Logo
শিরোনাম

সারা দেশে নিয়োগ দেবে এসিআই

প্রকাশিত:বুধবার ১০ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ নিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটিতে সিনিয়র অফিসার/ মার্কেটিং অফিসার পদে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী যোগ্য প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম : সিনিয়র অফিসার/ মার্কেটিং অফিসার, এসিআই সিড।

শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা

স্বীকৃত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেকোনো বিষয়ে স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর পাস প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। অভিজ্ঞ প্রার্থীরা অগ্রাধিকার পাবেন। প্রার্থীর যোগাযোগদক্ষতা থাকতে হবে। ন্যূনতম ২২ থেকে অনূর্ধ্ব-৩০ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

কর্মস্থল: সারা দেশ (প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত)।

বেতন: আলোচনা সাপেক্ষে।

আবেদনের প্রক্রিয়া : আগ্রহী প্রার্থীরা বিডিজবস অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ তারিখ : ১৯ মার্চ, ২০২১।

সূত্র : বিডিজবস

নিউজ ট্যাগ: এসিআই

আরও খবর

প্রতি কেজি সবজির দাম ১ লাখ টাকা

শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১




যশোরে বাস-ইজিবাইক সংঘর্ষে দুই শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যশোরের অভয়নগর উপজেলায় বাস ও ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। উপজেলার ভাঙ্গাগেট এলাকায় আজ শুক্রবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, হতাহতরা সবাই ইজিবাইকের যাত্রী ছিলেন। তারা অভয়নগরের নওয়াপাড়া নৌ-বন্দরে কয়লার শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে চারজনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভয়নগর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদ আলম জানান, আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে খুলনা থেকে ছেড়ে আসা রূপসা পরিবহণের একটি বাস যশোরের দিকে যাচ্ছিল। পথে অভয়নগরের ভাঙ্গাগেট এলাকায় খুলনামুখী একটি ইজিবাইকের সঙ্গে বাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ইজিবাইকটি উল্টে গিয়ে হতাহতের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে অভয়নগর হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ইজিবাইকের চালকসহ সাতজনকে উদ্ধার করে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

এদিকে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ফারিয়া রহমান জানান, সাতজনের মধ্যে দুজনকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। বাকি পাঁচজনের মধ্যে চারজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁদের খুমেক হাসপাতালে স্থানান্তরের জন্য বলা হয়েছে। একজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।


আরও খবর



নিখোঁজের পর মুরগির আবর্জনায় মিললো দুই এনজিও কর্মকর্তার লাশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার চুড়াইন ইউনিয়নের দুর্গাপুর মুরগির খামারের পিছনে থেকে নিখোঁজের সাড়ে তিন মাস পর দুই এনজিও কর্মকর্তার মাটি চাপা দেয়া মরদেহ উদ্ধার করেছে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ। সোমবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যা ৭টায় ওই দুইজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এর আগে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, একটি বেসরকারি সংস্থার উপজেলার চুড়াইন শাখার কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম ২০২০ সালের ৫ ডিসেম্বর নিখোঁজ হয়। এরপর গত ১৬ মার্চ আরেক কর্মকর্তা অভিজিত কুমার মালো নিখোঁজ হন।

রোববার (২১ মার্চ) এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সন্দেহজনকভাবে জনি (৩০) নামে একজনকে আটক করে ঢাকা উত্তরের ডিবি পুলিশ। তার দেয়া তথ্য মতে, সোমবার বিকেলে দুর্গাপুরে অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত ইউসুফ হোসেন ও মনিরকে আটক করে পুলিশ।

পরে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের পর জানায়, তারাই সংঘবদ্ধ হয়ে ওই দুইজন এনজিও কর্মকর্তাকে হত্যার পর মরদেহ গুম করে। পরে আসামিসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুর্গাপুর মুরগির খামারের পিছন থেকে মুরগির আবর্জনা দিয়ে ডাকা মরদেহ দুটি দুই স্থান থেকে উদ্ধার করে ডিবি ও নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ।

এনজিওটির বর্তমান এরিয়া ম্যানেজার রফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের সংস্থার প্রথম কর্মকর্তা নিখোঁজ হলে মামলা দায়ের করি। মামলাটি ডিবি তদন্ত করে। এরপর দ্বিতীয় কর্মকর্তা গুম হলে ডিবি পুলিশের একটি চৌকস টিম কাজ করে। পরে ঘটনার সন্ধান মিলে।

এ ঘটনার বিষয়ে ঢাকার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ দক্ষিণ) মো. হুমায়ুন কবির জানান, এনজিও থেকে ইউসুফের স্ত্রী কিস্তির টাকা উত্তোলন করে। ওই টাকা পরিশোধ করতে চাপ দিলেই তারা পূর্ব-পরিকল্পিতভাবে প্রথমে রাজিবুলকে ডেকে টাকা দেয়ার কথা বলে হত্যা করে। এরপর অভিজিত কুমার মালোকেও একই কায়দায় ডেকে হত্যার পর মরদেহ গুম করে।


আরও খবর



প্রতি কেজি সবজির দাম ১ লাখ টাকা

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সারাবিশ্বের কাছে এই গাছটির অবশ্য আলাদা একটি পরিচয় রয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে দামি সবজির গাছ এটি। এর প্রতি কেজির দাম ১ লাখ টাকারও বেশি!

বাজারে চাহিদা না থাকায় ভারত-বাংলাদেশে এই সবজির চাষ হয় না। মূলত ইউরোপ এবং আমেরিকায় এর বহুল উৎপাদন হয়ে থাকে।

হিউমুলাস লুপুলাস একটি বহুবর্ষজীবী উদ্ভিদ। সম্প্রতি ভারতের বিহারের এক ব্যক্তি তার জমিতে এই গাছের চাষ করেন। এক আইএএস অফিসার সবজির ছবিসহ দামের উল্লেখ করে ইন্টারনেটে পোস্ট করা মাত্রই হইচই পড়ে গেছে।

বিহারের ওই ব্যক্তির নাম অমরেশ সিংহ। ভারতে তিনিই প্রথম এই সবজির চাষ করছেন। এর নাম হপ শুটস।বিহারের আওরঙ্গবাদে প্রায় পৌনে তিন লাখ টাকা বিনিয়োগ করে ৫ কাঠা জমিতে তিনি এই সবজির চাষ করেছেন।

সবজিটি দেখতে অনেকটা অ্যাসপারাগাসের মতো। খেতেও অনেকটা সে রকমই। অ্যাসপারাগাস যেভাবে রান্না করে খেতে হয় এই সবজিও সেভাবেই খেতে পারেন। এ ছাড়া আরও অনেক ব্যবহার রয়েছে এর।

এই গাছের ফুল হপ নামে পরিচিত। এই ফুল দিয়ে বিয়ার তৈরি করা হয়। কোনও পানীয়তে সুগন্ধী দেওয়ার কাজেও লাগে এই ফুল। হপ ফুল দিয়ে তৈরি বিয়ার সহজে নষ্ট হয় না।

মূলত পানীয় তৈরিতেই প্রথম এই গাছের ব্যবহার সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তারপর ধীরে ধীরে এর ঔষধি গুণ সামনে আসতে শুরু করে।

ওই সবজি প্রথম চাষ হয় ৭৩৬ সালে জার্মানিতে। তবে প্রথম হপ শুটস পানীয়তে ব্যবহার করা হয় ১০৭৯ সালে। পরবর্তী কালে হপ শুটস-এর আরও অনেক ঔষধি গুণের কথা সামনে আসে।

এর বিশেষ অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল গুণ রয়েছে। টিবি রোগীদের ওষুধ তৈরিতে, ক্যানসারের চিকিৎসায় কাজে লাগে হপ শুটস। এই সমস্ত কারণেই হপ শুটস-এর এমন আকাশছোঁয়া দাম।

হপ শুটস-এর মধ্যে থাকা অ্যাসিড ক্যানসার আক্রান্ত কোষগুলোকে নষ্ট করে দেয়। ক্যানসারের ওষুধ তৈরিতে চিকিৎসা বিজ্ঞানে এই হপ শুটস নিয়ে বহু গবেষণাও চলছে।

এই গাছটি মূলত ঝোপ প্রকৃতির। ফুলগলো সবুজ রঙের আর খুব নরম। তাই খুব সাবধানে গাছ থেকে তুলতে হয় সেগুলো। তোলার সময় ক্ষতিগ্রস্ত হলে তা আর বিক্রির যোগ্য থাকে না।


আরও খবর



‘অতি জরুরি’ মামলার শুনানি নেবেন হাইকোর্ট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৬ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে জনসাধারণের চলাচলের ওপর এক সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে সরকার। গত ৪ এপ্রিল এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

করোনার ঊর্ধ্বমুখী প্রভাবের মধ্যেও সীমিত আকারে চলমান আদালতের কার্যক্রমে শুধুমাত্র অতি জরুরি মামলার শুনানি নেবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন হাইকোর্ট। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

ভার্চুয়াল আদালতের কার্যক্রমের শুরুতে আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে আদালত বলেন, অতি জরুরি বিষয় ছাড়া অন্য আবেদন শোনা হবে না। প্রধান বিচারপতির গঠনবিধি আপনারা দেখেছেন। গঠনবিধি অনুসারে মামলাটি শুধুমাত্র জরুরি হলে হবে না, অতি জরুরি হতে হবে। শুধু মক্কেলের জন্য জরুরি বিষয়ে মামলা ফাইল করতে হবে, এটা এখন না। এটা সামনে পাবেন। তখন সে হিসেবে মেনশন করবেন।

প্রসঙ্গত, করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে জনসাধারণের চলাচলের ওপর এক সপ্তাহের নিষেধাজ্ঞা ঘোষণা করে সরকার। গত ৪ এপ্রিল এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

ওই প্রজ্ঞাপনের ধারাবাহিকতায় নিষেধাজ্ঞা চলাকালে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে ভার্চুয়ালি চারটি বেঞ্চ (তিনটি দ্বৈত ও একটি একক) এবং সপ্তাহে দুদিন আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতের বিচারিক কার্যক্রম চলবে বলে বিজ্ঞপ্তি দেয় সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। পাশাপাশি দেশের অধস্তন আদালতসমূহের মধ্যে জেলা ও মহানগর প্রতি একজন চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট/চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট দ্বারা জরুরি বিষয়ে বিচারকার্য পরিচালিত হবে বলেও কোর্ট প্রশাসন জানায়।


আরও খবর



বিমানের সিটের নিচে মিলল ৩৯ সোনার বার

প্রকাশিত:বুধবার ৩১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৮০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে একটি উড়োজাহাজের সিটের নিচ থেকে সাড়ে চার কেজি সোনা উদ্ধার করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

দুবাই থেকে আসা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজটি বুধবার সকালে শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণের পর তল্লাশি চালিয়ে এই সোনা উদ্ধার করা হয়। এতে ৩৯টি সোনার বার ছিল।

এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক তানভীর আহমেদ।

তিনি জানান, দুবাই থেকে আসা বিজি ০৪৮ ফ্লাইটি সকাল সাড়ে ৭টার দিকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। এই ফ্লাইটে করে সোনা পাচার করা হচ্ছে বলে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ আব্দুর রউফের কাছে গোপন তথ্য ছিল। ওই তথ্যের ভিত্তিতে যাত্রীরা নেমে যাওয়ার পর বিমানটিতে তল্লাশি চালানো হয়। এ সময় বিমানকে ৩-এ সিটের নিচে ৩৯ পিস স্বর্ণের বার পাওয়া যায়, যার মোট ওজন সাড়ে চার কেজি।

সোনা উদ্ধারের ঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি। তবে কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তদন্ত করছে।


আরও খবর