Logo
শিরোনাম

ঈদের নামাজ আদায় করার নিয়ম

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের শান্তির বার্তা নিয়ে সকল মুসলিম জাতির নিকট উপস্থিত হয়েছিল পবিত্র মাহে রমজান। আজ শেষ রমজান। দীর্ঘ এক মাস সিয়াম সাধনার পর বিদায় নিতে যাচ্ছে পবিত্র মাহে রমজান। আগামীকাল মঙ্গলবার (৩ মে) উদযাপিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর। ঈদ মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। মুসলিম উম্মাহ প্রতি বছর দু’টি ঈদ উদযাপন করে। ঈদের নামাজ আদায় করা ওয়াজিব। বছরে দুই বার ঈদের নামাজ পড়ার কারণে অনেকেই নামাজ পড়ার নিয়ম ভুলে যান। তাই ঈদের নামাজের নিয়ম তুলে ধরা হলো-

ঈদের নামাজের পদ্ধতি স্বাভাবিক নামাজের মতো নয়। যেমন—ঈদের দুই রাকাত নামাজের কোনো আজান, ইকামত নেই। এতে অতিরিক্ত ছয়টি তাকবির রয়েছে। সেগুলো আদায়ের নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে। নিম্নে সেই নিয়মগুলো তুলে ধরা হলো :

ঈদের নামাজ আদায় পদ্ধতি:

১।  প্রথমত, স্বাভাবিক নামাজের মতোই তাকবিরে তাহরিমা বলে হাত বাঁধবেন। তারপর ছানা পাঠ করবেন।

২। তারপর অতিরিক্ত তিনটি তাকবির বলবেন। প্রথম দুই তাকবিরে হাত তুলে ছেড়ে দেবেন এবং তৃতীয় তাকবিরে হাত বেঁধে ফেলবেন।

৩। তারপর আউজুবিল্লাহ ও বিসমিল্লাহ পড়ার পর ইমাম সুরা ফাতিহা পড়ে এর সঙ্গে অন্য একটি সুরা মেলাবেন।

৪। তারপর স্বাভাবিক নামাজের মতোই রুকু-সিজদা করে প্রথম রাকাত শেষ করবেন।

৫। দ্বিতীয় রাকাতে ইমাম কিরাত পড়া শেষে রুকুতে যাওয়ার আগে অতিরিক্ত তিন তাকবির দেবেন। প্রতি তাকবিরের সঙ্গে হাত উঠাবেন এবং ছেড়ে দেবেন। তারপর চতুর্থ তাকবির বলে রুকুতে চলে যাবেন।

৬।  তারপর স্বাভাবিক নামাজের মতোই নামাজ শেষ করবেন।

৭। নামাজ শেষে ইমাম মিম্বারে উঠবেন। দুটি খুতবা দেবেন। এ সময় ইমামের খুতবা মনোযোগসহকারে শুনতে হবে। কোনো ধরনের কথা বলা বা অন্য কাজে ব্যস্ত হওয়া যাবে না।

৮। খুতবা শেষে সবাই ঈদগাহ ত্যাগ করবেন।

 


আরও খবর



তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের ঝুঁকি: রাশিয়ার সতর্কতা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রকৃতি’ বিপদ সম্পর্কে সবাইকে সতর্ক করেছেন। তবে এর মধ্যেও ইউক্রেনের সাথে শান্তি আলোচনা অভ্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি ।

ল্যাভরভ সোমবার বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্স-এর কাছে এই তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, বিপদটি গুরুতর, এটি বাস্তব, আপনি এটিকে অবমূল্যায়ন করতে পারবেন না।’

শান্তি আলোচনার ব্যাপারে কিয়েভের দৃষ্টিভঙ্গির সমালোচনা করে তিনি বলেছেন, শুভেচ্ছার সীমা আছে। কিন্তু এটি যদি পারস্পরিক আন্তরিকতাপূর্ণ না হয় তবে তা আলোচনা প্রক্রিয়াকে সাহায্য করতে পারবে না।’

ল্যাভরভ ইউক্রেন ইস্যুতে ন্যাটোর সমালোচনা করে বলেছেন,ইউক্রেনে পশ্চিমা অস্ত্র সরবরাহের অর্থ হল, ন্যাটো জোট এক অর্থে রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়েছে। পশ্চিমা দেশগুলোর পাঠানো এসব অস্ত্র বিশেষ অভিযানের প্রেক্ষাপটে রুশ সামরিক বাহিনীর বৈধ লক্ষ্য হবে।

তিনি বলেন, পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো রাশিয়ার সঙ্গে এক অর্থে যুদ্ধে লিপ্ত। তারা ছায়াযুদ্ধ করে যাচ্ছে এবং অস্ত্র জুগিয়ে যাচ্ছে। যুদ্ধ অর্থ যুদ্ধই।’

রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ল্যাভরভ পারমাণবিক সংঘাত বৃদ্ধির আশঙ্কার কথা স্বীকার করেছেন। অবশ্য তিনি শান্তি চুক্তির সম্ভাবনা সম্পর্কে একটি আশার কথা শুনিয়েছেন।

ল্যাভরভ বলেন, পারমাণবিক সংঘাতের ঝুঁকি যথেষ্ট। তবে মস্কো এ ধরনের সংঘাতের কৃত্রিমভাবে সৃষ্ট ঝুঁকি এড়াতে চায়। এ অবস্থানের ওপরে ভিত্তি করে আমরা সবকিছু করছি। আমি কৃত্রিমভাবে সে ঝুঁকি বাড়াতে চাই না। তবে অনেকে তা চাইবেন।’

ল্যাভরভ ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির বিরুদ্ধে আলোচনার ভান করার অভিযোগ তুলে তাঁকে একজন ভালো অভিনেতা বলে মন্তব্য করেন। রাশিয়ার শীর্ষ কূটনীতিক বলেন, যদি আপনি মনোযোগ সহকারে দেখেন এবং জেলেনস্কি যা বলেছেন তা মনোযোগ সহকারে পড়েন, আপনি হাজার স্ববিরোধিতা খুঁজে পাবেন।’

এদিকে ল্যাভরভের বক্তব্যের পর ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রি কুবেলা টুইট করে বলেন, ইউক্রেনকে সমর্থন করা থেকে বিশ্বকে ভয় দেখানোর আশা শেষ হয়ে গেছে রাশিয়ার। লাভরভের সাম্প্রতিক মন্তব্যগুলোতে সে ইঙ্গিত ছিল। এ কারণের তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রকৃত বিপদের কথার অবতারণা করা হয়েছে। এর একমাত্র অর্থ, ইউক্রেনে নিজেদের পরাজয়ের আঁচ পেতে শুরু করেছে মস্কো।’

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা শুরুর কয়েক দিন পর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তাঁর পারমাণবিক বাহিনীকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন। যুক্তরাষ্ট্র এবং তার ন্যাটো মিত্ররা বলেছে, তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের ঝুঁকি এড়াতে ইউক্রেনে সরাসরি সামরিক হস্তক্ষেপ চায় না তারা।


আরও খবর



‘বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর বন্ধ’

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের ওপর চাপ কমাতে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর বন্ধ ও কম গুরুত্বপূর্ণ আমদানিনির্ভর প্রকল্পের বাস্তবায়ন পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

আজ বুধবার সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত সভার পর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সরকারের এই সিদ্ধান্তের কথা জানান অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, 'সময়ে সময়ে পরিবর্তিত পরিস্হিতিতে কঠিন সিদ্ধান্তে নিতে হয়। আমরা এত দিন যেভাবে চলছিলাম, সারা বিশ্বের যে অবস্থা তাতে লাগাম টেনে ধরতে হচ্ছে। বিশ্বের সঙ্গে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে। বিশ্বের যে সামগ্রিক অবস্থা, তা বিবেচনায় নিয়ে এসব সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে।'


আরও খবর



গ্রিন রোডে ৭ তলা থেকে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর গ্রিন রোড এলাকার একটি বাসার সাত তলা থেকে পড়ে এম ডি ইমাম হোসেন নামের এক বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ৯টার দিকে ইমামকে মৃত বলে জানান ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের চিকিৎসক। বেসরকারি এশিয়া-প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটির ছাত্র ইমাম থাকতেন ৭৪/এ গ্রিন রোড এলাকায়। তার গ্রামের বাড়ি ভোলার লালমোহন থানার নবগ্রাম পাটোয়ারী বাড়িতে।

ইমামকে ঢামেকে নিয়ে যাওয়া নাদিম আহমেদ জানান, গ্রিন রোডের ওই বাসার সাত তলার রেলিংয়ের ফাঁকা জায়গা দিয়ে অসাবধানতাবশত নিচে পড়ে যান ইমাম। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।

ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে।


আরও খবর



পাকিস্তানি রুপির চেয়ে দ্বিগুণ ছাড়িয়েছে টাকার মান

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারীর ক্ষমতায়ন, বেকারত্ব দূর, অর্থনৈতিক উন্নয়নসহ নানা ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার অনেক দেশ থেকেই এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। ৯ মাস রক্তক্ষয়ী মহান মুক্তিযুদ্ধের বিনিময়ে যে পাকিস্তান থেকে স্বাধীনতা লাভ করেছে বাংলাদেশ, সেই পাকিস্তান থেকেও অনেক ক্ষেত্রে এগিয়ে বাংলাদেশ। এবার মুদ্রার মানেও পাকিস্তানকে অনেক পেছনে ফেললো বাংলাদেশ। টাকার মান দ্বিগুণ ছাড়িয়েছে পাকিস্তানি রুপির চেয়ে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ এখন বাংলাদেশকে আইডল মনে করে। খোদ পাকিস্তানের সরকারপ্রধানরাও বিভিন্ন সময় বাংলাদেশকে আইডল হিসেবে মূল্যায়ন করেছেন। যে দেশটির অধীন থেকে স্বাধীন হয়েছে বাংলাদেশ, এখন সেই দেশটির কাছ থেকে প্রায়ই বিভিন্ন অগ্রগতির প্রশংসা অর্জন করছে বাংলাদেশ।

স্বাধীনতার পরপরই বাংলাদেশের ১৬৫ টাকা সমান ছিল পাকিস্তানের ১০০ রুপি। স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে এখন ঠিক তার উল্টো চিত্র। দেশটির চেয়ে বাংলাদেশি মুদ্রার মান বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে।

গত বছরের ২২ সেপ্টেম্বর পাকিস্তানি রুপির চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ হয় টাকার মান। অর্থাৎ এক টাকা সমান পাকিস্তানের দুই রুপি (১.৯৮ পয়সা)। কারেন্সি এক্সচেঞ্জ (এক্সই) এর তথ্যমতে, বাংলাদেশের এক টাকা সমান পাকিস্তানের ২.২০ রুপি (২.১৯৭৭)।

মূলত ২০০৮ সালকে ধরা হয় পাকিস্তানের রুপির বিনিময় হারের পতনের বছর। ওই বছর মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাওয়ায় ডলারের বিপরীতে রুপির দর ৬১ থেকে এক ধাক্কায় ৭৯ রুপিতে পৌঁছায়। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে এক ডলারের বিপরীতে পাকিস্তানকে ব্যয় করতে হয়েছে ১০৪ থেকে ১০৫ রুপি, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে এক ডলার সমান ১০৯ রুপি ছিল। আর বৃহস্পতিবার (১১ মে) কারেন্সি এক্সচেঞ্জ (এক্সই) এর তথ্যমতে, এক ডলার সমান পাকিস্তানের ১৯০.৭৯ রুপি।

নিউজ ট্যাগ: পাকিস্তান

আরও খবর



শ্রীলঙ্কাকে জরুরি প্রয়োজনে সহায়তা দিতে প্রস্তুত চীন

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কার অর্থনীতি কার্যত অচল হয়ে পড়েছে। কয়েক সপ্তাহ ধরে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক গোলযোগের মধ্যে পড়ে অতি কষ্টে দিন পার করছেন দেশটির সব শ্রেণি-পেশার মানুষ। দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগের দাবিতেও চলছে আন্দোলন। এর মধ্যে চীনের পক্ষ থেকে এলো অর্থ সহায়তার বার্তা। জরুরি প্রয়োজনে শ্রীলঙ্কাকে সহায়তা দিতে প্রস্তুত রয়েছে চীন।

দেশের পরিস্থিতি সম্পর্কে নতুন মন্ত্রিসভা নিয়ে ক্ষমতায় বসা দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে শুক্রবার কথা বলেছেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সঙ্গে। বেইজিংয়ের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, এ সময় চীনের প্রধানমন্ত্রী বলেন, যে কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ না করার নীতির অধীনে শ্রীলঙ্কাকে স্থিতিশীল অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন অর্জনে সহায়তা করতে গঠনমূলক ভূমিকা পালন করতে ইচ্ছুক চীন। কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলা করছে মাহিন্দা রাজাপক্ষে সরকার। সেকারণে রাজাপক্ষে চীনের এই জোরালো সমর্থনের প্রশংসা করেছেন। অর্থ, বাণিজ্য ও পর্যটনের উন্নয়নে মুক্ত-বাণিজ্য চুক্তি নিয়েও কথা হয়েছে দুই দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের মধ্যে। খাদ্যপণ্য ও জ্বালানির তীব্র সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে মঙ্গলবার মধ্য শ্রীলঙ্কার রামবুক্কানায় একটি মহাসড়ক অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা। টায়ার জ্বালিয়ে রাজধানী কলম্বোয় যাওয়ার প্রধান সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন হাজার হাজার মানুষ। এক পর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন এক জন। আন্দোলকারীরা রাজাপক্ষের পরিবারের শাসনের অবসান চাইছেন। সংঘর্ষের আগে দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিন দিনের জন্য সেনাবাহিনী মোতায়েন করেন।

শ্রীলঙ্কার এই কঠিন পরিস্থিতিতে ৪ কোটি অর্থ সহায়তা প্রয়োজন বলে জানা গেছে। এর আগে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) দেশটির পাশে দাঁড়ানোর চিন্তাভাবনা করছে বলে আভাস পাওয়া যায়। বেইজিংয়ে চীনা কূটনীতিক পালিথা কোহোনা শুক্রবার উইচ্যাটের মাধ্যমে বলেন, আইএমএফের আগ্রহ থাকলেও চীনা সহায়তার প্রতিশ্রুতি শ্রীলঙ্কার চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দৃঢ়ভাবে কাজ করবে। চীন আড়াই বিলিয়ন ডলার সহায়তা দেবে বলেও আশাবাদী তিনি। চীনের কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তিনি এমন বার্তাও দেন যে ঋণ ও ক্রেডিট লাইনের মাধ্যমে সহায়তা দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। তবে ফান্ডিংয়ের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে পারেননি তিনি এবং কবে সেটি দেওয়া হবে তাও স্পষ্ট করেননি এই চীনা কূটনীতিক।


আরও খবর