Logo
শিরোনাম

মুক্তিযোদ্ধাদের নতুন করে তালিকাভুক্ত হওয়ার সুযোগ নেই’

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, বাংলাদেশে মুক্তিযোদ্ধাদের নতুন করে তালিকাভূক্ত হওয়ার আর সুযোগ নেই। তবে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ অনুমোদনে উপযুক্ত প্রমাণ সাপেক্ষে প্রবাসে অবস্থানরত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভূক্ত হওয়ার এখনো সুযোগ আছে।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১০ মে) সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের জুইস সেন্টারে এক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন আ ক ম মোজাম্মেল হক।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী দেশের উন্নয়নের পক্ষে প্রচারণা চালাতে প্রবাসীদের আহ্বান জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়নের পক্ষে ব্যাপক প্রচারণা চালাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ অদম্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশকে আবারও পিছিয়ে নিতে ষড়যন্ত্রকারীরা দেশে-প্রবাসে সমানভাবে সক্রিয়।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস এবং বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম ওয়াজেদ মিয়ার ত্রয়োদশ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য নুরুল আমিন রুহুল এমপি, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম এমপি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারী জাহাঙ্গীর আলম, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. মাসুদুল হাসান, সহ-সভাপতি সামসুদ্দিন আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন দেওয়ান, প্রচার সম্পাদক দুলাল মিয়া এনাম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান, প্রবাসীকল্যাণ সম্পাদক মো. সোলায়মান আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান মিরাজ, নিউইয়র্ক স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান মিয়া, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদ চৌধুরী, কানেকটিকাট স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি জেহাদুল হক জিহাদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ড. এম ওয়াজেদ মিয়ার ত্রয়োদশ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা সাইফুল আলম সিদ্দিকী। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্টেটের আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও শ্রমিক লীগের নেতৃবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষ

নাহিদ হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় সিয়াম ৩ দিনের রিমান্ডে

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের সময় নিহত নাহিদ হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় করা হত্যা মামলায় ঢাকা কলেজের ছাত্র মাহমুদুল হাসান সিয়ামকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। আজ শুক্রবার ঢাকার মহানগর হাকিম মোশারফ হোসেন রিমান্ডে নেওয়ার নির্দেশ দেন।

আদালতে নিউমার্কেট থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা (জিআরও) এসআই সাফায়েত হোসেন এ তথ্য জানান।

আজ দুপুরের পর আসামিকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশ পরিদর্শক মো. তারিকুল আলম জুয়েল। একই সঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে সিয়ামকে গত বুধবার শরীয়তপুর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। সিয়াম ঢাকা কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। তিনি ঢাকা কলেজের কোনো হলে থাকেন না। বাইরে থেকে এসে তিনি ছাত্রদের সঙ্গে সংঘর্ষে যোগ দেন।

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, আসামি মাহমুদুল হাসান সিয়াম নাহিদ হত্যার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত। ঘটনার সময় করা ভিডিও ফুটেজ পরীক্ষা করে দেখা গেছে ইটের আঘাতে পড়ে যাওয়া নাহিদকে শোয়া অবস্থায় সিয়াম রড দিয়ে পেটান। তাঁর সঙ্গে অন্য যাঁরা জড়িত ছিলেন, তাঁদের গ্রেপ্তার এবং তাঁদের সম্পর্কে তথ্য জানার জন্য সিয়ামকে নিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন।

এই মামলায় ঢাকা কলেজের হিসাববিজ্ঞান বিভাগের অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র আব্দুল কাইয়ুম, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মাহমুদ এরফান, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র জুনাইদ বুগদাদী, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র পলাশ মিয়া ও বাংলা অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ফয়সাল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে দুই দিনের রিমান্ড শেষে গত ১ মে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গত ২০ এপ্রিল নিহত নাহিদের বাবা মো. নাদিম হোসেন বাদী হয়ে নিউমার্কেট থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলায় তিনি অজ্ঞাতনামা আসামি উল্লেখ করেন।

নাহিদ একটি কুরিয়ার সার্ভিসে ডেলিভারিম্যান হিসেবে কাজ করতেন। ঘটনার দিন গত ১৯ এপ্রিল কামরাঙ্গীরচরের বাসা থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। এ সময় সংঘর্ষের মধ্যে গুরুতর আহত হন নাহিদ। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানেই তিনি মারা যান।

এর আগে ১৮ এপ্রিল রাত ১২টার দিকে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ী ও দোকানকর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়। প্রায় আড়াই ঘণ্টা চলে এই সংঘর্ষ। এরপর রাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলেও ১৯ এপ্রিল সকাল ১০টার পর থেকে ফের দফায় দফায় শুরু হয় সংঘর্ষ, যা চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

এ ঘটনায় উভয় পক্ষের অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের মধ্যে মারা যান নাহিদ ও মোরসালিন নামের একজন। 


আরও খবর



কোম্পানীগঞ্জে দশম শ্রেণির ছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে দশম শ্রেণির ছাত্রী গলায় ফাঁস দেওয়া ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা সদরের হাজী ফিরোজ মিয়ার বাড়ি থেকে ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত সুমি আক্তার উপজেলার তেলিখাল ইউনিয়নের চাতলপাড় গ্রামের সৌদিপ্রবাসী আবদুল আলীমের মেয়ে। সে কোম্পানীগঞ্জ থানার সদর মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। মা ও ছোট এক ভাইসহ হাজী ফিরোজ মিয়ার বিল্ডিংয়ে তারা ভাড়া থাকত সে।

প্রতিবেশীরা জানায়,তার মা পাশের বাসায় গেলে সুমি ঘরের দরজা বন্ধ করে। পরবর্তীতে তার মা বাসায় এসে ডাকাডাকি করেন। এ সময় ভেতর থেকে কোনো শব্দ না পেয়ে জানালা দিয়ে উঁকি দিলে সুমিকে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত দেখতে পান। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকান্ত চক্রবর্তী বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করি। সুরতহাল শেষে মৃতের মরদে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর



আগস্টে সরে দাঁড়াচ্ছেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রধান

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চলতি বছরের আগস্ট মাসের শেষের দিকে পদত্যাগ করবেন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক কেনেথ রথ। প্রায় তিনদশক ধরে বিশ্বে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে কাজ করার পর তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দেন।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের বরাতে রয়টার্স জানায়, নতুন নির্বাহী পরিচালকের অনুসন্ধান করছে তারা। নতুন নেতৃত্ব পাওয়ার আগে রথের ডেপুটি তিরানা হাসান সংস্থার অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাহী পরিচালক হিসেবে কাজ করবেন।

রথ বলেন, ৩০ বছর ধরে  বিশ্বের মানুষের অধিকার রক্ষায় একটি নেতৃস্থানীয় সংস্থার হয়ে কাজ করতে পারা সত্যিই সৌভাগ্যের ব্যাপার। এসময় তিনি মানবাধিকার রক্ষার জন্য সবচেয়ে কার্যকর কৌশল সম্পর্কে তার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার ওপর একটি বই লিখবেন বলেও জানান।

১৯৮৭ সালে ডেপুটি ডিরেক্টর হিসেবে যোগদানকারী রথ হিউম্যান রাইটস ওয়াচ-এ থাকাকালীন দুই ডজনেরও বেশি বিশ্বনেতা, অগণিত মন্ত্রীদের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং ৫০ টিরও বেশি দেশে অনুসন্ধানমূলক বা অ্যাডভোকেসি সফর করেছেন। এছাড়া রথের যোগদানকালে ৬০ জন কর্মীবহরের হিউম্যান রাইটস ওয়াচের বাজেটের আকার ছিল ৭০ লাখ ডলার। বর্তমানে লন্ডনভিত্তিক এ মানবাধিকার সংস্থাটির বাজেট ১০ কোটি ডলার ছাড়িয়েছে। এতে কাজ করছেন ৫৫২ জন কর্মী।  বর্তমানে এ সংস্থাটির কার্যক্রম ১০০টিরও বেশি দেশে বিস্তৃত।


আরও খবর



মানুষের সেবা করাই আমাদের কাজ: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মানুষ কতটুকু সেবা পেল। মানুষের জীবনমান কতটা সহজ হলো। সেটাই হচ্ছে সব থেকে বড় কথা। সব জায়গায়, সব কিছুই যে লাভবান হবে সেটা না। কিন্তু লাভবান করা যায়। আমরা বিআরটিসিকেও যেমন লাভবান করেছি, আজকে রেল যেটাকে অলাভজনক বলে বন্ধ করতে বলা হয়েছিল এবং বন্ধ করে দিয়েছিল বিএনপি সরকার, সেটা চালু করে আমরা এটা প্রমাণ করেছি যে রেলকেও লাভবান করা যেতে পারে এবং করা যায়। রেলও আজকে লাভবান প্রতিষ্ঠানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে মুজিববর্ষ উপলক্ষে নির্মিত একটি ব্রডগেজ ও একটি মিটারগেজ কোচ সংবলিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ভ্রাম্যমান রেল জাদুঘর এবং সংগৃহীত ৩০টি মিটারগেজ ও ১৬টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের মানুষের সেবা করাটাই হচ্ছে আমাদের কাজ। যে কারণে এক সময় (বিএনপি আমল) বলা হয়েছিল বিআরটিসি বন্ধ করে দেওয়া হবে, কারণ এটা লাভজনক না। সরকারি প্রতিষ্ঠান কতটুকু লাভ করলো, কতটুকু লাভ করলো না সেটার চেয়ে বড় কথা মানুষের সেবা কতটুকু দিতে পারলো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার যোগাযোগ ও পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকা-কে আরও সচল ও গতিশীল করতে সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। তিনি বলেন, আমরা দেশের জনগণের সর্বত্র চলাচলের জন্য যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সহজ করার মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডকে আরো ত্বরান্বিত করার পদক্ষেপ নিচ্ছি।

এখানে লোকবল আরও ভালোভাবে দিতে পারলে, লাইনগুলো আরও সম্প্রসারণ করতে পারলে এবং এই যে নতুন নতুন আমরা লাইন করছি এগুলো চালু হয়ে গেলে আমি মনে করি এটা আরও লাভবান হবে।

বিএনপির আমলে রেল বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সব থেকে বেশি পণ্য পরিবহন করতে পারে রেল। আবার মানুষ যাতায়াতও করতে পারে রেলে অল্প খরচে। সেই রেলকেই সব থেকে দুঃখের বিষয় বিএনপি সরকার ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে রেল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়। মূলত আমাদের বিআরটিসি বন্ধ করার পরিকল্পনা, রেল বন্ধ করার পরিকল্পনা এসব পরামর্শ দিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক।

গোল্ডেন হ্যান্ডসেকের মাধ্যমে ১০ হাজার কর্মচারীকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছিল। অনেক রেল লাইন বন্ধ করে দেওয়া হয়। রেল আসলে মুখ থুবড়ে পড়ে। আওয়ামী লীগ যখন সরকারে আসে তখন আমরা চেষ্টা করেছি এই রেলকে আবার নতুনভাবে গড়ে তোলা এবং মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সুগম করা।

দেশকে এগিয়ে নেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে টানা তিনবারের সরকার প্রধান বলেন, আমরা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে এটাই আমাদের লক্ষ্য। স্বাধীনতার জাতির পিতা আমাদের স্বল্পোন্নত দেশে উন্নীত করেছিলেন। আজ আমরা উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। কাজেই এই মর্যাদা ধরে রেখে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। মাঝে মধ্যে বিপত্তি আসে। এটা হচ্ছে দুঃখজনক।

বিগত বিএনপি-জামায়াতের আন্দোলনের সময় রেলে অগ্নিসংযোগের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, যখন আমরা নতুন নতুন কোচ কিনলাম, নতুন লোকোমোটিভ কিনলাম, ইঞ্জিন কিনলাম, সেই সময় বিএনপি শুরু করলো অগ্নিসন্ত্রাস। সব থেকে দুঃখজনক।

যে নতুন রেলগুলো, যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে সেই রেলে আগুন দেওয়া, আগুন দিয়ে রেল লাইন, রেল কোচ, রেল ইঞ্জিন বিএনপি পুড়িয়ে দিয়েছিল। এটা নাকি তাদের আন্দোলন ছিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি জানি না মানুষকে পুড়িয়ে মারা বা চলন্ত বাস, গাড়ি অথবা রেলে আগুন দিয়ে, লঞ্চে আগুন দিয়ে এটা কোনো ধরনের আন্দোলন। এটা তো এক ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। অবশ্য তারা তো ক্ষমতা দখলকারীদের হাতে ক্ষমতায় বসে প্রতিষ্ঠিত পার্টি। জনগণের মধ্যে থেকে তো উঠে আসেনি। কাজেই জনগণের কল্যাণে তাদের দৃষ্টি থাকে না। ক্ষমতার লোভটাই তাদের বড়। মানিলন্ডারিং, দুর্নীতি, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি, বাংলা ভাই সৃষ্টি, এগুলোই তো তাদের কাজ ছিল। তারা তো দেশের মানুষের কল্যাণে কিছু করেনি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে কমলাপুর প্রান্ত থেকে বক্তব্য রাখেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।


আরও খবর



তেঁতুলিয়ায় নদীতে পাথর তুলতে গিয়ে মাটিচাপায় শ্রমিকের মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৭৪জন দেখেছেন

Image

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় নদী থেকে নুড়িপাথর সংগ্রহ করতে গিয়ে মাটি চাপায় সকিরুল ইসলাম (৪০) নামে এক পাথর শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (২৪ এপ্রিল) বিকেলে তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগর ইউনিয়নের ময়নাগুড়ি ভুটুজোত এলাকায় করতোয়া নদীতে এই ঘটনাটি ঘটে। জানা যায়, নিহত সকিরুল ময়নাগুড়ি ভুটুজোত এলাকার মৃত আঃ সামাদের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, করতোয়া নদীতে নুড়ি পাথর সংগ্রহ করতে প্রতিদিনের ন্যায় যায় সকিরুল। বিকেলে একপর্যায়ে করতোয়া নদীর ধারের কাছে পাথর সংগ্রহ করতে গেলে তীরের মাটি ভেঙ্গে পড়ে সকিরুলের উপর। এতে ঘটনাস্থলে পানিতে মাটির চাপায় মৃত্যু বরণ করে সে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায় মরদেহের প্রাথমিক সুরতহাল করে।

তেঁতুলিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সায়েম মিয়া মাটি চাপায় ওই পাথর শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর