Logo
শিরোনাম

করোনার টিকা নিলে ফ্রিতে মিলবে বিয়ার

প্রকাশিত:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ১৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মহামারি করোনায় নাস্তানাবুদ বিশ্ব। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসকে রুখতে চলছে টিকাদান কর্মসূচি। সবাইকে টিকা নিতে উদ্বুদ্ধ করছে বিভিন্ন দেশের সরকার।

একই চিত্র ভারতেও। সেখানে টিকাকরণ প্রক্রিয়া চালু হলেও টিকা নিতে কিন্তু এখনও পর্যন্ত তেমন উদ্যোগ চোখে পড়ছে না জনগণের মধ্যে। তাই মানুষকে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করার জন্য একের পর এক অভিনব পদক্ষেপ চোখে পড়ছে দেশটিতে।

সম্প্রতি ভ্যাকসিন নেওয়ার উপযুক্ত প্রমাণ দেখালে দেড় কোটি টাকা পর্যন্ত ফ্রি রাইডের অফার দেয় উবার। হরিয়ানার গুরগাঁও শহরের এক রেস্টুরেন্টও একই রকম উদ্যোগ নিয়েছে।

করোনা টিকা নেওয়ার কার্ড দেখালে বিনামূল্যে বিয়ার বিলি করবে তারা। এই অভিনব অফারের ফলে ভ্যাকসিন নিতে মানুষ আরও বেশি করে উদ্যোগী হবে, তেমনটাই মনে করছেন রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, গুরগাঁওয়ের ইন্ডিয়ান গ্রিল রুম নামক পাব কাম রেস্টুরেন্টে সম্প্রতি অভিনব এই অফারের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। ওই রেস্টুরেন্টে কেউ যদি ভ্যাকসিনের কার্ড নিয়ে যান, তবে সঙ্গে সঙ্গেই তার হাতে তুলে দেওয়া হবে বিয়ারের বোতল। তাও আবার একেবারে বিনামূল্যে।

প্রসঙ্গত, এর আগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এক ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা টিকা নিলে বিনামূল্যে বিয়ার খাওয়ানোর একই অফার দিয়েছিল।

নিউজ ট্যাগ: বিয়ার

আরও খবর

আজ বিশ্ব মা দিবস

রবিবার ০৯ মে ২০২১




আগামী ২৯ এপ্রিল থেকে বাস চালাতে চান মালিকরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ মে ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দ্বিতীয় দফায় চলমান কঠোর নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আগামী ২৮ এপ্রিল। এর পরদিন থেকেই বাস চালাতে চান পরিবহন মালিকরা।

দোকান মালিকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে চলমান কঠোর নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই আগামী ২৫ এপ্রিল দোকান ও শপিংমল খোলা রাখার অনুমতি দিয়েছে সরকার। এর পরই আলোচনায় আসে গণপরিবহন চালু করার বিষয়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, আমরা আগামী ২৯ এপ্রিল থেকে বাস চালুর বিষয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। তবে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




প্রেমিকাকে দিয়ে ভাইকে খুনের অভিযোগে নায়িকা গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভাইকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন অভিনেত্রী শানায়া কাটওয়ে। ভাই রাকেশ কাটওয়েকে (৩২) হত্যার অভিযোগে  পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। ঘটনাটি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে কন্নড় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে।

নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রাকেশ খুনের ঘটনায় ধারওয়াড় জেলা পুলিশ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। এরা হলেন. তৌসিফ চন্নপুর (২১), আমান গিরানিওয়াল (১৯), আলতাফ মোল্লা (২৪ ) ও নিয়াজ আহমেদ কাটিগর (২১)। তাদের জেরা করেই বেরিয়ে আসে রাকেশ হত্যার পিছনে শানায়া জড়িত থাকার তথ্য।

পুলিশ জানায়, নিয়াজের সঙ্গে শানায়ার প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। আর এই সম্পর্ক নিয়ে আপত্তি ছিল ভাই রাকেশের। এর জেরে নিয়াজ প্রেমিকাকে নিয়ে রাকেশকে হত্যার চক্রান্ত করে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, রাকেশকে তার বাড়িতেই খুন করা হয় এবং ঘটনার সময় উপস্থিত ছিলেন শানায়াও। এরপর নিয়াজ ও বাকি তিন অভিযুক্ত রাকেশের মৃতদেহ টুকরো টুকরো করে বনাঞ্চলে ফেলে দেন।


আরও খবর



জটিলতা দেখা দিতে পারে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ সম্প্রচার নিয়ে

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ মে ২০২১ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে কড়া নোটিশ- ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যারাই বাংলাদেশে পা রাখবে, তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। সেই বাধ্যবোধকতায় সাকিব আল হাসান আর মোস্তাফিজুর রহমানের দেশে ফিরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলা নিয়েও জটিলতা দেখা দিতে পারে।

দেশের আপামর জনসাধারণের স্বাস্থ্যসেবার কথা বিবেচনা করলে এই আইন মানাও বিশেষ কর্তব্য। তবে অতীতে সরকারের উর্ধ্বতন মহলের অনুমতি নিয়ে ঐ নির্দেশ শিথিল করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিশেষ করে জাতীয় দলের বিদেশি কোচিং স্টাফদের জন্য ১৪ দিনের বদলে সপ্তাহখানেকের কোয়ারেন্টাইনে থাকার বিশেষ অনুমতি নেয়া হয়েছে বারকয়েক।

তবে এবারের করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বেশ কঠোর। সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে, ভারত থেকে আসা যে কোন যাত্রীর দুই সপ্তাহ বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতেই হবে। এই কড়াকড়ি বহাল থাকলে চরম বিপাকে পড়ে যাবে বিসিবি।

নাহ, সাকিব-মোস্তাফিজের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ খেলার কারণেই শুধু নয়। আরও একটি বিশেষ ও বাস্তবসম্মত কারণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সেই কড়া নির্দেশ শিথিলের আবেদন করতে হবে বিসিবিকে। কী সেই কারণ?

বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক সিরিজ, আসরের টিভি সম্প্রচার যে চ্যানেলই করুক না কেন, সকল টিভি তথা মিডিয়া ক্রু হলো ভারতীয়। সেটা জিটিভি, মাছরাঙ্গা কিংবা টি স্পোর্টস; যারাই সম্প্রচার স্বত্ত্ব নিক।

ক্যামেরা ক্রু থেকে শুরু করে সব টেকনিক্যাল ক্রু হলেন ভারতীয়। বাংলাদেশে এখনও ঐ সেটআপ তৈরি হয়নি। তাই সবসময় ভারতীয় ক্রুদের দিয়েই টিভিতে খেলা দেখানোর সমুদয় কারিগর বিষয়গুলো পরিচালনা করা হয়। তাদের সংখ্যাও কম নয়, প্রায় অর্ধশতাধিক।

সাধারণত ঐ সব ক্রুরা খেলা শুরুর ৭২ ঘন্টা আগে এসে ক্যাবল বসানো থেকে শুরু করে সব কাজকর্ম সেরে ফেলেন। এবার যদি তারা আগের মতো তিন-চার দিন আগে আসেন, তাহলে কী করে হবে?

যেহেতু তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে দুই সপ্তাহ, তাই তাদের সিরিজ শুরুর অন্তত ১৭-১৮ দিন আগে এসে পৌঁছাতে হবে। আজ ৫ মে। ২৩ মে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। সেক্ষেত্রে ঐ ভারতীয় মিডিয়া ক্রুদের আজ-কালের ভেতর আসা ছাড়া পথ নেই।

কিন্তু এই ৫০ জনের বাংলাদেশে আসার ব্যবস্থাও তো নেই। বিমান চলাচল বন্ধ। তাহলে তাদের চার্টার্ড ফ্লাইটে করে আনতে হবে এবং অন্তত তিন তারকা হোটেলে রেখে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করতে হবে। আনুমানিক প্রায় কোটি টাকার ধাক্কা। বিসিবি কিংবা যে চ্যানেল বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে সিরিজ সরাসরি সম্প্রচার করবে, তারা কি ঐ বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ করবে?

এ প্রশ্ন কিন্তু উঠেছে। তাই ধরেই নেয়া হচ্ছে, বিসিবির সামনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছ থেকে বিশেষ অনুমতি নিয়ে কোয়ারেন্টাইনে ছাড় আদায় করা ছাড়া পথ থাকবে না। এখন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কি সে অনুমতি দেবে? মানে দুই সপ্তাহের বদলে সপ্তাহখানেকের কোয়ারেন্টাইনের অনুমতি মিলবে? যদি না মেলে, তাহলে বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে সিরিজ সম্প্রচারে বড় ধরনের জটিলতা দেখা দিতে পারে।


আরও খবর



ঢাকাসহ সারাদেশে ন্যায্যমূল্যে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনা পরিস্থিতিতে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ চলাকালেও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে ন্যায্যমূল্যে মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমান বিক্রয় কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এ কার্যক্রম নিয়ে প্রতিনিয়ত খামারি ও ভোক্তোদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া লক্ষ্য করা যাচ্ছে। গত ৫ এপ্রিল থেকে আজ (২০ এপ্রিল) পর্যন্ত সারাদেশে ১৩৩ কোটি ২১ লক্ষ ৯৭ হাজার ৭৬৫ টাকা মূল্যের মাছ, গরুর মাংস, দুধ, ডিম, মুরগি ও বিভিন্ন দুগ্ধজাত পণ্য ভ্রাম্যমান ব্যবস্থায় বিক্রয় হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতিতে সারাদেশে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উৎপাদন, পরিবহণ, সরবরাহ ও বিপণন কার্যক্রম নিয়মিত তদারকী করছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম ও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ। চলমান বিধি-নিষেধের মধ্যেও মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উৎপাদন, পরিবহণ, সরবরাহ ও বিপণন সচল রাখার কাজে সম্পৃক্ত মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সারাদেশে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, সংশ্লিষ্ট উদ্যোক্তা-খামারি ও গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব।

এ বিষয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, করোনার এই ভয়াবহ ক্রান্তিকালেও মন্ত্রণালয় এবং সারাদেশে মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে জনস্বার্থে ভ্রাম্যমান বিক্রয় কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছেন। একইসাথে এ খাতের সাথে সংশ্লিষ্ট ডেইরি অ্যাসোসিয়েশন, পোল্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন, মৎস্যজীবী অ্যাসোসিয়েশনসহ প্রান্তিক খামারিরা ঝুঁকি নিয়েও এ কার্যক্রম অব্যাহত রাখছেন।

পাশাপাশি সারাদেশে গণমাধ্যম প্রতিনিধিরা করোনা ঝুঁকির মধ্যেও মন্ত্রণালয়ের এ সময়োপযোগী উদ্যোগ জনসম্মুখে তুলে ধরছেন। এতে একদিকে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের খামারিরা যেমন ন্যায্যমূল্যে উৎপাদিত পণ্য সহজে বিপণন করে ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারছেন, অন্যদিকে ভোক্তারা চলমান বিধি-নিষেধের মধ্যেও চাহিদা অনুযায়ী মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্য সহজে ক্রয় করতে পারছেন। এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আমি মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আশা করি সংশ্লিষ্টরা এ কাজে আরো উৎসাহিত হবেন।

এ বিষয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে ও পবিত্র রমজান মাসে জনসাধারণের প্রাণিজ পুষ্টি নিশ্চিতকরণে দেশের ৮টি বিভাগের ৬৪ জেলায় মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমান বিক্রয় অব্যাহত রয়েছে। এ কাজে সম্পৃক্ত আমাদের মন্ত্রণালয় ও আওতাধীন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, ডেইরি, পোল্ট্রি ও মৎস্য খামারি এবং এ কার্যক্রম জনগণের কাছে তুলে ধরার জন্য সারাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




হেফাজতকে 'জঙ্গি সংগঠন' ঘোষণা করে নিষিদ্ধের দাবি ৫৫১ আলেমের

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
হেফাজতের তথাকথিত দায়িত্বশীলরা মূলত নিজের কৃত জঘন্য অপরাধ ঢাকতেই ইসলামকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। কখনও মানবিক বিয়ে বা কখনও চুক্তিভিত্তিক বিয়ের কথা বলে নিজেকে রক্ষা

রাষ্ট্রবিরোধী উস্কানি ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং সহিংসতার মাধ্যমে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে হেফাজতে ইসলামকে 'উগ্র জঙ্গি সংগঠন' ঘোষণা দিয়ে এর কার্যক্রম নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছে সুন্নীয়তপন্থী সংগঠন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত বাংলাদেশের শীর্ষ ৫৫১ আলেম। তাদের মতে, রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের উচ্চাভিলাস থেকে দেশজুড়ে ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড এবং মানবিক বিয়ে বা চুক্তিভিত্তিক বিয়ের নামে জঘন্য অপরাধ ঢাকতে হেফাজত ইসলামের মৌলিক বিধিবিধানের ওপর হস্তক্ষেপ করছে। তাদের এমন কর্মকাণ্ডে দেশের আলেম সমাজ লজ্জিত।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) সকালে আহলে সুন্নাতে ওয়াল জামাআতের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়।

বিবৃতিতে আলেমরা বলেন, সামাজিক অনাচারে যুক্ত হওয়া, রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করা, জানমালের ক্ষতিসাধন করা ইসলাম সমর্থন করে না। এ ধরনের ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তি বা সংগঠনের কাছে দেশ-মিল্লাত-মাযহাব কখনও নিরাপদ নয়। ২০১০ সালে হেফাজতের জন্মের পর থেকেই তারা সহিংসতা ছড়িয়ে দিচ্ছে। কখনও ইসলাম প্রচারক আল্লাহর ওলিদের মাজার-খানকাহ শরীফ ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। আবার কখনও দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ সুফিবাদি জনতাকে প্রকাশ্যে হামলার হুমকি দিয়ে তারা এদেশে উগ্র জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

হেফাজতের সাথে ইসলামের মৌলিক বিশ্বাসের দূরতম সম্পর্কও নেই উল্লেখ করে আহলে সুন্নাতের আলেমরা বলেন, 'ইসলাম হেফাজতের নামে উগ্র হেফাজতিদের রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের উচ্চাভিলাস ও ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ডে গোটা আলেম সমাজ আজ লজ্জিত হয়েছে।

হেফাজত নেতা মামুনুল হকের বিতর্কিত বিয়ের প্রসঙ্গ টেনে সুন্নী আলেমরা বিবৃতিতে বলেন, ইসলামে নারী-পুরুষের বন্ধনের বৈধ পন্থা হল বিয়ে। আল্লাহ বিয়েকে হালাল করেছেন, বিপরীতে বিবাহ বহির্ভূত সব অবৈধ মেলামেশা নিষিদ্ধ করেছেন। চার মাযহাবের ইমামগণসহ সমস্ত আইম্মায়ে কিরামের ঐক্যমত হল-নিকাহের বিপরীতে চুক্তিভিত্তিক সাময়িক যৌন সম্পর্ক স্থাপন করা সম্পূর্ণ হারাম ও ইসলামের দৃষ্টিতে তা শাস্তিমূলক অপরাধ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বর্তমানে ইসলাম রক্ষার কথা বলে হেফাজতের কিছু চিহ্নিত দায়িত্বশীল নেতা হাজার বছর ধরে প্রচলিত ইসলামের মৌলিক বিধানের ওপর হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে। শরীয়তের শাশ্বত বিধান পাল্টে দিয়ে চুক্তিভিত্তিক সাময়িক বিয়ের প্রবর্তন করার দুঃসাহস দেখাচ্ছে; যা সমাজে অবাধ অনাচার, যৌনাচার ও যুবসমাজকে বিকৃত পথে চলতে উৎসাহ দেবে। ইসলাম সম্পর্কে ভুল বার্তা পৌঁছাবে। অন্যদিকে ইসলামী সামাজিক রীতিনীতি ও পরিবার প্রথা ভেঙে সামাজিক অশান্তি সৃষ্টির পথ দেখাবে।

আলেমরা আরো বলেন, হেফাজতের তথাকথিত দায়িত্বশীলরা মূলত নিজের কৃত জঘন্য অপরাধ ঢাকতেই ইসলামকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। কখনও মানবিক বিয়ে বা কখনও চুক্তিভিত্তিক বিয়ের কথা বলে নিজেকে রক্ষা করতে চাইলেও সবকিছু বিবেচনা ও পর্যবেক্ষণ করে শরীয়তের ফয়সালা হল- ইসলামে চুক্তিভিত্তিক বিয়ে হারাম। সুতরাং যে বা যারা এ ধরনের কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকবে, বিবাহিত হলে প্রমাণসাপেক্ষে তাদেরকে পাথর নিক্ষেপ করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার বিষয়ে ইসলামে ফয়সালা দেয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে তারা সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, হেফাজতকে উগ্র জঙ্গি সংগঠন ঘোষণা করে নিষিদ্ধ করুন। দেশে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখুন। দেশে প্রচলিত শিক্ষানীতি, আইন এবং নীতিমালা বিরোধী কওমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-বোর্ডগুলোর উপর পরিপূর্ণ সরকারি নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করুন।

এছাড়াও দেশবাসীকে আলেম লেবাসধারী এই জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করারও আহ্বান জানিয়েছেন আহলে সুন্নাতের নেতারা।

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের হাটহাজারী, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্নস্থানে পুলিশের সঙ্গে হেফাজতের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এতে অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু হয়। দেশের বিভিন্নস্থানে সহিংসতায় হতাহত, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন স্থাপনায় তাণ্ডবের পর হেফাজতের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে যায় সরকার। এরই মধ্যে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকসহ শীর্ষ নেতাদের অনেকেই গ্রেপ্তার হয়েছেন।


আরও খবর