Logo
শিরোনাম

বিয়ে করতে ভয় পাওয়া একটি মানসিক রোগ

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিয়ে নামক শব্দটার সঙ্গে ছোট থেকেই আমাদের পরিচিতি রয়েছে বেশ। ছোট থেকে বড় হতে হতে আমরা পরিবারের বন্ধন দেখতে পাই বিয়ের মাধ্যমেই। কিন্তু বড় হতে হতে অনেকেরই পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির কারণে বিয়ে নামক বস্তুটায় আপত্তি চলে আসে।

বিয়ে একটি সামাজিক চুক্তি, যার দ্বারা একটি পরিবারের সৃষ্টি হয়। আর সেখানে তৈরি হয় প্রেম, ভালবাসা, মায়া-মমতা, স্নেহ। তবে একই ছাদের নীচে থাকতে গেলে একটু তো মন কষাকষি হবেই। আর সেখান থেকেই চলে আসে ঝগড়া-বিবাদ। আর এসব থেকেই অনেকেরই বিয়ের প্রতি অনীহা চলে আসে।

আমাদের সমাজের এরকম অনেক মানুষ আছে যাদের বিয়ের নামেই অ্যালার্জি রয়েছে। তারা মনে করেন বিয়ে মানেই একটি সম্পর্কে আবদ্ধ হয়ে যাওয়া, আর সেখান থেকে বের না হতে পারার একটি ভয়ও কাজ করে। তবে এই বিয়ে ভীতি বা অনীহা এক ধরনের মানসিক রোগ- যাকে আমরা গ্যামোফোবিয়া নামে চিনে থাকি।

গ্যামোফোবিয়া হলো, বিয়ে কিংবা কোনও ধরনের স্থায়ী সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার ভয়। যারা মানসিকভাবে এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত তারা আসলে নতুন সম্পর্ক নিয়ে আতঙ্কে থাকেন, বিবাহিত জীবন নিয়ে একটা ভয় কাজ করে, নিজের ব্যক্তি স্বাধীনতার জায়গাটুকু খর্ব হতে পারে কিংবা মানিয়ে চলা যাবে কি না এধরনের একটা চিন্তায় থাকেন এই ফোবিয়ায় আক্রান্ত মানুষরা।

অনেকেই সম্পর্ক জড়ান ঠিকই তবে বিয়ের বিষয় আসলেই তারা ভড়কে যান। তাদের এরকম ফোবিয়া থাকলে বুঝতে হবে তিনি গ্যামোফোবিয়ায় ভুগছেন।

গ্যামোফোবিয়া বিভিন্ন কারণে হতে পারে। বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ, পরিবারের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ বা সত্যিকারের প্রেম ভেঙ্গে যাওয়ার পর অনেকেই মানসিকভাবে এতোটাই ভেঙ্গে পড়েন যে, কাউকে আর তার আপন মনে হয় না। এরকম যাদের পরিবারে রয়েছে তারাই বেশিরভাগ এই রোগে ভোগেন।

এই রোগ থেকে উত্তরণের জন্য অবশ্যই সাইকোলজিস্টদের কাউন্সেলিং এর প্রয়োজন। এরকম লক্ষণ যাদের মাঝে থাকবে তাদের সঙ্গে অবশ্যই ধীরস্থিরভাবে চলতে হবে। কোন কিছু নিয়ে প্রেশার না দিয়ে সম্পর্কের মহত্ব ও গভীরতাকে সামনে নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই এক সময় সে মানুষটাও বিয়ের মত সুন্দর সম্পর্কের বিষয়টা বুঝতে পারবে।


আরও খবর

যে ৫ খাবার লিভারের চর্বি দূর করে

বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১




সখীপুরে পানিতে ডুবে ৪ বছরের শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮০৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের সখীপুরে বাড়ির পাশে জমে থাকা পানিতে ডুবে আবদুল্লাহ খান নামের (৪) শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৫ জুন) সকালে উপজেলার কালিয়ান খানপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। সে ওই এলাকার প্রবাসী সজীব খানের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, বাড়ির পাশে সড়ক ঘেঁষে গর্তে বৃষ্টির পানি জমে থাকায়, শনিবার সকালে কোচিং সেন্টারে যাওয়ার সময় শিশুটি অগোচরে গর্তে পড়ে যায়। প্রায় দুই ঘণ্টা পর আবদুল্লাহ খানের দেহ পানিতে দেখে স্থানীয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।

সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. মাসুদ খান বলেন, স্বজনরা সকাল ১০টার দিকে জরুরি বিভাগে শিশুটিকে নিয়ে আসেন। তবে শিশুটি হাসপাতালে আসার আগেই মারা গেছে।


আরও খবর



আওয়ামী লীগ কখনও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করে না

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ কখনও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি করে না। তিনি বলেন, বিএনপির হত্যা ও ষড়যন্ত্রের রাজনীতি দেশে গণতন্ত্র বিকাশের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বাধা।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আজ সোমবার সকালে সৈনিক লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তাঁর সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন।

বঙ্গবন্ধু হত্যার মাস্টার মাইন্ড ছিলেন জিয়াউর রহমান এবং শেখ হাসিনাকে একাধিকবার হত্যার ষড়যন্ত্র করেছে বিএনপি উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ জিয়াউর রহমানের হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিল না এবং  খালেদা জিয়াকেও কখনও হত্যার ষড়যন্ত্র করেনি।

গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে সহাবস্থানে যে সহযোগিতা প্রয়োজন, তাতে বিএনপি বড় বাধা সৃষ্টি করে রেখেছে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

অদৃশ্য শত্রু  করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ এবং উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর ষড়যন্ত্রের বিষয় মাথায় রেখে রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি ষড়যন্ত্র করে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়, তাই তাদের বিরুদ্ধে ঐকবদ্ধ প্রতিরোধে সামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে মুক্তিযুদ্ধ ও গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হবে এবং আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হলে গণতন্ত্র রক্ষার পাশাপাশি দলের কর্মীদের বাঁচাতে হবে।


আরও খবর



উপকূলীয় এলাকা পানির নিচে

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ইয়াস সুপার সাইক্লোনে রূপ নিয়ে গতিপথ কিছুটা পরিবর্তন করে ধীরে ধীরে উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে, উপকূলে স্বাভাবিকের চেয়ে ৬ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। আজ বুধবার (২৬ মে) দুপুর নাগাদ ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানতে পারে ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গে।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাগর উত্তাল। আঘাতের সময় দেশের উপকূলে ৮০ থেকে ১০০ কিলোমিটার গতিতে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। দেশের সব সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অফিস।

ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে কয়েক ফুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। উপকূল সংলগ্ন বিভিন্ন জেলার নানা স্থানে ঘরবাড়ি-রাস্তাঘাটে পানি উঠছে। বাঁধ ভেঙে লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়েছে। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়ছে লক্ষাধিক মানুষ।

মঙ্গলবার ভোর ৪টায় বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের দেওয়া সর্বশেষ ১৫ নং বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত প্রবল ঘূর্ণিঝড় ইয়াসআরও উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি গত মধ্যরাত ১২টার দিকে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫১৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫০৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে ও পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল।


আরও খবর



ভারতে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩২০৭ মৃত্যু

প্রকাশিত:বুধবার ০২ জুন 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ১০৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কোভিড ১৯-এর দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিধ্বস্ত ভারত। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে তিন হাজার ২০৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।  এ সময়ে নতুন করে এক লাখ ৩২ হাজার ৭৮৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। 

বুধবার ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে হিন্দুস্তান টাইমস।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এক লাখ ৩২ হাজার ৭৮৮ জন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্ত হয়েছে দুই কোটি ৮৩ লাখ সাত হাজার ৮৩২ জন।  গত ২৪ ঘণ্টায় তিন হাজার ২০৭ জনসহ মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়াল তিন লাখ ৩৫ হাজার ১০২ জনে।

করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় লকডাউন আরোপসহ নানা পদক্ষেপ নেয় ভারত সরকার। এতে করে সংক্রমণ ও মৃত্যু কিছুটা কমেছে।  মঙ্গলবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল এক লাখ ২৭ হাজার ৫১০ জন। আর মৃত্যুর সংখ্যা ছিল দুই হাজার ৭৯৫ জন।  তবে মঙ্গলবারের তুলনায় বুধবার মৃত্যু এবং সংক্রমণ দুটোই বেড়েছে। এর আগে মে মাসে প্রায় প্রতিদিনই শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল তিন থেকে চার লাখের মধ্যে। কয়েক দিন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল চার লাখেরও বেশি। এ সময় প্রায় প্রতিদিনই  তিন থেকে সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে।


আরও খবর



ঘুষ খাওয়ার অভিযোগে সু চির বিচার শুরু হচ্ছে আজ

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সেনা অভ্যুত্থানে উৎখাত হওয়া মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির বিচার কাজ শুরু হচ্ছে আজ সোমবার। গত নির্বাচনে প্রচারকালে করোনাভাইরাসের বিধিনিষেধ ভঙ্গের অভিযোগে আজ সু চির বিচার হবে।

৭৫ বছর বয়সী নোবেল বিজয়ী নেত্রী অং সান সু চির বিরুদ্ধে প্রথম এই মামলার বিচার কাজ জুলাইয়ের শেষ নাগাদ চলতে পারে বলে তাঁর আইনজীবী জানিয়েছেন।

মিয়ানমারের জান্তা সরকারের দাবি, ক্ষমতায় থাকাকালে অং সান সু চি ঘুষ হিসেবে ইয়াঙ্গুনের মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে ছয় লাখ মার্কিন ডলার সমপরিমাণ অর্থ ও ১১ কেজি ৪০০ গ্রাম স্বর্ণ নিয়েছিলেন। দুর্নীতি দমন কমিশনের বরাত দিয়ে রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এর আগে জানায়, দাতব্য সংস্থা দাউ খিন কিই ফাউন্ডেশনের সভাপতি থাকাকালে সু চি জমির অপব্যবহার সম্পর্কিত অভিযোগের পাশাপাশি ঘুষ হিসেবে অর্থ ও স্বর্ণ গ্রহণ করেছিলেন।

গত ১ ফেব্রুয়ারির অভ্যুত্থানের পর সু চির বিরুদ্ধে মোট ছয়টি অভিযোগ আনা হয়। এর মধ্যে একটি অবৈধভাবে ওয়াকিটকি কেনা। ওই সময় তাঁকে গ্রেপ্তার করে গৃহবন্দি করে রাখা হয়। তাঁর সঙ্গে সঙ্গে দলের অন্য নেতাদেরও আটক ও গৃহবন্দি করে রাখা হয়।

সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে এ পর্যন্ত জান্তাবিরোধী বিক্ষোভে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে অন্তত ৮৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারস (এএপিপি)।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ডেপুটি এশিয়া ডিরেক্টর ফিল রবার্টসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, অং সান সু চির বিরুদ্ধে যে বিচার হচ্ছে তা অবান্তর, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং এই মামলা প্রত্যাহার করা দরকার। অং সান সু চির মুক্তি দাবি করেন ফিল রবার্টসন।

নিউজ ট্যাগ: অং সান সু চি

আরও খবর