Logo
শিরোনাম

কি কি রয়েছে অ্যামাজন মালিকে’র সখের তালিকায়

প্রকাশিত:শুক্রবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অনলাইন কেনাকাটার সংস্থা অ্যামাজনের মালিক শৌখিন মানুষ। শখ মেটাতে দামি জিনিস কেনায় জুড়ি নেই তাঁর। তবে শখগুলি বেশ অদ্ভুত। কোটি কোটি টাকা খরচ করে ভাঙা সব জিনিস কিনে মাঝে মধ্যেই তাক লাগিয়ে দেন তিনি।

নাম জেফ বেজোস। ২০২২ সালের হিসেবে তাঁর মোট সম্পত্তির পরিমাণ ১৮ হাজার ৩৮০ কোটি আমেরিকান ডলার। বিশ্বের দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি জেফ। জীবন যাপনও করেন অত্যন্ত বিলাসবহুল ভাবে।

তবে জেফের বিলাসের সংজ্ঞা একটু আলাদা, তাতে বাহুল্যের চেয়ে বিরলতার ভাগ একটু বেশি। সোজা কথায় দাম দিয়ে অ্যামাজন প্রতিষ্ঠাতা এমন জিনিস কেনেন, যা সচরাচর চোখে পড়ে না। তেমনই কিছু দামি আর বিরল আটটি জিনিসের তালিকা রইল।

প্রাইভেট জেটপ্লেন: জেফ চলাফেরা করেন প্রাইভেট জেটে। আমেরিকা থেকে ইউরোপ যাতায়াত চলতেই থাকে তাঁর। জেফের কাছে রয়েছে বিশ্বের অন্যতম দ্রুতগতি জেটপ্লেন। নাম জি-৬৫০ইআর। দাম সাড়ে ছকোটি আমেরিকান ডলার।

মিউজিয়াম বাড়ি: আমেরিকার রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে থাকার জন্য একটি বাড়ি কিনেছেন জেফ। তবে তাকে শুধু বাড়ি বললে কমিয়ে বলা হয়। এককালে পোশাক এবং কাপড়ের জাদুঘর ছিল বাড়িটি। সেটিই কিনে নতুন করে সাজিয়েছেন জেফ। ভিতরে রয়েছে ১১টি শয়নঘর, ২৫টি স্নানঘর, পাঁচটি বসার ঘর এবং দুটি লিফ্ট। বাড়িটির দাম প্রায় আড়াই কোটি আমেরিকান ডলার।

প্রাসাদ: নিউ ইয়র্কের বৈগ্রহিক বহুতল ২১২ ফিফ্থ অ্যাভিনিউয়ে বাড়ি বেজোসের। ওই বহুতলে মোট ১১.২ কোটি আমেরিকান ডলারের সম্পত্তি রয়েছে তাঁর। ওই বহুতলে পেন্ট হাউস থেকে শুরু করে ফিটনেস রুম, গল্ফ খেলার জায়গা, আলাদা গেম খেলার ঘর, সিনেমা দেখার ছোট খাট হলঘর সবই রয়েছে। প্রাসাদের মতোই তার সাজ সজ্জা।

হলিউডে বাড়ি: লস অ্যাঞ্জলেসের বেভারলি হিলসে থাকেন হলিউডের বড় বড় তারকারা। তাঁদেরই প্রতিবেশী বেজোস। প্রায় সাড়ে ৯ একর এলাকা জুড়ে বিস্তৃত সবুজে ঘেরা এলাকায় মাঝামাঝি বেজোসের বাড়ি। ১৬.৫ কোটি আমেরিকান ডলার দিয়ে কিনে নিয়েছেন গোটা একখানি এস্টেট।

সুপার ইয়ট: বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্রমোদতরী বা সুপার ইয়টের মালিক জেফ। নাম ওয়াই ৭২১। দৈর্ঘ্য ৪১৭ ফুট। ২০১৮ সালে এটি তৈরি করার কাজ শুরু করতে বলেন অ্যামাজন প্রতিষ্ঠাতা। এখন তার কাজ শেষ পর্যায়ে। দাম ৫০ কোটি আমেরিকান ডলার।

রোবট কুকুর: পোষ্য আছে জেফের। তবে সাধারণ চারপেয়ে লোমশ সঙ্গী নয়। তিনি রোবট কুকুর পোষেন। জেফের যান্ত্রিক চারপেয়ের নাম স্পট। দাম সাড়ে ৭৪ হাজার ডলার। স্পট ১৪ কেজি ওজনের জিনিসপত্র বইতে পারে। দরজা খুলতে পারে। এমনকি তার মালিকের জন্য পানীয়ও এনে দিতে পারে।

হ্রদের বাড়ি: ওয়াশিংটনের মেদিনা হ্রদের পারে দু হেক্টর জমির উপর একটি বাড়ির মালিক বেজোস। ওই বাড়ির লাগোয়া একটি হাউসবোটও রয়েছে। সব মিলিয়ে দাম প্রায় ১২ কোটি ডলার।

দৈত্য ঘড়ি: দৈত্যাকৃতি ঘড়ি বানাচ্ছেন বেজোস। উচ্চতা প্রায় ৫০০ ফুট। দেড়খানা স্ট্যাচু অফ লিবার্টিকে উপর উপর রেখে দিলে যে দৈর্ঘ্য হবে তার চেয়ে সামান্য বেশি। পশ্চিম টেক্সাসের পাহাড়ি ঘড়িটি বানানোর জন্য প্রায় সাড়ে চার কোটি ডলার খরচ করছেন বেজোস। কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে। বেজোস জানিয়েছেন, এই ঘড়ি এমন ভাবে তৈরি করা হচ্ছে যা ১০ হাজার বছর চলবে।

নিজের গ্যারাজে অনলাইন বিকিকিনির বাজার খুলেছিলেন বেজোস। সেখান থেকে অ্যামাজন এখন গোটা বিশ্বের ই-বাণিজ্যের অন্যতম মাধ্যম। বেজোস শৌখিন মানুষ। তবে তাঁর শখ মেটানোর সংস্থান ঘাম ঝরানো পরিশ্রম থেকে নিজেই করেছেন তিনি।


আরও খবর

সিনেমা হল বন্ধ করে মাদ্রাসা চালু

মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল ২০২২




‘স্ত্রীর কথায় বরখাস্ত সমীচীন নয়’

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কথিত আত্মীয়দের রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনের না চেনার তথ্য সঠিক উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মন্ত্রীর স্ত্রীর কথায় বরখাস্ত সমীচীন নয়। রোববার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে মা দিবস উপলক্ষে গরবিনী মা সন্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রেলমন্ত্রীর স্ত্রীর কথায় রেলের টিটিই শফিকুল ইসলামকে বরখাস্তের প্রসঙ্গে তিনি এই মন্তব্য করেন। আওয়ামী লীগের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক নিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ চায় সব দলকে নিয়ে নির্বাচন করতে। মুক্ত গণমাধ্যম সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান আফগানিস্তানের পেছনে দিয়ে আরএসএফ নিজেরাই প্রমাণ করেছে তাদের প্রতিবেদন বিদ্বেষপ্রসূত বলেও মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী।


আরও খবর



করোনা শনাক্ত ২২ জনের, মৃত্যু নেই

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারো মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ২২ জন। বুধবার (১৮ মে) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২৪১ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৯ লাখ ১৩৮ জন।

২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৮৯০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৫ হাজার ১টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৪৪ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। গেল বছরের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



চলে গেলেন পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লোকসংগীতের বাদ্যযন্ত্র সন্তুর। কিন্তু এটাকে বিশ্ব দরবারে যিনি তুলে ধরেছেন, প্রজন্মের কাছে জনপ্রিয় করে তুলেছেন, তিনি পণ্ডিত শিবকুমার শর্মা। বিখ্যাত এই সন্তুরবাদক আর নেই। মঙ্গলবার (১০ মে) মুম্বাইয়ের নিজ বাড়িতে মারা গেছেন তিনি। ভারতীয় গণমাধ্যম থেকে জানা গেল, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান শিবকুমার। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

শিবকুমারের মৃত্যুতে ভারতের সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। অনেকেই তার আত্মার শান্তি কামনায় শোক প্রকাশ করছেন। ওস্তাদ আমজাদ আলি খান সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে লিখেছেন, পণ্ডিত শিবকুমার শর্মার প্রয়াণ একটি যুগের অবসান। তিনি সান্তুর যন্ত্রটির অগ্রণী শিল্পী। আমার কাছে এটা ব্যক্তিগত শোকের মুহূর্ত। ওর আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

সন্তুরের অবিস্মরণীয় অধ্যায়ের পাশাপাশি সিনেমায়ও কাজ করেছিলেন শিবকুমার। বিখ্যাত বংশীবাদক পণ্ডিত হরিপ্রসাদ চৌরাসিয়ার সঙ্গে জুটি বেঁধে বলিউডের বেশ কয়েকটি সিনেমায় মিউজিক কম্পোজ করেছেন তিনি। সিলসিলা’, লামহে’, চাঁদনী’ ও ডর’-এর মতো সিনেমার মিউজিক কম্পোজ করেছিলেন তারা।

১৯৩৮ সালের ১৩ জানুয়ারি জম্মুতে জন্মগ্রহণ করেন শিবকুমার শর্মা। তার বাবা উমা দত্তশর্মা ছিলেন প্রথিতযশা সংগীতশিল্পী। মাত্র পাঁচ বছর বয়স থেকেই শিবকুমার তার বাবার কাছে শাস্ত্রীয় সংগীতে প্রশিক্ষণ নিতে শুরু করেন। ১৩ বছর বয়সে বাবার কাছ থেকেই সান্তুরের হাতেখড়ি হয় তার। ভারতীয় সংগীতে অসামান্য অবদানের জন্য বহু পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন শিবকুমার। ১৯৮৬ সালে তাকে পদ্মশ্রী ও ২০০১ সালে তাকে পদ্মবিভূষণ পদকে ভূষিত করে ভারত সরকার।


আরও খবর



বাড়াবাড়ি করবেন না, ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিন : কাদের

প্রকাশিত:সোমবার ১৬ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়াবাড়ি না করার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তাদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, বাড়াবাড়ি করবেন না, বেশি বাড়াবাড়ি ভালো নয়। ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিন।’। সোমবার (১৬ মে) মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে তাঁর রাজধানীর বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগকে এখন থেকেই সুসংগঠিত, স্মার্ট রাজনৈতিক দল হিসেবে গড়ে তুলে আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অংশ গ্রহণের প্রস্তুতি নিতে হবে।

অর্থ পাচারকারী আওয়ামী লীগ নেতাদের নামের তালিকা প্রচার করতে সম্প্রতি বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের পাল্টা প্রশ্ন করে মির্জা ফখরুলের উদ্দেশে বলেন, অর্থ পাচারকারীর নামের তালিকা যদি প্রচার করতেই হয়, তাহলে সবার আগে আপনাদের দলের দণ্ডিত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নাম চলে আসবে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে তথ্য-প্রমাণ দিয়ে কথা বলার আহবান জানান ওবায়দুল কাদের৷ বলেন, বাড়াবাড়ি করবেন না, বেশি বাড়াবাড়ি ভালো নয়, ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিন।

ভারতে গ্রেপ্তার প্রশান্ত কুমার হালদারের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তিনি আওয়ামী লীগের কেউ নন। তবুও তিনি অর্থ পাচারকারী হিসেবে চিহ্নিত, তার বিচার প্রক্রিয়া আইনের মাধ্যমে হবে।

‘আওয়ামী লীগের মধ্যে যারা চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, চোরা কারবারি এবং সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত তাদের স্থান কোনোভাবেই আওয়ামী লীগে হবে না। ভালো লোক ও ত্যাগীদের দলে মূল্যায়ন করতে হবে’—যোগ করেন কাদের।

পকেট ভারী করার জন্য খারাপ লোকদের দলে না টানতে নেতৃবৃন্দের প্রতি আহবান জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেরপুরের নেতাকর্মীদের বলেন, ক্ষমতার দাপট দেখাবেন না, ক্ষমতা চিরকাল থাকবে না। শেখ হাসিনা দেশে এসেছিলেন বলেই অবরুদ্ধ গণতন্ত্র শৃঙ্খলা মুক্ত হয়েছে। শেখ হাসিনা এসেছিলেন বলেই বঙ্গবন্ধু হত্যা ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে জাতিকে কলংক মুক্ত করেছেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা বাংলাদেশে এসেছিলেন বলেই পদ্মাসেতু আজ দৃশ্যমান, আগামী মাসেই এই সেতুর উদ্বোধন করা হবে।

মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ফরহাদ হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আমিরুল আলম মিলন, এডভোকেট গ্লোরিয়া সরকার ঝর্ণা, পারভীন জামান কল্পনা এবং মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেকসহ স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।


আরও খবর



রেকর্ড উচ্চতা থেকে নিম্নমুখী হয়েছে মার্কিন মূল্যস্ফীতি

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রায় এক বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে গ্যাস, খাদ্য ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। কয়েক মাস ধরেই রেকর্ড উচ্চতায় রয়েছে মূল্যস্ফীতি। কভিডজনিত প্রভাবের পাশাপাশি ইউক্রেন যুদ্ধ বিভিন্ন পণ্যের দাম বাড়িয়ে তুলতে অবদান রেখেছে। তবে এপ্রিলে মূল্যস্ফীতির হার কিছুটা ধীর হয়েছে। যদিও এখনো সেটি চার দশকের সর্বোচ্চ উচ্চতার কাছাকাছি রয়ে গেছে। ফলে লাখ লাখ মার্কিন পরিবারের জন্য ক্রমবর্ধমান দামের সঙ্গে জীবনযাপন কঠিন হয়ে উঠেছে।

সম্প্রতি মার্কিন সরকার একটি প্রতিবেদনে জানিয়েছে, এপ্রিলে ভোক্তা পর্যায়ে পণ্যের দাম গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৮ দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। এ হার মার্চে ৮ দশমিক ৫ শতাংশের তুলনায় কিছুটা কম। মূল্যস্ফীতির এ হার ১৯৮১ সালের পর সর্বোচ্চ ছিল। বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতিতে মাসভিত্তিক হিসাবে এপ্রিলে পণ্যের দাম আগের মাসের তুলনায় দশমিক ৩ শতাংশ বেড়েছে। এ বৃদ্ধির হার গত আট মাসের মধ্যে সবচেয়ে কম। এদিকে এপ্রিলের প্রতিবেদনে কিছু সতর্কমূলক লক্ষণও রয়েছে যে মূল্যস্ফীতি আরো প্রবল হয়ে উঠতে পারে। বাজারে সর্বদা অস্থিরতার মধ্যে থাকা খাদ্য ও জ্বালানি বাদ দিয়ে মাসভিত্তিক কোর মূল্যস্ফীতি এপ্রিলে আগের মাসের তুলনায় দ্বিগুণ বেড়েছে। এয়ারলাইনস টিকিট, হোটেল রুম ও নতুন গাড়ির দাম বাড়ার কারণে এ মূল্যস্ফীতি বেড়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপার্টমেন্ট ভাড়ার খরচও ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। সম্পদ ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠান এবির মার্কিন অর্থনীতিবিদ এরিক উইনোগ্রাড বলেন, এগুলো স্পষ্ট করে দেয় যে মূল্যস্ফীতি গ্রহণযোগ্য পর্যায়ে ফিরে আসার ক্ষেত্রে এখনো দীর্ঘপথ পাড়ি দিতে হবে।

এমনকি এটি কিছুটা ধীর হলেও মূল্যস্ফীতি ২০২৩ সাল পর্যন্ত রেকর্ড উচ্চপর্যায়ে থাকবে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা। অনেক মার্কিন নাগরিকের মূল্যবৃদ্ধির বোঝা তাদের বেতন বাড়ার হারকে ছাড়িয়ে গেছে। বিশেষ করে নিম্নআয়ের মার্কিন নাগরিকরা জীবনযাত্রার উচ্চব্যয় মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছেন। কৃষ্ণাঙ্গ ও হিস্পানিক পরিবারগুলো গড়ে তাদের আয়ের বড় একটি অংশ গ্যাস, খাবার ও বাসা ভাড়ার পেছনে ব্যয় করছেন। এপ্রিলে গ্যাসের দামের পতন সামগ্রিক মূল্যস্ফীতিকে ধীর করতে সহায়তা করেছে। গত মাসে দেশটিতে এক গ্যালন গ্যাসের গড় দাম ৪ ডলার ১০ সেন্টে নেমে এসেছে। মার্চেও এ দাম ৪ ডলার ৩২ সেন্ট ছিল। তবে এরপর গ্যাসের দাম পুনরায় রেকর্ড ৪ ডলার ৪০ সেন্টে উন্নীত হয়েছে।

এছাড়া নিত্যপণ্যের দামও ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। কারণ ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসন গম ও অন্যান্য শস্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। এপ্রিলে খাবারের দাম আগের মাসের তুলনায় ১ শতাংশ এবং এক বছর আগের তুলনায় প্রায় ১১ শতাংশ বেড়েছে। বার্ষিক এ বৃদ্ধির হার ১৯৮০ সালের পর সর্বোচ্চ। এ ধরনের মূল্যস্ফীতি অনেক মার্কিন নাগরিককে ব্যয় কমিয়ে দিতেও প্ররোচিত করেছে। তাদেরই একজন প্যাটি ব্ল্যাকমন। লাস ভেগাসে গ্যাসের দাম ৫ ডলার ৮৯ সেন্ট হওয়ার পর তিনি তার নাতি-নাতনি নিয়ে গাড়িতে করে ক্রীড়া ইভেন্টে যাওয়া কমিয়ে দিয়েছেন। অর্থ বাঁচাতে ৬৮ বছর বয়সী ব্ল্যাকমন ১৮ মাস ধরে হেয়ারড্রেসারে যাননি। এছাড়া চলতি বছরের মাঝামাঝিতে গ্রীষ্মের ছুটিতে গাড়ি চালিয়ে তিনি আরকানসাসে আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার বিষয়টিও পুনর্বিবেচনা করছেন।

তিনি বলেন, অর্ধ গ্যালন অর্গানিক দুধের দাম ৬ ডলারে পৌঁছতে দেখে আমি হতবাক হয়ে গিয়েছি। খরচ কমাতে আমি মাংস খাওয়াও কমিয়ে দিয়েছি। পরিবর্তে সালাদ ও টিনজাত স্যুপের মতো খাবার খাওয়া বাড়িয়ে দিয়েছি।


আরও খবর