Logo
শিরোনাম

পশু চিকিৎসায় আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
আমাদের দেশে অনেক অসুস্থ গরু জবাই হচ্ছে। তাকে হয়তো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় জবাইও করা হচ্ছে। ফলে ওষুধের উপাদানগুলো তার দেহে থেকে যাচ্ছে। সেই মাংসটা আমরা খাচ্ছি। ফলে আমাদের স্বাস্থ্যও একটা হুমকির

পশু চিকিৎসায় আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশি বিজ্ঞানী সালমা সুলতানা। বিজ্ঞান বিষয়ক গবেষণায় এশিয়ার শত বিজ্ঞানীর তালিকায় যে তিনজন বাংলাদেশি নারী জায়গা করে নিয়েছেন তাদের একজন তিনি। পশু চিকিৎসার শিক্ষা বিস্তারে ভূমিকা রাখার জন্য তাকে এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে।

সিঙ্গাপুরভিত্তিক বিজ্ঞান সাময়িকী এশিয়ান সায়েন্টিস্টে ১০০ জন বিজ্ঞানীর এই তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

সালমা সুলতানা একজন কৃষিবিদ। মূলত তিনি খামারি ও ক্ষুদ্র কৃষকদের নিয়ে কাজ করেন এবং পশুর রোগ নির্ণয়ের জন্য ল্যাবরেটরিসহ একটি ভেটেরিনারি হাসপাতালও গড়ে তুলেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করার সময় তিনি দেখতে পান যে দেশে পশু চিকিৎসায় একটা শূন্যতা রয়েছে এবং সে কারণেই তিনি এবিষয়ে কাজ করার ব্যাপারে উৎসাহী হন।

সালমা সুলতানা বলেন, আমাদের পশু চিকিৎসক রয়েছে। কিন্তু তাদের জন্য যথেষ্ট সংখ্যায় সহকারী বা ভেটেরিনারি নার্স নেই। মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে গিয়ে দেখি কেউ নেই যিনি আমাকে একটু সাহায্য করতে পারেন। ডাক্তাররা কিন্তু সবকিছু করতে পারে না। আমাদের ল্যাবরেটরির ক্ষেত্রেও অনেক সীমাবদ্ধতা আছে। তখন মনে হলো যে এখানে কাজের একটা বড় সুযোগ রয়ে গেছে।

সালমা সুলতানা বলেন, আমাদের কৃষি খাতে অনেক উন্নতি হয়েছে। কিন্তু গবাদি পশু চাষের বেলায় কৃষকরা এখনও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করছে না। এছাড়াও এবিষয়ে তাদের সাধারণ জ্ঞানেরও অভাব রয়েছে।

এবিষয়ে তিনি বলেন, গরু যেখানে রাখা হয় সেই গোয়াল ঘরের পরিবেশ খুব একটা উন্নত নয়। একটা গোয়াল ঘরের ছাদ যে ১৪ থেকে ১৮ ফুট উচু হতে হবে সেটাও অনেকেই জানে না। এমনকি গবাদি পশুর প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যাপারে তাদের পর্যাপ্ত জ্ঞান নেই। এবিষয়ে তারা কোনো সাহায্য সহযোগিতাও পাচ্ছে না, যার ফলে তাদের উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

গরুচাষিরা আগে ভুষির সঙ্গে পানি মিশিয়ে গরুকে খাওয়াতো। গরুকে ভাত খাওয়ানো হতো। জাউ রান্না করে খাওয়াতো। কিন্তু গরুর পেটের জন্য এসব অনেক ক্ষতিকর। এবিষয়ে তাদের জ্ঞান নেই। আমরা তাদেরকে বলছি আপনারা গরুকে শুকনো খাবার দেন।

সালমা সুলতানা বলেন, আপনি দেখেন ভালো চাল ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি, মাছের কেজি কতো দেখেন। কিন্তু এক কেজি গরুর মাংসের দাম ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা। ফলে তাদের জন্য এটা অনেক লাভজনক ব্যবসা হতে পারে। কিন্তু জ্ঞানের অভাবের কারণে তারা সেটা অর্জন করতে পারছে না।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে অনেক অসুস্থ গরু জবাই হচ্ছে। তাকে হয়তো চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় জবাইও করা হচ্ছে। ফলে ওষুধের উপাদানগুলো তার দেহে থেকে যাচ্ছে। সেই মাংসটা আমরা খাচ্ছি। ফলে আমাদের স্বাস্থ্যও একটা হুমকির মুখে পড়ে যাচ্ছে। কৃষকরা এখন অনেক কিছু জানতে চেষ্টা করছে। তারা ইউটিউব ঘাটছে। একজন খামারি যখন দেখবেন যে দুধের উৎপাদন আগের তুলনায় অনেক বেড়ে গেছে, তখন তিনি নিজে থেকেই আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে চাইবেন।

এশিয়ান সায়েন্টিস্টে আরও যে দুজন বাংলাদেশি নারী বিজ্ঞানীর নাম প্রকাশ করা হয়েছে তারা হলেন- আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র-বাংলাদেশের ফেরদৌসি কাদরী। অন্যজন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সায়মা সাবরিনা।

সূত্র: বিবিসি বাংলা


আরও খবর

আজ বিশ্ব কণ্ঠ দিবস

শুক্রবার ১৬ এপ্রিল ২০২১




আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখুন, বিএনপিকে কাদের

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে ২৬ মার্চ দেশের বিভিন্ন স্থানে হেফাজত যে ত্রাস ও তাণ্ডব চালিয়েছিল তার সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে বিএনপি জড়িত ছিল বলে জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এর আগেও ভাস্কর্য ইস্যুতেও দেশকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে ত্রাস সৃষ্টিতে হেফাজতকে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে মদদ দিয়েছিল বিএনপি।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের   এ মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি মহাসচিব সরকারের সমালোচনার নামে এমন সব বিষয়ে অবতারণা করেন, যার জবাব আওয়ামী লীগকে দিতে হয়; যদিও আমরা যা জানতে চাই, তার জবাব তাদের কাছে পাই না।

তিনি বলেন, বেগম জিয়ার ভুয়া জন্মদিবস নিয়ে জাতির কাছে যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে, তার সঠিক জবাব বিএনপির পক্ষ থেকে আজও পাওয়া যায়নি। বেগম জিয়া এখন অসুস্থ তাই ১৫ আগস্টের মতো নৃশংস হত্যা দিবসে তার ভুয়া জন্মদিন পালনের জন্য মির্জা ফখরুল ইসলাম জাতির কাছে ক্ষমা চাইবেন, এটাই মানুষ আশা করেছিল। বিএনপি মহাসচিব তা না করে প্রতিদিনই এক একটা বিষয় নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে যাচ্ছেন।

সরকার দেশে ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করছে- বিএনপি মহাসচিবের এই বক্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকার নয়, ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করছে বিএনপি। যেমনটি তারা ২০০১ সালে করেছিল। ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার পর দেশের মানুষে ওপর নির্যাতনের স্টিমরোলার চালিয়েছিল বিএনপি সরকার। ২১ হাজার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের হত্যা করেছে।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আওয়ামী লীগের হাজারো নেতাকর্মীর রক্তে দেশকে মৃত্যু উপত্যকায় বানিয়েছিল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন গুম, হত্যা, খুন, ধর্ষণ ও নির্যাতনের রূপান্তর করেছিল তারা।

বিএনপি নেতাদের স্মরণ করে দিয়ে তিনি আরও বলেন,  মাহিমা, রহিমা, পূর্ণিমাসহ শত শত নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছিল তা কি ভুলে গেছে বিএনপি? সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন একাত্তরের পাক-হানাদারের নির্যাতনকেও হার মানিয়েছিল।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি নেতাদের আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, কলঙ্কিত ইতিহাস আর বিকৃত অবয়ব ছাড়া আর কিছুই দেখতে পাবেন না আয়নায়।

দেশের স্থিতিশীলতা নষ্ট করার যত প্রয়াস তার সবগুলোর সঙ্গেই বিএনপি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, বিএনপি নেতাদের মুখে এসব কথা শুনলে হাসি পায়।


আরও খবর



বিদায়ের দিনই রাবি উপাচার্যের অনিয়ম তদন্তে কমিটি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান তার মেয়াদের শেষ দিনে ১৪১ জনকে নিয়োগ দিয়েছেন। অস্থায়ী ভিত্তিতে বিভিন্ন পদে এই নিয়োগ দিয়ে বৃহস্পতিবার (৬ মে) দুপুরে ক্যাম্পাস থেকে বিদায় নিয়েছেন তিনি।

এর আগে এই নিয়োগপত্রে স্বাক্ষর করতে অস্বীকৃতি জানানোয় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবদুস সালামকে অব্যাহতি দেন উপাচার্য। তার স্থলে পরিষদ সেকশনের সহকারী রেজিস্ট্রার মামুন-উর-রশিদকে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার দায়িত্ব দিয়ে এই নিয়োগ সম্পন্ন করেন। ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মামুন-উর-রশিদ স্বাক্ষরে ৯ জন শিক্ষক, ২৩ জন সেকশন অফিসার, ২৪ জন সহায়ক কর্মচারী এবং ৮৫ জন উচ্চ ও নিম্ন সহকারী নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এদিকে নিয়োগকে কেন্দ্র করে এদিন দুপুরে চাকরি প্রত্যাশী মহানগর ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ওপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এতে অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নিয়োগের গুঞ্জনে বৃহস্পতিবার ভোর থেকে উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান নেয় শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী, ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী ও চাকরি প্রত্যাশীরা। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মহানগর ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মী এসে উপাচার্য ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। পরে বেলা সোয়া ১২টার দিকে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ওপর চড়াও হয়ে বেধড়ক মারধর থাকে।

এই ঘটনায় শারীরিক শিক্ষা ও ক্রিড়া-বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী পরিচালক কামরুজ্জামান চঞ্চল, হবিবুর হলের সেকশন অফিসার আবদুল্লাহ আল মাসুদসহ আরও অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। পরে দুপুর সোয়া ২টায় পুলিশি নিরাপত্তায় উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান উপাচার্য ভবন ত্যাগ করেন এবং ক্যাম্পাস ছেড়ে যান। এর আগে উপাচার্য ভবনের সামনে থেকে উপস্থিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের সরিয়ে দেয় পুলিশ। পরে উপাচার্য ভবনে চাকরি প্রত্যাশীরা প্রবেশ করে নিয়োগপত্র সংগ্রহ করে যোগদান প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেন।

অব্যাহতির বিষয়ে সদ্য সাবেক রেজিস্ট্রার আব্দুস সালাম বলেন, আমি এসব ব্যাপারে কিছুই জানি না। আমাকে নানাভাবে অনৈতিক চাপ প্রদান করা হয়েছিল। তাই আমি গত দুই দিন ধরে আত্মগোপনে আছি।

ক্যাম্পাস ত্যাগ করা আগ মুহূর্তে রেজিস্ট্রারকে অব্যাহতি ও নিয়োগ প্রসঙ্গে উপাচার্য এম আব্দুস সোবহান বলেন, রেজিস্ট্রার নিয়োগ দেয়া হয়নি, এটা মিথ্যা কথা। এডহকে নিয়োগের বিষয়টি আপনারা পরে জানতে পারবেন।

নিউজ ট্যাগ: রাবি উপাচার্য

আরও খবর



সোনারগাঁয়ের ওসি রফিকুলকে পাঠানো হলো অবসরে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ এপ্রিল ২০21 | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নারায়ণগঞ্জের রয়েল রিসোর্টের ঘটনার পরদিন সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল জেলা পুলিশ লাইন্সে। এবার বাধ্যতামূলক তাকে অবসরে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (১৯ এপ্রিল) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের এক প্রজ্ঞাপনে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে তাকে  অবসরে পাঠানোর কথা বলা হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, রফিকুল ইসলামের চাকরির মেয়াদ ২৫ বছর পূর্ণ হওয়ায় জনস্বার্থে তাকে অবসর দেওয়া হলো। তবে অবসরজনিত সব সুবিধা তিনি পাবেন।

উল্লেখ্য, সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্টে হেফাজতের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে অবরুদ্ধের পর হেফাজত-নেতাকর্মীদের হামলা ভাঙচুর চালায় এবং মামুনুল হককে পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেন। তবে ওই ঘটনার জেরে তাকে বদলি বা অবসরে পাঠানো হলো কি না তা জানা যায়নি। 


আরও খবর



শ্রীলঙ্কার জার্সিতে ফিরছেন মালিঙ্গা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আবারও লঙ্কানদের জার্সি গায়ে ফিরছেন দলটির নিয়মিত টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক লাসিথ মালিঙ্গা। এ বছরেই ভারতে অনুষ্ঠিতব্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসর। আর আগামী বছর অষ্টম আসর বসবে অস্ট্রেলিয়ায়। মহামারী বা কোনও কারণে ভেন্যু পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা থাকলেও আসর দুটি পেছানোর সম্ভাবনা নেই। তাই এ দুটি বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে আবারও মালিঙ্গাকে দলে ফেরানোর পরিকল্পনা করেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের (এসএলসি) প্রধান নির্বাচক প্রমোদ্যা উইকরামাসিংহে বলেন, আমরা শীঘ্রই মালিঙ্গার সাথে কথা বলব। অক্টোবরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরিকল্পনায় ও ভালোমতোই রয়েছে। এছাড়াও আমরা ২০২৩ বিশ্বকাপের কথা ভেবে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা করছি। সেখানে দু-ধরনের বিষয় নিয়ে আমরা টিম কম্বিনেশন ঠিক করব। এক- বয়স এবং দুই- ফিটনেস।

ওয়ানডের পরিকল্পনায় মালিঙ্গা যে নেই, সেটা নিশ্চিত। কারণ ২০১৯ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে হোম সিরিজ দিয়েই মালিঙ্গা বিদায় বলেছেন এই ফরম্যাটকে। তবে ফ্যাশনেবল এই পেসার টি-টোয়েন্টি দলের বিবেচনায় আছেন ভালোভাবেই।

প্রমোদ্যা বলেন, ও আমাদের দেশের সর্বকালের অন্যতম সেরা বোলার। এখনও ও যে ফর্মে রয়েছে তাতে যে কোনও দলে অনায়াসে তাকে রাখা যায়। পরপর দুই বছর বিশ্বকাপ রয়েছে। এমন অবস্থায় তার সঙ্গে তাড়াতাড়ি আমাদের পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনায় বসতে চাই।

মালিঙ্গাও জানিয়েছেন, নির্বাচকদের সঙ্গে শীঘ্রই আলোচনায় বসবেন তিনি। টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য তারও যে আগ্রহ এখনও মরে যায়নি- এটাও স্পষ্ট করলেন এই কিংবদন্তি। তিনি বলেন, নির্বাচকদের সঙ্গে দেখা করতে যাব কিছুদিনের মধ্যেই। ওয়ানডে এবং টেস্ট থেকে অবসর নিলেও টি-টোয়েন্টি থেকে কিন্তু অবসর নিইনি। জাতীয় দলে আমার মত সিনিয়র ক্রিকেটারকে নিয়ে নির্বাচকদের পরিকল্পনা কী, সেটা শুনতে চাই। ক্যারিয়ারে একাধিকবার ফিরে এসে নিজেকে প্রমাণ করছি। এবারও সেটা করতে চাই।

২০১৯ সালে ওয়ানডে থেকে এবং গত বছর ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় বলে দিলেও আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি থেকে এখনও অবসর নেননি লাসিথ মালিঙ্গা। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে তিনি এখনও বর্তমান খেলোয়াড়। যদিও গত বছরের মার্চের পর আর কোনও ম্যাচ খেলা হয়নি লঙ্কান অন্যতম সেরা এই বোলারের।



আরও খবর



টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের একধাপ উন্নতি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিছুদিন আগেই নিউজিল্যান্ড থেকে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়ে ফিরেছে বাংলাদেশ। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশকে হারিয়ে আইসিসি ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে উঠেছে নিউজিল্যান্ড। এই ফরম্যাটের র‍্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হয়নি বাংলাদেশের। তবে টি-টোয়েন্টিতে হারলেও র‍্যাঙ্কিংয়ে একধাপ এগিয়েছে লাল-সবুজের দল।

গতকাল সোমবার র‍্যাঙ্কিংয়ে বার্ষিক হালনাগাদ করেছে ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। যেখানে ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের তালিকায় বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে সরিয়ে এক নম্বর জায়গা দখল করেছে নিউজিল্যান্ড।

নতুন হালনাগাদে ২০১৭-১৮ মৌসুমের পারফরম্যান্স বিবেচনার বাইরে চলে গেছে। গত বছরের মে মাস থেকে দলগুলোর পারফরম্যান্স হিসেবে নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে র‍্যাঙ্কিংয়ে ১২১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে নিউজিল্যান্ড। এক নম্বর থেকে চারে নেমে গেছে ইংল্যান্ড। দুই ধাপ এগিয়ে ১১৮ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে উঠেছে অস্ট্রেলিয়া। একধাপ পিছিয়ে তিনে আছে ভারত। ১০৭ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে আছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ছয় নম্বরে পাকিস্তান। ৯০ পয়েন্ট নিয়ে আগের মতো সাতেই আছে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কাকে টপকে আটে উঠেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। লঙ্কানরা নেমে গেছে নয় নম্বরে। আগের মতো দশে আছে আফগানিস্তান।

আগের মতোই টি-টোয়েন্টিতে শীর্ষে আছে ইংল্যান্ড। ওয়ানডের পাশাপাশি টি-টোয়েন্টিতেও উন্নতি হয়েছে নিউজিল্যান্ডের। দুই ধাপ এগিয়ে তিনে আছে কিউইরা। দুইয়ে আছে ভারত। চারে পাকিস্তান, পাঁচে অস্ট্রেলিয়া। ছয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা, সাতে আফগানিস্তান, আটে শ্রীলঙ্কা। টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে ১ রেটিং পয়েন্ট হারালেও এক ধাপ এগিয়ে ৯ নম্বরে উঠেছে বাংলাদেশ। দুই ধাপ পিছিয়ে দশ নম্বরে নেমে গেছে দুবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী ওয়েস্ট ইন্ডিজ।


আরও খবর