Logo
শিরোনাম

পাকিস্তানের বাংলাদেশ সফর চূড়ান্ত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সংযুক্ত আরব আমিরাতে অক্টোবরে শুরু হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসর, যা শেষ হবে নভেম্বরে। এরপর বাংলাদেশ সফরে এসে তিন ফরম্যাটের সিরিজ খেলতে আসবে পাকিস্তান। এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।

তিনি জানান, পাকিস্তানের বাংলাদেশ সফর চূড়ান্ত করার জন্য কাজ করছে দুই দেশের ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগ।

এর আগে, ২০১৫ সালে পাকিস্তান জাতীয় দল সবশেষ বাংলাদেশ সফরে এসেছিল। তবে বাংলাদেশ পাকিস্তান সফরে না যাওয়াতে একাধিকবার বেঁকে বসেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।

যদিও ২০২০ সালে বাংলাদেশ দলের ওই সফর পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট পুরোদমে ফেরানোতে বড় ভূমিকা পালন করে।

এবার বাংলাদেশে এসে তিন ফরম্যাটেই খেলবে পাকিস্তান। সুজন বলেন, পাকিস্তান সিরিজ বিশ্বকাপের পরপরই। এ ব্যাপারে ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগ পাকিস্তান বোর্ডের সাথে যোগাযোগ করছে। সব ফরম্যাটেই খেলা থাকবে, ওয়ানডে ও টেস্ট বেশি থাকবে।

পাকিস্তানের ক্ষেত্রে কোভিড প্রটোকল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড মতোই হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাহী বলেন, আমরা যে স্ট্যান্ডার্ড বেঞ্চমার্ক ঠিক করেছি সেই অনুযায়ীই আমাদের প্রটোকল ও জৈব সুরক্ষা বলয় হবে। আমরা আমাদের যে গাইডলাইন তা সফরকারী দলকে অবহিত করব, সেই অনুযায়ীই বাস্তবায়ন করব।

 


আরও খবর

পেলে ফের আইসিইউতে

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

জেমিকে অব্যাহতি, নতুন কোচ অস্কার ব্রুজন

শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১




হিজাব ছাড়া নারী কাটা তরমুজ : তালিবান

প্রকাশিত:শুক্রবার ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হিজাব না পরা নারীদের কাটা তরমুজের সঙ্গে তুলনা করলেন এক তালিবান কর্মকর্তা। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে তাকে বলতে শোনা গিয়েছে, আপনারা কি কেউ কাটা তরমুজ কেনেন? নাকি পুরো তরমুজ কেনেন? অবশ্যই পুরোটা কেনেন। হিজাব না পরা মেয়েরা হল কাটা তরমুজ। ব্রিটিশ বিবিসির সাংবাদিক জিয়া শাহরিয়ার টুইটারে ভিডিওটি শেয়ার করেছেন। তবে ইন্ডিপেনডেন্ট এই ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করতে পারেনি। পাশাপাশি ওই তালিবান কর্মকর্তা পরিচয়ও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই বিতর্ক শুরু হয়েছে। এমনিতেই তালিবান ক্ষমতায় আসার পর ফতোয়া জারি হয়েছে, বাড়ির বাইরে বের হতে হলে হিজাব পরতেই হবে নারীদের। সেইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের ক্ষেত্রে নিকাব পরাও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

ওই ভিডিওটি দেখার পর ক্ষোভ প্রকাশ করছেন নেটিজেনরা। একজন লিখেছেন, কেন তালিবানরা নারীদের কেনার কথা ভাবে? অন্য একজন বলেছেন, আমি বিশ্বাসই করতে পারছি না, এ ধরনের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে কেন বিপুল জনবিক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে না।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সালে আফগানিস্তানে তালিবানের শাসনকালে নারীদের অধিকারের বিষয়গুলো ক্ষুন্ন হওয়ার বিস্তর অভিযোগ আছে আন্তর্জাতিক মহলে। এবারও তালিবানের নতুন সরকারে উচ্চ পর্যায়ে ঠাঁই হয়নি নারীদের। যদিও তালিবান নারী ও শিশুদের অধিকার রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য এখনও আন্দোলন করছেন আফগান নারীরা। এর মাঝেই তালিবানের কর্মকর্তার এমন মন্তব্যে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে।


নিউজ ট্যাগ: আফগানিস্তান

আরও খবর

আফগানিস্তানে আবারও বিস্ফোরণ, নিহত ৭

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১




এইচএসসির নাম ও গ্রেডিং পদ্ধতি পরিবর্তন হতে পারে

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষা (এসএসসি) ও সমমানের কারিক্যুলামে বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে সরকার। নতুন কারিক্যুলাম অনুযায়ী, শিক্ষার্থীরা দশম শ্রেণিতে যে কারিক্যুলাম সম্পন্ন করবে তার ওপর নির্ভর করেই এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় বসবে। নবম শ্রেণির সিলেবাস থেকে কোনোকিছু এসএসসিতে থাকবে না।

বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী, নবম ও দশম শ্রেণি করিক্যুলাম মিলিয়ে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হয়ে থাকে। দীর্ঘদিনের এই নিয়ম আর থাকছে না।  

এ ছাড়া আরেকটি বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হচ্ছে নতুন কারিক্যুলামে। নবম ও দশম শ্রেণিতে কোনো ধরনের গ্রুপ বিভাজন থাকবে না। অর্থাৎ এখন শিক্ষার্থীদের যেমন নবম শ্রেণিতে উঠার পর পরই বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ নির্ধারণ করে নিতে হয়; সেটি আর থাকবে না। বরং সব মিলিয়ে সমন্বিত একটি শিক্ষা এ দুই বছর শিক্ষার্থীদের পড়তে হবে। গ্রুপ বিভাজন শুরু হবে এসএসসি পাবলিক পরীক্ষা উত্তীর্ণ হয়ে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির পর। 

আজ সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এ তথ্য জানান। এর আগে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা উপস্থাপন করেন।

আগামী বছর থেকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের ১০০টি করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন শিক্ষাক্রমের পাইলটিং শুরু হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। ২০২৩ সাল থেকে ধাপে ধাপে নতুন এই শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। আর ২০২৫ সালে পুরোপুরি বাস্তবায়ন হবে।

এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী বছর থেকে প্রাথমিকের প্রথম শ্রেণি এবং মাধ্যমিকের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পাইলটিং শুরু হবে। ২০২৩ সাল থেকে প্রাথমিকের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণি এবং মাধ্যমিকের ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে শুরু হবে নতুন শিক্ষাক্রম।

ডা. দীপু মনি আরও বলেন, ২০২৪ সালে তৃতীয়, চতুর্থ, অষ্টম ও নবম শ্রেণি এবং ২০২৫ সালে পঞ্চম ও দশম শ্রেণিতে এই শিক্ষাক্রম শুরু হবে। ২০২৫ সালের মধ্যে পুরো শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।

এ সময় উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা ব্যাপারে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে দুটি পরীক্ষা নিয়ে সেই দুই পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে এইচএসসির ফল দেওয়া হবে। অন্য শ্রেণিতে হবে সমাপনী পরীক্ষা, সমাপনীতে ধারাবাহিক মূল্যায়নের সঙ্গে সামষ্টিক মূল্যায়ন করা হবে।

নিউজ ট্যাগ: এইচএসসি

আরও খবর

৫ অক্টোবর খুলছে ঢাবির হল

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

অষ্টম ও নবম শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন

বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১




বিশ্ববিদ্যালয় খুলছে ২৭ সেপ্টেম্বরের পর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৮১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের পর দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আজ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয় আয়োজিত বৈঠক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন কাজ শেষ করা হবে। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের একাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদন নিয়ে পাঠদান কার্যক্রম শুরু ও আবাসিক হল খুলতে পারবে।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে এ বৈঠক শুরু হয়। শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ছাড়াও বৈঠকে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ, কভিড-১৯ সম্পর্কিত কারিগরি উপদেষ্টা কমিটি, ফেডারেশন অব বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় সমিতি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

চলতি মাসের মধ্যে পর্যায়ক্রমে সব সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় সম্প্রতি। আর ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যায়ক্রমে সশরীরে ক্লাস শুরু করার সিদ্ধান্ত হয়। এরই মধ্যে গত ৫ সেপ্টেম্বর আন্ত মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় ১২ সেপ্টেম্বর থেকে সব স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়া হবে। ওই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী খুলে দেওয়া হয়েছে স্কুল-কলেজ। কিন্তু এখনও বন্ধ রয়েছে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়।

ইউজিসি সূত্রে পাওয়া খবর অনুযায়ী, গতকাল সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত দেশের ৪২টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ১৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মীদের করোনা টিকা দেওয়া শেষ হয়েছে।


আরও খবর

৫ অক্টোবর খুলছে ঢাবির হল

শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

অষ্টম ও নবম শ্রেণির ক্লাসও সপ্তাহে দুই দিন

বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১




ঢাকায় পৌঁছেছে ক্যাপ্টেন নওশাদের মরদেহ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০২ সেপ্টেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পাইলট ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইয়ুমের মরদেহ দেশে এসেছে। বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা ২০ মিনিটে বিমানের একটি ফ্লাইট তার মরদেহ নিয়ে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানবন্দরে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর আলীসহ বিমানের কর্মকর্তারা তার মরদেহ গ্রহণ করেন।

এসময় বিমানবন্দরে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান,  বিমানের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল হাসান, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও জনাব ড. আবু সালেহ্  মোস্তফা কামাল, বিমানের পরিচালক জিয়াউদ্দিন আহমেদ, মো. মাহবুব জাহান খান, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ-উল আহসান, বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পাইলটস এসোসিয়েশন (বাপা) সভাপতি মাহববুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের দোহা থেকে আসা একটি ফ্লাইট দেশে ফেরার পথে ভারতের নাগপুর থেকে ক্যাপ্টেন নওশাদের মরদেহ নিয়ে এসেছে। একই ফ্লাইটে তার দুই বোনও দেশে এসেছেন। জানা গেছে, দুপুরে বিমানের প্রধান কার্যালয়ে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

গত ২৭ আগস্ট ওমানের রাজধানী মাস্কাট থেকে ১২৪ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকায় ফেরার পথে ভারতের রায়পুরের আকাশে থাকাকালে হুট করে হার্ট অ্যাটাক করে নিথর হয়ে পড়েন ক্যাপ্টেন নওশাদ আতাউল কাইউম। তখনই ককপিটের কন্ট্রোল নেন সঙ্গে থাকা ফার্স্ট অফিসার মোস্তাকিম। মেডিক্যাল ইমার্জেন্সি ঘোষণা করে ক্যাপ্টেন নওশাদকে ও যাত্রীদের নিয়ে দ্রুত নাগপুরের ড. বাবা সাহেব আম্বেদকার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নিরাপদে অবতরণ করেন উড়োজাহাজটি। নাগপুরের একটি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৩০ আগস্ট মারা যান নওশাদ।

নওশাদ আতাউল কাইউম ১৯৭৭ সালের ১৭ অক্টোবর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ২০০২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে পাইলট হিসেবে যোগদান করেন। তিনি ২০০০ সালের ১৩ নভেম্বর ক্যাডেট পাইলট হিসেবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে কাজে যোগদান করেন এবং প্রশিক্ষণ শেষে ২০০২ সালের ২০ সেপ্টেম্বর এফ-২৮ এর ফার্স্ট অফিসার পদে পদোন্নতি লাভ করেন। তিনি ২০০৬ সালের ১৪ মে এয়ারবাস-এ-৩১০ উড়োজাহাজের ফার্স্ট অফিসার এবং ২০১১ সালের ১৪ ডিসেম্বর বোয়িং ৭৭৭ এর ফার্স্ট অফিসার হন। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২৫ জানুয়ারি বোয়িং ৭৩৭ এর ক্যাপ্টেন হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন এবং মৃত্যুর পূর্ববর্তী সময় পর্যন্ত তিনি এ পদেই কর্মরত ছিলেন।    

তারা বাবা আব্দুল কাইয়ুমও একসময় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ক্যাপ্টেন ছিলেন। তিনি ডিসি-১০ উড়োজাহাজের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন সময় কোরিয়ান এয়ার এবং সৌদি এয়ারলাইন্সেও দায়িত্ব পালন করেন সিনিয়র এই পাইলট। ৬ মাস আগে নওশাদের বাবা আব্দুল কাইয়ুম মারা যান।

তার মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী ও সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পাইলটস এসোসিয়েশন (বাপা) সহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ শোক জানিয়েছেন।


আরও খবর

অভিভাবকরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১




হাসান আজিজুল হককে বিএসএমএমইউতে স্থানান্তর

প্রকাশিত:শনিবার ২১ আগস্ট 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
হাসান আজিজুল হককে রাজশাহী থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় পাঠানোর পর, ফজলে হোসেন বাদশা সড়কযোগে ঢাকায় যান এবং হাসান আজিজুল হকের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন

প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হককে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) স্থানান্তর করা হয়েছে।

আজ শনিবার রাতে রাজশাহীর সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মধ্যস্থতায় হাসান আজিজুল হককে বিএসএমএমইউর মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

হাসান আজিজুল হককে রাজশাহী থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় পাঠানোর পর, ফজলে হোসেন বাদশা সড়কযোগে ঢাকায় যান এবং হাসান আজিজুল হকের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন।

তিনি জানান, হাসান আজিজুল হক হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে থাকা অবস্থাতেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে যোগাযোগ করা হয়। পরে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মধ্যস্থতায়ই বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসকদের সঙ্গে পরামর্শ করে তাকে সেখানে ভর্তি করা হয়।

তিনি বলেন, 'হাসান আজিজুল হককে রাজশাহী থেকে ঢাকা নেওয়ার পর, তাকে অনেকটা চাঙ্গা মনে হয়েছে। দুই বার তার করোনা টেস্ট করা হয়েছে এবং ফলাফল দুইবারই নেগেটিভ এসেছে।'

এর আগে, আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজশাহীর শাহ মখদুম বিমানবন্দর থেকে তাকে বহনকারী একটি এয়ার অ্যাম্বুলেন্স ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসে। পরে তাকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে নেওয়া হয়।

আজ দুপুরে হাসান আজিজুল হকের চিকিৎসায় ১৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল।

নিউজ ট্যাগ: হাসান আজিজুল হক

আরও খবর

অভিভাবকরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১