Logo
শিরোনাম

শীতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় যে পাঁচ ফল

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শীতকালে নিজের শরীরের বেশি যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। বিভিন্ন ধরনের ফল খাওয়া উচিত এই মৌসুমে। বাইরে থেকে যত্নের পাশাপাশি চাই ভেতর থেকে সুস্থতা। শীতে কিছু ফল আপনাকে সজীবতা ও সুস্থতা দেবে। ভিটামিন সিসমৃদ্ধ এসব ফল শীতে খসখসে হয়ে যাওয়া ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। আর তাই সুযোগমতো এসব ফল খেতে ভুলবেন না। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

শরীরে ফাইবার বা আঁশের ঘাটতি মেটাতে ও ভিটামিন সির জোগান দিতে শীতের সময় বেশি করে এসব ফল খেতে পারেন। জেনে নিন এ মৌসুমের দারুণ পাঁচটি ফল ও এর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে:

পেয়ারা

শীতের মৌসুমে বাজারে পেয়ারা পাবেন। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় পেয়ারা রাখা যেতে পারে। এতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন সি ও লাইকোপেন, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই দরকারি। পেয়ারার বিশেষ পাঁচটি গুণের মধ্যে রয়েছে এটি ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, চোখের জন্য ভালো, পেটের জন্য উপকারী আর ক্যানসার প্রতিরোধী। পেয়ারা অনেক ধরনের সংক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করতেও সাহায্য করে। পেয়ারাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি পাওয়া যায়, যা কমলালেবুর চেয়েও কয়েক গুণ বেশি। পেয়ারায় আছে ভিটামিন এবং ভিটামিন বি কমপ্লেক্স। এতে আছে যথেষ্ট পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ফলিক অ্যাসিড ও নিকোট্রিন অ্যাসিড। বয়সের সঙ্গে জড়িত নানা রোগ, যেমন- স্মৃতিভ্রংশ (আলঝেইমার), চোখে ছানি, আরথ্রাইটিস বা হাঁটুব্যথা প্রতিরোধে সহায়তা করে।

কমলালেবু

শীতকালে অন্যতম ফল কমলা লেবু। এতে রয়েছে ভিটামিন সি এবং ক্যালসিয়াম। এই ফল অনেক ধরনের সংক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। বিটা ক্যারোটিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে কমলায়। এটি হজমশক্তি বাড়ায়, সর্দি-কাশি সারায়, মানসিক অবসাদ দূর করে। জ্বর ও ফ্লুর সময় কমলা খাওয়া ভালো। কোয়ার পাতলা ত্বকে আঁশ আছে বলে কোষ্ঠকাঠিন্যও কমাবে। কমলার রসে প্রচুর ভিটামিন সি ও ক্যালসিয়াম আছে। রক্তশূন্যতা ও জিবের ঘা সারাতেও কমলা উপকারী।

আনার

শীতকালে প্রচুর পরিমাণে আনার খাওয়া উচিত। এটি রক্তচাপ নিরাময়ে সাহায্য করে। একইসঙ্গে হার্টকে সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে। শরীর সুস্থ রাখার পাশাপাশি জীবনের সজীবতা ধরে রাখতে আনারের ভূমিকা অতুলনীয়। এক গ্রাম আনারের জুসে যথেষ্ট পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। এটি রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে হার্টকে ঝুঁকিমুক্ত রাখে। ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনা হ্রাস পায়। আনারের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যানসার সেল তৈরী ও বেড়ে ওঠাকে বাধা দান করে। ফলে ক্যানসার প্রতিরোধে আনার বেশ কার্যকর। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে: আনারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। এই দুইটি ভিটামিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে অত্যন্ত সহায়ক।।

কলা

শীতকালে কলাও প্রচুর পরিমাণে খাওয়া উচিত। কলা যেমন পুষ্টিকর, তেমনই সুস্বাদু। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে যা হাড় মজবুত করতে সাহায্য করে। পরিপাক প্রক্রিয়া ঠিক রাখতেও সাহায্য করে। এতে রয়েছে দৃঢ় টিস্যু গঠনকারী উপদান যথা আমিষ, ভিটামিন এবং খনিজ। কলা ক্যালরির একটি ভাল উৎস। এতে কঠিন খাদ্য উপাদান এবং সেই সঙ্গে পানি জাতীয় উপাদান সমন্বয় যে কোনো তাজা ফলের তুলনায় বেশি। কলা যখন অতিরিক্ত পেকে যায় এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পরিমাণ বহুগুণ বেড়ে যায়। শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কলা শরীরে শক্তি যোগায় এবং বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। অধিক ক্যালরি সম্পন্ন খাবারের বিকল্প হিসেবে কলা খাওয়া হলে তা দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে। মাঝারি আকৃতির একটি কলায় মাত্র ১০৫ ক্যালরি থাকে। এছাড়াও কলাতে রয়েছে ক্রোমিয়াম নামক খনিজ পদার্থ, যা বিপাক ক্রিয়ায় সহায়তা করে।

আপেল

সুস্থ থাকতে ডাক্তারের কাছে যাওয়া থেকে দূরে রাখে প্রতিদিন একটি আপেল খেলে। কারণ আপেল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। মহামারির সময়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রত্যেকেরই পরম বন্ধু। এখানেও পর্দার আড়ালে কাজ করে কোয়েরসেটিন যা প্রদাহ কমাতেও সহায়ক হবে।

গবেষণায় দেখা গেছে, দিনে একটি করে আপেল খেলে রক্তের ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমে যায় ও উপকারী এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ে। আপেলে শর্করা, চিনি, ফলিক অ্যাসিড, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি, লোহা ও ম্যাগনেশিয়াম আছে। এটি রক্তচাপ ও রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণ করে। তাই হৃদ্রোগী ও ডায়াবেটিস রোগীরা আপেল খেলে উপকার পাবেন। এটি হজমের জন্য উপকারী ব্যাকটেরিয়া তৈরিতে সাহায্য করে। হজমশক্তিও বাড়ায়। আপেলের খোসায় পলিফেনলস নামে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে, যা শরীরের কোষ রক্ষা করে। আপেল শরীরের জ্বালা এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। এটি ভিটামিন সি, ফাইবারের অন্যতম উৎস।


আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টির সম্ভাবনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামী ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং এর কাছাকাছি এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সকালে আবহাওয়া অফিস এ তথ্য জানিয়েছে।

সকাল থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং এর আশেপাশের এলাকায় একটি লঘুচাপের সৃষ্টি হতে পারে। পশ্চিমা লঘুচাপের বাড়তি অংশ হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও এর কাছাকাছি এলাকায় অবস্থান করছে। দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর থেকে আগত অন্য একটি লঘুচাপের বাড়তি অংশ উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।

পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। এ ছাড়া সারাদেশে রাত এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। তেঁতুলিয়ায় আজ (৯ নভেম্বর) সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।


আরও খবর

ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে হাড় কাঁপাবে শীত

বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১




‘অধিক ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোর জন্য আরো তহবিল গুরুত্বপূর্ণ’

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী ও ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) সভাপতি শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোকে রক্ষার জন্য আরো তহবিলের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) হিসাব অনুযায়ী, আমাদের অর্থনীতিকে পরিবেশ বান্ধব করে গড়ে তুলতে আগামী দশকে ছয় ট্রিলিয়ন থেকে ১০ ট্রিলিয়ন বিনিয়োগ করতে হবে। এখন পর্যন্ত সিভিএফের অধিকাংশ দেশ হচ্ছে স্বল্পোন্নত, নিম্ন বা অগ্রগণ্য মধ্যম-আয়ের উন্নয়নশীল দেশ। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় বিভিন্ন কৌশল উদ্ভাবনে সহায়তায় তাদের তহবিল ও বিশেষজ্ঞের সহযোগিতা প্রয়োজন। আর এটি শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে ইতোমধ্যে স্থবির হয়ে পড়েছে বলে বিজ্ঞানীরা সতর্ক করে দিয়েছেন।

শেখ হাসিনা ও গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশনের সিইও প্যাট্রিক ভারকইজেনের যৌথভাবে লেখা একটি প্রবন্ধ ব্যাপকভাবে প্রচারিত ও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আমেরিকান সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন নিউজউইক প্রকাশ করেছে। জলবায়ুর পরিবর্তন থেকে বাঁচতে অধিক ঝুঁকির মুখে থাকা দেশগুলোর জন্য আরো অর্থের যোগান দেয়া গুরুত্বপূর্ণ শীর্ষক তাঁদের এ যৌথ প্রবন্ধে উন্নয়শীল দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূল প্রভাব থেকে বাঁচাতে বার্ষিক তহবিলে উন্নত দেশগুলোর একশ বিলিয়ন ডলার প্রদানের জলবায়ু প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নেরও আহ্বান জানানো হয়েছে।

তারা লিখেছেন, আমাদের জলবায়ু সঙ্কট হচ্ছে বৈশ্বিক। এখন পর্যন্ত বিশ্বের প্রতিটি দেশে সমভাবে এর প্রভাব পড়তে দেখা যায়নি। চারটি মহাদেশের ৪৮টি দেশের একটি গ্রুপ ক্লাইমেট ভালনারেবল ফোরামের (সিভিএফ) জন্য জলবায়ুর পরিবর্তন হচ্ছে একেবারে অস্তিত্বের হুমকি। আর এটি অতিশয়োক্তি না।

এ প্রবন্ধে তাঁরা জলবায়ু সঙ্কট থেকে নিজেদের বাঁচাতে বিশ্বের বড় ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জলবায়ুর উন্নতি ঘটাতে সিভিএফ দেশগুলোর জন্য বিপুল অর্থের যোগান দেয়া হলে জলবায়ুর ঝুঁকি থেকে বের হয়ে আসতে তারা পদক্ষেপ গ্রহণে সমর্থ হবে। আর তা বর্তমানে মহাবিপদের মুখে থাকা ৪৮টি দেশের জন্য ভাল হবে।

মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবেলার ব্যাপারে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকারের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তারা বলেন, আমাদের অস্তিত্ববাদের জলবায়ু হুমকি মোকাবেলায় আমাদেরকে একই ধরনের ভূমিকা অবশ্যই কাজে লাগাতে হবে। আসন্ন বিপদের মুখোমুখী হলে কি করা সম্ভব তা কোভিড-১৯ মোকাবেলার ক্ষেত্রে  দেখিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার।

জলবায়ু পরিবর্তনের দুর্দশার ব্যাপারে তাঁরা বলেন, ভানুয়াতু, মালদ্বীপ ও মার্শাল দ্বীপপুঞ্জের মতো ছোট দ্বীপ দেশগুলো সমুদ্রের পানির উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়ায় ধীরে ধীরে পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে।


আরও খবর



শ্রীলংকার বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শ্রীলংকার বিপক্ষে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে টস জিতে আগে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা।

দুই দলই নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে জিতেছে একটি করে ম্যাচ, হেরেছে অন্যটি।

এ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার একাদশে পরিবর্তন একটি। উইকেটরক্ষক ব্যাটার হেনরিখ ক্লাসের জায়গায় নেয়া হয়েছে কুইন্টন ডি কককে।  বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ না করায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের ম্যাচটি খেলা হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ব্যাটার কুইন্টন ডি ককের।

সেই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করে পরের ম্যাচেই ফিরলেন এই প্রোটিয়া তারকা।

অন্যদিকে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই নেমেছে শ্রীলংকা।

শ্রীলংকা একাদশ

কুশল পেরেরা, পাথুম নিশাঙ্কা, চারিথ আসালাঙ্কা, আভিষ্কা ফার্নান্ডো, ভানুকা রাজাপাকসে, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), চামিকা করুনারত্নে, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, দুশমন্ত চামিরা, লাহিরু কুমারা ও মহেশ থিকশানা।

দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ

রেজা হেন্ডরিকস, টেম্বা বাভুমা, এইডেন মারক্রাম, রসি ফন ডার ডুসেন, ডেভিড মিলার, কুইন্টন ডি কক, ডোয়াইন প্রিটোরিয়াস, কেশভ মহারাজ, কাগিসো রাবাদা, এনরিচ নর্টজে ও তাবরাইজ শামসি।


আরও খবর



সৌদি প্রবাসী বড় ভাইয়ের এসএসসির প্রক্সি দিচ্ছে ছোট ভাই

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে এসএসসির জীববিজ্ঞানের পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে গিয়ে ধরা পড়েছেন মো. ছালা উদ্দিন (২০) নামের এক যুবক। অভিযুক্ত মো. ছালা উদ্দীন নরোত্তমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র ও উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নের খানপুর গ্রামের অলি উল্যাহর ছেলে।   

সোমবার (২২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে জমিদার হাট বিএন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে ১ বছরের কারাদণ্ডও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। বেগমগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শামসুন নাহার এ দণ্ডাদেশ দেন।

জমিদার হাট বিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব মহিন উদ্দিন বলেন, সকালে আমাদের কেন্দ্রে এসএসসির জীববিজ্ঞানের পরীক্ষা চলছিল। এসময় শিক্ষার্থী জহির উদ্দিনের (২২) পরিবর্তে তার ছোট ভাই ছালা উদ্দিন পরীক্ষায় বসেন। বিষয়টি প্রথমে আমাদের দৃষ্টিতে পড়েনি। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরীক্ষা কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে তাকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১ বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তার বড় ভাই সৌদি আরবে থাকায় প্রক্সি দিয়ে আসছিলেন ওই যুবক। 

বেগমগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামসুন নাহার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি আরো বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ছালা উদ্দিনকে আটক করা হয়। পরে ওই যুবকের প্রবেশপত্র ও রেজিস্টেশন কার্ড যাচাই-বাছাই ও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সে বড় ভাইয়ের হয়ে প্রক্সি পরীক্ষা দেওয়ার কথা স্বীকার করে। পরে ওই যুবককে পাবলিক পরীক্ষা আইনে সাজা দিয়ে পুলিশের কাছে সোর্পদ করা হয়। আর প্রকৃত ছাত্র জহির উদ্দিনকে চলতি এসএসসি পরীক্ষা থেকে বহিস্কার করা হয়।


আরও খবর



চকবাজারে প্লাস্টিকের গোডাউনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৯ ইউনিট

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর চকবাজারের এসকে টাওয়ার নামের একটি প্লাস্টিকের গোডাউনে অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিট।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার দেওয়ান আজাদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, রাজধানীর চকবাজারের এসকে টাওয়ার নামের একটি প্লাস্টিকের গোডাউনে বিকেল সাড়ে ৪টায় আগুন লাগে। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের নয়টি ইউনিট কাজ করছে। প্রয়োজনে আরও ইউনিট বাড়ানো হবে।

প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ, হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, প্লাস্টিক কারখানাটি মিটফোর্ড হাসপাতালের পাশে। ছয়তলা ভবনের এসকে টাওয়ারের দোতলায় আগুনের সূত্রপাত। ভবনের ভেতরে প্রচণ্ড ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখা যাচ্ছে।


আরও খবর