Logo
শিরোনাম

পুরান ঢাকার কেমিক্যাল গোডাউন গুলো হয়ে উঠছে টাইম বোমার ফ্যাক্টরি

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পুরান ঢাকার বিভিন্ন এলাকা যেন টাইম বোমার ফ্যাক্টরি। যেকোনো সময় বিস্ফোরণে ঘটতে পারে হাজারো প্রাণহানি। এসব এলাকায় এখনো রয়েছে ১ হাজার ৮৯৬টি কেমিক্যাল গুদাম। যার বেশির ভাগের ওপরই হাজারো মানুষের বসবাস। ঢাকা দক্ষিণ সিটির এক কর্মকর্তা জানান, কেমিক্যাল গোডাউন সরানোর বিষয়টি ক্যাবিনেটে ঝুলে আছে।

দাউ দাউ করে আগুন জ্বলে ওঠে ২০১০ সালের ৩ জুন পুরান ঢাকার নিমতলী এলাকায়। যে আগুনে প্রাণ যায় তরতাজা ১২৪ জনের। এরপর ২০১৯ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি চুড়িহাট্টার আগুনে প্রাণ যায় আরও ৭১ জনের। ওয়াহিদ ম্যানসন ছিল যার কেন্দ্র বিন্দু। এসবের পেছনে মূল উপাদান ছিল কেমিক্যাল গোডাউন। একে তো ঘিঞ্জি এলাকা তার ওপর বিস্ফোরক দ্রব্য-সব মিলিয়ে মরণ ফাঁদ।

সবশেষ ঘটনা আরমানিটোলায় হাজী মুসা ম্যানশনে। ঘাতক সেই কেমিক্যাল। ২৩ এপ্রিলের সেহরির সময় ভোর রাত। পুরো ভবনের নিচতলায় কেমিক্যাল গোডাউন। ওপরে সেই মানুষের বসবাস। এবার প্রাণ গেল ৪ জনের। কিন্তু ঘটনার পরেই শুধু তদন্ত কমিটি আর কেমিক্যাল গুদাম সরিয়ে নেয়ার তোরজোড় শুরু হয়। কদিন পরে আর কোনও তৎপরতা চোখে পড়ে না।

প্রাণে বেঁচে যাওয়া বাসিন্দারা জানান, বাড়ির মালিক বলেছে আপনার এখানে নিরাপদ। এসব কেমিক্যালে বিস্ফোরণ হয় না।

স্থানীয়রা জানান, সবগুলো এলাকাতেই কেমিক্যালের কারখানা। যদি এটি একটু বড় এলাকায় হতো তাহলে হাজার মানুষের মরদেহ নিয়ে যেতে হতো। এমন মৃত্যু আর দেখতে চাই না। এজন্য কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে ডিএসসিসির অঞ্চল-৪ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, প্রতিটি বাড়ি বাড়ি ঘুরে-বিস্ফোরকের তালিকা তৈরি করেছি। আমরা আর কাউকে লাইসেন্স দিচ্ছি না। এরই মধ্যে জরিপের কাজ শেষ হয়েছে। ১ হাজার ৮৯৬টি কেমিক্যাল গুদামের তালিকা করা হয়েছে। কেবিনেট সিদ্ধান্ত দিলেই শুরু হবে কাজ।

একই বিষয়ে ঢাকার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহীদুল ইসলাম বলেন, সরকার সব বানিয়ে দিলেও যাবে না তা আপনারা জানেন। সবার আগে তাদের ইচ্ছের বিষয়টি প্রয়োজন। এসব কেমিক্যাল গোডাউন সরানোর ক্ষেত্রে প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।


আরও খবর



অটোরিকশাচালকের ৭০০ টাকা নেওয়া ৩ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০৮ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলায় শামীম নামে এক অটোরিকশাচালকের কাছ থেকে সারারাতের আয় ছয়শ টাকাসহ মোট সাতশ টাকা নেওয়ার অভিযোগে তিন পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

আজ শনিবার পুলিশ সদর দপ্তরের এআই‌জি (গণমাধ্যম ও জনসংযোগ) মো. সো‌হেল রানা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল একটি পোস্টের বিষয়ে বাংলাদেশ পুলিশের গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার দৃষ্টি আকর্ষণ করে সচেতন এক নাগরিক একটি বার্তা পাঠান।

ওই বার্তায় উল্লেখ করা হয়, এক অটোরিকশাচালকের সারারাতের আয় ৬০০ টাকা নিয়ে নিয়েছে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য।

অভিযোগটি গুরুতর হওয়ায় গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখা তাৎক্ষণিক বার্তাটি সংশ্লিষ্ট ইউনিট কমান্ডারদের কাছে পাঠিয়ে অভিযুক্তদের দ্রুত শনাক্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করে। সং‌শ্লিষ্ট সবার সঙ্গে যোগা‌যোগ ক‌রে জানা যায়, উল্লিখিত ঘটনাস্থলে নিকটবর্তী হাইওয়ে ফাঁড়ির তিনজন সদস্য দায়িত্বরত ছিলেন। এই ঘটনা পরে একাধিক জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

তিনি আরও বলেন, গণমাধ্যম ও জনসংযোগ শাখার বার্তার প্রেক্ষিতে গাজীপুর হাইওয়ে রিজিয়নের কমান্ডার আলী আহমদ খান বিষয়টি তদন্তের জন্য তাৎক্ষণিক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন। একইসঙ্গে অভিযুক্ত তিন সদস্যকে তাৎক্ষণিক এক অফিস আদেশে সাময়িক বরখাস্ত করে তাদেরকে হাইওয়ে পুলিশের মাঠ পর্যায়ের কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দিয়ে হাইওয়ে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: পুলিশ বরখাস্ত

আরও খবর



ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ঘরে ফেরা হাজারো মানুষের অপেক্ষা

প্রকাশিত:সোমবার ১০ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ক্রমেই ঘরে ফেরা মানুষ সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে বৃদ্ধি পেয়েছে যানবাহনের চাপ। এতে মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার সড়কে গাড়ি ধীর গতিতে চলাচল করছে।

গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গন্তব্যের অপেক্ষায় শতশত মানুষ। যাদের অধিকাংশই নিম্ন আয়ের মানুষ।

রবিবার সকাল সাড়ে এগারোটায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের কালিহাতীর বিরোতি রিসোর্ট এলাকায় দেখা গেছে সড়কের দুই পাশে গন্তব্যের অপেক্ষায় কয়েক শতাধিক মানুষ। যাদের অধিকাংশ ধানকাটা শ্রমিকসহ নিম্ন আয়ের মানুষ।

প্রায় কয়েক শতাধিক ধানকাটা শ্রমিকসহ অন্য নিম্ন আয়ের মানুষেরা পড়েছেন চরম। ট্রাক ও অন্যান্যে যানবাহনের হাকানো ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাবার সাধ্য তাদের নেই। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলছেন, বড়লোকরা অনেক টাকা দিয়ে হাইয়েচ ভাড়া করে যেতে পারছে। আমরা কিভাবে যাবো। আমরা এখানে কোথায় থাকবো, কী খাবো? তাদের দাবী বাস চললে কম টাকায় তারা বাড়ি যেতে পারতাম। এখন কী হবে জানিনা।

সকালের দিকে মহাসড়কে যানবাহনের চাপ কিছুটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে যানবাহনের চাপ কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। গেল ২৪ ঘণ্টায় বঙ্গবন্ধু সেতু দিয়ে প্রায় ৩২ হাজার যানবাহন পারাপার করা হয়েছে। এতে টোল আদায় হয়েছে প্রায় দুই কোটি বিশ লাখ টাকা। যা গত ২৪ ঘন্টার তুলনায় ৬ হাজার যানবাহন পারাপার ও ৩৫ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে। ফলে এই অতিরিক্ত চাপের বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থেকে থেকে কালিহাতির এলেঙ্গায় পর্যন্ত প্রায় ১৬ কিলোমিটার দুই লেনের সড়কে যানবাহনকে ধীরগতিতে চলাচল করতে হচ্ছে।


আরও খবর



খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে মৌখিক অনুমতি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার বিষয়ে মৌখিক অনুমতি পাওয়া গেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (৬ মে) রাতের মধ্যে লিখিতভাবে তার বিদেশে নেওয়ার অনুমতি পাওয়া যাবে বলেও বিএনপি সূত্রে জানা গেছে।

বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের একটি সূত্র জানায়, খালেদা জিয়াকে বিদেশ নেওয়ার ব্যাপারে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সঙ্গে আলোচনা চূড়ান্ত করেই আবেদন করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকতার জন্য গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে লিখিত আবেদন পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। দুপুরে দিকে সরকারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার আনুষ্ঠানিকতা শুরু করতে বলে দেওয়া হয়েছে। রাত নাগাদ তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেওয়ার অনুমতি লিখিতভাবে দেওয়া হবে।

এদিকে খালেদা জিয়ার স্বজনদের একটি সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে তাকে বিদেশে নেওয়ার সার্বিক প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে পরিবারের পক্ষ থেকে। রাতে একটি ফ্লাইটে বিএনপি চেয়ারপারসন ঢাকা ত্যাগ করতে পারেন।

এদিকে সকালে এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, খালেদা জিয়ার পোস্ট কভিড নানা জটিলতা সৃষ্টি হওয়ায় মানবিক কারণে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নিন।

এভারকেয়ার হাসপাতালে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গত মঙ্গলবার দুপুরে খালেদা জিয়ার পরীক্ষা-নিরীক্ষাগুলো পর্যালোচনা করেন। গত ২৭ এপ্রিল গুলশানের ওই হাসপাতালে ভর্তির পরদিনই এই মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়।


আরও খবর

ঈদ মোবারক

শুক্রবার ১৪ মে ২০২১




জটিলতা দেখা দিতে পারে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজ সম্প্রচার নিয়ে

প্রকাশিত:বুধবার ০৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ মে ২০২১ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে কড়া নোটিশ- ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যারাই বাংলাদেশে পা রাখবে, তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক। সেই বাধ্যবোধকতায় সাকিব আল হাসান আর মোস্তাফিজুর রহমানের দেশে ফিরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলা নিয়েও জটিলতা দেখা দিতে পারে।

দেশের আপামর জনসাধারণের স্বাস্থ্যসেবার কথা বিবেচনা করলে এই আইন মানাও বিশেষ কর্তব্য। তবে অতীতে সরকারের উর্ধ্বতন মহলের অনুমতি নিয়ে ঐ নির্দেশ শিথিল করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিশেষ করে জাতীয় দলের বিদেশি কোচিং স্টাফদের জন্য ১৪ দিনের বদলে সপ্তাহখানেকের কোয়ারেন্টাইনে থাকার বিশেষ অনুমতি নেয়া হয়েছে বারকয়েক।

তবে এবারের করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বেশ কঠোর। সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে, ভারত থেকে আসা যে কোন যাত্রীর দুই সপ্তাহ বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতেই হবে। এই কড়াকড়ি বহাল থাকলে চরম বিপাকে পড়ে যাবে বিসিবি।

নাহ, সাকিব-মোস্তাফিজের শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ খেলার কারণেই শুধু নয়। আরও একটি বিশেষ ও বাস্তবসম্মত কারণে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সেই কড়া নির্দেশ শিথিলের আবেদন করতে হবে বিসিবিকে। কী সেই কারণ?

বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক সিরিজ, আসরের টিভি সম্প্রচার যে চ্যানেলই করুক না কেন, সকল টিভি তথা মিডিয়া ক্রু হলো ভারতীয়। সেটা জিটিভি, মাছরাঙ্গা কিংবা টি স্পোর্টস; যারাই সম্প্রচার স্বত্ত্ব নিক।

ক্যামেরা ক্রু থেকে শুরু করে সব টেকনিক্যাল ক্রু হলেন ভারতীয়। বাংলাদেশে এখনও ঐ সেটআপ তৈরি হয়নি। তাই সবসময় ভারতীয় ক্রুদের দিয়েই টিভিতে খেলা দেখানোর সমুদয় কারিগর বিষয়গুলো পরিচালনা করা হয়। তাদের সংখ্যাও কম নয়, প্রায় অর্ধশতাধিক।

সাধারণত ঐ সব ক্রুরা খেলা শুরুর ৭২ ঘন্টা আগে এসে ক্যাবল বসানো থেকে শুরু করে সব কাজকর্ম সেরে ফেলেন। এবার যদি তারা আগের মতো তিন-চার দিন আগে আসেন, তাহলে কী করে হবে?

যেহেতু তাদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে দুই সপ্তাহ, তাই তাদের সিরিজ শুরুর অন্তত ১৭-১৮ দিন আগে এসে পৌঁছাতে হবে। আজ ৫ মে। ২৩ মে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। সেক্ষেত্রে ঐ ভারতীয় মিডিয়া ক্রুদের আজ-কালের ভেতর আসা ছাড়া পথ নেই।

কিন্তু এই ৫০ জনের বাংলাদেশে আসার ব্যবস্থাও তো নেই। বিমান চলাচল বন্ধ। তাহলে তাদের চার্টার্ড ফ্লাইটে করে আনতে হবে এবং অন্তত তিন তারকা হোটেলে রেখে কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করতে হবে। আনুমানিক প্রায় কোটি টাকার ধাক্কা। বিসিবি কিংবা যে চ্যানেল বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কার ওয়ানডে সিরিজ সরাসরি সম্প্রচার করবে, তারা কি ঐ বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ করবে?

এ প্রশ্ন কিন্তু উঠেছে। তাই ধরেই নেয়া হচ্ছে, বিসিবির সামনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছ থেকে বিশেষ অনুমতি নিয়ে কোয়ারেন্টাইনে ছাড় আদায় করা ছাড়া পথ থাকবে না। এখন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কি সে অনুমতি দেবে? মানে দুই সপ্তাহের বদলে সপ্তাহখানেকের কোয়ারেন্টাইনের অনুমতি মিলবে? যদি না মেলে, তাহলে বাংলাদেশ আর শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে সিরিজ সম্প্রচারে বড় ধরনের জটিলতা দেখা দিতে পারে।


আরও খবর



তীব্র কালবৈশাখী ঝড়ের আভাস

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১১ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৮৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিকে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৪৫ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে

দেশের উত্তরাঞ্চলে তীব্র কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে দুই নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। সোমবার (১০ মে) রাতে এক পূর্বাভাসে এমন তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, ময়মনসিংহ অঞ্চলের উপর দিয়ে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে অস্থায়ীভাবে বজ্রসহ বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে দুই নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া রাজশাহী, পাবনা, যশোর, কুষ্টিয়া, ঢাকা, ফরিদপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং কক্সবাজারের উপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিকে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৪৫ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে এক নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. আরিফ হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, বর্তমানে লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে।

এ অবস্থায় মঙ্গলবার (১১ মে) সন্ধ্যা পর্যন্ত রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট, ঢাকা, বরিশাল, খুলনা ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে।

নিউজ ট্যাগ: কালবৈশাখী ঝড়

আরও খবর

হালকা বৃষ্টি থাকবে ঈদের দিন

বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১