Logo
শিরোনাম

রেকর্ড ডাকছে রোনালদোকে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নানা বিতর্কের মধ্যে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে সময়টা ভালো কাটেনি। ক্লাব ও কোচ নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যের পর দুই পক্ষের মধ্যে চুক্তিও এখন আর নেই। তার ওপর ক্লাব থেকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ঠিক এই অবস্থায় পর্তুগালের হয়ে বিশ্বকাপে মাঠে নামতে যাচ্ছেন ৩৭ বছর বয়সী তারকা।

লিওনেল মেসির মতোই রোনালদোর এটা পঞ্চম বিশ্বকাপ। ২০০৬, ২০১০, ২০১৪ ও ২০১৮ বিশ্বকাপে খেলেছেন সাবলীলভাবে। ১৭ ম্যাচে করেছেন ৭ গোল। এরই মধ্যে ২০১৮ সালে তো স্পেনের বিপক্ষে হ্যাটট্রিকও আছে। জাতীয় দলের হয়ে ১৯১ ম্যাচে ১১৭ গোলের মালিক রোনালদোকে নতুন রেকর্ড ডাকছে।

৩৭ বছর বয়সী তারকার এটাই হয়তো শেষ বিশ্বকাপ। যদি কাতারে গোল করতে পারেন তাহলে পাঁচ বিশ্বকাপে গোল করা প্রথম ব্যক্তি হবেন তিনি। এছাড়া রোনালদো কাতারের বৈশ্বিক আসরে ৩ গোল পেলেই কিংবদন্তি ইউসেবিওকে টপকাতে পারবেন। ৬৬-তে দলকে সেমিফাইনালে নিয়ে যাওয়ার নায়ক ইউসেবিওর ছিল ৯ গোল।

ক্যারিয়ারের শেষ দিকে এসে এতো ঝড়-ঝাপ্টার মুখোমুখি হবে তা হয়তো ভাবেননি রোনালদো। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে গত মৌসুম তো ভালোই কেটেছে। দল বড় সাফল্য না পেলেও পর্তুগিজ তারকা ছিলেন উজ্জ্বল। আর এবার ঠিক উল্টো চিত্র দেখতে হচ্ছে। এমনটি হয়তো কোনও সময় প্রত্যাশিত ছিল না।

তারপরেও দোহার অনুশীলনে রোনালদোকে প্রাণবন্তই মনে হচ্ছে। সব বিতর্ককে পেছনে ফেলে দিয়ে নতুন করে ঝাঁপিয়ে পড়ার অপেক্ষায়। তার পায়ে চিরাচরিত সেই ড্রিবলিং দেখার সুযোগ তো কেউ মিস করতে চাইছেন না। গোল করে সিআরসেভেন-এর স্বভাবসুলভ সেই উদযাপনের ভঙ্গি কে না দেখতে চায়!

লিওনেল মেসির প্রথম ম্যাচ মোটেও ভালো কাটেনি। অপ্রত্যাশিত হার দিয়ে শেষ হয়েছে সৌদি আরব ম্যাচ। আজ অন্য দুই তারকা নেইমার ও রোনালদো মাঠে নামতে যাচ্ছেন। দুজনেরই সামনে নিজেদের নতুন করে প্রমাণের পালা। ব্রাজিলের সার্বিয়া ও পর্তুগালের ঘানা পরীক্ষা।

যেভাবে আর্জেন্টিনা ও জার্মানি হারের তিক্ত স্বাদ পেয়েছে। তাতে করে নেইমারের পাশাপাশি রোনালদোরও আশাতীত পারফরম্যান্স দেখানোর সময় এসেছে। এতে করে দলই উপকৃত হবে। আর সব নেতিবাচক প্রশ্নের উত্তর সহজেই দিতে পারবেন ইউসেবিও-ফিগোর পর পর্তুগালের বড় তারকা রোনালদো। পাঁচবারের ব্যালন ডিঅর জয়ী তারকা আজ কি ঘানার বিপক্ষে নিজেকে মেলে ধরতে পারবেন? ম্যান ইউর পর রোনালদো কোথায় যাবেন তা এখনও অনিশ্চিত। সেই অনিশ্চয়তার ছাপ হয়তো পড়বে না বিশ্বকাপে!


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




‘রাষ্ট্রহীন’ শামীমাকে বাংলাদেশে পাঠালে মৃত্যুদণ্ড হতে পারে: আইনজীবী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাজ্য থেকে সিরিয়ায় পাড়ি জমানো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণী শামীমা বেগমকে বাংলাদেশে পাঠালে সেখানে তিনি মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তাঁর আইনজীবী ড্যান স্কয়ারস কেসি। শামীমার কাছ থেকে ব্রিটিশ নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার ফলে তিনি কার্যত রাষ্ট্রহীন হয়ে পড়েছেন বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। যুক্তরাজ্যের স্পেশাল ইমিগ্রেশন আপিল কমিশনের শুনানিতে এসব কথা বলেছেন শামীমার আইনজীবী।

আদালতে শুনানিকালে ড্যান স্কয়ারস কেসি বলেন, ২০১৯ সালে শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করা হয়েছে। ওই সময়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বুঝতেই পারেননি এ নাগরিকত্ব বাতিলের গুরুতর বাস্তব পরিণতি কতটা ভয়াবহ হতে পারে। এটা স্পষ্ট যে তাঁর সিদ্ধান্ত শামীমাকে রাষ্ট্রহীন করে দেবেএমন সম্ভাবনা তিনি বিবেচনায় নেননি। 

আদালতের নথিগুলো থেকে জানা গেছে, শামীমা বেগমের নাগরিকত্ব প্রত্যাহার করার আগের দিনই তাঁর রাষ্ট্রহীনতা নিশ্চিত করা হয়েছিল।  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এমন সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষের মনোভাব জানার চেষ্টাও করেননি বলে শুনানিতে আইনজীবী অভিযোগ করেছেন। তিনি বলেছেন, শামীমাকে বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হবে কি না এবং তিনি কোনো সুরক্ষা পাবেন কি না, এসব বিষয়ও তিনি বিবেচনা করেননি। 

ড্যান স্কয়ারস কেসি আরও বলেছেন, শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করার পরপরই বাংলাদেশ এক বিবৃতিতে আপিলকারীর প্রতি তাদের কঠোর অবস্থান প্রকাশ করেছিল।

২০১৯ সালের মে মাসে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছিলেন, শামীমা বেগম বাংলাদেশে গেলে সন্ত্রাসবাদে জড়িত থাকার অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি হতে পারেন।

শামীমার আইনজীবী বলেছেন, এটা স্পষ্ট যে সাজিদ জাভিদ যদি আপিলকারীকে তাঁর নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত করার বাস্তব প্রভাব সম্পর্কে অনুসন্ধান করতেন, তবে তিনি সম্ভবত বুঝতে পারতেন যে আপিলকারীকে কোনো রাষ্ট্রের সুরক্ষা ছাড়াই ছেড়ে দেওয়া যায় না। তাঁর অন্তত এটুকু বোঝা উচিত ছিল যে একজন রাষ্ট্রহীন মানুষের বাস্তব জীবন কেমন হতে পারে।

শামীমা বেগমের বয়স যখন ১৫ বছর ছিল, তখন তিনি পূর্ব লন্ডনের বাড়ি ছেড়ে আরও দুই কিশোরীর সিরিয়ায় পালিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি একজন আইএস (ইসলামিক স্টেট) যোদ্ধাকে বিয়ে করেছিলেন। পরে ২০১৯ সালে সিরিয়ার একটি শরণার্থীশিবিরে তাঁকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এরপরই ব্রিটেনের তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ শামীমার ব্রিটিশ নাগরিকত্ব বাতিল করেছিলেন। ২৩ বছর বয়সী শামীমা বেগম এখন সিরিয়ার শরণার্থীশিবিরেই রয়েছেন। 


আরও খবর



চিপ উৎপাদনে আরো এক ধাপ এগোল ইউরোপ

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চিপ বা সেমিকন্ডাক্টর নিয়ে বর্তমানে বিশ্বে বিভিন্ন ধরনের টানাপোড়েন চলছে। চীনকে পেছনে ফেলতে যুক্তরাষ্ট্র সব ধরনের প্রযুক্তি ও যন্ত্রাংশ সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। অন্যদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে পশ্চিমা দেশগুলো নিজস্ব উৎপাদন বাড়াতে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে। চীন ও তাইওয়ানের মধ্যেও বিরোধ চলমান। এর অংশ হিসেবে অনেক দেশই এশিয়ানির্ভরতা কমাতে নিজ অঞ্চলে সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদনে ঝুঁকছে। সর্বশেষ নিজ অঞ্চলে সেমিকন্ডাক্টর উৎপাদনে ৪ হাজার ৪ কোটি ডলারের প্রকল্প পরিচালনায় সম্মতি দিয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। এর মাধ্যমে ইইউর অন্তর্গত ২৭টি দেশ সেমিকন্ডাক্টরের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও এশিয়ার ওপর নির্ভরতা কমাবে।

পরিকল্পনাটিকে আইনে পরিণত করার আগে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে বিতর্কের জন্য ডিসেম্বরে বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এর আগে ইইউর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে একটি চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। যেখানে নিজ অঞ্চলে চিপ উৎপাদনে ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলার বা ৪ হাজার ৩০০ কোটি ইউরো তহবিল বরাদ্দের কথা জানানো হয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স প্রকাশিত প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, বিভিন্ন রাষ্ট্রদূত এরই মধ্যে ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে। ফলে অঞ্চলটি চিপ উৎপাদনের জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও এশিয়ার চীনের ওপর কম নির্ভরশীল হবে। এছাড়া কোনো জরুরি অবস্থা তৈরি হলে ও সরবরাহ চেইনে সমস্যা হলে নিজস্ব উৎপাদনের মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা যাবে বলেও উল্লেখ করা হয়। প্রকল্পটি কার্যকরে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের মন্ত্রীরা আগামী ১ ডিসেম্বর বৈঠকে বসবেন। তবে আইনে পরিণত হতে হলে আগামী বছর ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে এ বিষয়ে বিতর্ক অনুষ্ঠিত হতে হবে। বিশ্বজুড়ে চিপের সংকট তৈরি হলে এতে গাড়ি উৎপাদনকারী থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী ও টেলিযোগাযোগ পরিষেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হয়। সে সময়ই এ প্রকল্পের প্রস্তাব দেয়া হয়। আট বছরের মধ্যে বৈশ্বিক চিপ উৎপাদন সক্ষমতার ২০ শতাংশ অর্জনের ব্যাপারে আশাবাদী ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। চলতি বছরের শুরুতে এ কারণে ইইউ চিপ অ্যাক্ট চালু করেছে। যার অধীনে সেমিকন্ডাক্টর শিল্পের বিকাশে বিনিয়োগ করা হবে। গবেষণা ও উৎপাদন দুই খাতেই এ অর্থ ব্যয় করা হবে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের কিছু সদস্য বরাদ্দের যে পরিকল্পনার সেখানে তহবিলের ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। সম্প্রতি ব্লুমবার্গ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইইউর সদস্যরা সেমিকন্ডাক্টরের গবেষণায় নির্ধারিত ৪০ কোটি ডলার পুনর্বরাদ্দে সম্মতি দিয়েছে। প্রতিবেদনের তথ্যানুযায়ী, এ বিনিয়োগের কারণে জার্মানির মতো দেশ লাভবান হবে। কেননা এসব দেশ সেমিকন্ডাক্টর খাতে ভালো অবস্থানে আছে। নতুন প্রকল্পটি এখনো চূড়ান্ত হয়নি এবং আগামী বছরের আগে কার্যকর হবে না। কিন্তু তার আগেই অনেক প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে একাধিক নতুন সেমিকন্ডাক্টর কারখানায় উৎপাদন শুরুর ঘোষণা দিয়েছে। এদের মধ্যে ইনটেল, গ্লোবাল ফাউন্ড্রিজ, এসটিমাইক্রোইলেকট্রনিকস ও ইনফিনিওন টেকনোলজিসের মতো প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

অন্যদিকে চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) চিপ শিল্পে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছে তাইওয়ান। এর মধ্য দিয়ে ব্লকটির সঙ্গে সম্পর্ক জোরদারের ইচ্ছা পোষণ করেছে অঞ্চলটি। তথ্য বলছে, চীনের সার্বভৌমত্ব মেনে নিতে দেশটি রাজনৈতিক ও সামরিকভাবে তাইওয়ানকে অব্যাহত চাপের মুখে রেখেছে। এ পরিস্থিতিতে কাগজে-কলমে কূটনৈতিক সম্পর্কের অনুপস্থিতিতেই বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দেশের সঙ্গে সম্পর্ক দৃঢ় করার প্রতি বেশি মনোযোগী তাইপে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যেভাবে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি করেছে, ঠিক তেমনিভাবেই ইইউর সঙ্গেও মৈত্রী স্থাপন করতে চায় তাইপে। দেশের চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো অঞ্চলটিতে বিনিয়োগ করলে দুই পক্ষের মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নের পথ অনেকটাই সহজ হবে।


আরও খবর

হাইড্রোজেন দিয়ে উড়বে উড়োজাহাজ

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২

পুরোনো টুইট আর্কাইভ করবেন যেভাবে

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




বাবুল আক্তারের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদারের দায়ের করা মামলায় সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারকে গ্রেফতার দেখানোসহ সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালতে আগে বাবুল আক্তারকে গ্রেফতার দেখানো হবে। এরপর তার রিমান্ডের আবেদনের বিষয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধরণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, বুধবার (৯ নভেম্বর) মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধানমন্ডি থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রবিউল ইসলাম বাবুলকে গ্রেফতার দেখানোর আবেদনসহ সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিচারক শুনানির জন্য ১০ নভেম্বর দিন ধার্য করেন।

মামলার অপর আসামিরা হলেন প্রবাসী সাংবাদিক ইলিয়াস হোসাইন, বাবুল আক্তারের ভাই মো. হাবিবুর রহমান লাবু ও বাবা মো. আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া। এর আগে ২৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডি থানায় মামলাটি করেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) প্রধান বনজ কুমার মজুমদার।

পিআইবি প্রধানের অভিযোগে বলা হয়েছে, মামলার তদন্ত ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করাসহ বাংলাদেশ পুলিশ ও পিবিআইর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে জেল হাজতে আটক থাকা সাবেক এসপি বাবুল আক্তারসহ উপরোক্ত আসামিরা হীন উদ্দেশ্যে দেশে ও বিদেশে অবস্থান করে অপরাধমূলক বিভিন্ন অপকৌশল এবং ষড়যন্ত্রের আশ্রয় নেয়। এরই ধারাবাহিকতায় বাবুল আক্তার ও অন্য আসামিদের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ প্ররোচনায় কথিত সাংবাদিক ইলিয়াস হোসাইন গত ৩ সেপ্টেম্বর রাতে বিদেশে পলাতক থাকা অবস্থায় তার ফেসবুক আইডি থেকে ইউটিউব অ্যাকাউন্টে ভিডিওক্লিপ আপলোড করে।

ওই ভিডিওতে বিভিন্ন মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্যের মাধ্যমে তদন্তাধীন মিতু হত্যার তদন্তকে বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধসহ ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করা হয়েছে। ভিডিওটি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, ইলিয়াস হোসাইন ভিডিওতে প্রচারিত বক্তব্যে দেশের ভাবমূর্তি ও দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উসকানি, বাংলাদেশ পুলিশ এবং পুলিশের বিশেষায়িত তদন্ত সংস্থা পিবিআই, বিশেষ করে আমার মান-সম্মান ও সুনাম ক্ষুণ্ণ করার জন্য মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও বিভ্রান্তিক তথ্য প্রচার করছে, যার জন্য দেশের সাধারণ মানুষের মধ্যে নেতিবাচক মনোভাব সৃষ্টি হয়েছে।

এর আগে গত ৮ সেপ্টেম্বর পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদারসহ ছয় পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেন স্ত্রী হত্যা মামলায় কারাগারে থাকা সাবেক এসপি বাবুল আক্তার। পিবিআই হেফাজতে থাকার সময় নির্যাতনের শিকার হয়েছেন দাবি করে চট্টগ্রাম মহানগর জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালতে তিনি মামলার আবেদন করেন। ২৫ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছা শুনানি শেষে আবেদনটি খারিজ করে দেন।


আরও খবর



রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে ডিএমডি পদে বড় রদবদল

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাষ্ট্রায়ত্ত বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ১৫ জন উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালককে (ডিএমডি) বদলি করা হয়েছে। সোমবার (২১ নভেম্বর) অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

ডিএমডি পদে বদলি, রদবদল বা আগের পদে পুনর্বহাল (ইনসিটু) কর্মকর্তাদের মধ্যে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক মীর মোফাজ্জল হোসেনকে বদলি করে সোনালী ব্যাংকের পাঠানো হয়েছে। রূপালী ব্যাংকের ডিএমডি খান ইকবাল হোসেনকে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকে বদলি করা হয়েছে। সোনালী ব্যাংকের সুভাষ চন্দ্র দাসকে একই ব্যাংকের ডিএমডি (ইনসিটু) রয়েছেন, জনতা ব্যাংকের মোহাম্মদ সাইফুল আলমকে রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, জনতা ব্যাংকের দেলওয়ারা বেগমকে রূপালী ব্যাংকে, ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের ডিএমডি (ইনসিটু) আবু তাহের মোহাম্মদ আহমেদুর রহমানকে পাঠানো হয়েছে একই ডিএমডি করা হয়েছে। 

প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক ডিএমডি (ইনসিটু) মো. জাহাঙ্গীর হোসেনকে একই ব্যাংকের ডিএমডি হয়েছেন। বেসিক ব্যাংকের খান ইকবাল হাসানকে পাঠানো হয়েছে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে, রূপালী ব্যাংকের ডিএমডি (ইনসিটু) কাজী মো. ওয়াহিদুল ইসলামকে সোনালী ব্যাংকের, রূপালী ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ইনসিটু) মিস তাহমিনা আখতারকে দেওয়া হয়েছে একই ব্যাংকের ডিএমডি পদে। 

কর্মসংস্থান ব্যাংকের ডিএমডি (ইনসিটু) মিস মেহের সুলতানাকে কর্মসংস্থান ব্যাংকের ডিএমডি করা হয়েছে। রূপালী ব্যাংকের পারসুমা আলমকে সোনালী ব্যাংকে, বেসিক ব্যাংক ডিএমডি (ইনসিটু) মো. আবুল কালাম আজাদকে একই ব্যাংকের ডিএমডি করা হয়েছে, জনতা ব্যাংক ডিএমডি (ইনসিটু) শ্যামল কৃষ্ণ সাহা অগ্রণী ব্যাংকের ডিএমডি এবং রূপালী ব্যাংকের ডিএমডি (ইনসিটু) মো. গোলাম মরতুজাকে জনতা ব্যাংকের ডিএমডি পদে বদলি করা হয়েছে।

উপসচিব মীনাক্ষী বর্মনের সই করা এই বদলির প্রজ্ঞাপন আজ থেকেই কার্যকর হবে।


আরও খবর

আরেক দফা বাড়ল এলপিজির দাম

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




জানুয়ারিতেই মিক্সড রিয়েলিটি হেডসেট আনবে অ্যাপল

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২৩ সালের জানুয়ারিতেই বাজারে মিক্সড রিয়েলিটি হেডসেট আনতে যাচ্ছে কুপারটিনোভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপল। এরই মধ্যে ডিভাইসের সামগ্রিক নকশা প্রণয়নের কাজ সম্পন্ন করেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি জায়ান্টটি।  সম্প্রতি ব্লুমবার্গ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গিয়েছে। পাওয়ার অন নিউজলেটারে সর্বশেষ প্রকাশিত প্রতিবেদনে মার্ক গুরম্যান জানান, আধুনিক চিপ, ডিসপ্লে, সেন্সর ও অ্যাভাটারভিত্তিক ফিচার নিয়ে আগামী বছরের শুরুতে নিজেদের প্রথম ফ্ল্যাগশিপ হেডসেট ডিভাইস আনতে যাচ্ছে অ্যাপল।

অ্যাপল একটি এআর/ভিআর হেডসেট বা মিক্সড রিয়েলিটি হেডসেট নিয়ে কাজ করছে প্রযুক্তি বাজারে, এমন গুঞ্জন চলছে বেশ কিছুদিন ধরেই। সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, টিম কুকের দল ডিভাইসের নকশার কাজ গুছিয়ে এনেছে এবং ডিভাইসটি উন্মোচন করতে খুব বেশি সময় নেবে না বলে জানা গিয়েছে। আর্স টেকনিকা প্রকাশিত আরেকটি প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাপল সম্প্রতি যে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞাপন দিয়েছে, তা বিশ্লেষণ করলে মনে হতে পারে যে নতুন ডিভাইসের জন্য কনটেন্ট নির্মাতাদের খোঁজা হচ্ছে। চাকরির বিজ্ঞাপনগুলোর বিবরণ বলছে, ত্রিমাত্রিক মিক্সড-রিয়েলিটি দুনিয়া নির্মাণে অংশ নিতে হবে আগ্রহীকে।

চাকরির বিজ্ঞাপন বিশ্লেষণ করে মার্ক গুরম্যান জানান, সম্ভবত নতুন হেডসেটের জন্য আলাদা ভিডিও সেবা দাঁড় করাতে চায় অ্যাপল। অন্যদিকে স্বচালিত গাড়ি প্রকল্পের জ্যেষ্ঠ প্রকৌশলীদের কয়েকজনকে মিক্স রিয়েলিটি পণ্য নির্মাতা দলে পাঠিয়েছে কোম্পানিটি। তার দাবি, অ্যাপলের হেডসেটের ভেতরে-বাইরে অন্তত ১০টি ক্যামেরা থাকবে। এছাড়াও বড় পরিসরে বাজারজাতকৃত হেডসেটগুলোর মধ্যে সবচেয়ে হাই-রেজল্যুশনের ডিসপ্লে থাকবে। গুরম্যান আরো বলেন, হেডসেটটি রিয়েলিটি ওএস নামের নতুন অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত হবে। মেসেজেস, ম্যাপস, ফেসটাইম ও অন্যান্য অ্যাপের মিশ্র সংস্করণও আনবে প্রযুক্তি জায়ান্টটি।

অ্যাপল নতুন হেডসেটটিকে রিয়েলটি প্রো অথবা রিয়েলিটি ওয়ান নামে বাজারজাত করতে পারে বলে ধারণা করছেন মার্ক। বাজারজাতের সময় এর মূল্য ২-৩ হাজার ডলারের মধ্যে থাকতে পারে, যা বর্তমানে প্রচলিত হেডসেটগুলোর তুলনায় দামি। প্রযুক্তি খাতের অপর এক বিশ্লেষক মিং-চি কুওর মতে, আগামী বছরের জুনে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ডেভেলপার সম্মেলনকে সামনে রেখে ২০২৩ সালের শুরুতেই অ্যাপল নতুন মিক্সড রিয়েলিটি হেডসেট উন্মোচন করতে পারে। মার্চ থেকে প্রতিষ্ঠানটি নতুন হেডসেটের উৎপাদন শুরু করতে পারে বলেও ধারণা প্রযুক্তিবিদ ও বিভিন্ন সংস্থার।


আরও খবর

হাইড্রোজেন দিয়ে উড়বে উড়োজাহাজ

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২

পুরোনো টুইট আর্কাইভ করবেন যেভাবে

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২