Logo
শিরোনাম

ডেঙ্গুতে আরও ৯১ জন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীসহ সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন করে আরও ৯১ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার হাসপাতালে ৭৫ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে ১৬ জন রোগী চিকিৎসাধীন।

বর্তমানে সারাদেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪৯৩ জন। তাদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ৩৭৫ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে ১১৮ জন চিকিৎসাধীন। এছাড়া চলতি বছর ডেঙ্গুতে ৯৮ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ এবং ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার (বিপিএম) ডা. মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ৯১ জন রোগীর মধ্যে ঢাকার সরকারি হাসপাতালে ২৬ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে ৪৯ জন রোগী ভর্তি হন এবং বাকি ১৬ জন ঢাকার বাইরের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ (২৩ নভেম্বর) পর্যন্ত রাজধানীসহ সারাদেশে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ২৬ হাজার ৬৩৩ জন রোগী ভর্তি হন। তাদের মধ্যে ২৬ হাজার ৪২ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

আক্রান্তদের মাসওয়ারি হিসাবে জানুয়ারিতে ৩২ জন, ফেব্রুয়ারিতে নয়জন, মার্চে ১৩ জন, এপ্রিলে তিনজন, মে মাসে ৪৩ জন, জুনে ২৭২ জন, জুলাইয়ে ২ হাজার ২৮৬ জন, আগস্টে ৭ হাজার ৬৯৮ জন, সেপ্টেম্বরে ৭ হাজার ৮৪১ জন, অক্টোবরে ৫ হাজার ৪৫৮ জন ও নভেম্বরে আজ পর্যন্ত ২ হাজার ৯৭৮ জন রোগী ভর্তি হন।

এছাড়া চলতি বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ৯৮ জনের মৃত্যু হয়। তার মধ্যে জুলাইয়ে ১২ জন, আগস্টে ৩৪ জন, সেপ্টেম্বরে ২৩ জন, অক্টোবরে ২২ জন ও নভেম্বরে এখন পর্যন্ত সাতজন মারা গেছেন।



আরও খবর



বাতিল হতে পারে পাঁচ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা

প্রকাশিত:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সমন্বিত পাঁচ ব্যাংকের অফিসার (ক্যাশ) নিয়োগের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের বিষয়ে তদন্ত করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। প্রশ্নফাঁসের বিষয়টি প্রমাণিত হলে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা বাতিলের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক নির্বাহী পরিচালক।

বুধবার (১০ নভেম্বর) ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটির সদস্য ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানান, প্রশ্নফাঁসের বিষটি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এটি প্রমাণিত হলে বাতিলের সম্ভাবনা রয়েছে অনুষ্ঠিত ওই পাঁচ ব্যাংকের অফিসার (ক্যাশ) নিয়োগের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা।

গত শনিবার (৬ নভেম্বর) বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত পাঁচ ব্যাংকের অফিসার (ক্যাশ) নিয়োগের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। মোট ১ হাজার ৫১১টি পদের বিপরীতে পরীক্ষায় অংশ নেন ১ লাখ ১৬ হাজার ৪২৭ জন।

পরীক্ষা ৪টার সময় শেষ হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই ১০০টি প্রশ্নের (বাংলা-ইংরেজি-সাধাণজ্ঞান) প্রিন্ট করা সঠিক উত্তর সামাজিক মাধ্যমে পাওয়া গেছে। প্রশ্ন যদি আগেই ফাঁস না হতো তাহলে এত অল্প সময়ের মধ্যে তা সম্ভব হতো না।


আরও খবর

বিশ্ববাজারে কমেছে স্বর্ণের দাম

শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১




সুযোগ দিলে আমরাও টিকা তৈরি করতে পারবো

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন ‘করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আমাদের যে সাফল্য আমরা তার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেয়েছি। জলবায়ু সম্মেলনে গিয়ে আমি এটাও বলে এসেছি, আমরা নিজেরা ভ্যাকসিন তৈরি করতে চাই। ভ্যাকসিন তৈরিতে যে বাধা আছে, সেগুলো আপনাদের সরিয়ে দিতে হবে। এটা উন্মুক্ত করতে হবে। এটা জনগণের প্রাপ্য। এটা জনগণের সম্পদ হিসেবে দিতে হবে। যেন সারাবিশ্বের কোনো মানুষ এই ভ্যাকসিন থেকে দূরে না থাকতে পারে। আমাদের সুযোগ দিলে আমরাও ভ্যাকসিন উৎপাদন করবো। আমাদের সেই সক্ষমতা আছে। সেজন্য আমি জমিও কিনে রেখেছি। আমরা কিন্তু উদ্যোগ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।’

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ইন দ্য ফিল্ড অব ক্রিয়েটিভ ইকোনমি’ প্রবর্তন করায় এর ওপর আনীত প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে সোমবার (১৫ নভেম্বর) তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে কার্যপ্রণালি বিধির ১৪৭ ধারা অনুযায়ী উপাধ্যক্ষ আবদুস শহীদ এ প্রস্তাব আনেন। প্রস্তাবে তিনি উল্লেখ করেন, সংসদের অভিমত এই যে, জাতিসংঘের শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বিজ্ঞানবিষয়ক সংস্থা ইউনেস্কো, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ইন দ্য ফিল্ড অব ক্রিয়েটিভ ইকোনমি’ প্রবর্তন করায় জাতীয় সংসদে বিশেষ আলোচনার মাধ্যমে ইউনেস্কোকে বাংলাদেশের জনগণের পক্ষ হতে আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানানো হোক।’

এর আগে সংসদে এর ওপর অনেক এমপি-মন্ত্রী আলোচনা করেন। বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদেরও বক্তব্য দেন। বিএনপির সংসদ সদস্য (এমপি) হারুনুর রশীদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর অবদান অল্প সময়ে বলে শেষ করা যাবে না। আলোচনা শেষে প্রস্তাবটি ভোটে দিলে সর্বসম্মতিক্রমে তা গৃহীত হয়।

বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের নিহতদের স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাত্র সাড়ে তিন বছরে তিনি একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ গড়ে তুলছিলেন। আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যপদ লাভ করে বাংলাদেশ। পৃথিবীর কোনো দেশ স্বাধীনতার পর এত অল্প সময়ে এত স্বীকৃতি আদায় করতে পারেনি, যেটা বাংলাদেশ পেরেছিল। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতো বলিষ্ঠ নেতৃত্ব আমাদের ছিল বলেই সেটা সম্ভব হয়েছিল। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য, এ দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক মুক্তির জন্য, স্বাধীনতা অর্থবহ করার জন্য, স্বাধীনতার সুফল বাংলাদেশের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার জন্য তিনি যখন অর্থনৈতিক কর্মসূচি ঘোষণা দিলেন, দ্বিতীয় বিপ্লবের কর্মসূচির ঘোষণা দিলেন, ঠিক সেই মুহূর্তে তাকে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা করা হলো। এ হত্যাকাণ্ড শুধু রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু বা শেখ মুজিবকে না বরং আমাদের পরিবার ও অন্যান্য আত্মীয়স্বজনকেও হত্যা করা হলো।’

তিনি বলেন, ওদের মনে হয় একটাই চিন্তা ছিল। জাতির পিতাকে পরিবারসহ হত্যা করলে বাংলাদেশ যে মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয় অর্জন করেছিল, বিজয়ী জাতি হিসেবে যেভাবে মাথা তুলে বিশ্ব দরবারে চলছিল, সেই জায়গাটা নষ্ট করা। স্বাধীনতার সুফল যেন বাংলাদেশের ঘরে না পৌঁছায়, স্বাধীনতা যেন ব্যর্থ হয়, ওই বিজয় যেন ব্যর্থ হয়, এটাই বোধহয় প্রচেষ্টা ছিল। যেটা আমরা দেখেছি ২১ বছর। সেভাবেই দেশ পরিচালনা করা হয়েছে। অন্যথায় বাংলাদেশের মানুষের যে উন্নয়ন করা যায় সেটা আজ আমরা প্রমাণ করেছি, প্রমাণ করতে পেরেছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সব সময় উদ্যোগ রয়েছে। যেটা জাতির পিতা আমাদের সংবিধান দিয়েছেন। আমাদের চার মৌলিক নীতি দিয়েছেন। পাশাপাশি মানুষের মৌলিক অধিকারের কথাগুলো বলেছেন। বাংলার ভূমিহীন মানুষদের ঘরবাড়ি তৈরি করে দেওয়া, চিকিৎসাসেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া, শিক্ষার ব্যবস্থা করা, শিক্ষাকে অবৈতনিক করা।’

তিনি বলেন, একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ। কোনো কারেন্সি নোট নেই। এ অবস্থায় প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারীকরণ করে দেড় লক্ষাধিক সরকারি চাকরি দেওয়া, এমনকি যেসব পত্রপত্রিকায় আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল, যেগুলো তারা চালাতে পারছিল না। সেই সাংবাদিকদের পর্যন্ত সরকারি চাকরির মর্যাদা দিয়েছেন তিনি। প্রত্যেকটি শিল্প-কারখানা—মা যেমন সন্তানকে সেবা-শুশ্রূষা করে সুস্থ করে ঠিক সেভাবে প্রতিটি পাকিস্তানির পরিত্যক্ত কারখানা বা ফেলে দেওয়া বা বন্ধ করে দেওয়া কলকারখানাগুলো তিনি জাতীয়করণ করে চালু করেন।’

তিনি বলেন, বেসরকারি খাত ধীরে ধীরে উন্মুক্ত করে দিয়েছিলেন এবং আমাদের সংবিধানে অর্থনৈতিক নীতিমালায় সেটা বলা আছে। সেই সঙ্গে তিনি সেই যুগেই আমাদের কৃষি যান্ত্রিকীকরণের চিন্তা করেছিলেন। আমাদের ফসল দ্বিগুণ-তিনগুণ বাড়াতে হবে। দেশের মানুষের খাদ্যনিরাপত্তা দিতে হবে। তিনি সবসময় বলতেন, ভিক্ষুক জাতির কোনো ইজ্জত থাকে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি চেয়েছিলেন- বাংলাদেশ যেনো আত্মমর্যাদার সঙ্গে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে চলতে পারে। পঁচাত্তরের পরে আমরা দেখেছি, হাজার হাজার সামরিক বাহিনীর অফিসার, বিমানবাহিনীর অফিসার, সৈনিক, সাধারণ মানুষকে নির্বিচারে হত্যা করা হয়েছে। কারাগারে ফেলে রাখা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু হত্যার পর দেশের প্রেক্ষাপটের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশে এসে দেখেছি বিজ্ঞান কেউ পড়ে না। বিজ্ঞানের ক্লাস হয় না। বিজ্ঞানের প্রতি কোনো আগ্রহ নেই। গবেষণা তো ছিলই না। এজন্য বিশেষ বরাদ্দ ছিল না।’

’৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বিভিন্ন পদক্ষেপের বর্ণনা দিয়ে তিনি বলেন, আমরা পিছিয়ে গিয়েছিলাম কিন্তু এখন আর পিছিয়ে নেই। আমি ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশের জনগণকে। আমাদের তারা বারবার ভোট দিয়েছেন। সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন। আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করছি। এই এক দশকের মধ্যে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে মর্যাদা পেয়েছে এখন আর বাংলাদেশের কাউকে বাইরে গিয়ে কথা শুনতে হয় না। ভালো কাজটা কেউ চোখে না দেখলে আমাদের কিছু বলার নেই।’

তিনি বলেন, আমরা ইয়াং বাংলা স্টার্টআপ শুরু করেছি এবং এজন্য কিছু বরাদ্দ দিয়েছে। আমার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়, রেহানার ছেলে রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিকসহ আমাদের কিছু ইয়াং সংসদ সদস্য সবাই কিন্তু এই প্রোগ্রাম নিয়েছে।’ অনলাইনের অভূতপূর্ব পদক্ষেপের কথা বর্ণনা করে তিনি বলেন, একটা জিনিস একদিনে তো হয় না, ধাপে ধাপে করতে হয়।’


আরও খবর



সুদানে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে গুলিতে নিহত ১০

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুদানে অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে গুলি চালিয়েছে নিরাপত্তা বাহিনী। এতে ১০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আহত অর্ধশত। সামরিক অভ্যুত্থানের পর সেনাশাসনের বিরোধিতায় দেশটির রাজপথে বিক্ষোভে নামে হাজার হাজার মানুষ। এর ধারাবাহিকতায় বুধবার বিক্ষোভকারীরা রাজধানীর খার্তুম এবং বাহরি এবং ওমদুরমান শহরে মিছিল করে।

এসময় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা গুলি এবং টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। এর আগে শহরগুলোতে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয় মোবাইল সংযোগ। আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, নিহতদের মধ্যে দুজন রয়েছেন খার্তুমে, সাতজন বাহরিতে এবং একজন ওমদুরমানে। এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে সুদানের নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

তবে বেসামরিক-মিত্র সুদানিজ সেন্ট্রাল ডক্টরস কমিটি ফেসবুকে জানিয়েছে, খার্তুমে আজকের অভ্যুত্থান বিরোধী মিছিল চলাকালীন নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে তিনজন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।


আরও খবর



প্রধানমন্ত্রী ১৫ দিনের বিদেশ সফরে যাচ্ছেন কাল

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্কটল্যান্ড, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স এ তিন দেশে টানা ১৫ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আগামীকাল রোববার (৩১ অক্টোবর) এ সফর শুরু হচ্ছে বলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে।

সফরকালে আগামী ১ থেকে ৩ নভেম্বর পর্যন্ত স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে অনুষ্ঠেয় জলবায়ু পরিবর্তন শীর্ষ সম্মেলন কপ-২৬ এ অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

জলবায়ু সম্মেলন শেষে লন্ডনে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর দ্বিপাক্ষিক বৈঠক হবার কথা রয়েছে।

পরে ১১ নভেম্বর ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে ইউনিসেফ বঙ্গবন্ধুর নামে অ্যাওয়ার্ড বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ক্রিয়েটিভ অ্যাওয়ার্ড ইন ইকোনমিক্স প্রদান অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সফর শেষে আগামী ১৪ নভেম্বর দেশে ফেরার কথা রয়েছে সরকারপ্রধানের।

জাতিসংঘের ৭৬তম অধিবেশনে যোগদান উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় দুই সপ্তাহের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে গত ১ অক্টোবর রাত ১১টা ১৩ মিনিটে দেশে ফিরেন প্রধানমন্ত্রী। এক মাসের ব্যবধানে এবার ইউরোপ সফরে যাচ্ছেন তিনি।


আরও খবর



জন্মদিনে চাঁদের জমি পেলেন বিদ্যা সিনহা মিম

প্রকাশিত:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জীবনের আরও একটি বসন্তে পা দিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা। বরাবরের মতোই এ বছরও জন্মদিনে প্রিয় মানুষদের শুভেচ্ছা আর ভালোবাসা সিক্ত হচ্ছেন অভিনেত্রী, তবে এবারের জন্মদিনে ব্যতিক্রম একটি ঘটনা ঘটেছে। বিশেষ দিনটিতে চাঁদে জমি উপহার পেয়েছেন নায়িকা।

জন্মদিন কেমন কাটছে?

ভালো যাচ্ছে, সবাই উইশ করছে, ভালো লাগছে।

ছোটবেলা থেকে এ পর্যন্ত জন্মদিনে পাওয়া একটা উপহারের কথা বলেন, যেটা আজও আপনার কাছে স্মরণীয়? তিন-চার বছর আগে জন্মদিনে বাবা আমাকে একটি গাড়ি দিয়েছিল। ওটা আমার কাছে অন্যরকম প্রিয় ছিল।

আর এবার জন্মদিনে যদি বলি, আমার ছোট বোন আমাকে যে গিফট করবে সেই চিন্তাই করিনি। ওর গিফটটা খুবই সুইটেড। সে আমার জন্য চাঁদে জমি কিনে আমাকে গিফট করেছে। আমার নামেই কিনেছে। রাত ১২টার সময় সেই কাগজ আমাকে দিয়েছে।

ও ছোট মানুষ। ও যে এইটা করেছে, ওর মাথায় আসছে, কোথায় থেকে যে ওর মাথায় এই জিনিসটা আসল! এইটা আমার কাছে খুবই স্পেশাল।


আরও খবর