Logo
শিরোনাম

মেয়েটাকে ভুত'ই মেরেছে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৩৮৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
পরিবারের সবাই জানত ওই ছেলের সাথে এই মেয়ের সম্পর্ক আছে। এবং হয়ত এই সম্পর্কটা পরিবারের সবাই মেনে নিয়েছে। অন্য ব্যাখ্যা হতে পারে- কেউ কিছু জানত'ই না।

আমিনুল ইসলাম

মেয়েটিকে নিয়ে আমি কিছু লিখবো না। মেয়েটির বয়েস কম ছিল। কলেজে পড়ছিল। কতো হবে বয়েস?  ১৫-১৬? কিংবা সর্বোচ্চ ১৭? এর বেশি তো কোন ভাবেই নয়। এতটুকু মেয়ে ভুল করছিল না সঠিক কাজ করছিল; এই নিয়ে যারা লিখছেন; তাদের চিন্তার দৈন্যতা নিয়ে বরং আলোচনা হতে পারে।

দেশের নামকরা পত্রিকা গুলো পড়ে যা জানলাম, তাতে অবশ্য মনে হচ্ছে মেয়েটি মারা গিয়েছে কোন এক ভুতের সাথে সম্পর্ক থাকার কারণে! কেউ তাদের নাম বলছে না। পরিচয় প্রকাশ করছে না। এই হচ্ছে আমাদের নামকরা সংবাদ মাধ্যম গুলো দৌড়!

অবশ্য ভুতের বাবার যদি নিজের'ই দুই-চারটা পত্রিকার মালিকানা থাকে। দুই-চারটা টেলিভিশন চ্যানেল থাকে। বিরাট শপিং মল আর একটা আস্ত শহরের বিশাল অংশের জমির মালিকানা থাকে; তাহলে এমন দুই চারটা "মানুষ" মেরে ফেলা যায়। এতে কোন সমস্যা নেই।

তাছাড়া শুনেছি ভুত সমাজের নাকি মানুষ খেতে ভালো লাগে। মানুষের মাংসের স্বাদ নাকি একটু বেশি'ই!

তো, দেশের নামকরা পত্রিকা গুলো পড়ে প্রায় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছি- মেয়েটাকে ভুত'ই মেরেছে! তাই ভুতের হদিস পাওয়া যাচ্ছে না। যদিও তারা মেয়ের পরিবারের কে কোথায় থাকে। কে, কি করে এইসব হদিস'ই পেয়ে গিয়েছে। অবশ্য মেয়েটি তো মানুষ! কেবল ভুতের পরিচয় পাওয়া যায়নি! অবশ্য মানুষ হয়ে ভুতের পরিচয় পাওয়া কি আর এতো সহজ নাকি!

শেষমেশ নাম না জানা সাধারণ অন-লাইন পত্রিকা গুলো পড়ে জানতে পারলাম- ভুত না; বসুন্ধরা গ্রুপের মালিকের ছেলের (সায়েম বোধকরি নাম) সাথে ওই মেয়ের সম্পর্ক ছিল।

মেয়েটার বাড়ি কুমিল্লায়। সে কলেজে পড়তে ঢাকা এসছিল। মাস তিনেক হয় গুলশানের ওই ফ্ল্যাটে থাকতো। সেই ফ্ল্যাটের ভাড়া মাসে লাখ টাকারও বেশি। ওই ফ্ল্যাটে মেয়েটা একা'ই থাকতো। আর ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়েছিল ওই মালিকের ছেলে। যে নিজেও বসুন্ধরা গ্রুপের একজন এমডি।  সে-ই ওই ফ্ল্যাটের ভাড়া দিত।

মৃত্যুর আগের দিন ওই মেয়ে তার বোনকে বলেছিল- সে বিপদে পরেছে। এরপর তার বোন কুমিল্লা থেকে ঢাকায় এসে দেখে তার বোনের মৃত দেহ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে।

এখন নামকরা পত্রিকা গুলো লিখছে- এই মেয়ে আত্মহত্যা করেছে। এই মেয়ে যে আত্মহত্যা করেছে; আপনারা কি করে নিশ্চিত হলেন? অবশ্য ভুতের সাথে সম্পর্ক ছিল বলে কথা। ভুত সমাজ তো আবার চাইলে যে কাউকে উধাও করে দিতে পারে। ভুত ভলে কথা। একটা ফুঁ দিলেই উধাও!

এই পর্যন্ত লিখেই ভেবেছিলাম লেখাটা শেষ করবো।

আগেই বলেছি মেয়েটাকে নিয়ে আমি কিছু লিখবো না। অতটুকু মেয়ে ভুল করছিল নাকি ভালো করছিল; সেটা বুঝার হয়ত বয়েস'ই তার হয়নি। এই বয়েসে সবার কাছেই সব কিছু রঙিন মনে হয়। অতি সাধারণ জিনিসকেও মনে হয় বিশাল কিছু। আমরা সবাই এই বয়েস পার করে এসছি। সুতরাং এই বিষয় গুলো আমাদের জানা।

তাহলে আমরা কেন ভুল পথে যাইনি?

কারণ আমাদের পরিবারের সদস্যরা সব সময় আমাদের সঠিক পথ'টা দেখিয়ে দিতেন। বাবা-মা; বড় ভাই-বোনদের দায়িত্ব হচ্ছে- ছোটরা যদি কোন ভুল করে থাকে; কিংবা ভুল পথে যায়; তাহলে তাদেরকে সঠিক পথটা দেখিয়ে দেয়া।  এই মেয়েটা ঢাকা শহরে গুলশানের মতো একটা জায়গায় এতো বিশাল ফ্ল্যাটে থাকতো। যার ভাড়া'ই হচ্ছে এক লাখ টাকার উপর। আমি মোটামুটি নিশ্চিত- এক জীবনে আমার নিজের অন্তত এই সামর্থ্য হবে না।

তো, এই মেয়েটা এমন একটা অভিজাত এলাকায় এতো দামী একটা ফ্ল্যাটে থাকছিল; তার বড় বোন এবং পরিবারের অন্য সবাই সেটা জানত। এর দুটো ব্যাখ্যা হতে পারে। প্রথম ব্যাখ্যা হচ্ছে- পরিবারের সবাই জানত ওই ছেলের সাথে এই মেয়ের সম্পর্ক আছে। এবং হয়ত এই সম্পর্কটা পরিবারের সবাই মেনে নিয়েছে। অন্য ব্যাখ্যা হতে পারে- কেউ কিছু জানত'ই না।

দ্বিতীয় ব্যাখ্যাটা গ্রহণযোগ্য হবার কথা নয়। কারণ মেয়েটা ওই ফ্ল্যাটে তিন মাসের মতো থাকছিল এবং তার বড় বোন অন্তত ওই বাসাটা চিনত।

ভালোবাসা জাত মানে না। ভালোবাসা শ্রেণী মানে না। ভালোবাসা কোন কিছুই মানে না। তাদের মাঝে যদি ভালোবাসার সম্পর্ক থেকে থাকে; তাহলে আমার কিছু বলার নেই। কিন্তু তাদের মাঝে যদি ভালোবাসার সম্পর্ক থেকে না থাকে; তাহলে মেয়েটা ভুল করছিল। সেই ভুলটা ধরিয়ে দেয়ার দায়িত্ব ছিল পরিবারের বড়'দের।  এমনকি ভালোও যদি বেসে থাকে; এরপরও পরিবারের দায়িত্ব ছিল মেয়েটাকে সতর্ক করা। কারণ মেয়েটা পরিণত বয়েসের ছিল না।

ভুতের সাথে মানুষের সম্পর্ক হয় না।

ভুতের কাজ ভুত করেছে; মাঝখান থেকে মানুষটা হারিয়ে গিয়েছে। ভুতেদের বিচার হয় না। কারণ তারা অস্পৃশ্য। তাদের দেখা যায় না। ছোঁয়া যায় না। তারা ইচ্ছে হলে মানুষের মাংস খায়। মাঝখান থেকে দোষ হয় ওই মানুষটার- কেন সে ভুতের সামনে হাজির হলো। তাই নিজেদেরই সতর্ক হতে হবে। সেই শিক্ষা পরিবারকেই দিতে হবে।


আরও খবর



ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধা এক মাসের ভাতার টাকা দিলেন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
Image

লালমনিরহাট প্রতিনিধি :

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার আলী (৮৯) করোনা পরিস্থিতে কর্মহীন ও অসহায় মানুষের কষ্ট দেখে তাঁর ১ মাসের মুক্তিযোদ্ধার ভাতার টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে দান করেছেন।

আজ মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০ টায় মুক্তিযোদ্ধা আজাহার আলী এ সহায়তার টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার জন্য পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুর রহমানের হাতে তুলে দেন।

পাটগ্রাম উপজেলার জোংড়া ইউনিয়নের জোংড়া গ্রামের ৫ নং ওয়ার্ডে বাড়ি। তিনি মৃত্যু তমকিন মোহাম্মদের ছেলে।

তিনি একজন ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধা তাঁর নিজস্ব কোনো জমি-জমা নেই। তাঁর রয়েছে স্ত্রী , চার ছেলে ও এক মেয়ে। ছেলে-মেয়েদের বিয়ে দিয়েছেন। বার্ধক্যের কারণে এখন ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারেন না। অভাব অনটন নিত্যদিনের সঙ্গী। তিনি তাঁর অভাবের সংসারে টাকা ব্যয় না করে করোনায় কর্মহীন ও অসহায় ব্যক্তিদের খাদ্যসহায়তার জন্য ১২ হাজার টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার আলী বলেন, করোনায় কর্মহীন ও অসহায় মানুষের জন্য আমি আমার সামর্থ অনুযায়ি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ত্রাণ তহবিলে সহায়তা করেছি। যাতে করে আমার দেখে সমাজের বৃত্তবানরা  করোনা পরিস্থিতে অসহায় মানুষের পাশে দাড়ায়। প্রধানমন্ত্রী দেশের সকল মানুষের মঙ্গলের জন্য দিন-রাত কাজ করছেন। এজন্য আমি প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করি মহান আল্লাহ তায়ালা তাঁকে যেন সুস্থ রাখে ও দীর্ঘায়ু দান করে।

পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাইফুর রহমান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার আলী মহনুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। তার উদারতায় আমরা অনুপ্রাণিত। তাঁর এই মহৎ উদ্যোগ দেখে যাতে করে সমাজের বৃত্তবানরা গরীব-অসহায়দের সহায়তায় এগিয়ে আসবে সেটাই আমার প্রত্যাশা।


আরও খবর



দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট জুমা কারাগারে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আদালতের দেওয়া কারাদণ্ড ভোগ করতে অবশেষে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা। স্থানীয় সময় গতকাল বুধবার মধ্যরাতে কোয়া-জুলু নাটাল প্রদেশে নিজের বাসভবনের কাছেই এক কারাগারে এ দণ্ড ভোগ করতে গিয়েছেন তিনি।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, ৭৯ বছর বয়সী জুমার আত্মসমর্পণের খবর জুমা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে। এরআগে দেশটির কোনো প্রেসিডেন্টের কারাভোগের ঘটনা ঘটেনি। আদালত অবমাননার দায়ে গত ২৯ জুন জুমার ১৫ মাসের কারাদণ্ড হয়।


আরও খবর



ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রা শুরু

প্রকাশিত:সোমবার ১২ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব ঐতিহ্যবাহী রথযাত্রা আজ সোমবার শুরু হচ্ছে। তবে করোনা সংক্রমণের কারণে এবারের উৎসবে রথ শোভাযাত্রাসহ অনেক আনুষ্ঠানিকতা বাতিল করা হয়েছে। সারাদেশের মন্দির প্রাঙ্গণেই সীমিত পরিসরে এবং যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে রথটান ও অন্য ধর্মীয় অনুষ্ঠান হবে। করোনার কারণে গত বছরও সীমিত পরিসরে রথযাত্রা উৎসব হয়েছিল।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জী জানিয়েছেন, রথযাত্রা আয়োজন বিষয়ে সারাদেশের পূজা উদযাপন কমিটির নেতাদের নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। কেবল মন্দির পরিচালনা কমিটির সদস্যদের অংশগ্রহণে ও ধর্মীয় রীতিনীতি অনুযায়ী মন্দিরের ভেতরে রথটান এবং পূজাসহ অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠান হবে। মন্দিরের বাইরে কোনো ধরনের শোভাযাত্রা কিংবা ভক্ত সমাবেশ করা হবে না।

প্রতি বছর চন্দ্র আষাঢ়ের শুক্লপক্ষের দ্বিতীয়া তিথিতে রথযাত্রা শুরু হয়। ৯ দিন পর অনুষ্ঠিত হয় উল্টো রথযাত্রা। এবারের উল্টো রথযাত্রা হবে আগামী ২০ জুলাই। রথযাত্রার মতো উল্টো রথযাত্রাও উদযাপিত হবে সীমিত পরিসরে।

ঢাকার উপকণ্ঠে ধামরাইয়ে এ রথযাত্রা যশোমাধবের রথযাত্রা নামে উপমহাদেশ বিখ্যাত। ধামরাইয়ের ঐতিহ্যবাহী যশোমাধবের রথযাত্রাও সীমিত পরিসরে আয়োজিত হবে।

এ ছাড়া পুরান ঢাকার তাঁতীবাজারের জগন্নাথ জিউ ঠাকুর মন্দির, জয়কালী রোডের রামসীতা মন্দির এবং শাঁখারীবাজার একনাম কমিটিসহ রাজধানীর অন্যান্য মন্দির ও দেশের বিভিন্ন মন্দিরেও সীমিত পরিসরে রথটান অনুষ্ঠিত হবে।



আরও খবর

পবিত্র ঈদুল আজহা আজ

বুধবার ২১ জুলাই 20২১




আরব আমিরাতেই হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ধীরে ধীরে সময় ঘনিয়ে আসছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের। কিন্তু, ভেন্যু নিয়ে এখনও আনুষ্ঠানিক কিছু জানায়নি ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। তবে আইসিসির ঘোষণার আগেই বিসিসিআই সচিব জয় শাহ জানিয়ে দিলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতেই হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

ভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে গতকাল সোমবার খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিসিসিআই সচিব জয় শাহ। তিনি বলেন, আমরা টুর্নামেন্টটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে সরিয়ে নিচ্ছি এবং দ্রুত তা আইসিসিকে জানিয়ে দেওয়া হবে তা। সূচি পরে করা হবে। এখনও সূচি নিয়ে পুরো সিদ্ধান্ত হয়নি। শিগগিরই তা জানানো হবে।

এর আগে ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোও একই খবর জানিয়েছে। ইএসপিএনক্রিকইনফোর খবর অনুযায়ী, ভারতের বদলে আরব আমিরাতেই হচ্ছে বিশ্বকাপ। আগামী ১৭ অক্টোবর মাঠে গড়াবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। ফাইনাল হবে ১৪ নভেম্বর। তবে, আরব আমিরাতে হলেও আয়োজকের ভূমিকায় থাকবে ভারতই।


আরও খবর



ঢাবি অধিভুক্ত ৭ কলেজের ভর্তি পরীক্ষা অক্টোবরে

প্রকাশিত:শনিবার ১০ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে সম্মান প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা চলতি বছরের অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে।

সাত কলেজের প্রধান সমন্বয়কারী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য (শিক্ষা) ও অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

ভর্তি পরীক্ষার অনলাইন আবেদন শনিবার ১০ জুলাই থেকে শুরু হয়ে ২০ অগাস্ট পর্যন্ত চলবে। বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ১ অক্টোবর, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান ইউনিটের ২ অক্টোবর এবং বাণিজ্য ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৮ অক্টোবর হবে।

সাত কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তির জন্য এবার মোট ১২০ নম্বরের এমসিকিউ আকারে ভর্তি পরীক্ষা হবে। এর ৪০ শতাংশ, অর্থাৎ ৪৮ নম্বর পেলে কোনো শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ বলে বিবেচিত হবেন।


আরও খবর