Logo
শিরোনাম

হজমের সমস্যায় আসন ও ডায়েট

প্রকাশিত:সোমবার ১১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৯৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাঙালির হজমের সমস্যা নতুন নয়। ভাজা-পোড়া-ভর্তা-ঝাল-ঝোল-অম্বলে অভ্যস্ত বাঙালির পেট ও হজমের সমস্যা চিরকালীন। কিন্তু স্বাস্থ্য সচেতনতার যুগে দৈনন্দিন জীবনে অতিরিক্ত তেলমশলা অনেকেই এড়িয়ে চলেন। তা হলে কেন এ ধরনের সমস্যা?

আসলে গলদটা গোড়াতেই। স্পষ্ট করে বললে, অনিয়মিত খাওয়াদাওয়ার ফলে তৈরি হয় হজমের সমস্যা। আবার এই সমস্যা দুরকমের ইনডাইজেশন এবং ম্যালঅ্যাবজ়র্পশন। অতিরিক্ত খেলে এবং তা হজম করতে না পারলেই বদহজম হয়। আবার ম্যালঅ্যাবজ়র্পশনে গৃহীত খাদ্যের অংশ শরীর নিতেই পারে না। অর্থাৎ যা খাওয়া হচ্ছে, তা-ই শরীর থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে।

যাঁরা হজমের সমস্যায় ওষুধের উপরে নির্ভরশীল, ক্রমশ তাঁদের সমস্যা পরিণত হয় ক্রনিকে। চিকিৎসক, ডায়াটিশিয়ানদের মতে, জীবনযাপনের অনিয়মিত ধারা বদলাতে পারলে সমস্যার সুরাহা হয়। আবার ঘরোয়া ব্যায়ামের নিয়মিত অভ্যেস শরীরকে সুস্থ করে তুলতে পারে।

সুস্থ জীবনযাপন করতে গেলে শরীর ভাল রাখা জরুরি। শরীর যতটা সচল থাকবে, ততটাই ভাল। যোগ বিশেষজ্ঞ দীপেন সেনগুপ্ত বলছেন, ‘‘আসন বা ব্যায়াম মাত্র এক দিনেই সমস্যা সারিয়ে ফেলে, এমনটা নয়। আসন আসলে অভ্যেস। রোজ নিয়ম মেনে করা জরুরি। প্রাথমিক ভাবে হয়তো এর ফল বোঝা যাবে না। কিন্তু রোজ করতে থাকলে আসন করার ফল পাওয়া যাবেই।’’ রইল এমন আসন, যা পেটের সমস্যা কমায়।

প্রাণায়াম: যাঁরা ব্যায়ামে অভ্যস্ত এবং যাঁরা একেবারেই আসন করেন না, তাঁরা সকলেই শুরু করতে পারেন প্রাণায়াম দিয়ে। মাটির উপরে পা মুড়ে বসার সময়ে যে একেবারে পদ্মাসনেই বসতে হবে, তা বাধ্যতামূলক নয়। যে ভাবে বসলে আরাম পাবেন, সেই ভাবেই বসুন। তবে শিরদাঁড়া থাকবে টানটান। শিরদাঁড়া, ঘাড়, মাথা সোজা করে বসে চোখ বুজে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে হবে জোরে জোরে। ১০-১৫ বার শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়ার প্রক্রিয়া চালাতে হবে। এটি প্রথম সপ্তাহে দশ বার করতে পারেন। দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে ১৫ বার অবধি করা যায়। এই প্রাণায়াম শরীরের প্রত্যঙ্গে রক্ত সঞ্চালনে সাহায্য করে। কনস্টিপেশন, ডায়ারিয়া, গ্যাসট্রিক, বদহজম, পেটব্যথাও সারায়।

ভুজঙ্গাসন: মেঝেয় টানটান হয়ে পেটের উপরে শুয়ে, হাতের তালুতে চাপ দিয়ে আস্তে আস্তে কাঁধ দুটো তুলতে হবে। পায়ের গোড়ালি থাকবে জোড়া। শ্বাস-প্রশ্বাস থাকবে স্বাভাবিক। এটি করতে পারেন দিনে চার বার পর্যন্ত।

বজ্রাসন: হাঁটু মুড়ে পায়ের উপরে বসতে হবে। হাত দুটি রাখতে হবে হাঁটুর উপরে। মেরুদণ্ড থাকবে সোজা। দশ থেকে পনেরো অবধি গুনে বিশ্রাম নিতে হবে। এ ভাবে দিনে চার বার পর্যন্ত করা যেতে পারে বজ্রাসন।

পবনমুক্তাসন: মাটিতে টানটান হয়ে শুয়ে একটি পা তুলতে হবে। হাঁটু মুড়ে তা নিয়ে আসতে হবে বুকের উপরে। ব্যালান্স রাখার জন্য দুহাত দিয়ে হাঁটু চেপে ধরতে হবে। আট থেকে দশ বার গুনে আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে হবে। দুটি পায়েই করতে হবে এই আসন। দিনে মোট ছ-আট বার করা যায়।

উপবিষ্ট কোণাসন: মাটিতে সোজা হয়ে বসে দুপা ছড়িয়ে দিতে হবে কোনাকুনি। দুপায়ের পাতা ধরতে হবে দুহাত দিয়ে। পা ধরতে গেলে নিচু হতে হবে। আট থেকে দশ গোনা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। ফিরতে হবে স্বাভাবিক অবস্থায়। দিনে ছ-আট বার করতে পারেন।

শবাসন: মাটিতে টানটান হয়ে শুয়ে হাত ও পা ছড়িয়ে দিতে হবে। হাতের তালু মেঝের উপরে রাখা থাকবে। তিন-চার সেকেন্ড চোখ বুজে থাকার পরে চোখ খুলতে হবে। তিন চার সেকেন্ড পরে আবার বন্ধ করতে হবে। প্রত্যেক আসনের পরে শবাসন করা জরুরি। আসন করার সময়ে বেড়ে যাওয়া হৃদ্‌স্পন্দন স্বাভাবিক হয়, স্ট্রেস কমে, মাথা ঝিমঝিম দূর হয়।

ধীরে ধীরে করতে পারেন কুম্ভীরাসন, গোমুখাসন ইত্যাদি।


আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১

বাটা মসলার স্বাদে চিংড়ির কোরমা

মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১




ছাত্রলীগ হোক আর যেই হোক, বিচার হবে: আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় অপরাধী ছাত্রলীগ হোক বা আর যে দলেরই হোক তার বিচার হবে বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। রবিবার বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে এক প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় এক ছাত্রলীগ নেতার নাম আসা প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ছাত্রলীগ বা অন্য লীগ বা অন্য দল, এসব না। যারা অপরাধ করবে তাদের বিচার হবে। সে যেই দলেরই হোক যে গোষ্ঠীরই হোক যে জাতিরই হোক। কিন্তু অপরাধী অপরাধীই, তার বিচার হবে।

আওয়ামী লীগ অবশ্যই অসম্প্রাদায়িক রাজনীতি বিশ্বাস করে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের মানুষকেও সে দীক্ষাই দীক্ষিত করেছেন বলে জনগণ সাম্প্রদায়িক রাজনীতির দিকে ঝুঁকে না। সেক্ষেত্রে কেউ যদি ব্যক্তিস্বার্থে অন্যায় করে সেটাও অন্যায় এবং তাকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।


আরও খবর



শাড়িতেও মোহময়ী সাজতে জানেন মালাইকা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বলিউড অভিনেত্রী মালাইকা আরোরার তার ফ্যাশন সেন্সের জন্য আলাদা পরিচয় রয়েছে। জিম থেকে সুইমস্যুট সবখানেই নিজের রুচির প্রমাণ রাখেন মালাইকা। মাঝে মাঝে শাড়িও পরেন মালাইকা। যথারীতে সেখানেও তিনি রাখেন আভিজাত্যের ছাপ।

ট্র্যাডিশনাল হ্যান্ডলুম থেকে আগে থেকে ড্রেপ করা শাড়ি, নানা শাড়িতেই মোহময়ী সাজতে জানেন মালাইকা। কিছুদিন আগে মণীশ মলহোত্রার ডিজাইন করা নীল শাড়িতে দেখা গিয়েছিল নায়িকাকে। শাড়িতে রয়েছে সিলবার সিক্যুইনের কাজ। এই শাড়ি মালাইকা পরেছিলেন ব্রালেট ব্লাউজ দিয়ে। সঙ্গে পোল্কি চোকার ও ম্যাচিং কানের দুল পরেছিলেন তিনি। চুল খুলে সাধারণ ব্লো ড্রাই করা ছিল। স্মোকি চোখ ও লাল রঙের লিপস্টিকে মোহময়ী হয়ে উঠেছিলেন মালাইকা।

মালাইকা শাড়ি পরতে পছন্দ করেন। নিজের ইনস্টাগ্রামে শেয়ারও করেছেন শাড়ি পরা ছবি। শাড়ির সঙ্গে ভারী গয়নাও পরেছিলেন তিনি। চোকার ও নেকলেস দুই-ই পরেছিলেন তিনি। সঙ্গে ব্যাঙ্গলস ও কানের দুল ম্যাচিং।

নিউজ ট্যাগ: মালাইকা আরোরা

আরও খবর

অবশেষে জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

আজ ফের হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিন শুনানি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




হাজীগঞ্জে শিশু ধর্ষণ ও মৃত্যুর ঘটনাটি গুজব : পূজা উদযাপন পরিষদ

প্রকাশিত:শনিবার ১৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দু সম্প্রদায়ে মা-বোন ও ১০ বছরের একটি শিশুকে নিয়ে ছড়ানো সংবাদটি অসত্য ও গুজব বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন, পুলিশ ও উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদ।

শনিবার (১৬ অক্টোবর) সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ মর্মে খবর ছড়ানো হয় যে, ধর্ষণের শিকার সনাতন সম্প্রদায়ের ১০ বছরের ওই শিশু মারা গেছে। এমনকি শিশুটির সঙ্গে তার মাসি (খালা) ও বোন ধর্ষণের শিকার হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে বলে কিছু পোস্টে দাবি করা হয়।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ হাজীগঞ্জ উপজেলা শাখার সভাপতি রোটা. রুহিদাস বণিক তার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও বক্তব্যের মাধ্যমে বিষয়টি গুজব বলে ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-খ্রিস্টান-বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সত্য ব্রত ভদ্র মিঠুন সাংবাদিকদের বলেন, হাজীগঞ্জ উপজেলার কোথাও হিন্দু সম্প্রদায়ের কোনো পরিবারে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সম্পূর্ণ মিথ্যা অপপ্রচার করা হচ্ছে।

হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা শোয়েব আহম্মেদ চিশতী বলেন, হিন্দু সম্প্রদায়ে এমন কোনো ঘটনার বিষয়ে চিকিৎসা নিতে কেউ আসেনি।

হাজীগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশীদ বলেন, এ বিষয়ে থানায় এখনো কোনো অভিযোগ আসেনি। যতটুকু জেনেছি এ ধরনের ঘটনা হাজীগঞ্জ ঘটেনি। বিষয়টি গুজব।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত ডিআইজি ইকবাল হোসেন দুপুরে সাংবাদিকদের জানান, বিষয়টি আমরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেখেছি। বাস্তব ঘটনা হলো এটি একটি মিথ্যা ঘটনা। গুজব ছড়াচ্ছে একটি স্বার্থান্বেষী মহল।


আরও খবর



ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময় বাড়ল

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতে ইলিশ রপ্তানির সময়সীমা ১০ দিন বাড়িয়ে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করেছে সরকারের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

দেশে ইলিশের প্রজনন রক্ষায় ২২ দিনের জন্য ইলিশ শিকার, পরিবহন ও বিক্রয় বন্ধের নির্দেশনায় গত ৪ অক্টোবর থেকে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ ছিল।

২৬ অক্টোবর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রপ্তানি শাখার উপসচিব তানিয়া ইসলাম স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে পুনরায় ৫ নভেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বাড়িয়ে ইলিশ রপ্তানির অনুমতিপত্র আসে বন্দরে।

জানা যায়, উৎপাদন সংকটের জন্য দেশের বাইরে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকলেও সরকার ভারতে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান দুর্গাপূজা উপলক্ষে এ বছর ৪ হাজার ৬৫০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয়। নির্দেশনা ছিল চলতি মাসের ১০ অক্টোবরের মধ্যে রপ্তানি শেষ করতে হবে। কিন্তু  ইলিশের প্রজনন রক্ষায় ইলিশ ধরা বন্ধের নির্দেশনায় হঠাৎ করে ভারতে ইলিশ রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়।

বেনাপোল মৎস্য পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ অফিসের পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ইলিশ রপ্তানির নির্দেশনাপত্র তারা হাতে পেয়েছেন। ২৬ অক্টোবর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত অবশিষ্ট ইলিশ ব্যবসায়ীরা ভারতে রপ্তানি করতে পারবেন। গত ৩ অক্টোবর পর্যন্ত  ভারতে ইলিশ রপ্তানি হয়েছে ১ হাজার ১০৮ মেট্রিক টন। এখনো ইলিশ রপ্তানি বাকি রয়েছে ৩ হাজার ৫৪২ মেট্রিক টন।

শার্শা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবুল হাসান জানান, দুর্গাপূজায় এ বছর ১১৫ রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানকে ভারতে ৪ হাজার ৬৫০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছিল বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। প্রতি কেজি ইলিশের রপ্তানি মূল্য ১০ মার্কিন ডলার ধরা হয়েছে। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এসব চালান রপ্তানি করা হচ্ছে ভারতে।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও ১৮২ জন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১৮২ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ১৪৩ জন এবং ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৯ জন। একইসঙ্গে এই সময়ে নতুন করে ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

অধিদফতর বলছে, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি এবং মৃত্যুবরণকারীদের অধিকাংশই রাজধানীর বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে সারাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গু বিষয়ক প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি থাকা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯১৬ জনে। ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৭৪২ জন এবং অন্যান্য বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৭৪ জন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ (১২ অক্টোবর) পর্যন্ত হাসপাতালে সর্বমোট রোগী ভর্তি হয়েছেন ২০ হাজার ৫১৮ জন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৯ হাজার ৫২২ জন রোগী। ডেঙ্গুতে এ সময়ে ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: ডেঙ্গু আক্রান্ত

আরও খবর

আরও ১৭৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

করোনায় মৃত্যু কমেছে, শনাক্ত বেড়েছে

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১