Logo
শিরোনাম

বৃষ্টিতে ফোন ভিজে গেলে এই বিষয়গুলো মেনে চলুন

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এখন বৃষ্টির সময়। হঠাৎ বৃষ্টি নামলে পকেটে থাকা ফোন ভিজে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। আজকাল কিছু ফোন ওয়াটার রেসিস্ট্যান্ট হলেও বেশিরভাগ ফোনেই এখনও পানি লাগলে খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই পরিস্থিতিতে ফোন ভিজে গেলে কী করবেন জানেন কি?

কয়েকটা সহজ উপায় অবলম্বন করলে ফোনকে ভালো রাখা সম্ভব হতে পারে। চলুন জানা যাক....

> ফোন ভিজে গেলে প্রথমেই ফোন বন্ধ করে দিতে হবে। এর ফলে ফোনের ভিতরে শর্ট সার্কিটের কারণে তা খারাপ হওয়ার আশঙ্কা কমবে। ফোনের ভিতরে পানি ঢুকে যাওয়ার আগেই যদি তা বন্ধ করে দিতে পারেন তবে আপনার ফোন সুরক্ষিত থাকার সম্ভাবনা অনেকটা বেড়ে যায়।

> ফোন ভিজে গেলে সঙ্গে সঙ্গে তা শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। ফোনের বাইরে যত পানি রয়েছে, তা যত ভালো করে পরিষ্কার করবেন, ফোন ভালো থাকার সম্ভাবনা তত বাড়বে।

> ফোনে যদি ব্যাটারি খোলার সুবিধা থাকে, তাহলে ব্যাটারি দ্রুত ফোন থেকে আলাদা করে নিন। ব্যাটারির ভিতরে পানি ঢুকে গেলে বড়সড় বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। ব্যাটারি খুলে ফেলতে পারলে ফোন অনেকটা সুরক্ষিত জায়গায় চলে যাবে।

> ফোন থেকে সিম কার্ড ও মেমোরি কার্ড খুলে সেগুলো শুকনো কাপড় দিয়ে ভালো করে শুকিয়ে নিন। পানি লেগে ফোনের সিম ও মেমোরি কার্ড খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। হাতের কাছে মাইক্রোফাইবার কাপড় থাকলে তা দিয়ে ফোনটি আবারও একবার ভালো করে শুকিয়ে নিন।

> ফোনের ভেতরে কোন পানি ঢুকে থাকলে তা বের করার জন্য ফোনটিকে একটি প্লাস্টিক ব্যাগের মধ্যে ঢুকিয়ে ভ্যাকিউম করুন। এর ফলে ফোনের ভিতরে থাকা পানি বেরিয়ে আসবে অনেকটাই।

> এবার ফোনটিকে চালের পাত্রে ঢুকিয়ে দিন। এর ফলে ফোনের ভিতরে জমে থাকা আর্দ্রতা শুকিয়ে যাবে। সম্ভব হলে এই কাজে সিলিকা জেল ব্যবহার করতে পারেন। দুই থেকে তিন দিন ফোনটিকে এই অবস্থায় রেখে দিন।

> দুই-তিন দিন পরে ফোন বের করে তা অন করুন। অনেক ক্ষেত্রেই এই সময় ফোন অন হয়ে যাবে। তবে ফোনের ভেতরে অতিরিক্ত পানি ঢুকে থাকলে তা অন হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা কমে যায়। তবে অন্তত দুই দিন আপনার ফোন চালের মধ্যে রাখতে হবে। নাহলে সব আর্দ্রতা শোকানোর জন্য পর্যাপ্ত সময় মিলবে না।

নিউজ ট্যাগ: বৃষ্টি

আরও খবর



বাংলাদেশে বিলুপ্তির ঝুঁকিতে উল্লুক

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ২৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের বনগুলোতে থাকা উল্লুক এখন বিপন্ন প্রজাতি হিসেবে অনেকটা বিলুপ্তির ঝুঁকিতে পড়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি বাংলা। বাংলাদেশের সাম্প্রতিক একটি গবেষণার কথা উল্লেখ করে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, চার দশক আগেও বাংলাদেশের বনে বসবাসকারী উল্লুকের সংখ্যা ছিল প্রায় তিন হাজার। কিন্তু সেখান থেকে এখন সেটি মাত্র কয়েকশোতে এসে ঠেকেছে।

 বিশ্বজুড়েই এই প্রাণীটি বিলুপ্তির ঝুঁকিতে রয়েছে। আন্তর্জাতিক পরিবেশ সংরক্ষণ সংস্থা আইইউসিএনের বিলুপ্তির ঝুঁকিতে থাকা প্রাণীদের লাল তালিকায়ও রয়েছে এই প্রাণীটি।  এই বিষয়ে সাম্প্রতিক একটি গবেষণার প্রধান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক হাবিবুন নাহার বিবিসি বাংলাকে বলছেন, দেশের ২২টি বনাঞ্চলে নিবিড় গবেষণা করে আমরা ওয়েস্টার্ন হোলক গিবন বা পশ্চিমা উল্লুক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পেয়েছি। তাতে দেখা গেছে, সরকারিভাবে সুরক্ষিত বনাঞ্চলগুলোয় এই প্রাণীটি সবচেয়ে ভালো অবস্থায় রয়েছে। আবার আগে কয়েকটি বনাঞ্চলে প্রাণীটি আগে দেখা গেলেও সুরক্ষার অভাবে সেখান থেকে হারিয়ে গেছে।  ২০১৯ সালের মার্চ মাস থেকে শুরু করে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের ২২টি বনে গবেষণা করে ৪৬৮টি উল্লুকের দেখা পেয়েছেন গবেষকরা। সবচেয়ে বেশি দেখা গেছে মৌলভীবাজারের রাজকান্দি সংরক্ষিত বনাঞ্চলে।

হাবিবুন নাহার আরও বলেছেন, পরিবেশের ভারসাম্যের জন্য এই প্রাণীটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এরা ফলের বীজ বনাঞ্চলে ছড়িয়ে দিতে সহায়তা করে। যার মাধ্যমে অরণ্যের বিস্তারে সহায়তা হয়।

সর্বশেষ এ গবেষণায় সিলেট ও চট্টগ্রাম এলাকার ২০৪ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ২২টি বনাঞ্চলের ওপর জরিপ করা হয়। সেখানে কিছু কিছু বন থেকে উল্লুক হারিয়ে গেছে বলে দেখা গেছে। আবার মৌলভীবাজারের রাজকান্দি, পাথারিয়া ও লাউয়াছড়া বনাঞ্চলে অনেক উল্লুক বাস করতে দেখা গেছে। বনাঞ্চলে বড় বড় গাছ কেটে ফেলা, খাদ্য সংকট, অবৈধভাবে উল্লুক শিকারের কারণে বনগুলো থেকে এই প্রাণীর সংখ্যা কমছে বলে মনে করছেন হাবিবুন নাহার।  বানর প্রজাতির লেজবিহীন প্রাণীগুলোকে ইংরেজিতে বলা হয় এপ। গরিলা, ওরাং-ওটাং- এসব প্রাণীও এপ-এর অন্তর্ভুক্ত এবং উল্লুক হচ্ছে সবচেয়ে ছোট জাতের এপ।

বানরের সঙ্গে উল্লুকের বড় পার্থক্য হলো, এই প্রাণীটির যার লেজ নেই। পুরুষ উল্লুক কালো আর স্ত্রী উল্লুক ধুসর লোমের হয়ে থাকে।

নিউজ ট্যাগ: উল্লুক

আরও খবর

পুরনো আবহে ফিরেছে রমজান

রবিবার ০৩ এপ্রিল ২০২২




২ মাস আগে ফের বিয়ে করেছেন শবনম ফারিয়া

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ফের বিয়ে করেছেন ছোট পর্দার অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। সম্প্রতি নয়, শোনা যাচ্ছে দুই মাস আগেই তিনি বিয়েটা সেরেছেন। তবে একান্ত গোপনে, পারিবারিকভাবে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হয়। এরপর থেকে চুপিসারে সংসার চালিয়ে যাচ্ছেন অভিনেত্রী।

কিছুদিন আগেই ফারিয়ার নতুন প্রেমের গুঞ্জন ছড়ায়। অবশ্য তিনি নিজেই সেই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসে এক পুরুষের সঙ্গে তোলা ছবি ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে দেন অভিনেত্রী। সেটার ক্যাপশনে লেখা ছিল, সবাইকে ভালোবাসা দিবসের শুভেচ্ছা। তোমার হৃদয় যেখানে পরিপূর্ণ শান্তি পায়, সেখানেই যাও।’

সমুদ্র সৈকতে তোলা ওই ছবিতে ফারিয়ার সঙ্গীর চেহারা দেখা যায়নি। কারণ ছবিটি ছিল পেছন দিক থেকে তোলা।

অবশেষে শবনম ফারিয়ার নতুন স্বামীর ছবি পাওয়া গেল। তিনি নিজেই পারিবারিক আয়োজনে তোলা সেই ছবি শেয়ার করেছেন। ঈদ উপলক্ষে তাদের পরিবারের সবাই এক হয়েছেন। সেখানে সবার সঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হন ফারিয়ার স্বামীও।

বেশ কয়েকটি ছবি শেয়ার করলেও ফারিয়া তার স্বামীর নাম উল্লেখ করেননি। ব্যক্তিগত জীবনের এই অধ্যায়টা হয়ত একান্ত নিজের করেই রাখতে চাইছেন তিনি।

এর আগে ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে হারুনুর রশীদ অপুকে বিয়ে করেছিলেন শবনম ফারিয়া। সেই সংসার টিকেছিল ১ বছর ৯ মাস।

মাস ছয়েক আগে থেকে ইনস্টাগ্রামে একজন বিশেষ ব্যক্তির তোলা ছবি শেয়ার করে আসছিলেন শবনম ফারিয়া। তবে তার নামের বদলে বানরের ইমোজি’ ব্যবহার করেন অভিনেত্রী। ফলে ওই ব্যক্তির নাম-পরিচয় আড়ালে থেকে যায়। পরবর্তীতে বোঝা গেল, সেই বানর ইমোজির মানুষটিই ফারিয়ার প্রেমিক এবং বর্তমানের স্বামী।


আরও খবর



সেঞ্চুরি হাঁকাল ডলার, খোলা বাজারে ১০২ টাকা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর অন্যতম বড় একটি এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা টিবিএসকে জানিয়েছেন, আজ সকাল থেকে আমরা ১০২ টাকা দরে ডলার কিনছি এবং ১০৩.৫৯ টাকা দরে বিক্রি করছি।

দেশে খোলা মুদ্রাবাজার বা কার্ব মার্কেটে ডলারের দাম প্রথমবারের মতো ১০০ টাকা ছাড়িয়ে গেছে। আজ মঙ্গলবার (১৭ মে) বেশ কয়েকটি মানি এক্সচেঞ্জ কোম্পানির সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ডলারের চাহিদা ক্রমাগত বাড়তে থাকায় এবং সরবরাহে সংকট হওয়ায় এভাবে বাড়ছে ডলারের দাম। গতকাল সোমবারও ৯৭-৯৮ টাকা দরে ডলার কেনাবেচা হচ্ছিল।

রাজধানীর অন্যতম বড় একটি এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা টিবিএসকে জানিয়েছেন, আজ সকাল থেকে আমরা ১০২ টাকা দরে ডলার কিনছি এবং ১০৩.৫৯ টাকা দরে বিক্রি করছি।

গত ১২ মে পর্যন্ত ডলারের চাহিদা মেটাতে বাংলাদেশ ব্যাংক ৫.১১ বিলিয়ন ডলার বিক্রি করেছে। তবে আগের বছরের তুলনায় চলতি অর্থবছরের এপ্রিল পর্যন্ত রেমিট্যান্স প্রায় ১৭% কমে যাওয়া এবং উচ্চ আমদানি প্রবৃদ্ধির কারণে ডলারের চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে।


আরও খবর



নেপালের সঙ্গে ৬ চুক্তি সই নরেন্দ্র মোদীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লুম্বিনিতে নেপালের প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেউবার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পরে নেপালের সঙ্গে জলবিদ্যুৎ শক্তি-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছটি চুক্তিপত্রে সই করল ভারত।

এর আগে দিল্লি সফরে এসে দুই দেশের সম্পর্কের উন্নতির কথা বলেছিলেন দেউবা। আর এ বার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে লুম্বিনি গিয়ে ভারত-নেপাল বন্ধুত্বের জয়গান গাইলেন। মোদীর বক্তব্য, ভারত ও নেপালের সম্পর্ক হিমালয়ের মতো অটুট। উভয় দেশই বুদ্ধের মতাদর্শ নিয়ে আন্তর্জাতিক সমস্যা সমাধানে কাজ করবে। আজ যে চুক্তিপত্র সই হয়েছে দুদেশের মধ্যে, তাতে উল্লেখযোগ্য ভারতের শতদ্রু (সাতলেজ) জলবিদ্যুৎ নিগম এবং নেপাল ইলেকট্রিসিটি বোর্ড-এর মধ্যে জলবিদ্যুৎ প্রকল্প। বলা হয়েছে, এই প্রকল্পের ফলে প্রতি বছর ২,১০০ মিলিয়ন ইউনিট শক্তি উৎপন্ন করা যাবে। এই প্রকল্প তৈরিতে আনুমানিক খরচ ৪,৯০০ কোটি টাকা। পাশাপাশি ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব কালচারাল রিলেশানস (আইআইসিআর) এবং লুম্বিনি বুদ্ধিস্ট ইউনিভার্সিটি-র মধ্যে চুক্তিপত্র সই হয়েছে বৌদ্ধ শিক্ষার জন্য অম্বেডকরের নামাঙ্কিত একটি চেয়ার গঠনের বিষয়ে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পরে বলেন, নেপালে লুম্বিনি জাদুঘর নির্মাণ দুই দেশের মধ্যে যৌথ সহযোগিতার একটি উদাহরণ। এবং আজ আমরা লুম্বিনি বৌদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয়ে বৌদ্ধ অধ্যয়নের জন্য ডক্টর অম্বেডকর চেয়ার প্রতিষ্ঠা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রসঙ্গত, নেপালে পালাবদলের পরই ফের দেশটি ভারতের দিকে ঝুঁকছে। ভারতও মরিয়া্ যাতে নেপালের সঙ্গে পুরোনো সম্পর্ক ফিরিয়ে আনা যায়। এই আবহে বুদ্ধ পূর্ণিমার এই উপলক্ষকে বেছে নেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

গত মাসেই ভারতে এসেছিলেন দেউবা। কথা হয়েছিল জলবিদ্যুৎ শক্তির যৌথ উদ্যোগ নিয়ে। রাষ্ট্রপুঞ্জের জলবায়ু সম্মেলনে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোয় গত বছরের নভেম্বরে মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন দেউবা। আজ মোদী লুম্বিনিতে বুদ্ধিস্ট কালচারাল সেন্টারের শিলান্যাস করেছেন। ভারতের সংস্কৃতি মন্ত্রকের অর্থে এই কাজ হবে।


আরও খবর



নিজেকে সফল ভাবেন না রাশমিকা

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৮১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শোনা যাচ্ছে, করণ জোহরের ধর্মা প্রডাকশনের সঙ্গেও একাধিক বলিউড সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন রাশমিকা। ধর্মার নারীপ্রধান বেশ কিছু সিনেমায় অভিনয় করবেন তিনি। অন্যদিকে, দক্ষিণের এনটিআর থার্টি সিনেমাটি করছেন না আলিয়া ভাট। তাই ফিমেল লিডে এখন ভাবা হচ্ছে রাশমিকা মান্দানাকে।

হাতে রয়েছে থালাপতি ৬৬-এর মতো বড় বাজেটের আলোচিত সিনেমা। যদিও রাশমিকার শিডিউল পাওয়াই এখন কঠিন হয়ে উঠছে। রাম পোথিনেনির আপকামিং সিনেমার শুটিং শুরু করা যাচ্ছে না রাশমিকার শিডিউল না পাওয়ার কারণেই। নয়নতারা, আনুশকা শেঠি, ইলিয়ানা ডি ক্রজ, তৃষা, কাজল আগারওয়াল, সামান্থাসহ অনেকেই ভারতের দক্ষিণ ইন্ডাস্ট্রির লিড পজিশনে ছিলেন।

তবে ২০১৭-এর পর চাকা ঘুরেছে। রাশমিকা ও পূজা হেগড়েই যেন একের পর এক ছক্কা হাঁকাচ্ছেন। কিন্তু এতসবেও রাশমিকা নিজেকে সফল ভাবেন না। তিনি বলেন, আজকের এই ব্যস্ততা রাতারাতি আসেনি। এটা আমার অনেক দিনের প্ররিশ্রমের ফসল। আমি এখনো মনে করি না দর্শক আমাকে দেখতে হলে আসে।

আমার মনে হয়, দর্শক আমার কো-আর্টিস্টকে দেখতে আসে, সেখানে আমি থাকি সাপোর্টিভ হিসেবে। যদি কখনো এমন অবস্থা তৈরি হয় যে আমার জন্যই সিনেমা ব্লকবাস্টার হবে, তখন মনে করব আমি সফল। ব্যস্ততাকে তাই এখনো স্রেফ কাজের অংশ হিসেবেই দেখছি।’


আরও খবর