে ১০ মাস পর নিজের স্ত্রীকে ফিরে পেয়েছেন রংপুরের বদরগঞ্জের তরুণ শ্যাম সুন্দর। স্ত্রী হেমা শর্মাকে ফিরে পেতে হাইকোর্টে রিট করেন শ্যাম সুন্দর। শুনানি শেষে সে রিট নিষ্পত্তি করে আজ আদালত আদেশ দেন। আদেশে আদালত হেমা শর্মাকে স্বামী শ্যাম সুন্দরের হাত তুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চে চাঞ্চল্যকর এই রিটের নিষ্পত্তি হয়। রায় শেষে আদালত কক্ষেই শ্যাম সুন্দর তার স্ত্রীকে বুঝে নেন।

এর আগে গত ৩১ অক্টোবর এ রিটের ওপর শুনানি শেষ হয়। আদালতে শ্যাম সুন্দরের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায়।

৩১ অক্টোবর শুনানি শেষে হেমা শর্মাকে আজ (১৩ নভেম্বর) আদালতে হাজির করতে তার মা সাবিত্রী রায়, মামা গণেশ শর্মা ও নারায়ণ শর্মাকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। সে অনুযায়ী হেমা শর্মাকে নিয়ে আদালতে আসেন তার মা ও মামারা।

পুলিশি প্রহরায় হেমা শর্মাকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালত তার বক্তব্য শুনতে চান। তখন হেমা শর্মা আদালতকে জানান, তিনি প্রাপ্ত বয়স্ক একজন নারী। শ্যাম সুন্দর রায়কে তিনি ভালোবেসে বিয়ে করেছেন। তারা একসঙ্গে থাকতে চান।

এসময় হেমা শর্মা বেশ আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন। তিনি শ্যাম সুন্দরকে বিয়ে করার কারণে তার ওপর হওয়া নির্যাতনের বিবরণ দেন। তাকে দিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করানোর কথাও আদালতকে জানান।

আদালত এ সময় হেমার মা, মামা, শ্যাম সুন্দর ও তার বাবার বক্তব্যও শোনেন। পরে আদালত শ্যাম সুন্দর রায়ের হাতে তার স্ত্রী হেমা শর্মাকে তুলে দেওয়ার নির্দেশ দেন।

শ্যাম সুন্দরের পক্ষে শুনানি করা আইনজীবী তাজুল ইসলাম জানান, উচ্চ আদালতের আজকের আদেশের ফলে হেমার দীর্ঘ ১০ মাসের বন্দি জীবন ও নির্যাতনের সমাপ্তি হলো। দীর্ঘ দশ মাস পর এই দম্পতি মিলিত হওয়ার সুযোগ পেলেন। এই তরুণ দম্পতির ভালোবাসার গল্পের সফল সমাপ্তি হওয়ায় স্বস্তি ও তৃপ্তি অনুভব করছি।

এ বছরের ১৩ জানুয়ারি ধর্মীয় নিয়ম মেনে শ্যাম সুন্দর ও হেমা শর্মা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তার আগে গত বছরের ২১ নভেম্বর রংপুরে নোটারি পাবলিকে এফিডেভিট সম্পন্ন করেন তারা। বিয়ের বিষয়টি জানার পর হেমাকে পরদিন ভোরে জোর করে তুলে নিয়ে যায় তার পরিবার।এ বিষয়ে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে আবেদন করেন শ্যাম সুন্দর। কিন্তু কমিশন কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় হাইকোর্টে রিট করেন তিনি।

নিউজ ট্যাগ: হাইকোর্ট

আরও খবর



রোববার থেকে মিরপুরের ৩০ বাসে ই-টিকিট চালু

প্রকাশিত:শনিবার ১২ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর মিরপুরের ৩০টি কোম্পানির বাস আগামীকাল রোববার থেকে ই-টিকিটিংয়ের আওতায় আসছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ।

আজ শনিবার রাজধানীর ইস্কাটন এলাকায় ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি আয়োজিত রাজধানী ঢাকার গণপরিবহনে ই-টিকিটিং পদ্ধতি চালু বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

এনায়েত উল্যাহ বলেন, আগামীকাল রোববার থেকে মিরপুর অঞ্চলের ৩০টি কোম্পানি ই-টিকিটিংয়ের আওতায় আসবে এবং ৩১ জানুয়ারির মধ্যে ঢাকার সব গাড়িতে ই-টিকিটিং চালু করা হবে।

ঢাকার ও চট্টগ্রামের শহরতলীসহ মোট ৯৭টি কোম্পানির গাড়ি ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ই-টিকিটিংয়ের আওতায় আসবে বলেও জানান ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক।

ই-টিকিটিংয়ের আওতায় সবাইকেই আসতে হবে জানিয়ে এনায়েত উল্লাহ বলেন, চুক্তিভিত্তিক গাড়ি চলাচল বন্ধ হবে। যেখানে সেখানে গাড়ি থামানো এবং প্রতিযোগিতা বন্ধে সেন্ট্রাল মনিটরিং সেল গঠন করা হবে। পরিবহন শ্রমিকরা বেতন সিস্টেমের আওতায় চলে আসবেন।


আরও খবর



মায়ের হাত-পা বেঁধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাতের আধারে ঘরে ঢুকে গলায় চাকু ধরে মাকে জিম্মি করে হাত-পা বেঁধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলায়।

এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে গতকাল মঙ্গলবার রাতে প্রধান অভিযুক্ত ও তার সহযোগীকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলার পরে রাতেই প্রধান অভিযুক্ত মো. আলী হোসেন মোল্লাকে (২৭) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আলী হোসেন মোল্লা উপজেলার ছোট কৈবর্তখালী গ্রামের মৃত আনেচ মোল্লার ছেলে। তার সহযোগী আসামি মো. ফুহাত মীর (২২) পলাতক রয়েছে। ফুহাত উপজেলার বড় কৈবর্তখালী গ্রামের মো. শাহ আলম মীরার ছেলে।

জানা যায়, ওই ছাত্রী স্কুলে যাওয়া-আসার পথে একই এলাকার আলী হোসেন কুপ্রস্তাব দিতেন। তার সঙ্গে থাকতেন আলীর সহযোগী ফুহাত মীরা। ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের পরে কয়েকদিন ভুক্তভোগীর বাড়িসহ ওই এলাকা বিদ্যুৎহীন ছিল। গত ২৮ অক্টোবর দিবাগত রাত ২টার দিকে আলী হোসেন ও ফুহাত ভুক্তভোগী পরিবারের বসতবাড়ির জানালার কাঠের শিক ভেঙে ভিতরে ঢুকে ধারালো চাকুর ভয় দেখিয়ে ছাত্রীর মায়ের হাত-পা বেঁধে ফেলে। পরে আলী হোসেন ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। তখন ফুহাত পাহারায় ছিলেন। ধর্ষণ শেষে টর্চ লাইটের আলোতে অভিযুক্তরা তাদের চেহারা দেখিয়ে ঘটনা প্রকাশ না করতে ভুক্তভোগী পরিবারকে হুমকি দিয়ে চলে যান। সকালে ভুক্তভোগী পরিবারটি কাউকে কিছু না বলে আলী হোসেন ও ফুহাতের ভয়ে এলাকা থেকে পালিয়ে যান। পরে পুলিশের সহায়তায় ভুক্তভোগী পরিবার এলাকায় এসে মঙ্গলবার রাতে আলী হোসেন ও তার সহযোগী ফুহাতকে আসামি করে মামলা করেন। ওই মামলার প্রধান আসামি আলী হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রাজাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলক চন্দ্র রায় বলেন, মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করে আজ বুধবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ভুক্তভোগী ছাত্রীর জবানবন্দি রেকর্ড করতে আদালতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর