Logo
শিরোনাম

বিবাহিত জীবনের ১৪ বছরই কেটেছে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায়!

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আমেরিকার নর্থ ক্যারোলাইনার বাসিন্দা প্যাটি হার্নান্দেজ। বয়স ৪০। গত বছরে জন্ম দিয়েছিলেন ১৬তম সন্তান। এখন আবারও তিনি অন্তঃসত্ত্বা! শুনে আশ্চর্য লাগতেই পারে! কিন্তু ঘটনাটি সত্য।

প্যাটির স্বামীর নাম কার্লোস। তার নামের সঙ্গে মিল রেখেই প্যাটির ১৬টি সন্তানের নামের প্রথম অক্ষর ইংরেজি হরফ সি দিয়ে রেখেছেন। বিবাহিত জীবনের ১৪ বছরই অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কাটিয়েছেন তিনি। কার্লোস ও প্যাটির মোট ৬ ছেলে এবং ১০ মেয়ে। এদের মধ্যে তিন জোড়াই যমজ।


এ প্রসঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে প্যাটি বলেন, দিন কয়েক আগেই জানতে পারি আমি তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। প্রায় ১৪ বছর আমি অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কাটিয়েছি। ১৭ বার ঈশ্বর আমাকে মা হওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। সেই জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আবার মা হতে পেরে আমি খুবই খুশি, উত্তেজিতও বটে। আমি এবং স্বামী গর্ভনিরোধকের ব্যবহারে বিশ্বাস করি না। ঈশ্বর চাইলে আবারও গর্ভধারণ করব।

এই দম্পতির বাড়িতে ৫টি শোয়ার ঘর রয়েছে। বাচ্চাদের জন্য প্রতিটি ঘরে একাধিক বাঙ্ক বেড এবং ক্রাইব রয়েছে। প্যাটি একটি ২০ আসনের বাস চালিয়ে সন্তানদের স্কুলে নিয়ে যান। প্রতি সপ্তাহে খাবারের জন্য দম্পতির প্রায় ৭২ হাজার টাকা ব্যয় হয়।


আরও খবর



হাই প্রেশার আছে কি না বুঝে নিন চোখ দেখেই

প্রকাশিত:রবিবার ২২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হাই প্রেশার বা উচ্চ রক্তচাপের রোগী এখন প্রায় ঘরে ঘরেই। রক্তচাপ বেড়ে গেলে স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি দ্বিগুণ বেড়ে যায়। তাই বিশেষ কিছু লক্ষণ দেখলেই সতর্ক হতে হবে। উচ্চ রক্তচাপের উপসর্গ দেখা দিতে পারে চোখেও। তার আগে জেনে নিন হাই প্রেশার বা উচ্চ রক্তচাপ আসলে কী?

মানুষের স্বাভাবিক রক্তচাপ হলো ১২০/৮০ মিলিমিটার পারদ চাপ। সাধারণত রক্তচাপ যদি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি থাকে, তাহলে তাকে উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন বলা হয়। অর্থাৎ রক্তচাপ যখন ১৪০/৯০ মিলিমিটার পারদ চাপের বেশি হয়; তখন ওই অবস্থাকে উচ্চ রক্তচাপ বলা হয়। উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশনকে অনেকেই প্রেশার হিসেবে অভিহিত করেন।

উচ্চ রক্তচাপের লক্ষণ কী কী?  দৃষ্টি ঝাপসা হয়ে যাওয়া, বুকে ব্যথা বা বুকে চাপ অনুভব করা, শ্বাসকষ্ট বা নিশ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া, নাক দিয়ে রক্ত পড়া, মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা, অনিদ্রা ও ক্লান্তি, প্রস্রাবে রক্ত যাওয়া, শরীরের অঙ্গ বিশেষের দুর্বলতা বা অবশ হয়ে যাওয়া, অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, অন্তঃসত্ত্বা মায়েদের ক্ষেত্রে খিঁচুনি হতে পারে।

উচ্চ রক্তচাপের সঙ্গে চোখের সম্পর্ক কী? বিশেষজ্ঞদের মতে, হাই প্রেশারের কারণে হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের ঝুঁকি তো আছেই, আবার উচ্চ রক্তচাপে প্রভাবিত হয় চোখও। এক্ষেত্রে চোখের রেটিনায় যে রক্তনালিগুলো থাকে, সেগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে হাইপারটেনসিভ রেটিনোপ্যাথি

২০১৩ সালের এক গবেষণায় ধরা পড়ে, এই সমস্যার সঙ্গে যোগ আছে স্ট্রোকের। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের মতে, হাইপারটেনসিভ রেটিনোপ্যাথিতে আক্রান্তদের স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি। তবে আয়নায় নিজের চোখ দেখে সাধারণভাবে এ সমস্যা ধরা যায় না। চিকিৎসকরা চোখ পরীক্ষার সময় বিষয়টি ধরতে পারেন। শুধু চোখের সমস্যার জন্যই নয়, সার্বিক ভাবেই নিয়মিত চোখ পরীক্ষা করা অত্যন্ত জরুরি। আসলে শরীরের বিভিন্ন সমস্যার প্রভাব পড়ে চোখে। তাই কেবল রক্তচাপই নয়, একাধিক সমস্যার ইঙ্গিত মিলতে পারে চোখে।

চোখের আশপাশের চামড়ায় কোনো সাদাটে উঁচু জায়গা তৈরি হলে তা উচ্চ কোলেস্টেরলের লক্ষণ হতে পারে। কোলেস্টেরলের সঙ্গেও উচ্চ রক্তচাপের সমস্যার যোগ গভীর। তাই এই লক্ষণ দেখা দিলে আগে থেকে হতে হবে সতর্ক।

বিশেষজ্ঞদের মতে, উচ্চ রক্তচাপের লক্ষণ হিসেবে চোখে লালচে দাগও দেখা দিতে পারে। যদিও অনেকেই বিষয়টি অবহেলা করেন। আসলে এটি সাধারণ নয়, বরং উচ্চ রক্তচাপের গুরুতর লক্ষণ হিসেবে বিবেচিত। চোখের লাল দাগ উচ্চ রক্তচাপের লক্ষণ হতে পারে। এর পেছনের কারণ হলো রক্তনালিগুলো ছিঁড়ে যাওয়া। উচ্চ রক্তচাপের কারণেও দৃষ্টিশক্তির জটিলতা দেখা দিতে পারে। ক্রুটি হতে পারে হাইপারটেনসিভ রেটিনোপ্যাথির লক্ষণ। ফলে চোখের রক্তনালির দেওয়াল ঘন হয়ে যায় ও রক্ত প্রবাহ সীমাবদ্ধ করে। এমনকি রেটিনা ফুলে যেতে পারে ও রক্তনালিগুলো ফুটো হয়ে যায়।

নিউজ ট্যাগ: হাই প্রেশার

আরও খবর

৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




বিএনপির ওপরই নিষেধাজ্ঞা আসা উচিত : ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগকে নয়, মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্রের জন্য বিএনপির ওপরই নিষেধাজ্ঞা আসা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর সেতু ভবনে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের বোর্ডের সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা বলেন তিনি।

নতুন করে গণতন্ত্র উদ্ধারের প্রয়োজন নেই মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির নিজেদের দলেই গণতন্ত্র নেই, দেশে কী গণতন্ত্র আনবে? আজিজ মার্কা কমিশন, মাগুরা, ১৫ ফেব্রুয়ারি ও ঢাকা-১০ আসনের নির্বাচন, ২০০৬ সালে ১ কোটি ভুয়া ভোটার দেখলেই বোঝা যায় তারা গণতন্ত্র মানে না, হত্যা করে। গণতন্ত্র শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনেক আগেই শৃঙ্খলমুক্ত হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বিএনপির সঙ্গে আওয়ামী লীগ পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি দেয় না জানিয়ে কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ অবিরাম কর্মসূচিতে আছে। বিএনপির সঙ্গে সংঘাতে কোনো ইচ্ছা নেই আওয়ামী লীগের।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি কর্মসূচির সময় আগুন সন্ত্রাস, পুলিশের ওপরে হামলা, বাস পোড়ানো ও নাশকতা করে। যেহেতু ক্ষমতায় আছি, জনগণের জানমাল রক্ষা করা আমাদের ওয়াদা, দায়িত্ব ও কর্তব্য।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ আপাত দৃষ্টিতে নিষ্ক্রীয় মনে হলেও বিএনপি তলে তলে সক্রিয়। গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য আছে, তারা বড় ধরনের হামলা ও নাশকতার প্রস্তুতি নিচ্ছে। জানমাল রক্ষায় আওয়ামী লীগ রাজপথে আছে, থাকবে এবং নির্বাচন পর্যন্ত গণসংযোগ ও শান্তি সমাবেশ করবে।

এ দিন অনুষ্ঠিত সভায় পদ্মা সেতুসহ সব সেতুতে রাষ্ট্রপতিকে টোল অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।


আরও খবর



কবিরহাটে গাছচাপায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলায় গাছচাপা পড়ে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত নাজমুল হাসান রেদোয়ান (১৬) উপজেলার চাপারশিরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ রামেশ্বপুর গ্রামের দানেশ মুন্সি বাড়ির ইয়াকুব আলী দুলালের ছেলে এবং স্থানীয় একটি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এই বছর এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।  

মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার চাপারশিরহাট ইউনিয়নের দক্ষিণ রামেশ্বপুর গ্রামের দানেশ মুন্সি বাড়ির সামনে এই ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রেদোয়ান দুপুরে খাবার শেষে খেলাধুলা করার জন্য বাড়ির পাশে স্কুল মাঠের উদ্দেশে রওয়ানা দেয়। ওই সময় তাদের বাড়ির তার কাকা নূর নবীর ঘরের উঠানের কোণে একটি বড় করই গাছ কাটার কাজ চলছিল। বাড়ি থেকে বের হওয়ার পথে করই গাছটি রেদোয়ানের মাথায় পড়লে সেই ঘটনাস্থলে মারা যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মৃতের সুরুতহাল প্রস্তুত করেন। নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় বিনা ময়না তদন্তে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় বিনা ময়না তদন্তে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।  


আরও খবর

কুকুর বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ গেলো যুবকের

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




ভারতকে অসম্মান করে কোনো কিছু করব না: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ২৮ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, তিস্তা একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু। ভারতের সঙ্গে যেকোনো বিষয়ে আলোচনা হলে তিস্তা ইস্যু আসবেই। নদী, পানি ও মাটি নিয়ে সরকারের অনেক মহাপরিকল্পনা রয়েছে। তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকার কয়েকটি খসড়াও ইতোমধ্যে তৈরি করেছে।

তিনি বলেন, আমরা এক তরফা কোনো কিছু করতে চাই না। ভারত আমাদের প্রতিবেশী, তাদের আমরা সম্মান করি। তিস্তা মহাপরিকল্পনা অবশ্যই বাস্তবায়ন করা হবে।

বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) দুপুরে লালমনিরহাটের মোস্তফীহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে রজতজয়ন্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপিকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নের মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। সেই ভয়ে বিএনপি ভোটে আসতে ভয় পায়। তাই উল্টাপাল্টা বলে ভয় দেখাচ্ছে। আপনারা ভোটে আসুন। সেখানেই নির্ধারণ হবে কার কত জনপ্রিয়তা।

মোস্তফীহাট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি আমিনুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এবং জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহার হোসেন এমপি, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ উল্যাহ, পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম, গোকুন্ডা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ সরকার টোটন প্রমুখ।


আরও খবর



সিলেট স্ট্রাইকার্সকে ১২৯ রানের টার্গেট

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) সিলেট স্ট্রাইকার্সকে ১২৯ রানের টার্গেট দিয়েছে ঢাকা ডমিনেটর্স। সোমবার (১৬ জানুয়ারি) টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ঢাকার অধিনায়ক নাসির হোসেন। প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১২৮ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডমিনেটর্স।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় ঢাকা ডমিনেটর্স। ইনিংসের প্রথম ওভারেই স্কোরবোর্ডে রান যোগ না করেই সাজঘরে ফিরে যান সৌম্য সরকার। এরপর উসমান ঘানি ও দিলশান মুনাবিরা মিলে শুরুর ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে দলীয় ৩২ রানে ১৭ বলে ১৭ রান করে আউট হন দিলশান মুনাবিরা। পরের বলেই ক্রিজে এসেই সাজঘরে ফিরে যান রবিন দাস।

এরপর দ্রুতই আউট হয়ে যান ওপেনার উসমান ঘানি। দলীয় ৫১ রানে ২৮ বলে ২৭ রান করে ফিরে যান তিনি। এরপর দলীয় ৭৪ রানে মোহাম্মদ মিথুন আউট হলে ক্রিজে আসেন আরিফুল হক। আরিফুলকে সঙ্গে নিয়ে ৫০ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক নাসির হোসেন। দলীয় ১২৪ রানে ১৬ বলে ২০ রান করে আউট হন আরিফুল।

এরপর ইনিংসের শেষ বলে ৩১ বলে ৩৯ রান করে রান আউট হন নাসির হোসেন। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১২৮ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডমিনেটর্স। সিলেট স্ট্রাইকার্সের পক্ষে ইমাদ ওয়াসিম নেন সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট।  


আরও খবর