Logo
শিরোনাম

আজকের রাশিফল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজকের রাশিফল এর ওপর চোখ রেখে শুরু করুন আপনার দিন। রাশিফল হল জ্যোতিষ শাস্ত্রের একটি অন্যতম অঙ্গ। বহু মানুষ রাশিফলের দিকে নজর রেখেই পদক্ষেপ নেন জীবনে। কারণ, রাশিফলই আপনাকে জানিয়ে দিতে পারে গোটা দিনের এক সামগ্রিক ছবি। পাশাপাশি, জীবনে চলার প্রতিটি পদক্ষেপে আপনার ভাগ্যের চাকা কোন দিকে ঘুরছে সে সম্পর্কেও আঁচ পেতে পারেন আপনি। এছাড়াও, সতর্ক হওয়া যায় আসন্ন বিপদ থেকেও। তাই, জেনে নিন কেমন যাবে আপনার দিনটি:

মেষ রাশি:

মেষ জাতকরা আজ ব্যবসায় নিজের পুরনো কাজ মিটিয়ে নিতে পারেন, এই কাজের জন্য সময় অনুকূল। নতুন ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা হবে, এর ফলে লাভের সম্ভাবনা রয়েছে। স্থাবর সম্পত্তি কেনার পরিকল্পনা করতে পারেন মেষ রাশির জাতকরা। সফ্টওয়্যার কোম্পানিতে যাঁরা কাজ করছেন, তাঁদের জন্য আজকের দিনটি ভালো। দাম্পত্য জীবনে মাধুর্য থাকবে। কর্মক্ষেত্রে নিজের প্রভাব বিস্তার করবেন এই রাশি জাতকরা। ভালো ধন লাভ করবেন। পরিবারের প্রয়োজনীয়তার বিষয় যত্নবান হবেন।

বৃষ রাশি:

বৃষ জাতকরা আজ যদি নিজের কিছু অভ্যাস পরিবর্তন করতে পারেন, তা হলে আজকের দিনটি খুব ভালো কাটবে। পুরনো লগ্নির ফলে যে অর্থ লাভ করবেন, তা আপনার আর্থিক পরিস্থিতিকে আরও শক্তিশালী করে তুলবে। যুবকরা হই-হুল্লোড় করে দিন কাটাবেন। কর্মক্ষেত্রে বৃষ রাশির জাতকদের কাজের প্রশংসা হবে। আজ আপনি নিজের পরিবারের যত্ন নেবেন ও তাঁদের প্রয়োজনীয়তাগুলি পূর্ণ করার চেষ্টা চালাবেন। ঈশ্বরের আরাধনায় মনোনিবেশ করবেন। গৃহস্থ জীবনে ভালোবাসা ও বোঝাপড়ার পাশাপাশি রোম্যান্স থাকবে।

মিথুন রাশি:

আজ মিথুন রাশির জাতকরা আলস্যের সঙ্গে দিন শুরু করবেন। কর্মক্ষেত্রে আপনার প্রচেষ্টাগুলি পরিচিতি লাভ করবে। ফাইন্যান্স সংক্রান্ত বিষয় সাবধানতা অবলম্বন জরুরি। এই রাশির যে জাতকরা খুচরো ব্যবসার সঙ্গে জড়িত, তাঁরা এ সময় অধিক পরিমাণে জিনিস তুলে রাখবেন না। নিজের মধুর ভাষার জোরে অন্যকে নিজের প্রতি আকৃষ্ট করতে পারবেন।

কর্কট রাশি:

কর্কট রাশির জাতকরা আজ নিজের চিন্তাভাবনা ব্যক্ত করা থেকে নিজেকে আটকাবেন না। আপনার মনে যা আছে, তা বলে দিন। নিজের গুণ বৃদ্ধির প্রচেষ্টা চালিয়ে যান। সাহিত্যিকরা আজ কোনও বড়সড় সুসংবাদ পেতে পারেন। চাকরিতে সাফল্য লাভ করবেন কর্কট রাশির জাতকরা। ব্যবসায় ধন লাভের প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। পরিবারিক কলহ সমাপ্ত হবে। সময়ের সদ্ব্যবহার করুন। কুসঙ্গ এড়িয়ে যান। যুবকদের মা-বাবার কথা শোনা উচিত।

সিংহ রাশি:

আজ সিংহ রাশির জাতকদের ভাগ্যের তারা উজ্জ্বল থাকবে। আয় বৃদ্ধির ফলে আর্থিক পরিস্থিতি ভালো হবে। আকস্মিক কোনও কাজ চলে আসবে, যার ফলে আপনার পরিকল্পিত কাজে পরিবর্তন করতে হতে পারে। কাজ করার জন্য দিন ভালো। কাজের ক্ষেত্রে লাভজনক ফল পাবেন সিংহ রাশির জাতকরা। নিজের জীবনসঙ্গীকে কোনও উপহার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিতে পারেন।

কন্যা রাশি:

কন্যা জাতকরা আজ পরিবারের সদস্যদের প্রত্যাশা পূরণ করবেন। উপহার ও সম্মান লাভ করতে পারেন এই রাশির জাতকরা। কর্মক্ষেত্রে নিজের লক্ষ্যে নজর টিকিয়ে রাখুন। আর্থিক অনটন থেকে মুক্তি পেতে হলে অপব্যয় বন্ধ করতে হবে। কারও সঙ্গে বিবাদের পরিস্থিতি আপনার পক্ষে উপযোগী হবে না। এমন কোনও ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে উঠবে, যাঁরা আপনার কাজে সাফল্য লাভের সহযোগী হবেন।

তুলা রাশি:

আজকের দিনটি তুলা রাশির জাতকদের জীবনে সোনালী সময় নিয়ে আসবে। বুদ্ধি ও কৌশলের সাহায্যে যে কাজ করবেন, তাতে সফল হবেন। ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বসে আলোচনা করবেন। পরিবারের সঙ্গ পাবেন এই রাশির জাতকরা। তাই পরাজয় স্বীকার করবেন না। দৃঢ় হস্তে কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা করুন। পারিবারিক পরিবেশ অনুকূল থাকবে।

বৃশ্চিক রাশি:

বৃশ্চিক রাশির জাতকরা আজ নিজেকে নতুন কোনও পরিবর্তনের জন্য প্রস্তুত রাখুন। কর্মক্ষেত্রে পরিপক্বতা ও গাম্ভীর্য দেখান। কাজে বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। আর্থিক পরিস্থিতি উন্নত হতে পারে। বৃশ্চিক জাতকদের কেরিয়ার সংক্রান্ত সমস্যা দূর হবে। কোনও বিবাহ বা শুভ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারেন। মনে আনন্দ থাকবে।

ধনু রাশি:

ধনু রাশির জাতকদের আজকের দিন আনন্দে ভরপুর থাকবে। মনের মধ্যে টাকা-পয়সার বিষয়ে নানান ধরনের চিন্তা আসতে পারে। ব্যবসা সম্প্রসারণের নতুন পদ্ধতি সম্পর্কে চিন্তাভাবনা করতে পারেন এই রাশির জাতকরা। দামী জিনিস কেনার জন্য সময় অনুকূল। কোনও নতুন ব্যবসা করার চিন্তা মনের মধ্যে খেলা করবে। এই পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করার চেষ্টা করতে পারেন। ভাগ্যের সঙ্গ পাবেন। আধিকারিকরা আপনাকে বড়সড় দায়িত্ব দেবেন।

মকর রাশি:

মকর রাশির জাতকদের ব্যক্তিত্ব চারদিকে ছড়িয়ে পড়বে। নিজের প্রতিভা ও যোগ্যতা প্রমাণ করার সুযোগ পাবেন মকর রাশির জাতকরা। সরকারি চাকরির সঙ্গে জড়িত জাতকরা পদোন্নতি লাভ করতে পারেন। এই রাশির যে জাতকরা আর্থিক সমস্যায় দিন কাটাচ্ছেন, তাঁরা কিছুটা স্বস্তি পেতে পারেন। বন্ধু বা পরিচিত ব্যক্তিদের সঙ্গে দেখা হতে পারে। এর ফলে আপনার মুখে হাসি লেগে থাকবে।

কুম্ভ রাশি:

কুম্ভ জাতকদের চিন্তাভাবনায় পরিবর্তন দেখা দেবে। উৎসাহের সঙ্গে ব্যবসায়িক পরিকল্পনায় সাফল্য অর্জন করবেন এই রাশির জাতকরা। পুরনো লগ্নি থেকে ভালো রিটার্ন পাবেন। যুবকরা কেরিয়ারে ভালো বিকল্পের খোঁজে থাকবেন। বিবাহের আলোচনায় সাফল্য লাভ করবেন এই রাশির জাতকরা। টাকা-পয়সার জন্য আজকের দিনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর্থিক মামলার জন্য দিন ভালো। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে কথা হতে পারে।

মীন রাশি:

মীন রাশির জাতকদের জন্য বাণীই তাঁদের আশীর্বাদ। আজ এই রাশির কাপড় ব্যবসায়ীরা হতাশ হতে পারেন। তাড়াতাড়ি লাভ অর্জনের জন্য ভুল পথে হাঁটবেন না। পারিবারিক সমস্যার সমাধান হবে। আপনার বাকচাতুর্যের জোরে যে কোনও ক্ষেত্রে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছবেন। ছাত্ররা পড়াশোনায় মনোনিবেশ করতে পারবেন না। মহিলারা বাড়ির পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় ব্যস্ত থাকবেন।

নিউজ ট্যাগ: রাশিফল

আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




বন্দিদের খাওয়ানো হত মরা ইঁদুর, এটিই বিশ্বের ভয়ংকরতম জেল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বের দরবারে কুখ্যাত তকমা পাওয়া এই কারাগারের নাম তাদমোর। বিখ্যাত বেসরকারি সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল-এর মতে এই কারাগারটিকে নরক বললেও কম বলা হবে। এর কারণ বন্দিদের উপর হওয়া নিয়মিত মারধর এবং নির্যাতন।

তাদমোর কারাগারটি সিরিয়ার পালমিরায়। ফরাসিরা ১৯৩০-এর দশকে আরবের মরুভূমির কেন্দ্রে তৈরি করে এই কারাগারটি। মূলত, এটি সামরিক বাহিনীর সেনাছাউনি হিসাবে তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু ১৯৮০-এর পর এই জায়গার ব্যবহারে বদল আসে। তাদমোর কারাগারের বন্দিদের জীবন দুর্বিষহ করে তোলার পিছনে যে মানুষের হাত ছিল বলে মনে করা হয়, তিনি সিরিয়ার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট হাফিজ আল-আসাদ।

১৯৮০ সালে আল-আসাদের উপর প্রাণঘাতী আক্রমণ করা হয়। কিন্তু তিনি প্রাণে বেঁচে যান। আল-আসাদের উপর আক্রমণের দায় বর্তায় দ্য সোসাইটি অব দ্য মুসলিম ব্রাদার্স-এর উপর। এর পরই আল-আসাদের ভাই রিফাত গণহত্যার আদেশ দেন। মনে করা হয় এই গোষ্ঠীর প্রায় হাজার সদস্যকে মেরে তাঁদের মৃতদেহ তাদমোর কারাগারের বাইরে কবর দেওয়া হয়।

তাদমোর কারাগারের বন্দিদের বহির্বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন রাখা হয়। এখানে থাকা বন্দিদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করা তো দূর অস্ত্‌, একে অপরের সঙ্গেও দেখা করার সুযোগ দেওয়া হত না। একে অপরের সঙ্গে কথা বললে যে কোনও সময়ে দেওয়া হত মৃত্যুদণ্ডের আদেশ। তাদমোর কারাগারে বন্দিদের মাথা তোলার, উপরে তাকানোর বা একে অপরের দিকে তাকানোর অনুমতি পর্যন্ত দেওয়া হত না।

তাদমোর কারাগারটি বৃত্তাকার। এই কারাগারটি এমন ভাবেই তৈরি করা হয়েছিল, যাতে প্রহরীরা যে কোনও সময়ে সমস্ত বন্দির উপর নজর রাখতে সক্ষম হন। ১৯৮০ থেকে ১৯৯০ সালের মধ্যে প্রায় ২০ হাজার মানুষকে এই কারাগারে বন্দি হিসেবে রাখা হয়েছিল, যাঁদের মধ্যে একটি বড় অংশ ছিলেন রাজনৈতিক কর্মী। এক সময়ে তাদমোর কারাগার বন্দিদের সংখ্যা এতটাই বেড়ে গিয়েছিল যে, বন্দিদেরকে পালা করে ঘুমানোর সুযোগ দেওয়া হত। যখন কিছু বন্দি ঘুমোতেন, তখন বাকিদের দাঁড় করিয়ে রাখা হত। কারারক্ষী ও কারাগার কর্তৃপক্ষ কখনওই কোনও বন্দিদের প্রতি দয়া দেখাতেন না। দয়া দেখানো হয়নি সিরিয়ার কবি ফারাজ বায়রাকদারকেও। তাঁকেও চার বছর এই কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছিল।

ফারাজ নিজের লেখা বইয়ে এই কারাগারকে মৃত্যু ও উন্মাদনার রাজ্য হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন। ফারাজ ব্যাখ্যা করেন, সমস্ত বন্দিকে সারা দিন অবরুদ্ধ রাখা হত। কোনও বন্দি যদি শ্বাসকষ্ট হচ্ছে বলে জানাতেন, তা হলে তাঁদের কারাগার চত্বরের উঠোনের চারপাশে দৌড়াতে বলা হত। এর ফলে শ্বাস আটকে মারাও যেতেন অনেকে। কখনও কখনও আবার শুধু পিটিয়ে হত্যা করা হত কারাগারের বন্দিদের। ফারাজের বইতে বন্দিদের জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় নির্যাতনের কিছু পদ্ধতির উল্লেখ রয়েছে।

কারাগারে ঢোকার পরপরই বন্দিদের নিষ্কাশনের জন্য ব্যবহৃত একটি ড্রেনের জল খেতে বলা হত। অন্য এক বন্দি মোস্তফা খলিফার মতে, যাঁরা এই জল খেতে অস্বীকার করতেন, তাঁদের সেখানেই মেরে ফেলা হত। বইয়ে উল্লেখ রয়েছে যে, এক কারাবন্দিকে এক দল প্রহরী একবার মৃত ইঁদুর গিলে খেতে বাধ্য করে। ওই ব্যক্তি মৃত ইঁদুরটি খেয়ে মারা না গেলেও কিছু মাস পর তিনি পাগল হয়ে যান। ফারাজের বইটিতে বলা হয়, এক বয়স্ক বন্দিকে এক বার মাটিতে শুইয়ে সারাদিন ধরে এক জন কারা অফিসারের বুট চাটতে বলা হয়েছিল। নিয়মিত বেত্রাঘাত তো ছিলই। পাশাপাশি বন্দিদের একই জায়গায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে বাধ্য করা হত যত ক্ষণ না তাঁরা মারা যান।

তবে ফারাজের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর স্মৃতি একজন বন্দিকে মানব ট্রামপোলিন হিসাবে ব্যবহার করা। এই প্রক্রিয়ায় বন্দিকে মাটিতে শুইয়ে প্রহরীরা তাঁর উপর দাঁড়িয়ে লাফাতেন। যত ক্ষণ না ওই বন্দি ঘাড় বা মেরুদণ্ড ভেঙে মারা যান, তত ক্ষণ এই প্রক্রিয়া চলতে থাকত। ২০১৫ সালে ইসলামিক স্টেট (আইসিস) এই কারাগারটি দখল করে নেয়। এর পর এই কারাগারের ভিতরের ছবি প্রকাশ পায়। অধিগ্রহণের নয় দিন পরে আইসিস এই কারাগার বোমা মেরে উড়িয়ে দেয়।


আরও খবর



নদী দখল করে মাছ চাষ, জানে না পাউবো

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২৬জন দেখেছেন

Image

বাগেরহাট প্রতিনিধি:

বাগেরহাট সদর উপজেলার ডেমা ইউনিয়নের হোজির নদী দখল করে মাছ চাষের অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগের ২০ নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে।

হোজির নদীর অন্তত তিনটি স্থানে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করছেন ডেমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের এসব নেতা-কর্মী।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দখল করে রাখার ফলে কোটি টাকা ব্যয়ে পুনর্খনন করা এই নদীর কোনো সুফল পাচ্ছেন না তারা।

বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, নদী দখলের বিষয়টি তাদের জানা নেই। তবে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন বাগেরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

যেখানে নদী দখল করা হয়েছে, সেখানে গিয়ে দেখা যায় ডেমা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের খেগরাঘাট ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাশিমপুর গ্রামের মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া হোজির নদীর ওপর নির্মিত সেতুর নিচ থেকে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষের সুবিধার জন্য পানির প্রবাহ সৃষ্টি করা হয়েছে। ওই বাঁধের ওপর নির্মাণ করা হয়েছে মাছ চাষের খাবারসহ বিভিন্ন মালামাল রাখার খুপরি ঘর।

সেখানে যাওয়ার পর মৎস্য ঘের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নিয়োজিত কয়েকজন এগিয়ে এলে কথা হয় তাদের সঙ্গে। নাম প্রকাশ না করে তারা জানান, এখানে চিংড়িসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষ করা হয়।

নদীটির মাঝখানের এই সেতুটির নিচের এই বাঁধ দিয়ে ঘেরের দুটি অংশ ভাগ করা হয়েছে। নদীর দুই পাশের দুই গ্রামের লোকজনই এখানে মাছ চাষ করেন বলে জানান তারা।

নদীপাড়ের বাসিন্দা বৃদ্ধ কালাম শেখ বলেন, হোজির নদীতে একসময় বড় বড় নৌকা চলতে দেখেছি। একটা সময় পলি মাটিতে গভীরতা কমে গিয়ে ছোট হয়ে যায় নদীটি। মূলত সেই থেকেই নদীটি স্থানীয় প্রভাবশালীদের দখলে চলে যায়।

এরপর যে দল যখন ক্ষমতায় থেকেছে, সেই দলের লোকজনই প্রভাব খাটিয়ে নদীটি দখলে রেখেছে। এখন আওয়ামী লীগের লোকজন দখল করে মাছের ঘের করছে।

কাশিমপুর গ্রামের বাসিন্দা ইলিয়াস হোসেন বলেন, কিছুদিন আগে নদীটি খনন করা হয়েছে। কিন্তু এতে আমাদের কী লাভ হলো? আওয়ামী লীগ নেতা রবিউল ইসলামসহ কয়েকজন প্রভাব খাটিয়ে নদীটি বছরের পর বছর ধরে দখল করে রাখলেও এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ডেমা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম নদী দখল করে মাছ চাষের কথা স্বীকার করে বলেন, শুধু আমি একা না, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ও ডেমা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফরিদ মোল্লা, ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নকিব হাই, ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ফরাদ শেখ ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সাইফুল ফকিরসহ বিভিন্ন পর্যায়ের ২০ থেকে ২২ জন রয়েছেন। এরা সবাই এই ঘেরের অংশীদার।’

নদীতে বাঁধ দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই বাঁধ আমরা দেইনি। নদী খননের সময় এটি দেয়া হয়েছিল। আমরা শুধু খুপরি ঘর ও নদীর পানি প্রবাহের জন্য একটি পকেট গেট নির্মাণ করেছি। এ বছর এখন পর্যন্ত আমাদের প্রায় ৭ লাখ টাকার গলদা, বাগদা, রুই ও কাতলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ ছেড়েছি।’

নদী দখল করে মাছের চাষ বৈধ কি না জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, এটা অবৈধ আমরা সবাই জানি। প্রায় ৩০/৩৫ বছর ধরে এই নদীতে মাছ চাষ করা হচ্ছে। কেউ কখনও বাধা দেয়নি। প্রশাসন না চাইলে আমরা মাছ চাষ করব না।’

বাগেরহাট সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাব্বেরুল ইসলাম বলেন, বাঁধ অপসারণ করে মাছ চাষ না করার জন্য ওই এলাকায় মাইকিং করতে ডেমা ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সরেজমিন পরিদর্শন করে ব্যবস্থা নেব।’

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনি মল্লিক বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশক্রমে ওই এলাকায় মাইকিং করে সবাইকে সর্তক করা হয়েছে। নদীটি দখলমুক্ত করার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে।’

যোগাযোগ করা হলে বাগেরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুম বিল্লাহ বলেন, নদী দখল করে মাছ চাষের বিষয়টি জানা নেই। খোঁজ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

হোজির নদী খননে কত টাকা ব্যয় হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাড়ে আট কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের নদীটি খননের জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ৬ কোটি ৯৪ লাখ টাকার চুক্তি করা হয়েছে।’

নিউজ ট্যাগ: পাউবো বাগেরহাট

আরও খবর



পদ্মায় ট্রলারডুবি: নিখোঁজ ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:সোমবার ২৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে ঢাকায় ফেরার পথে পদ্মা নদীতে  ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর ছাত্রলীগ নেতা আফছার তামিমের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (২৭ জুন) বিকেল ৩টায় পদ্মার সিডার চর থেকে তার ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করা হয়। চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত তামিম ভোলার চরফ্যাশন পৌর ৪ নম্বর ওয়ার্ডের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এম মজির উদ্দিনের ছেলে ও চরফ্যাশন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন।

জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সিডার চর এলাকা থেকে উদ্ধারের পর তার আত্মীয়রা মরদেহটি তামিমের বলে শনাক্ত করেছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।

গত শনিবার (২৫ জুন) দুপুরে পদ্মা সেতু উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে কাঁঠালবাড়ি থেকে ১৫-২০ জন ছাত্রলীগ কর্মী একটি ট্রলার নিয়ে ঢাকায় ফিরছিলেন। হঠাৎ পদ্মায় স্রোতে তাদের ট্রলারটি ডুবে যায়। ট্রলারে থাকা অন্যরা উদ্ধার হলেও নিখোঁজ থাকে তামিম নামে একজন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল নোমান বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতের মরদেহ ভোলায় নিয়ে আসার প্রক্রিয়া চলছে।


আরও খবর



স্ত্রীর বাবা-মাকে দায়ী করে ফেসবুক লাইভে যুবকের বিষপান

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন দৌলতপুরে স্ত্রীর বাবা-মাকে দায়ী করে ফেসবুক লাইভে এসে বিষপান করেন আরফান হাসান (২০) নামে এক যুবক। রোববার দুপুরে তার নিজ বাড়িতে এ ঘটনাটি ঘটে। আরফান হাসান দৌলতপুর গ্রামের মো. শাহজাহান মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, ওই গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে আরফান হাসানের সঙ্গে একই ইউনিয়নের পূর্ব কৃষ্ণনগর গ্রামের মফিজুল ইসলামের মেয়ে মাহিমা আক্তারের দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত তিন মাস পূর্বে তাদের কোর্ট ম্যারেজ হয়। এর পর তাদের বিয়ে মেনে নিবে বলে বলে মেয়ের মা তাদের বাড়িতে আনে। পরবর্তীতে মেয়েকে জোর করে মেয়ের বাবা তাদের বাড়িতে নিয়ে যান এবং তাদের এই বিয়ে মেনে নিবে না বলে জানান।

এ ঘটনায় রোববার দুপুরে নিজের ফেসবুক থেকে লাইভে এসে স্ত্রীর বাবা ও মাকে দায়ী করে বিষপান করেন আরফান।বিষপানের পর স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেলে ঘরের দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করে নবীনগর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

এ বিষয়ে নবীনগর থানার ওসি মো আমিনুর রশীদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ছেলে এবং মেয়ে দুজনেই অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় পরিবার তাদের এই সম্পর্ক মেনে না নেওয়ায় ওই যুবক বিষ পানে আত্মহত্যা চেষ্টা করেছে। তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল থেকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে।

 


আরও খবর



বন্যার্ত মানুষকে অর্থ সহায়তা দিচ্ছেন শাকিব খান

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভয়াবহ বন্যায় ভাসছে দেশের উত্তর-পূর্ব অঞ্চল। সিলেট ও সুনামগঞ্জের অধিকাংশ এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে দুর্বিসহ দিন পার করছেন। প্রতিনিয়ত বন্যার পানির উচ্চতা বেড়েই যাচ্ছে। পরিস্থিতি এতোটাই প্রতিকূল যে, পর্যাপ্ত সহযোগিতাও করতে পারছে না প্রশাসন। এই দুর্যোগে বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান। তিনি সুদূর যুক্তরাষ্ট্র থেকেই এখানকার মানুষকে সহায়তা দিচ্ছে বলে জানালেন। ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়ে শাকিব বলেন, এই মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে থাকলেও সংবাদমাধ্যম ও শুভাকাঙ্খীদের কাছ থেকে জেনেছি, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি সিলেট ও সুনামগঞ্জের বন্যা পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। বন্যা কবলিত মানুষের দুর্দশা আমাকে ভীষণভাবে কষ্ট দিচ্ছে। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়া মানুষের পাশে আছি। তাদের মৌলিক চাহিদা পূরণে আমার সামর্থ্যের মধ্যে অর্থ সহায়তা পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছি।

সামর্থ্যবানদের প্রতিও সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন শাকিব খান। একটি তহবিল গঠনের পরিকল্পনা করছেন তিনি। যেখানে অন্যরাও সাধ্য অনুযায়ী অর্থ সহায়তা দিতে পারবেন। এরপর সেই অর্থ শাকিবের তত্ত্বাবধানে পৌঁছে যাবে সিলেট-সুনামগঞ্জের বানভাসি মানুষের কাছে। তহবিলের জন্য শাকিব একটি ইমেইল অ্যাকাউন্ট চালু করেছেন। সেটি হলো [email protected] । বন্যা কবলিতদের যেকোনো ধরণের সহযোগিতার জন্য এই ইমেইলে যোগাযোগ করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

শাকিব বলেছেন, বাংলাদেশ ও প্রবাসে থাকা আগ্রহী বিত্তবানদের কাছে আহ্বান- আপনারাও নিজেদের সামর্থ্যের মধ্য থেকে বানভাসি অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান।


আরও খবর

২৭ বছরের সম্পর্কে ইতি টানলেন মীর!

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২

বড় পর্দায় বাম-কংগ্রেস সন্ত্রাস

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২