Logo
শিরোনাম

রাশিফল: আজকের দিনটি কেমন যাবে?

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পুরনো জ্যোতিষশাস্ত্রের এমন একটি ধরন, যার মাধ্যমে বিভিন্ন সময়কাল নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। যেমন দৈনিক রাশিফল প্রতিদিনের ঘটনার ভবিষ্যকথন করে, তেমন সাপ্তাহিক, মাসিক তথা বার্ষিক রাশিফল যথাক্রমে সপ্তাহ, মাস এবং বছরের ভবিষ্যদ্বাণী করে। বৈদিক জ্যোতিষে ১২টি রাশি- মেষ, বৃষ, মিথুন, কর্কট, সিংহ, কন্যা, তুলা, বৃশ্চিক, ধনু, মকর, কুম্ভ ও মীন-এর ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। একই রকমভাবে ২৩টি নক্ষত্রেরও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়ে থাকে।

মেষ:

বিদেশ থেকে শুভ সংবাদ পেতে পারেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা পাবেন। ব্যবসায় চাপ থাকলেও লাভবান হবেন। পারিবারিক জীবনকে আনন্দে পরিপূর্ণ রাখুন।

বৃষ:

প্রত্যাশা পূরণে অন্যের সহযোগিতা পাবেন। প্রিয়জনের অসুস্থতায় চিন্তিত থাকতে পারেন। কিছুটা ব্যয়াধিক্য থাকতে পারে। মানসিক চাপ থাকলেও কর্ম ও আর্থিক ক্ষেত্র আশার আলো দেখাবে।

মিথুন:

কোনো ইতিবাচক সংবাদে উত্ফুল্ল হবেন। সামাজিক যোগাযোগ বাড়বে। প্রেম-প্রণয় আমেজহীন। ব্যবসায় কিছু পরিবর্তনের কথা ভাবতে পারেন। পারিবারিক শান্তি বজায় রাখুন।

কর্কট:

কিছুটা মানসিক চাপ থাকলেও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় অন্যের সহযোগিতা পাবেন। দক্ষ ব্যবস্থাপনার প্রয়োজন। অন্যকে প্রভাবিত করে কাজের অগ্রগতি হবে। মনকে প্রফুল্ল রাখুন।

সিংহ:

আপনার উদ্যোগে বৈষয়িকভাবে লাভবান হওয়ার সুযোগ পাবেন। বিনোদনমূলক কাজে আনন্দ পাবেন। বিপর্যয় মোকাবেলায় আগাম পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। রোমান্স শুভ।

কন্যা:

সামাজিক যোগাযোগ বাড়বে। সম্পত্তি কেনাবেচার শুভ সময়। রাজনৈতিক ও সামাজিক কর্মকাণ্ডে অনুকূল অবস্থা বিরাজ করবে। স্ববিরোধী কোনো কাজে হাত দেবেন না।

তুলা:

সঠিক প্রচেষ্টায় কাজের উন্নতি। কোনো যোগাযোগে লাভবান হতে পারেন। ভ্রাতৃস্থানীয় কোনো ব্যক্তির সহযোগিতা পাবেন। আপনার দ্বারা যে কাজ সম্ভব নয় সেদিকে যাবেন না।

বৃশ্চিক:

পুরনো সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবেন। কোনো গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তনের কথা মাথায় আসবে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে অন্যকে প্রভাবিত করতে পারবেন। আর্থিক ক্ষেত্র শুভ। শরীরের যত্ন নেবেন।

ধনু:

নতুন যোগাযোগ উৎসাহিত করবে। ব্যবসায় জটিলতা কাটিয়ে ওঠার ভালো সময়। অতীত অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে। প্রভাবশালীদের আনুকূল্য পাওয়া যেতে পারে। মন ভালো রাখুন।

মকর:

লক্ষণীয় কোনো পরিবর্তন ঘটবে না। আয় বাড়লেও ব্যয়চাপ কমবে না। প্রেম-প্রণয় শুভ। স্বজন বিষয়ে উদ্বেগ। শরীর ভালো থাকলেও যত্নের প্রয়োজন। লক্ষ্যে স্থির থাকুন। আনন্দে থাকুন।

কুম্ভ:

কর্মে উন্নতির যোগ আছে। মানসিক চাপ কিছুটা কমবে। আয়ের পরিধি বাড়বে। বন্ধুর সাহায্য পাবেন। অবসাদে ভুগলেও দিনের শেষে উত্ফুল্ল থাকবেন। মনকে নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

মীন:

কোনো যোগাযোগে আর্থিক উন্নতির সম্ভাবনা। দাম্পত্য জীবন শুভ। কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ অনুকূলে থাকবে। যেকোনো কাজে দক্ষতার পরিচয় দিতে পারবেন। ধৈর্য না হারালে ভালো থাকবেন।


আরও খবর



মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটদের উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
এ বছর একাডেমির ৩৯তম ও ৪০তম ব্যাচে নটিক্যাল বিভাগে ৬৩ জন, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৬৬ জন এবং মেরিন ফিশারিজ বিভাগে ৩৬ জন ক্যাডেট পাসড আউট হচ্ছে। এদের মধ্যে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৬ জন

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে বাংলাদেশ বিশ্ব মানচিত্রে অনন্য রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে। এ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটদের অবদান অসাধারণ হিসেবে পরিগণিত হবে। বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে এ ক্যাডেটদের দক্ষতা, অভিজ্ঞতা, সততা, বিচক্ষণতা, মূল্যবোধ ও নৈতিকতা দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে। তাই মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটগণ দেশের বাইরে কাজ করার ক্ষেত্রে প্রত্যেকেই বাংলাদেশের একজন অ্যাম্বাসেডর। যেখানেই থাকুক না কেন তাদের সততা, দক্ষতা ও কর্মনিষ্ঠা বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করার মত উজ্জ্বল অবস্থা সৃষ্টি করবে।

সোমবার (১৫ মার্চ) চট্টগ্রামের মেরিন ফিশারিজ একাডেমি প্যারেড গ্রাউন্ডে একাডেমির ৩৯তম ও ৪০তম ব্যাচ ক্যাডেটদের গ্র্যাজুয়েশন প্যারেড অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুবোল বোস মনি ও মোঃ তৌফিকুল আরিফ, যুগ্মসচিব মাহবুবা পান্না, মেরিন ফিশারিজ একাডেমির অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ ওয়াসিম মকসুদসহ মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, মেরিন ফিশারিজ একাডেমি, মৎস্য অধিদপ্তর ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও বাংলাদেশ নৌবাহিনী, বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড, নৌপরিবহন অধিদপ্তর, মার্কেন্টাইল মেরিন ডিপার্টমেন্ট, সরকারি শিপিং দপ্তরসহ অন্যান্য মেরিটাইম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিষ্ঠিত মেরিন ফিশারিজ একাডেমির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলাদা সহানুভূতি ও আন্তরিকতা রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী এসময় বলেন, "প্রধানমন্ত্রী চান এ একাডেমি উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাক। এ প্রতিষ্ঠানের প্রত্যেক ক্যাডেট এবং শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট সকলে স্বতন্ত্র অবস্থানে পৌঁছে যাক। সে লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। এজন্য একাডেমির ক্যাডেটদের উচ্চ শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে। কোর্সের সীমা বৃদ্ধি করে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করা হয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কাজ করার সুযোগ তৈরির জন্য বিভিন্ন ভাষায় ক্যাডেটদের প্রশিক্ষিত করা হচ্ছে। জাতির পিতা সৃষ্ট প্রতিষ্ঠান থেকে যারা শিক্ষা, অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান নিয়ে যাচ্ছেন তারা দেশের ভাবমূর্তি বৃদ্ধি করবেন, এটা প্রত্যাশিত।"

এসময় তিনি আরো যোগ করেন, "এ বছর একাডেমির ৩৯তম ও ৪০তম ব্যাচে নটিক্যাল বিভাগে ৬৩ জন, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৬৬ জন এবং মেরিন ফিশারিজ বিভাগে ৩৬ জন ক্যাডেট পাসড আউট হচ্ছে। এদের মধ্যে মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৬ জন এবং মেরিন ফিশারিজ বিভাগে ৪ জন মহিলা ক্যাডেট রয়েছে। নারী শিক্ষার উন্নয়নে বর্তমান সরকারের যুগোপযোগী পরিকল্পনার একটি ধাপ হিসেবে এ একাডেমিতে মহিলা ক্যাডেটদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে এবং এ পর্যন্ত ৪৮ জন মহিলা ক্যাডেট গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন। নারীর ক্ষমতায়নের এ সুযোগ শেখ হাসিনা করে দিয়েছেন। অদূর ভবিষ্যতে এ একাডেমিতে আরো বেশি মহিলা ক্যাডেট আসবে বলে প্রত্যাশা করি। তারা দক্ষতা ও কৃতিত্বের সাথে কোর্স সম্পন্ন করে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করবে এবং দেশে ও দেশের বাইরে নিজের যোগ্যতার পরিচয় দিয়ে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে।"

এ একাডেমির ৪৮১ জন ক্যাডেটের অনুকূলে নৌপরিবহন অধিদপ্তর Continuous Discharge Certificate  (CDC) ইস্যু করায় এ ক্যাডেটরা বাণিজ্যিক জাহাজে চাকুরীতে যোগদানের সুযোগ পাচ্ছেন বলেও এসময় মন্ত্রী জানান।

গ্র্যাজুয়েশনপ্রাপ্ত ক্যাডেটদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, "আপনার অনৈতিকতা, মূল্যবোধহীনতা ও অসততা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ধ্বংস করে দেবে। অপরদিকে আপনার কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা, আন্তরিকতা ও শিক্ষার প্রসার ঘটাতে পারলে বিশ্বের বুকে আপনিই হবেন বাংলাদেশ। আপনিই হবেন আমাদের লাল সবুজের পতাকা। আপনিই হবেন ত্রিশ লক্ষ শহিদ আর দুই লক্ষ সম্ভ্রম হারানো মা-বোনের স্বপ্ন বাস্তবায়নের কারিগর। বাংলাদেশের  সংবিধান, বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আপনাদের সবটুকু পবিত্র আনুগত্য ও দায়িত্বশীলতা থাকতে হবে। প্রয়োজনবোধে নিজের জীবন উৎসর্গ করে দেশমাতৃকার ভাবমূর্তি রক্ষা করা যেন আপনাদের ব্রত হয় । আমরা যেন বলতে পারি দেশের সোনালী সন্তান আপনারা। বিশ্ব পরিমন্ডলে আপনাদের বিকশিত করার জন্য সরকার সবকিছু করবে।"

সুনীল অর্থনীতিতে আমাদের অপার সম্ভাবনা রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, "বিশ্বের আর কোন দেশ বিনা যুদ্ধে সেরা কূটনীতির মাধ্যমে রাষ্ট্রের প্রায় সমপরিমাণ সমুদ্রে নিজের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে পারেনি। যেটা করতে পেরেছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। তিনি আলোকবর্তিকা হয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বিকশিত বাংলাদেশ দেখতে চান। সমৃদ্ধ বাংলাদেশ দেখতে চান। সোনার বাংলা দেখতে চান। সে বাংলাদেশের এক বিশাল অংশের দায়িত্ব মেরিন ফিশারিজ একাডেমির ক্যাডেটদের কাঁধে আজ থেকে আমরা অর্পণ করলাম।"

এর আগে প্রধান অতিথি প্যারেড পরিদর্শন করেন ও সেরা ক্যাডেটদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করেন। পরে সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানে গ্র্যাজুয়েটদের হাতে সনদ তুলে দেন তিনি।


আরও খবর



গুরুতর অসুস্থ হয়ে আইসিইউতে অভিনেতা ফারুক

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আবারও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন অভিনেতা ও সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান। তাকে জরুরি ভিত্তিতে আইসিইউতে নেয়া হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন ফারুকের ভাতিজি অভিনয়শিল্পী এবং উপস্থাপিকা আসমা পাঠান রুম্পা।

তিনি জানান, গত সপ্তাহ থেকেই সিঙ্গাপুরে রয়েছেন ফারুক। নিয়মিতই চেকআপের জন্যই সিঙ্গাপুর গিয়েছিলেন তিনি। সবকিছু ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু আজ শনিবার (১৩ মার্চ) সকালে ঘুম থেকে উঠছিলেন না।

ডাকাডাকি করে দেখা যায় তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে। পরে দ্রুত তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। সেখানে এ মুহূর্তে তিনি চিকিৎসকের সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রয়েছেন।

তার সঙ্গে কাউকে দেখা করতে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি ফোনেও তার কথা বলা নিষেধ। চাচার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন আসমা পাঠান রুম্পা।

এর আগে বেশ কয়েক দফায় অসুস্থ হয়েছেন ফারুক। সিঙ্গাপুরে নিয়েছেন উন্নত চিকিৎসা। করোনায়ও আক্রান্ত হয়েছিলেন এই বর্ষীয়ান চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক।


আরও খবর



পুরো ঢাকায় করোনা আইসিইউ’র বেড খালি আছে মাত্র ৯৭টি

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশজুড়ে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বেড়েই চলছে। প্রতি দিনই সংক্রমণের মাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২ দিন যাবত দৈনিক শনাক্ত হচ্ছেন সাড়ে ৩ হাজারের বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ২৫ জন। সংক্রমণের মাত্রা বৃদ্ধি পেতে থাকায় করোনা আক্রান্তদের জন্য হাসপাতালের বেড সংকটের তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) সংকট দেখা দিচ্ছে।

করোনা আক্রান্তদের জন্য রাজধানী ঢাকার তালিকাভুক্ত ১০ সরকারি হাসপাতালের ১০৩টি আইসিইউর মধ্যে রোগী ভর্তি রয়েছেন ৯৩ জন, সে হিসেবে ফাঁকা রয়েছে মাত্র ৭টি বেড। আর এই ১০ হাসপাতালের অন্যতম ৫ টি হাসপাতালে কোনো আইসিইউ বেড ফাঁকা নেই।

আজ বুধবার (২৪ মার্চ) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনা বিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ চিত্র দেখা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত সরকারি কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের ১৬টি বেড, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের ১০টি বেড, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ১০টি বেড, মুগদা জেনারেল হাসপাতালের ১৪টি বেড এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬টি বেডের সবগুলোতে রোগী রয়েছে।

কেবল শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের ১৬টি বেডের মধ্যে ৪টি, সরকারি কর্মচারী হাসপাতালের ৬টি বেডের মধ্যে ১টি এবং রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের ১৫টি বেডের মধ্যে ২টি বেড ফাঁকা রয়েছে।

তালিকাভুক্ত শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল আর সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হলেও এখানে করোনাক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসিইউ বেড নেই।

অপরদিকে, অধিদপ্তরের তালিকাভুক্ত ৯টি বেসরকারি হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য আইসিইউ রয়েছে ১৬৪টি। তার মধ্যে রোগী ভর্তি আছেন ১২৬ জন, বেড ফাঁকা রয়েছে ৩৮টি।

অর্থ্যাৎ, রাজধানী ঢাকার তালিকাভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের মোট ২৬৭টি আইসিইউ বেডের মধ্যে রোগী ভর্তি আছেন ২২২ জন, আর বর্তমানে বেড ফাঁকা রয়েছে ৪৫টি।

অধিদপ্তর জানায়, চট্টগ্রাম মহানগরের তালিকাভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসিইউ রয়েছে মাত্র ৪৫টি। তার মধ্যে রোগী ভর্তি আছেন ২২ জন, আর বেড ফাঁকা রয়েছে ২৩টি।

অধিদপ্তরের তালিকা থেকে জানা যায়, সারাদেশে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য মোট আইসিইউ বেড রয়েছে ৫৪৯টি। তার মধ্যে বর্তমানে রোগী ভর্তি আছেন ৩২৩ জন, বেড ফাঁকা রয়েছে ২২৬টি।

নিউজ ট্যাগ: আইসিইউ

আরও খবর



কচুরিপানার ভেতরে স্বামী-স্ত্রীর হাত-পা বাঁধা লাশ

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মাদারীপুর থেকে দেলোয়ার হোসাইন

মাদারীপুরের কালকিনিতে একটি খাল থেকে মোয়াজ্জেম সরদার (৪২) ও মোকসেদা বেগম (৩৪) নামে দুই ব্যক্তির হাত-পাঁ বাধা লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। তারা দুজনে সম্পর্কে স্বামী স্ত্রী। নিহত মোয়াজ্জেম উপজেলার আলীনগর এলাকার রাজাচর গ্রামের মফছের সরদারের ছেলে।

আজ শুক্রবার দুপুরে ওই এলাকার হাবিব বেপারীর বাড়ির পাশের একটি খালে থেকে তাদের দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ লাশ উদ্ধারের খবরে ওই এলাকায় মুহুর্তের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এলাকা ও পুলিশ সুত্রে জানাগেছে, স্বামী মোয়াজ্জেম ও স্ত্রী মোকসেদা বেগম রবিবার রাতে একই সঙ্গে বাড়ি থেকে হঠাৎ করে নিখোঁজ হন। পরে বাড়ির লোকজন অনেক খোজাখুজি শেষে খালের কচুরী পানার ভেতর তাদের দুজনের লাশ দেখতে পেয়ে কালকিনি থানা পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ তাদের দুজনের লাশ উদ্ধার করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ নান্নু বলেন, নিহত মোয়াজ্জেম একটি লুট মামলার সাক্ষী ছিলেন। হয়তবা এর জের ধরেই এ ঘটনা ঘটতে পারে।

এব্যাপারে কালকিনি থানার ওসি ইশতিয়াক আশফাক রাসেল বলেন, আমরা খবর পেয়ে নিহত দুজনের হাত পা বাধা লাশ উদ্ধার করেছি। ময়না তদন্তের পর বলা যাবে কিভাবে হত্যা করা হয়েছ।

নিউজ ট্যাগ: মাদারীপুর

আরও খবর



মধ্যযুগীয় কায়দায় ব্যবায়ীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম (ভিডিও)

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ৩০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত-পা বেঁধে আল-আমীন (৩১) নামে এক কাঠ ব্যবায়ীকে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে স্থানীয় বখাটেরা। ঘটনাটি ঘটেছে পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী থানার পত্তাশী গ্রামে। নির্যাতনের পরও খ্যান্ত হননি তারা। এ ঘটনা জানজানি হলে উপয়ন্ত না দেখে, ঘটনা ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করার জন্য ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটা মামলা দায়ের করে।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদর চেয়ারম্যান এর সাথে পূর্ব শত্রুতা এবং চলমান ইউপি নির্বাচনে তার বিরোধীতা করায় পরিকল্পিত ভাবে ব্যবসায়ীকে নির্যাতন করা হয়। রবিবার রাতে এ বর্বরাচিত হামলার ঘটনায় ব্যবসায়ী মামলা করার কথা জানালে ইন্দুরকানী থানা পুলিশ তা আমলে নেয়নি।

বর্তমান পুলিশ প্রহরায় হ্যান্ডকাফ পরা অবস্থায় পিরাজপুর জেলা হাসপাতাল নির্যাতিত আল আমীনর চিকিৎসা চলছে। নির্যাতিত আল আমীন ওই গ্রামর মাঃ আলী আকবার এর ছেলে।

হাসপাতাল চিকিৎসাধীন আলী আমীন জানায়, রবিবার রাত স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় মাহফিল শুনে স্থানীয় এক যুবকের সাথ বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পত্তাশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জম হোসেন হাওলাদারর সমর্থিত ১০-১২ জন যুবক তার উপর অতর্কিত হামলা করে। এরপর তাদের সাথে আরও ১৫-২০ জন যোগ দেয় । এসময় সন্ত্রাসীরা তাক মাটিতে ফেলে হাত পা পিঠমোড়া দিয়ে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে। এ সময় ওই ইউনিয়ন পরিষদের স্থানীয় গ্রাম পুলিশ মাঃ রিয়াজ উপস্থিত থাকলেও, সবাই নিরব ভূমিকা পালন করে।

আল আমীনর অভিযাগ ইউপি চেয়ারম্যান মায়াজ্জম এর সমর্থক থাকলেও, বর্তমান তার সাথে দূরত্ব রয়েছে । এজন্যই তার উপর ক্ষিপ্ত এই ইউপি চেয়ারম্যান। তার নির্দেশে বর্বরাচিত নির্যাতন করা হয়। নির্যাতনর এক পর্যায় অজ্ঞান হয় পড়ে। খবর পেয়ে ইদুরকানী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয় যায়। এরপর সেখান থেকে তাকে পুলিশ প্রহরায় পিরাজপুর জলা হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। আল-আমীন অভিযোগ করেন, মারধারর ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া এবং তাকে ফাঁসানার জন্য এ মামলা দেয়া হয়।

গ্রামপুলিশ রিয়াজ জানান, আল আমীনকে ব্যাপকভাবে মারধার করা হয় ।

এ বিষয় ইউপি চয়ারম্যান মোয়াজ্জেম জানান,আল আমীনক মারধারর খবর শুনে স্থানীয় চকিদার রিয়াজকে ঘটনাস্থেল পাঠিয়ে উদ্ধার করে। এরপর বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাব ইদুরকানী থানায় জানানা হয়। তবে এ ঘটনায় নিজেকে জড়িত থাকার কথা অম্বীকার করে বলেন, যারা এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপার ইদুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাঃ হুমায়ুন কবির জানান, একটি মেয়েকে শ্লীলতাহানির অভিযাগে আল আমীনক আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ইদুরকানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরআগে তাকে মারধার করা হয়। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। অপরাধিদের আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লখ্য, এর আগ গত বছরর ৪ নভম্বর একটি কর্মী সভায় ইউপি চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন হাওলাদার এর সমালাচনা করায় রঞ্জন কুমার মজুমদার নাম ওয়ার্ড আওয়ামী লীগর এক সাধারণ সম্পাদকক পিটিয় পা ভেংগে দেয় তার সমর্থকরা। আসন ইউপি নির্বাচনক কেদ্র করে প্রতিদ্বন্ধীদের দমনের জন্য বিভিন্ন ভাবে নির্যাতনের অভিযাগ রয়েছে এই ইউপি চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে।



আরও খবর