Logo
শিরোনাম

গার্লফ্রেন্ডকে সন্তুষ্ট করার ৮ উপায়

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
প্রেমিকার সঙ্গে কিছু অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটানোর চেয়ে আনন্দদায়ক আর কী হতে পারে। এমনকি, যদি আপনার খুব ব্যস্ততা থাকে, ফুরসত মেলা ভার; তবুও তার জন্য কিছু সময় বের করুন

প্রায়ই লোকে বলে, নারীকে সন্তুষ্ট করা খুব কঠিন। তবে যদি সে ভালোবাসার মানুষ হয়, তা কিন্তু কঠিন নয়। আপনি এমন কিছু করতে পারেন, যা আপনার প্রেমিকাকে সর্বদাই সন্তুষ্ট রাখবে। তা ছাড়া, বয়ফ্রেন্ড হিসেবে আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন না আপনার গার্লফ্রেন্ড অসন্তুষ্ট থাকুক।

কীভাবে? আপনি যদি এখনই উপায় খুঁজতে মাথা চুলকাতে শুরু করেন, তাহলেই বুঝব আপনি সঠিক পথে আছেন। মানে, সঙ্গীকে সন্তুষ্ট করার জন্য আপনি চিন্তিত। ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের প্রতিবেদনে এমন কিছু পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, যা আপনার সঙ্গীকে সন্তুষ্ট করতে সাহায্য করতে পারে। আসুন, আমরা একবার চোখ বুলিয়ে নিই

প্রেমিকার কথা শুনুন

যখন প্রেমিকা কিছু বলে বা বলতে চায়, তখন আপনার তা মন দিয়ে শোনা উচিত। গার্লফ্রেন্ডকে সন্তুষ্ট করার সবচেয়ে সহজ উপায় হচ্ছে তার কথা শোনা। যখন আপনার প্রেমিকা কোনো গুরুত্বপূর্ণ কথা বলতে চাইছে আর আপনি সে সময় মুঠোফোনে ব্যস্ত বা অন্য কিছু করছেনএমনটা হলে কিন্তু সঙ্গীর মন জোগাতে পারবেন না। সে ভাববে, আপনি তার প্রতি যত্নবান নন।

প্রেমিকার ওপর আস্থা রাখুন

যেকোনো সম্পর্কে সততা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক চাইলে দুজনেরই সততা জরুরি। আর তা আপনার গার্লফ্রেন্ডকে খুশি করবে। নারী সব সময় চায়, তার প্রেমিক বা সঙ্গী সৎ হোক এবং তাদের ওপর আস্থা রাখুক। অসৎ পুরুষকে নারী দেখতে পারে না। আপনি যদি আপনার গার্লফ্রেন্ডের ওপর আস্থা না রেখে সারাক্ষণ নজরদারি করতে থাকেন এবং সততার কোনো উদাহরণই তৈরি না করেন, তবে তার ভালোবাসা পাওয়া কঠিন হবে। এর চেয়ে ভালো, আপনার অভ্যাস বদলান।

প্রেমিকাকে সময় দিন

প্রেমিকার সঙ্গে কিছু অন্তরঙ্গ মুহূর্ত কাটানোর চেয়ে আনন্দদায়ক আর কী হতে পারে। এমনকি, যদি আপনার খুব ব্যস্ততা থাকে, ফুরসত মেলা ভার; তবুও তার জন্য কিছু সময় বের করুন এবং দারুণ মুহূর্ত কাটান। আর এটিই আপনার লেডি লাভের মুখে হাসির ঝিলিক এনে দেবে। সে লক্ষ করবে, আপনি তার খুশির জন্য অনেক কিছুই করতে পারেন। এতে সে আপনাকে মূল্য দেবে।

প্রেমিকাকে সারপ্রাইজ দিন

যদি আপনি কোনো বিজনেস ট্রিপে যান বা কিছুদিনের জন্য বাইরে যান, তবে আসার সময় উপহার আনতে ভুলবেন না। হোক সেটা চকলেট, হ্যান্ডব্যাগ বা প্রসাধন; আপনার লেডি লাভের জন্য কিছু আনতে ভুলবেন না। আর এটা ভালোবাসা প্রকাশের অন্যতম কিউট উপায়। এতে নিশ্চিত আপনার প্রেমিকা খুব খুশি হবে।

প্রেমিকাকে মিষ্টি বার্তা দিন

ব্যস্ততার ফাঁকেও আপনি প্রেমিকাকে সময় দিতে পারেন। কীভাবে? মাঝেমধ্যে আপনি তাকে মিষ্টি খুদেবার্তা পাঠাতে পারেন। ভরসা রাখুন, এটা নিশ্চিত কাজে দেবে। যেমনআপনি কিছু মিষ্টি উদ্ধৃতি তাকে টেক্সট করতে পারেন অথবা প্রথম দেখায় কেমন লেগেছিল, সেই কথাটিও টেক্সট করতে পারেন। এসব মুহূর্তের বার্তা তার মনে পুলক এনে দেবে।

প্রেমিকাকে সম্মান করুন

আমরা সবাই সম্মান চাই। একে অন্যের প্রতি সম্মান বোধ না থাকলে সম্পর্ক টেকে না। আপনি তার আবেগ-অনুভূতি, চিন্তাধারা, মত ও পছন্দকে গুরুত্ব দিন। এটা তার ভেতরে এই বিশ্বাস জন্মাবে যে আপনি তার সুখের জন্য সব কিছু করতে প্রস্তুত। মনে রাখা দরকার, দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক চাইলে পারস্পরিক সম্মান বোধ খুবই দরকার।

মুখরোচক খাবার দিয়ে চমকে দিন

যদি গার্লফ্রেন্ডের হৃদয় জয় করতে চান, তবে তার প্রিয় খাবার রান্না করে চমকে দিন। শুধু পুরুষই ভোজনরসিক হয় না, নারীও হয়। আপনি যদি রান্না ভালো করতে না-ও পারেন, তবু চেষ্টা করুন। এখন তো অন্তর্জালের যুগ। সেটা ঘেঁটেই না হয় রান্না করুন।

কঠিন সময়ে প্রেমিকার পাশে থাকুন

প্রত্যেকের জীবনে দুঃসময় আসে। আপনার প্রিয়তমার জীবনেও সেটা ঘটতে পারে। এ সময় তার মন চাইবে, কেউ বন্ধুত্বের হাত বাড়িয়ে দিক। আর সেই হাতটি তো প্রেমিক হিসেবে আপনারই। ধরুন, কোনো বিষয়ে আপনার প্রেমিকা চিন্তিত বা সমাধানের উপায় খুঁজছে। এ সময় তাকে কিছু পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করুন। এতে আপনার ওপর তার ভরসা বাড়বে। সম্পর্ক আরও শক্তিশালী হবে। নিজের কঠিন সময়ে আপনিও নিশ্চয়ই তাকে পাশে পেতে চাইবেন?

নারীকে সন্তুষ্ট করার এমন অনেক উপায়ের কথাই বলা যায়। কিন্তু আপনাকে আগে প্রেমিকার মনপড়া জানতে হবে। এতে আপনাদের বন্ধন আরও দৃঢ় হবে। শেষতক সুখী হবেন দুজনই।


আরও খবর

গাজরের মালাই পাটিসাপ্টা

রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১

মেজবানি মাংস রান্না করবেন যেভাবে

বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১




থেমে নেই শিমুলিয়া ফেরিঘাটে জনস্রোত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লকডাউনের মধ্যেও মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ফেরিঘাটে যেন জনস্রোত থেমে নেই। গণপরিবহণ না থাকায় বিড়ম্বনা মাথায় করেই ঢাকা ও আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে নানাভাবে ভেঙে ভেঙে শিমুলিয়ায় ভিড় করছেন মানুষ। ফেরিতে গাদাগাদি করে তারা চলেছেন দক্ষিণের জেলাগুলোতে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে দক্ষিণবঙ্গমুখী মানুষ শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে যাত্রীর চাপ থাকলেও ১৪টি ফেরি চলাচল করায় ফেরিতে উঠতে সমস্যা হচ্ছে না কারও। ফেরিতে পারাপার করছেন তারা। তবে গত কয়েক দিনের তুলনায় কমেছে যাত্রীর চাপ।

এদিকে পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে ঘাট এলাকায়। ঘাট ও ঘাটের প্রবেশমুখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতি রয়েছে। চেকপোস্ট থেকে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘাটে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। সকাল থেকে ঘাটে যাত্রীদের উপস্থিতি থাকলে যানবাহনের আধিক্য ছিল বেশি। ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছেন শত শত ব্যক্তিগত ও পণ্যবাহী গাড়ি।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়াঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) ফয়সাল আহমেদ জানান, শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে বর্তমানে ১৪টি ফেরি সচল রয়েছে। ঘাট এলাকায় পারাপারের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে প্রায় ৫০০ গাড়ি। সিরিয়াল অনুযায়ী সব গাড়ি পার করা হবে।


আরও খবর



শরণার্থী হিসেবে বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছেন ১ কোটির বেশি ফিলিস্তিনি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইসরাইলি বর্বরতা ও দখলদারিত্বের কারণে নিজেদের ভিটেমাটি হারিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছেন এক কোটি ৩৮ লাখ ফিলিস্তিনি।

ফিলিস্তিন সরকার সম্প্রতি এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানিয়েছে। দখলদার ইসরাইলের অত্যাচার আর নির্যাতনে গাজা ও পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনি লোকসংখ্যা কমে এখন মাত্র ৫২ লাখ ৩০ হাজারে দাঁড়িয়েছে।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ ও ইউএনএফপিএ (ইউনাইটেড ন্যাশনস পপুলেশন ফান্ড) যৌথভাবে ওই পরিসংখ্যানের রিপোর্ট প্রকাশ করে।

অবরুদ্ধ গাজা ও পশ্চিমতীরের মোট জনসংখ্যার ৩৩ শতাংশই শিশু। এদের মধ্যে গাজায় ৪১ শতাংশ বাসিন্দার বয়স ১৫ বছরের নিচে।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গাজায় ৩৬৫ বর্গ কিলোমিটারে ২১ লাখ ১০ হাজার ফিলিস্তিনির বসবাস, যা বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকার মধ্যে অন্যতম।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো ইসরাইলের অব্যাহত এ দখলদারিত্বের কঠোর সমালোচনা করলেও এতে কর্ণপাত করছে না তেলআবিব।

জর্ডান, সিরিয়া ও লেবানন ছাড়াও বহু ফিলিস্তিনি আশ্রয় নিয়েছেন লাতিন আমেরিকার দেশ চিলিতে। সেখানে এ বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করছেন এক ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত নাগরিক।


আরও খবর



করোনায় মৃত্যু ১৪ হাজার ছাড়াল, শনাক্ত ৪৩৩৪

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৪ হাজার ৫৩ জনে। গতকাল শুক্রবার দেশে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ১০৮ জনের মৃত্যু হয়েছিলো।

শনিবার (২৬ জুন) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। যেখানে বলা হয়েছে, একই সময়ে নতুন করে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ৪ হাজার ৩৩৪ জন। এ নিয়ে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ লাখ ৮৩ হাজার ৮৩৮ জনে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় ১৯ হাজার ৮৪৪ নমুনা সংগ্রহ করা হলেও পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ২৬২টি নমুনা। যেখানে শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৫০ শতাংশ। এ পর্যন্ত শনাক্তের মোট হার ১৩ দশমিক ৬২ শতাংশ।

একদিনে নতুন করে সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ২৯৫ জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা ৮ লাখ ৮৫৪ জন। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, মারা যাওয়া ৭৭ জনের মধ্যে ষাটোর্ধ ৩৮ জন। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১৭ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১৩ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ৫ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৩ জন ও ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ১ জন।

২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ৪৮ জন ও মহিলা ২৯ জন। যাদের মধ্যে বাসায় ৪ জন ছাড়া বাকিরা হাসপাতালে মারা গেছেন। একই সময়ে বিভাগওয়ারী পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ৭৭ জনের মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগে সর্বোচ্চ ২০ জন, খুলনায় ১৯, ঢাকায় ১৭, রাজশাহীতে ৯, সিলেট ও রংপুরে ৪ জন করে, ময়মনসিংহে ৩ জন ও বরিশালে ১ জন মারা গেছেন।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।


আরও খবর



‘কঠোর লকডাউনে’ খোলা থাকছে ব্যাংক!

প্রকাশিত:বুধবার ৩০ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৯৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংক খোলা থাকবে। এ বিষয়ে সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোকে জানানো হবে

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) থেকে শুরু হওয়া এক সপ্তাহের কঠোর লকডাউনে ব্যাংক খোলা থাকবে। জুন ক্লোজিংয়ের কারণে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কিছু বিভাগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানও খোলা থাকবে।

বুধবার (৩০ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিয়ে সার্কুলার জারি করবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংক খোলা থাকবে। এ বিষয়ে সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোকে জানানো হবে। কঠোর লকডাউনের বিষয়ে সরকারের প্রজ্ঞাপনের পরই আমরা বিস্তারিত জানাতে পারবো।

দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে সাতদিনের কঠোর লকডাউনে সব অফিস, যানবাহন ও দোকানপাট বন্ধ রেখে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। বুধবার (৩০ জুন) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কঠোর লকডাউনের প্রজ্ঞাপন জারি করে এ তথ্য জানায়।


আরও খবর

ব্যাংকে লেনদেন দেড়টা পর্যন্ত

রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১




মেসিকে অদ্ভুত প্রস্তাব দিয়েছে ব্রাজিলের অখ্যাত ক্লাব

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কোপা আমেরিকার শিরোপার নেশায় যখন বুঁদ লিওনেল মেসি, তখন স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা থেকে মুক্ত হয়ে গেছেন তিনি।

বার্সার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে আর্জেন্টাইন তারকার। অর্থাৎ ফ্রি এজেন্ট হয়ে গেছেন তিনি। ১ জুলাই থেকে কোনো ট্রান্সফার ফি ছাড়াই মেসিকে দলে নিতে পারবে যে কোনো দল।

আর সেই সুযোগে মেসিকে অদ্ভুত সব শর্ত রেখে প্রস্তাব দিয়েছে ব্রাজিলের একটি অখ্যাত ক্লাব, নাম ইবিজ স্পোটর্স ক্লাব। ক্লাবটিকে বিশ্বের সবচেয়ে বাজে ক্লাব বলা হয়। কারণ টানা প্রায় চার বছর কোনো ম্যাচই জেতেনি তারা।

আর এমন বাজে ক্লাব মেসিকে প্রস্তাব দিল তাদের দলে ভেড়ার।

নিজেদের টুইটার পেজে ছয়টি হাস্যকর শর্ত রেখে মেসিকে প্রস্তাব দিয়েছে গিনেস বুকে হারের বিশ্বরেকর্ড তোলা ইবিজ স্পোটর্স ক্লাব।

নিজেদের অফিসিয়াল টুইটার পেজে তারা লিখেছেন- আজ (বুধবার) বার্সার সঙ্গে মেসির চুক্তির শেষ দিন। আগামীকাল থেকে নতুন ক্লাবে যুক্ত হবেন মেসি। স্বাক্ষর করুন, মেসি।

পোস্টের সঙ্গে একটি চুক্তিপত্রের ছবি সংযোজন করেছে ইবিস স্পোর্ট ক্লাব। যেখানে ছয়টি অদ্ভুত প্রস্তাব লেখা রয়েছে।

প্রথমটি হলো- মেসির সঙ্গে চুক্তিটি হবে ১৫ বছরের, যা শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। মেসির পারিশ্রমিক হবে ক্লাবের আয়ের ওপর ভিত্তিতে।

দ্বিতীয়ত ক্লাবের হয়ে বেশি বেশি গোল করতে পারবেন না মেসি। চ্যাম্পিয়ন হওয়াও যাবে না। এতে ইবিস স্পোর্ট ক্লাবের পরাজয়ের বিশেষ ঐতিহ্যক্ষুণ্ন হবে।

তৃতীয়ত ইবিস স্পোর্ট ক্লাবে বার্সেলোনার মতো ১০ নম্বর জার্সি পরতে পারবেন না মেসি। কারণ ইবিসে ১০ নম্বর জার্সি পরে খেলতেন মাউরো শাম্পু। যিনি ১৯৮৭ থেকে ১৯৯৫ পর্যন্ত খেললেও, কোনো গোল করেননি। তার সম্মানে সেই জার্সি আর কাউকে দেওয়া হবে না।


আরও খবর