Logo
শিরোনাম

মুখে স্বাদ ফেরাতে বানান মুরগির পুলি

প্রকাশিত:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৮৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সবে মাত্র পেরিয়েছে বাঙালির পিঠে-পুলির উৎসব পৌষ-পার্বণ। পৌষ সংক্রান্তির পুণ্য তিথিতে বাঙালির হেঁশেলে হেঁশেল বাহারি পিঠে পুলি, পায়েস উপচে পড়েছে। তবে একই মিষ্টি খেতে খেতে এক ঘেয়েমি আসতেই পারে। শীতকালে মুখরোচক কিছু খেতে চাইলে বানাতে পারেন মুরগির পুলি।

উপকরণ

সেদ্ধ করে ছাড়িয়ে রাখা মুরগির মাংস: পরিমাণ মতো

পেঁয়াজ কুচি: এক কাপ

আদা বাটা: আধ চা চামচ

রসুন বাটা: আধ চা চামচ

কাঁচা লঙ্কা কুচি: এক চা চামচ

ময়দা: দু কাপ

বেকিং পাউডার: এক চা চামচ

নুন: স্বাদ মতো

তেল: পরিমাণ মতো

কালোজিরে: আধ চা চামচ

প্রণালী

একটি পাত্রে নুন, কালোজিরে, বেকিং পাউডার, ময়দা এবং পরিমাণ মতো জল মিশিয়ে আঠালো করে ময়দা মেখে রাখুন।

এ বার কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে আদা বাটা, রসুন বাটা এবং পেঁয়াজ কুচিগুলি দিয়ে কষাতে থাকুন।

কষে এলে তাতে সেদ্ধ করে রাখা মুরগির মাংস আর লঙ্কা কুচিগুলি দিয়ে ভাল করে কষাতে থাকুন।

কষে এলে নামিয়ে ঠান্ডা করতে দিন।

মেখে রাখা ময়দা থেকে ছোট ছোট লেচি করে লুচির আকারে বেলে নিন।

লুচির মধ্যে মাংসের পুর ভরে ধারগুলি ভাল করে মুড়ে পুলির মতো গড়ে নিন। ইচ্ছা হলে পুলির ধারগুলিতে নকশাও করতে পারেন।

এ বার একটি কড়াইতে তেল গরম করে একে একে পুলিগুলি ডুবো তেলে সোনালি করে ভেজে নিন। ভাজা হয়ে এলে গরম গরম পরিবেশন করুন মুরগির পুলি।

নিউজ ট্যাগ: মুরগির পুলি

আরও খবর



গম রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা শিথিল করলো ভারত

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গম রপ্তানির নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেছে ভারত। মঙ্গলবার ভারতীয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, গমের যেসব চালান পরীক্ষার জন্য কাস্টমসের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং ১৩ মে বা এর আগে তাদের কাছে নিবন্ধিত হয়েছে, এ ধরনের চালানগুলো রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হবে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদেনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এদিন গমের মিসরগামী একটি চালানেরও ছাড়পত্র দিয়েছে ভারত সরকার। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চালানটি এরই মধ্যে কান্ডালা বন্দরে লোড করা হচ্ছিল। মিসর সরকারের অনুরোধের ভিত্তিতে সেটিকে ছাড়পত্র দিয়েছে ভারত। ভারতীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মেসার্স মিরা ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে ৬১ হাজার ৫০০ মেট্রিক টন গম মিসরে রপ্তানি করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে, যার মধ্যে ৪৪ হাজার ৩৪০ মেট্রিক টন গম এরই মধ্যে জাহাজে তোলা সম্পন্ন হয়েছে।

এর আগে, দেশীয় বাজারে মূল্য নিয়ন্ত্রণের কথা বলে গত শুক্রবার (১৩ মে) গম রপ্তানি নিষিদ্ধ করে ভারত। তবে প্রতিবেশী ও খাদ্য সংকটের ঝুঁকিতে থাকা কিছু দেশকে এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত রাখা হয়েছে। এর বাইরে, অন্যান্য দেশের সরকারের অনুরোধ সাপেক্ষেও গম রপ্তানির সুযোগ রেখেছে নয়াদিল্লি।

ভারতের এ নিষেধাজ্ঞায় বাংলাদেশে গমের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে ওঠার আশঙ্কা তৈরি হয়। তবে রবিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকার ভারতীয় হাইকমিশন নিশ্চিত করেছে, প্রতিবেশী দেশ হিসেবে বাংলাদেশে ভারতের গম রপ্তানি বন্ধ হচ্ছে না।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সম্প্রতি বিভিন্ন গণমাধ্যমে ভারতে গম রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞার খবর প্রকাশিত হয়েছে। অভ্যন্তরীণ খাদ্যের প্রাপ্যতা নিশ্চিত করা, খাদ্যমূল্যের সঙ্গে সম্পর্কিত মূল্যস্ফীতি কমানো এবং ভারতের প্রতিবেশী ও খাদ্য নিরাপত্তার ঝুঁকিতে থাকা অন্য দেশগুলোর চাহিদা পূরণে সহায়তার জন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারতীয় হাইকমিশনের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট বলা হয়েছে, ভারতে গম রপ্তানির ওপর আরোপিত বিধিনিষেধ এরই মধ্যে চুক্তিবদ্ধ চালানের ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না। এই নির্দেশাবলী ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলোতেও গম রপ্তানি আটকাবে না। পাশাপাশি, অন্য যেসব দেশ অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে ভারতীয় গম আমদানি করতে ইচ্ছুক, সেসব দেশের সরকারের অনুরোধ সাপেক্ষেও গম রপ্তানি চলবে।

নিউজ ট্যাগ: গম রপ্তানি

আরও খবর



দিল্লি জিতলে বিদায় নিতে হতে পারে কোহলিদের

প্রকাশিত:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কারও পৌষমাস তো কারও সর্বনাশ। ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে গুজরাট টাইটান্সকে হারিয়ে আইপিএল ২০২২-এর প্লে-অফের দৌড়ে বাড়তি অক্সিজেন আদায় করে নেয় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর (আরসিবি)। সেই সঙ্গে তারা প্লে-অফের দৌড় থেকে ছিটকে দেয় পাঞ্জাব কিংস ও সানরাইজার্স হায়দারাবাদকে।

এই জয়ের সুবাদে ব্যাঙ্গালোর ১৪ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে। পাঞ্জাব বনাম হায়দারাবাদ ম্যাচে যেই জিতুক না কেন, তাদের পক্ষে ১৬ পয়েন্টে পৌঁছনো সম্ভব হবে না। তারা থেকে যাবে ১৪ পয়েন্টেই। সুতরাং, লিগের শেষ ম্যাচটি পাঞ্জাব ও হায়দারাবাদের কাছে নিছক নিয়ম রক্ষার হয়ে দাঁড়ায়।

আরসিবির জয়ে চাপ বাড়ে দিল্লির। মুম্বাইয়ের বিপক্ষে শেষ ম্যাচটি ঋষভ পান্তদের কাছে ডু-অর-ডাই হয়ে দাঁড়ায়। জিতলে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে নেট রান-রেটের নিরিখে প্লে-অফে যাওয়ার সুযোগ থাকবে দিল্লির সামনে। হারলে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তাদের বিদায় নিশ্চিত। এক্ষেত্রে আরসিবিও তাকিয়ে থাকবে দিল্লি বনাম মুম্বাই ম্যাচের দিকে। দিল্লি হারলে সরাসরি প্লে-অফে চলে যাবে ব্যাঙ্গালোর। তবে দিল্লি জিতলে রান-রেটের নিরিখে বিদায় নিতে হতে পারে কোহলিদের।

রাজস্থান রয়্যালসের সামনেও পরিস্থিতি জটিল হয়। আরসিবি হারলে (১৪ পয়েন্ট) এদিনই স্যামসনদের (১৬ পয়েন্ট) প্লে-অফের টিকিট নিশ্চিত হয়ে যেত। পরিবর্তীত পরিস্থিতিতে রাজস্থানকে প্লে-অফের টিকিটের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে রাজস্থান জিতলে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে তাদের প্লে-অফ তো নিশ্চিতই, সেই সঙ্গে নেট রান-রেটের নিরিখে লখনউকে (১৮ পয়েন্ট) টপকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসতে পারেন স্যামসনরা। তাহলে তারা সরাসরি গুজটারের বিপক্ষে (২০ পয়েন্ট) প্রথম কোয়ালিফায়ারে মাঠে নামতে পারবেন। তবে রাজস্থান চেন্নাইয়ের কাছে হেরে গেলে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের টিকিটের জন্য দিল্লি-মুম্বাই ম্যাচের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে তাদের।

রোহিতদের কাছে দিল্লি হারলে (১৪ পয়েন্ট) শেষ ম্যাচ হেরেও সরাসরি প্লে-অফে চলে যাবে রাজস্থান (১৬ পয়েন্ট)। দিল্লি জিতলে (১৬ পয়েন্ট) এবং রাজস্থান হারলে (১৬ পয়েন্ট) আরসিবির সঙ্গে (১৬ পয়েন্ট) দুদলের নেট রান-রেটের লড়াই চলবে প্লে-অফের জন্য। তখন রাজস্থান, দিল্লি ও আরসিবি, তিন দলের মধ্যে দুদল প্লে-অফে যাবে এবং একদল ছিটকে যাবে।


আরও খবর



বরগুনার ৭ ইউনিয়নে ভোট ১৫ জুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বরগুনার তালতলী উপজেলার মেয়াদ উত্তীর্ণ ৬টি ইউনিয়ন এবং বেতাগী উপজেলার কাজীরাবাদ ইউনিয়নের উপ-নির্বাচন আগামী ১৫ জুন বুধবার অনুষ্ঠিত হবে। আজ সোমবার নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তপসিলে ভোট গ্রহণের এই তারিখ উল্লেখ করা হয়।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী উল্লেখিত সাত ইউনিয়নে মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ তারিখ ১৭ মে, বাছাই ১৯ মে ও মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার ২৬ মে।

নির্বাচন কমিশন থেকে ঘোষিত তারিখ অনুযায়ী আগামী ১৫ জুন কড়াইবাড়িয়া, সোনাকাটা, পঁচাকোড়ালিয়া, বড়বগী, ছোটবগী, নিশানবাড়িয়া ও কাজীরাবাদ ইউনিয়নে ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

বরগুনার তালতলী উপজেলার মেয়াদ উত্তীর্ণ ৬টি ইউনিয়ন এবং বেতাগী উপজেলার কাজীরাবাদ ইউনিয়নের উপ-নির্বাচন আগামী ১৫ জুন বুধবার অনুষ্ঠিত হবে। আজ সোমবার নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তপসিলে ভোট গ্রহণের এই তারিখ উল্লেখ করা হয়।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী উল্লেখিত সাত ইউনিয়নে মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ তারিখ ১৭ মে, বাছাই ১৯ মে ও মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার ২৬ মে।

নির্বাচন কমিশন থেকে ঘোষিত তারিখ অনুযায়ী আগামী ১৫ জুন কড়াইবাড়িয়া, সোনাকাটা, পঁচাকোড়ালিয়া, বড়বগী, ছোটবগী, নিশানবাড়িয়া ও কাজীরাবাদ ইউনিয়নে ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



জুনে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে: কাদের

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দুর্নীতির অভিযোগ দিয়ে বিশ্বব্যাংক তাদের সহযোগিতার হাত ফিরিয়ে নিয়েছিলো। তারা চলে গেলেও আমরা আমাদের টাকা দিয়েই পদ্মা সেতু করেছি। জুন মাসেই চন্দ্রালোকিত পূর্ণিমা রাতে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে বাংলার মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে।

শনিবার (২১ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দুর্নীতির অভিযোগ দিয়ে বিশ্বব্যাংক তাদের সহযোগিতার হাত ফিরিয়ে নিয়েছিল। তারা চলে গেলেও আমরা আমাদের টাকা দিয়েই পদ্মা সেতু করেছি। জুন মাসেই চন্দ্রালোকিত পূর্ণিমা রাতে পদ্মা সেতুতে দাঁড়িয়ে বাংলার মানুষ পূর্ণিমার চাঁদ দেখবে।

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন বলেই আজকে দেশের এত সমৃদ্ধি। বঙ্গবন্ধু আমাদের রাজনৈতিক স্বাধীনতা দিয়েছেন। আর শেখ হাসিনা দিয়েছেন অর্থনৈতিক মুক্তি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের মানুষ ভালো থাকলে তো বিএনপির মন খারাপ করে। পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, তরুণ প্রজন্মের মেট্রোরেল তো হয়েই গেলো। ফখরুল সাহেব এবার কী বলবেন? তিনি নিশ্চয় বলবেন, শেখ হাসিনা সব করেই ফেললেন, আমরা কিছু পারলাম না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন আসছে কী দেখাবেন? জনগণকে কী দেখিয়ে ভোট চাইবেন? আপনাদের নেতা তো পলাতক দণ্ডিত তারেক রহমান। তাহলে প্রধানমন্ত্রী হবেন কে? দুর্নীতির দায়ে দণ্ডিত বেগম খালেদা জিয়া?

তিনি আরও বলেন, ১৩ বছর আন্দোলন করলেন। প্রতি বছর বলেন, ঈদের পর আন্দোলন..। ১৩ বছরে কত ঈদ এলো, আর কত ঈদ যে গেলো। আন্দোলন আর হলো না। আন্দোলনেও বিএনপি ফেল মেরেছে, নির্বাচনেও ফেল করেছে। এখন বলে বেড়াচ্ছেন, আওয়ামী লীগ সন্ত্রাস করে পরবর্তী নির্বাচনে জিতবে। আওয়ামী লীগ সন্ত্রাসী করে না, সন্ত্রাস করে বিএনপি। এটা তো আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত।

ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ প্রমুখ।


আরও খবর



১০ মাসেই রপ্তানির লক্ষ্য অর্জন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মহামারির ভয়াবহ অবস্থা থেকে বৈশ্বিক সাপ্লাই চেইন আগের অবস্থায় ফেরায় গার্মেন্টস পণ্যের রফতানি বেড়েছে। সার্বিকভাবে গত এপ্রিলে দেশে রফতানি আয় ৫১ দশমিক ১৮ শতাংশ বেড়েছে। সোমবার (৯ মে) রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) তথ্যে জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে জুলাই থেকে এপ্রিল, গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় আয় ৩৫ দশমিক ১৪ শতাংশ বেড়ে ৪৩ দশমিক ৩৪ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে।

ইপিবির তথ্য বলছে, চলতি অর্থবছর শেষ হওয়ার ২ মাস আগেই রফতানি লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করেছে বাংলাদেশ। চলতি অর্থবছরের দশম মাস এপ্রিলে বিভিন্ন পণ্য রফতানি করে ৪৭৩ কোটি ৮৭ লাখ (৪.৭৪ বিলিয়ন) ডলার বিদেশি মুদ্রা এনেছেন বাংলাদেশের রফতানিকারকরা।

ইপিবির তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, জুলাই-এপ্রিল সময়ে তৈরি পোশাক রফতানি থেকে আয় হয়েছে ৩৫ দশমিক ৩৬ বিলিয়ন ডলার, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৩৬ শতাংশ বেশি। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এই খাত থেকে আয় বেড়েছে প্রায় ২২ শতাংশ।

গত বছরের এপ্রিলের চেয়ে ৫১ দশমিক ১৮ শতাংশ বেশি রফতানি আয় দেশে এসেছে। এ মাসে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আয় বেশি এসেছে ৪০ দশমিক ৬৬ শতাংশ। অর্থবছরের হিসাবে ১০ মাসে অর্থাৎ জুলাই-এপ্রিল সময়ে ৪৩ দশমিক ৩৪ বিলিয়ন ডলার আয় করেছেন রফতানিকারকরা। এই অঙ্ক গত অর্থবছরের পুরো সময়ের (২০২১ সালের জুলাই থেকে ২০২২ সালের এপ্রিল) চেয়েও ১২ শতাংশ বেশি।

রফতানির এই ধারা অব্যাহত থাকলে অর্থবছর শেষে এবার রফতানি আয় ৫২ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক অতিক্রম করে রফতানি বাণিজ্যে ইতিহাস সৃষ্টি করবে বাংলাদেশ। অর্থবছরের বাকি দুই মাসেও (মে ও জুন) এই ইতিবাচক ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন রফতানিকারকরা।

এপ্রিল মাসে রফতানির লক্ষ্যমাত্রা ধরা ছিল ৩৩৬ কোটি ৯০ লাখ ডলার। গত বছরের এপ্রিলে পণ্য রফতানি থেকে ৩১৩ কোটি ৪৪ লাখ ডলার আয় হয়েছিল। ১০ মাসের হিসাবে সার্বিক রফতানি আয় বেড়েছে ৩৫ দশমিক ১৪ শতাংশ। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আয় বেশি এসেছে ২০ দশমিক ৫২ শতাংশ।

একক মাসের হিসাবে বাংলাদেশের ইতিহাসে এপ্রিল মাসের এই আয় চতুর্থ সর্বোচ্চ। সবচেয়ে বেশি এসেছিল গত বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে ৪৯০ কোটি ৭৭ লাখ (৪ দশমিক ৯০ বিলিয়ন) ডলার। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এসেছিল চলতি বছরের প্রথম মাস জানুয়ারিতে ৪৮৫ কোটি ৩ লাখ ৭০ হাজার (৪ দশমিক ৮৫ বিলিয়ন) ডলার। মার্চে এসেছিল ৪৭৬ কোটি ২২ লাখ ডলার। ফেব্রুয়ারিতে এসেছে ৪২৯ কোটি ৪৫ লাখ (৪ দশমিক ২৯ বিলিয়ন) ডলার।


আরও খবর