Logo
শিরোনাম

আজকের রাশিফল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজকের রাশিফল (Ajker Rashifal)-এর ওপর চোখ রেখে শুরু করুন আপনার দিন। রাশিফল হল জ্যোতিষ শাস্ত্রের একটি অন্যতম অঙ্গ। বহু মানুষ রাশিফলের দিকে নজর রেখেই পদক্ষেপ নেন জীবনে। কারণ, রাশিফলই আপনাকে জানিয়ে দিতে পারে গোটা দিনের এক সামগ্রিক ছবি। পাশাপাশি, জীবনে চলার প্রতিটি পদক্ষেপে আপনার ভাগ্যের চাকা কোন দিকে ঘুরছে সে সম্পর্কেও আঁচ পেতে পারেন আপনি। এছাড়াও, সতর্ক হওয়া যায় আসন্ন বিপদ থেকেও।

তাই, জেনে নিন কেমন যাবে আপনার দিনটি:

মেষ রাশি:

মেষ জাতকরা আজ কোনও সুসংবাদ লাভ করবেন। বাড়ির দায়িত্ব পূরণের উদ্দেশে নতুন কিছু সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। ব্যবসা ও রোজগারে ভলো ফলাফল লাভ করবেন। মেষ জাতকরা চাকরিতে ভালো ধন লাভ করতে পারেন। পদোন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে। এই রাশির ব্যবসায়ীদের লাভের প্রবল যোগ রয়েছে। বাবার কাজে আপনার সহযোগিতা প্রশংসনীয় থাকবে। কর্মক্ষেত্রে সহকর্মীরা আপনার প্রতি ঈর্ষান্বিত থাকবেন।

বৃষ রাশি:

বৃষ রাশির জাতকদের ব্যক্তিত্বে নতুন আকর্ষণ দেখা যাবে। উৎসাহে ভরপুর দিন কাটাবেন এই রাশির জাতকরা। পরিবারের সদস্যরা আপনাদের সঙ্গে ভালো ভাবে দিন কাটাবেন। নিজের যোগ্যতা ও বোঝাপড়ার মাধ্যমে সমস্ত কাজ পূর্ণ করবেন এই রাশির জাতকরা। ব্যবসায় আকস্মিকই সুসংবাদ পেতে পারেন। আধিকারিকদের নিজের কথা খুলে বলার সঠিক সময় এটি।

মিথুন রাশি:

মিথুন রাশির জাতকদের আজকের দিনটি বিশেষ ভাবে কাটবে। মনে কোনও কথা থাকলে, তা আজ প্রকাশ করুন। উন্নতির নতুন পথ প্রশস্ত হবে। এই রাশির মহিলাদের নিজের কেরিয়ার সম্পর্কে আরও গভীর ভাবে চিন্তাভাবনা করতে হবে। সম্পত্তি ক্রয়ের জন্য দিন শুভ। টাকা-পয়সার লেনদেনে সাবধানতা অবলম্বন করুন।

কর্কট রাশি:

কর্কট রাশির জাতকদের আজকের দিনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই রাশির যে জাতকরা কাপড়ের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত, তাঁদের ভালো লাভ হবে। ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে লগ্নি করতে পারেন। দায়িত্বপূর্ণ কোনও কাজে গাফিলতি করবেন না। পরিবারে শুভ অনুষ্ঠান আয়োজিত হতে পারে এবং আপনি এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। আনন্দে দিন কাটবে।

সিংহ রাশি:

সিংহ রাশির জাতকরা কারও কোনও কথায় মনে কষ্ট নিয়ে বসে থাকবেন না। চাকরিজীবীদের আর্থিক দিক দিয়ে সক্ষম হতে হবে। সিংহ রাশির জাতকরা ব্যবসায় অসাধারণ ফলাফল লাভ করবেন। কাজের ক্ষেত্রে প্রচেষ্টা করলে ভালো ফলাফল পাবেন। আবার কারও সহযোগিতার ফলে কাজের ক্ষেত্রে ভালো লাভ অর্জনের সম্ভাবনা রয়েছে। নিজের ইচ্ছানুযায়ী পরিকল্পনা পূরণ করবেন।

কন্যা রাশি:

কন্যা রাশির জাতকদের একাধিক কাজ পূর্ণ হতে পারে। জীবনসঙ্গীর সহযোগিতায় সম্পত্তি সংক্রান্ত কাজ হাতে নিতে পারেন। নিজের সময়ের সদ্ব্যাবহার করুন। এর ফলে লাভ হবে। ব্যবসায়ীরা ভালো ফলাফল লাভ করবেন, যা ধন লাভের যোগ সৃষ্টি করবে। ব্যয় নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করুন। বাড়ির জরুরি কাজে অংশগ্রহণ করবেন।

তুলা রাশি:

তুলা জাতকরা কাজের ভালো সুযোগ পাবেন। পারিবারিক ব্যবসায় জীবনসঙ্গীর কথা শুনে চলতে হতে পারে। ব্যবসায়ীরা সরকারি নিয়মের কারণে সমস্যায় পড়তে পারেন। ছাত্ররা পড়াশোনায় মনোনিবেশ করবেন না। চাকরিজীবীরা বিভিন্ন বাধার কারণে চিন্তিত থাকবেন। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে নতুন বন্ধুত্ব গড়ে উঠতে পারে।

বৃশ্চিক রাশি:

বৃশ্চিক রাশির জাতকরা আজ কোনও অজ্ঞাত উৎস থেকে অর্থ লাভ করতে পারেন। নতুন প্রকল্পে কাজ করার ফলে অনেক কিছু শিখতে পারবেন। যুবকরা উচ্চশিক্ষা লাভের ভালো সুযোগ পাবেন। মা-বাবার সঙ্গে শপিং করতে যেতে পারেন। পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে বার্তালাপ হতে পারে। মনে আনন্দ থাকবে।

ধনু রাশি:

ধনু রাশির জাতকদের ইতিবাচক চিন্তাভাবনার কারণে পরিবারের সদস্যরা আনন্দিত থাকবেন। ব্যাঙ্কিং সেক্টারের সঙ্গে জড়িত জাতকদের লাভ হতে পারে। অসম্পূর্ণ ফেলে রাখা সম্পত্তি সংক্রান্ত ডিলের মাধ্যমে লাভ হতে পারে। মানসিক আলস্য শেষ হবে। সমস্ত দিক থেকে সুসংবাদ পাবেন। সন্তানের তরফে মনে শান্তি থাকবে।

মকর রাশি:

মকর রাশির জাতকরা আজ নতুন কাজে মনোনিবেশ করতে পারেন। পরাক্রম ও সাহসের জোরে অর্থ উপার্জন করতে সফল হবেন। যুবকরা কেরিয়ার সংক্রান্ত নতুন তথ্য পাবেন। ব্যস্ততা সত্ত্বেও পরিবারের সদস্যদের জন্য সময় বের করবেন ও ভালো সময় কাটাবেন। অতীতের ঘটনার কারণে শুধুমাত্র বিবাদ বাঁধতে পারে। অপ্রয়োজনীয় সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন।

কুম্ভ রাশি:

কুম্ভ রাশির জাতকরা আজ নিজের কাজের কারণ অত্যন্ত গর্ব অনুভব করবেন। কোনও বিশেষ বিষয় আপনার চিন্তাভাবনা পরিবর্তন হতে পারে। আয় বৃদ্ধির ভালো সুযোগ পাবেন। কর্মক্ষেত্রে বরিষ্ঠ আধিকারিকদের কাছ থেকে প্রশংসা লাভ করতে পারেন। পদোন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে। অনলাইন লেনদেনে সাবধানতা অবলম্বন করুন। পড়ুয়ারা নিজের কেরিয়ারে সফল হবে।

মীন রাশি:

আজ মীন রাশির জাতকরা নিজের ওপর বিশ্বাস রাখুন। অধিক লাভ অর্জনের জন্য ব্যবসায় ভাই-বোনের সহযোগিতাও পাবেন। বন্ধুদের সহযোগিতায় কঠিন কাজ পূর্ণ করবেন। মহিলারা পারিবারিক জিনিস কেনা-কাটা করতে পারেন। পারিবারিক সুখ লাভ করবেন। সন্তানের প্রতি মনোনিবেশ করুন। ছাত্ররা নিজের পরিশ্রমের অনুকূল ফলাফল পাবেন।

নিউজ ট্যাগ: রাশিফল

আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




ফের করোনায় আক্রান্ত মির্জা ফখরুল

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ফের করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার (২৫ জুন) সন্ধ্যায় বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান এ তথ্য জানিয়েছেন।

শায়রুল বলেন, আজ ২৫ জুন সন্ধ্যা ৬টায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্যারের কোভিড-১৯ ভাইরাস সংক্রমণ পরীক্ষায় পজিটিভ পাওয়া গেছে। তিনি ডা. রায়হান রাব্বানীর তত্ত্বাবধায়নে আছেন।

চলতি বছর ১১ জানুয়ারি কোভিড-১৯ পজিটিভ হয়েছিলেন তিনি। করোনার বোস্টার ডোজও নিয়েছিলেন মির্জা ফখরুল।

আগামীকাল রোববার বেলা ১১টায় জিয়াউর রহমান সমাধিতে নবগঠিত যুবদল কমিটির নেতাদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর কথা ছিল। মির্জা ফখরুল করোনা আক্রান্ত হওয়ায় তা স্থগিত করা হয়েছে।


আরও খবর

করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১৮৩

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২




গাল মোটা হলে আপনার সমস্যা কোথায়? প্রশ্ন ভাবনার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা অনেক গুণর অধিকারী। অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি একাধারে নৃত্যশিল্পী এবং মডেল হিসেবেও কাজ করে থাকেন। তিন মাধ্যমেই নিয়মিত দেখা যায় তাকে। সমসাময়িক ইস্যুতেও বেশ সক্রিয় থাকতে দেখা যায় এই তারকাকে। ভাবনা এবার মুখ খুলেছেন মানুষের দৈহিক গড়ন নিয়ে অন্যদের নাক গলানো নিয়ে। এই অভিনেত্রীর মতে, সবার দেখতে একই রকম হওয়ার দরকার কী? কারো গাল মোটা থাকলে আপনার সমস্যা কোথায়? মানুষকে জাজ করা বন্ধ করুন।

মঙ্গলবার (২১ জুন) নিজের ফেসবুক পেজে মেকআপ ছাড়া একটি ছবি পোস্ট করে ক্যাপশনে এসব কথা লেখেন ভাবনা। তিনি লেখেন, মাঝে মাঝে এমন হয়, নিজের প্রতি কনফিডেন্স হারিয়ে ফেলি, কারণ আশেপাশের মানুষ, নাকটা একটু সোজা করতে হবে, ডাবল চিন ঠিক করতে হবে, আইব্রো এত নীচে নামানো, উঁচু করে ফেলতে হবে, ঠোঁট মোটা করতে হবে। আর ও কত কী, হ্যাঁ সবারই ইচ্ছা করে তাকে ভালো দেখাক, তবে মানুষের কথা শুনে না। জীবনে একটা জিনিসই করবেন না, সেটা হলো মানুষের কথা শোনা। আপনার পরিবার ছাড়া কেউ আপনাকে ভালো বুদ্ধি দেবে না । আমি এসবের বিপক্ষে না, তবে এই যে মানুষের কনফিডেন্স লো করে দেয়া, এটা আমার অপছন্দ।


সবশেষ ভাবনা প্রশ্ন রাখেন, সবার দেখতে একই রকম হওয়ার দরকার কী। কারো গাল মোটা থাকলে আপনার সমস্যা কোথায়? মানুষকে জাজ করা বন্ধ করুন।

উল্লেখ্য, ভাবনাকে সবশেষ দেখা গেছে নূরুল আলম আতিক পরিচালিত লাল মোরগের ঝুঁটি সিনেমায়। অভিনেত্রী সম্প্রতি শেষ করেছেন দামপাড়া সিনেমার কাজ। সিনেমাটির গল্প, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন আনন জামান। পরিচালনায় শুদ্ধমান চৈতন।


আরও খবর

২৭ বছরের সম্পর্কে ইতি টানলেন মীর!

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২

বড় পর্দায় বাম-কংগ্রেস সন্ত্রাস

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




জনগণের শক্তি নিয়েই পদ্মা সেতু করেছি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জনগণের শক্তিই বড় শক্তি। আমি সেটা বিশ্বাস করি। আর সে জন্যই পদ্মা সেতু করতে পেরেছি। শরীয়তপুরে জাজিরা পয়েন্টে পদ্মা সেতু উদ্বোধন ফলক উন্মোচন শেষে জনসভার বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ শনিবার বেলা সোয়া একটার পর সেখানে জনসভায় বক্তব্য শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই শরীয়তপুর কী ছিল। নদীপথ ছাড়া কিছুই ছিল না। লঞ্চে করে এসে লঞ্চ নষ্ট হয়ে গেছে। নৌকায় নৌকায় ঘুরেছি। এখন এখানে সড়ক ব্যবস্থা হয়েছে। পদ্মা সেতু হয়েছে।’

জনসভায় পদ্মা সেতু নিয়ে ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ড. ইউনুসের গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদ বাতিল হয়েছে। তাই তিনি আমেরিকায় গিয়ে ষড়যন্ত্র করছেন। পদ্মা সেতুতে নাকি দুর্নীতি হয়েছে। সেতুর কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছিল। আমি ঘোষণা দিয়েছিলাম। নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু করব। আমরা সেটা করেছি।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, আমার পাশে আপনারা জনগণ ছিলেন। জনগণের শক্তিই বড়। আর তাই আমরা পদ্মা সেতু করতে পেরেছি।’

জাজিরা প্রান্তে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী ফলক ও ম্যুরাল-২ উন্মোচন এবং মোনাজাত শেষে কাঁঠালবাড়ীর জনসভায় পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে সুধী সমাবেশে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি। এরপর প্রধানমন্ত্রী টোল পরিশোধ করে পদ্মা সেতুতে ওঠেন। সেতুতে কিছু সময় দাঁড়িয়ে তিনি জাজিরায় যান।

দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে জনসভা শেষ করে শরীয়তপুরের জাজিরার সার্ভিস এরিয়া-২-এর উদ্দেশে সড়কপথে যাত্রা করবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখানে কিছু সময় অবস্থান করবেন। পরে জাজিরা প্রান্ত থেকে হেলিকপ্টারযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওনা করবেন।

এর আগে আজ সকাল ১০টার দিকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়ার অনুষ্ঠানে পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর সফরসঙ্গীরা। সেখানে সুধী সমাবেশ শেষে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।


আরও খবর



বাংলাদেশের বন্যপ্রাণি (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন ২০১২

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের বন্যপ্রাণি (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন ২০১২ সংসদে ০৮ জুলাই, ২০১২ তারিখে কণ্ঠভোটে পাস হয়েছে। ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে মোট ১৩০৭টি প্রাণি ও উদ্ভিদকে সংরক্ষিত হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। এই আইনের ৩৬ ধারা অনুযায়ী বাঘ বা হাতি হত্যা করলে ২-৭ বছর কারাদণ্ড ও সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা জরিমানা দিতে হবে। একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটলে ১২ বছরের কারাদণ্ড ও ১৫ লাখ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড হবে। আইনের ৩৭ ধারা অনুযায়ী চিতা বাঘ, লামচিতা, উল্লুক, সাম্বার হরিণ, কুমির, ঘড়িয়াল, তিমি বা ডলফিন হত্যা করলে সর্বোচ্চ তিন বছরের কারাদণ্ড বা তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হবে। এই আইনের ৩৮ ধারা অনুযায়ী পাখি বা পরিযায়ী পাখি হত্যা করলে সর্বোচ্চ এক বছরের কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হবে। আইনে আরো বলা হয়েছে, লাইসেন্স ছাড়া কোনো ব্যক্তি কারো কাছ থেকে বন্য প্রাণি, বন্য প্রাণির কোনো অংশ, মাংস, ট্রফি বা কোনো দ্রব্য কিনলে সর্বোচ্চ ১ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা হবে।

এই আইনে আরো বলা হয়েছে, সরকারি বন, বনের অংশ, সরকারি ভূমি, জলাভূমি বা যে কোনো এলাকাকে গেজেট প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে অভয়ারণ্য হিসেবে ঘোষণা করা যাবে। অভয়ারণ্যে কেউ চাষাবাদ, শিল্পকারখানা স্থাপন, উদ্ভিদ আহরণ ও ধ্বংস এবং অভয়ারণ্যে কেউ অগ্নিসংযোগ করতে পারবে না। এ সম্পর্কিত বিধিনিষেধ কেউ লঙ্ঘন করলে দুই বছরের কারাদণ্ড অথবা এক লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে।

এই আইনের ৮টি ধারা নিচে প্রদান করা হলোঃ

ধারা ৩৪ কোন ব্যক্তি যদি-

(ক) ধারা ১১ এর বিধান অনুযায়ী নিবন্ধিত এবং প্রদত্ত নিবন্ধন চিহ্ন নকল, বিনিময় অথবা অন্য কোনভাবে হস্তক্ষেপ বা পরিবর্তন করেন; বা

(খ) লাইসেন্স অথবা পারমিট প্রাপ্ত কোন ব্যক্তি ব্যতীত অন্য কাহারো নিকট হইতে কোন বন্যপ্রাণী, বন্যপ্রাণীর কোন অংশ, মাংস, ট্রফি অথবা উহা হইতে উৎপন্ন দ্রব্য বা বনজদ্রব্য বা তফসিল ৪ এ উল্লিখিত উদ্ভিদ অথবা উহা হইতে উৎপন্ন দ্রব্যাদি ক্রয়-বিক্রয় বা আমদানি-রপ্তানি করেন- তাহা হইলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্ত অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ১ (এক) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ৩ (তিন) বৎসর পর্যন্ত করাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ২ (দুই) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৩৫। কোন ব্যক্তি ধারা ১৪ এ উল্লিখিত কোন নিষিদ্ধ কর্মকাণ্ড করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন ও উক্তরূপ অপরাধের জন্য জামিন অযোগ্য হইবেন এবং তিনি সর্বোচ্চ ২ (দুই) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ১ (এক) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ৫ (পাঁচ) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৪ (চার) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৩৬।  (১) কোন ব্যক্তি ধারা ২৪ এর অধীন লাইসেন্স গ্রহণ না করিয়া তফসিল ১ এ উল্লিখিত কোন বাঘ বা হাতি হত্যা করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন ও উক্তরূপ অপরাধের জন্য জামিন অযোগ্য হইবেন এবং তিনি সর্বনিম্ন ২ (দুই) বৎসর এবং সর্বোচ্চ ৭ (সাত) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড এবং সর্বনিম্ন ১ (এক) লক্ষ এবং সর্বোচ্চ ১০ (দশ) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ডে দডণ্ডত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ১২ (বার) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ ১৫ (পনের) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হইবেনঃ

তবে শর্ত থাকে যে, বাঘ বা হাতি কর্তৃক কোন ব্যক্তি আক্রান্ত হইলে এবং উহার ফলে তাহার জীবনাশঙ্কার সৃষ্টি হইলে জীবন রক্ষার্থে উক্ত আক্রমণকারী বাঘ বা হাতিকে হত্যার ক্ষেত্রে এই ধারার বিধান প্রযোজ্য হইবে নাঃ

তবে আরো শর্ত থাকে যে, এ সংক্রান্ত বিষয়ে কোন মামলা দায়েরের প্রশ্ন দেখা দিলে, সংশ্লিষ্ট স্টেশন কর্মকর্তা ওয়ার্ডেন এর সহিত পরামর্শক্রমে মামলা দায়ের করিতে পারিবেন।

(২) কোন ব্যক্তি ধারা ১০ এর অধীন পারমিট গ্রহণ না করিয়া তফসিল ১ এ উল্লিখিত কোন বাঘ বা হাতির ট্রফি, অসম্পূর্ণ ট্রফি, মাংস, দেহের অংশ সংগ্রহ করিলে, দখলে রাখিলে বা ক্রয় বা বিক্রয় করিলে বা পরিবহন করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ৩ (তিন) বৎসর পর্যন্ত করাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৩ (তিন) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ৫ (পাঁচ) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৩৭। (১) কোন ব্যক্তি তফসিল ১ এ উল্লিখিত কোন চিতা বাঘ, লাম চিতা, উল্লুক, সাম্বার হরিণ, কুমির, ঘড়িয়াল, তিমি বা ডলফিন হত্যা করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ৩ (তিন) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৩ (তিন) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ৫ (পাঁচ) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫ (পাঁচ) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেনঃ

তবে শর্ত থাকে যে, চিতা বাঘ বা কুমির কর্তৃক কোন ব্যক্তি আক্রান্ত হইলে এবং উহার ফলে তাহার জীবনাশঙ্কার সৃষ্টি হইলে জীবন রক্ষার্থে উক্ত আক্রমণকারী চিতা বাঘ বা কুমিরকে হত্যার ক্ষেত্রে এই ধারার বিধান প্রযোজ্য হইবে নাঃ

তবে আরো শর্ত থাকে যে, এ সংক্রান্ত বিষয়ে কোন মামলা দায়েরের প্রশ্ন দেখা দিলে, সংশ্লিষ্ট স্টেশন কর্মকর্তা ওয়ার্ডেন এর সহিত পরামর্শক্রমে মামলা দায়ের করিতে পারিবেন।

(২) কোন ব্যক্তি তফসিল ১ এ উল্লিখিত কোন চিতা বাঘ, লাম চিতা, উল্লুক, সাম্বার হরিণ, কুমির, ঘড়িয়াল, তিমি বা ডলফিন এর ট্রফি বা অসম্পূর্ণ ট্রফি মাংস দেহের অংশ সংগ্রহ করিলে, দখলে রাখিলে বা ক্রয় বা বিক্রয় করিলে বা পরিবহন করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ২ (দুই) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ১ (এক) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ৪ (চার) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ২ (দুই) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৩৮। (১) কোন ব্যক্তি তফসিল ১ ও ২ এ উল্লিখিত কোন পাখি বা পরিযায়ী পাখি হত্যা করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ১ (এক) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ১ (এক) লক্ষ টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ২ (দুই) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ২ (দুই) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

(২) কোন ব্যক্তি তফসিল ১ ও ২ এ উল্লিখিত কোন পাখি বা পরিযায়ী পাখির ট্রফি বা অসম্পূর্ণ ট্রফি, মাংস দেহের অংশ সংগ্রহ করিলে, দখলে রাখিলে বা ক্রয় বা বিক্রয় করিলে বা পরিবহন করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ৬ (ছয়) মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৩০ (ত্রিশ) হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ১ (এক) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৩৯। কোন ব্যক্তি ধারা ৬, ১০, ১১ বা ১২ এর বিধান লংঘন করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ১ (এক) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ২ (দুই) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ১ (এক) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৪০। কোন ব্যক্তি ধারা ২৪ বা ২৭ এর বিধান লংঘন করিলে তিনি অপরাধ করিয়াছেন বলিয়া গণ্য হইবেন এবং উক্তরূপ অপরাধের জন্য তিনি সর্বোচ্চ ১ (এক) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ৫০ (পঞ্চাশ) হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি ঘটাইলে সর্বোচ্চ ২ (দুই) বৎসর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা সর্বোচ্চ ১ (এক) লক্ষ টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।

ধারা ৪১। কোন ব্যক্তি এই আইনের অধীন কোন অপরাধ সংঘটনে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সহায়তা করিলে বা উক্ত অপরাধ সংঘটনে প্ররোচনা প্রদান করিলে এবং উক্ত সহায়তা বা প্ররোচনার ফলে অপরাধটি সংঘটিত হইলে, উক্ত সহায়তাকারী বা প্ররোচনাকারী তাহার সহায়তা বা প্ররোচনা দ্বারা সংঘটিত অপরাধের জন্য নির্ধারিত দণ্ডে দণ্ডিত হইবেন।


আরও খবর



ইতিহাসের এই দিনে: ৭ জুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ০৭ জুন ২০২২,  মঙ্গলবার, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ। বর্ষপঞ্জি অনুসারে বছরের ১৫৮ তম দিন। বছর শেষ হতে আরো ২০৭ (অধিবর্ষে ২০৯) দিন বাকি রয়েছে। 

আজকের দিনটি সময়ের হিসাবে অতি অল্প সময়। আবার একটি ঘটনার জন্য যথেষ্ট সময়। ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায় বছরের প্রতিটি দিনেই ঘটেছে নানা উল্লেখযোগ্য ঘটনা। অনেকের আজ জন্মবার্ষিকী আবার কেউ মৃত্যুবরণ করেছিলেন এই দিনেই।

চলুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক আজকের দিনের ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু বিষয়-  

ঘটনাবলি:

১০৯৯ - ক্রুসেডাররা জেরুজালেমে প্রবেশ করে।

১৪১৩ - নেপলসের রাজা ল্যাডিস্ল রোম দখল করেন।

১৫৪৬ - আরড্রেস শান্তিচুক্তির মাধ্যমে ফ্রান্স ও স্কটল্যান্ডের সঙ্গে ইংল্যান্ডের যুদ্ধাবসান ঘটে।

১৫৫৭ - ইংল্যান্ড ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে।

১৬৫৪ - ষোড়শ লুই ফ্রান্সের রাজা হিসেবে অভিষিক্ত হন।

১৭৬৫ - উত্তর পারস্যে ভূমিকম্পে ৪০ হাজার লোক মৃত্যুবরণ করে।

১৮১০ - নবাব সৈয়দ জিনে উদ্দিন বাংলার মসনদে আরোহণ করেন।

১৮৭৯ - ল্যাটিন আমেরিকার তিনটি দেশ পেরু, চিলি ও বলিভিয়ার মধ্যে পাঁচ বছরের যুদ্ধ শুরু হয়।

১৯০৪ - সুইডেনের কাছ থেকে নরওয়ে স্বাধীনতা লাভ করে।

১৯৬৬ - ছয় দফার সমর্থন ও পূর্ণ আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে পূর্ব বাংলায় হরতাল পালিত হয়। পুলিশের গুলিতে ১১ জন নিহত ও শত শত আহত হয়।

১৯৭১ - মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান সরকার কর্তৃক ৫শ’ ও ১শ’ টাকার নোট বাতিল ঘোষণা করা হয়।

১৯৭৩ - বাংলাদেশের পার্বত্যাঞ্চলে সন্তু লারমার নেতৃত্বে শান্তিবাহিনী গঠিত হয়।

১৯৭৫ - ইংল্যান্ডে প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৮০ - ইহুদিবাদী ইসরাইলের জঙ্গীবিমানগুলো ইরাকের রাজধানী বাগদাদের কাছে অবস্থিত ইরাকী পারমাণবিক স্থাপনায় এক আগ্রাসী অভিযান চালিয়ে তা ধ্বংস করে দেয়।

১৯৮৮ - বাংলাদেশের সংসদে সংবিধানের অষ্টম সংশোধনী গৃহীত হবার মাধ্যমে পবিত্র ইসলাম ধর্মকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ঘোষণা করা হয়।

১৯৮৯ - সুরিনামে বিমান দুর্ঘটনায় ১৬২ জন মৃত্যুবরণ করে।

১৯৯১ - পাকিস্তানে ট্রেন দুর্ঘটনায় ২শ’ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে।

১৯৯২ - আজারবাইজানে প্রথম বহুদলীয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এবুলতাজ এলসিব জয়লাভ করেন।

জন্ম:

১৫৬ - ওয়ু হান, তিনি ছিলেন চিনের সম্রাট।

১৫০২ - তৃতীয় জন, তিনি ছিলেন পর্তুগালের রাজা।

১৭৭০ - রবার্ট জেঙ্কিন্সন, তিনি ছিলেন ইংরেজ রাজনীতিবিদ ও যুক্তরাজ্য প্রধানমন্ত্রী।

১৮১১ - জেমস ইয়াং সিম্পসন, স্কটিশ ডাক্তার।

১৮৩৭ - অ্যালোইস হিটলার, তিনি অ্যাডলফ হিটলারের বাবা।

১৮৪৩ - মার্কিন শিক্ষাব্রতী ও আমেরিকায় প্রথম কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সূচনাকারী সুশান এলিজাবেথ ব্লো। 

১৮৪৮ - পল গোগাঁ, ঊনিশ শতকের প্রখ্যাত ফরাসি চিত্রকর।

১৮৬২ - ফিলিপ এডুয়ার্ড আন্টন ফন লেনার্ড, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী স্লোভাক বংশোদ্ভূত জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী।

১৮৬৮ - চার্লস রেনিয়ে ম্যাকিন্টস, তিনি ছিলেন স্কটিশ চিত্রশিল্পী ও স্থপতি।

১৮৬৮ - মোহাম্মদ আকরম খাঁ, একজন বাঙালি সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, সাহিত্যিক এবং ইসলামী পণ্ডিত।

১৮৭১ - খাজা সলিমুল্লাহ, ঢাকার নবাব।

১৮৭৯ -আর্নেস্ট হার্টসফিল্ড, তিনি ছিলেন জার্মানীর বিখ্যাত প্রাচ্যবিদ ও ইরান-বিশেষজ্ঞ।

১৮৯৬ - রবার্ট সেন্ডারসন মুল্লিকেন, মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী এবং রসায়নবিজ্ঞানী।

১৮৯৬ - ইমরে নাগি, হাঙ্গেরির বিশিষ্ট সমাজতান্ত্রিক রাজনীতিবিদ।

১৯০৯ - জেসিকা ট্যান্ডি, ব্রিটিশ অভিনেত্রী।

১৯১৭ - রাজেন তরফদার, প্রখ্যাত বাংলা চলচ্চিত্র পরিচালক,অভিনেতা ও চিত্রনাট্যকার।

ডিন মার্টিন, তিনি ছিলেন আমেরিকান গায়ক, অভিনেতা ও প্রযোজক।

১৯২৮ - জেমস আইভরি, তিনি ছিলেন আমেরিকান পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার।

১৯৩১ - ভার্জিনিয়া ম্যাকেনা, ব্রিটিশ অভিনেত্রী।

১৯৩৫ - শ্যামা, ভারতীয় অভিনেত্রী।

১৯৪৮ - জিম ওয়ালটন, আমেরিকান ব্যবসায়ী।

১৯৫২ - ওরহান পামুক, ২০০৬ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী তুর্কী সাহিত্যিক।

১৯৫২ - লিয়াম নিসন, আইরিশ চলচ্চিত্র অভিনেতা।

১৯৫৫ -রঞ্জন ঘোষাল, ভারতীয় বাঙালি সঙ্গীতশিল্পী, গায়ক,গীতিকার, লেখক ও নাট্যব্যক্তিত্ব।

১৯৫৮ - প্রিন্স রজার্স নেলসন, বিখ্যাত মার্কিন সঙ্গীতশিল্পী।

১৯৫৯ - মাইক পেন্স, মার্কিন রাজনীতিবিদ এবং আইনজীবি।

১৯৬৪ - গ্রেইম লেব্রয়, সাবেক শ্রীলঙ্কান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।

১৯৬৫ - মাইক ফোলি, আমেরিকান লেখক, অভিনেতা, এবং সাবেক পেশাদার কুস্তিগির এবং ধারাভাষ্যকার।

১৯৭০ - কাফু, ব্রাজিলীয় ফুটবল খেলোয়াড়।

১৯৭২ - ফেরদৌস, বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা।

মৃত্যু:

৮৬২ - আল-মুনতাসির, আব্বাসীয় খলিফা।

১৩২৯ - রবার্ট ব্রুস, তিনি ছিলেন স্কটল্যান্ডের রাজা।

১৫৬৫ - হুসাইন নিজাম শাহ, তিনি ছিলেন দাক্ষিণাত্যের রাজা।

১৮২৬ - ইয়োসেফ ফন ফ্রাউনহোফার, জার্মান আলোকবিজ্ঞানী।

১৯৩৭ - জিন হার্লো, মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

১৯৪৮ - লুই ল্যুমিয়ের, ফরাসি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও চলচ্চিত্রের অগ্রদূত।

১৯৫৪ - অ্যালান টুরিং, ইংরেজ গণিতবিদ, যুক্তিবিদ ও ক্রিপ্টোবিশেষজ্ঞ।

১৮৬৩ - রিচার্ড মার্শ হো, তিনি ছিলেন রোটারি ছাপাখানার মার্কিন উদ্ভাবক।

১৯৬৫ - জুডি হলিডে, মার্কিন অভিনেত্রী, কৌতুকাভিনেত্রী ও গায়িকা।

১৯৬৭ - ডরোথি পার্কার, আমেরিকান কবি, লেখক, সমালোচক এবং বিদ্রুপাত্মক রচনাকার ছিলেন।

১৯৭০ - এডওয়ার্ড মরগ্যান ফরস্টার, একজন ইংরেজ ঔপন্যাসিক, ছোটোগল্পকার ও প্রাবন্ধিক।

১৯৭৮ - রোনাল্ড জর্জ রেফর্ড নোরিশ, ব্রিটিশ রসায়ন বিজ্ঞানী।

১৯৮০ - হেনরি মিলার, তিনি ছিলেন আমেরিকান লেখক।

২০০২ - বসপ্পা ধনপ্পা জত্তী, ভারতের পঞ্চম ভারতের উপরাষ্ট্রপতি।

২০১৫ - ক্রিস্টোফার লী, ইংরেজ অভিনেতা, গায়ক, লেখক এবং দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী।

২০১৫ - শেখ রাজ্জাক আলী, বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ ও সাবেক স্পিকার।

নিউজ ট্যাগ: ইতিহাসে এই দিনে

আরও খবর

৩০ জুন: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২