Logo
শিরোনাম

শরীরে ইমিউনিটি আছে কিনা বুঝার ৫ লক্ষণ

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ জানুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
রোগ প্রতিরোধে যেহেতু ইমিউনিটির ভূমিকা অপরিসীম তাই এ নিয়ে অবশ্যই ভাবতে হবে। শরীরে ইমিউনিটি কমে যাচ্ছে কিনা সেদিকে নজর রাখতে হবে

জন্মগতভাবে মানুষের শরীরে ইনেট ইমিউনিটি থাকে। প্রকৃতিতে বেড়ে উঠার সঙ্গে সঙ্গে অর্জন করে অ্যাডাপ্টিড ইমিউনিটি। এটি আবার দুই প্রকার। ন্যাচারাল অ্যাকোয়ার্ড ও আর্টিফিসিয়ালি অ্যাকোয়ার্ড। ইমিউনিটি যদি সক্রিয় থাকে তাহলে সারাজীবন সুরক্ষা দিতে পারে শরীরকে। মহামারি করোনা ভাইরাসকালীন পরিস্থিতিতে চারদিকেই পাওয়া যাচ্ছে ইমিউনিটি বুস্টার।

শরীরে থাকা ইমিউনিটি সক্রিয় হলে দেহকে সুরক্ষা দিতে পারে। তাই তো করোনার সময়ে খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন এনে রাখা হচ্ছে ইমিউনিটি বর্ধক খাবার। প্রতিদিনই মানুষ বিভিন্ন ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার সম্মুখীন হয়। রোগ প্রতিরোধে যেহেতু ইমিউনিটির ভূমিকা অপরিসীম তাই এ নিয়ে অবশ্যই ভাবতে হবে। শরীরে ইমিউনিটি কমে যাচ্ছে কিনা সেদিকে নজর রাখতে হবে।

অনেকেরই অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে। প্রায়ই এ নিয়ে সমস্যায় ভুগেন তারা। আবার আবহাওয়া পরিবর্তনের সঙ্গে জ্বর, সর্দি-কাশিতেও ভুগতে হয় অনেকের। যদি কোনো খাবার খাওয়ার পর ত্বকে জ্বালা-পোড়া, চুলকানির মতো অস্বস্তি শুরু হয়, চোখ থেকে পানি পড়তে থাকে এবং হঠাৎ করে পেটের সমস্যা হয় তাহলে বুঝতে হবে ছোট-খাটো রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার প্রাথমিক উপসর্গ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

শরীরের কোনো অংশে যদি কেটে যায় বা আঁচড় লাগে এবং তা সারতে সময় বেশি লাগে বা সর্দি-কাশির মতো কোনো সমস্যা নিরাময় হতে সময় বেশি লেগে যায় তাহলে এসবও দুর্বল প্রতিরোধ ক্ষমতার লক্ষণ। তবে ক্ষত সারার বিষয়টি অনেক সময় ডায়াবেটিসের জন্যও হতে পারে। এছাড়া যদি বারবার পেটের সমস্যা হতে থাকে যেমন- কোষ্ঠকাঠিন্য, হজমে বা গ্যাস জনিত সমস্যা হয় তাহলে এটাও দুর্বল প্রতিরোধ ক্ষমতার লক্ষণ। এমনটা হলে চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ খাওয়া জরুরি।

বেশিরভাগ সময় যদি অবসাদ, ক্লান্ত বা পর্যাপ্ত ঘুমের পরও ঘুমের অভাববোধ মনে হয় তাহলে বুঝতে হবে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বোধয় সঠিকভাবে কাজ করছে না। পাশাপাশি সর্দি-কাশি ও জ্বরসহ অন্যান্য শারীরিক সমস্যায় প্রায়ই আক্রান্ত হতে থাকেন বা সুস্থ হতে সময় বেশি লাগে তাহলে সময় না নিয়ে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। তা না হলে বড় কোনো সমস্যায় পড়তে পারেন।

Share

আরও খবর

কেমন যাবে আপনার দিন ?

রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১




সাতক্ষীরায় ট্রাক্টরের ধাক্কায় দুই ইটভাটা শ্রমিক নিহত

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৪৬জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাতক্ষীরায় মাটি বহনকারী ট্রাক্টরের ধাক্কায় ইটভাটার দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন। শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ভোর সাড়ে ৫টায় সাতক্ষীরার তালতলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শ্রমিকরা হলেন, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বকচরা গ্রামের আব্দুস সামাদ খার ছেলে মনিরুল ইসলাম (৪০) ও ইশরাফ আলীর ছেলে মোহাম্মদ আলী (৩৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ভোরে মনিরুল ও মোহাম্মদ আলী বাইসাইকেলে বিনেরপোতার লিয়াকতের ভাটায় কাজ করতে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে তালতলায় পৌঁছালে ইটভাটার মাটি বহনকারী একটি ট্রাক্টর তাদের পিছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

সাতক্ষীরা সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মেহেদী বলেন, নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকাবাসী ঘাতক ট্রাকটি জব্দ করতে না পারলেও একই ভাটার অন্য দুটি ট্রাক্টর পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে।

Share

আরও খবর



ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপব্যবহারই মুশতাকের মৃত্যুর কারণ : টিআইবি

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৪৮জন দেখেছেন
Share

Image

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ও নিবর্তনমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের জোর দাবি জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিবর্তনমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিতর্কিত যেসব ধারায় মুশতাকসহ অনেকের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করিবার অভিপ্রায়ে অপপ্রচারের যেসব অভিযোগের কথা মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ব্যক্তি বিশেষে তার অপব্যবহার ও অপব্যাখ্যার একটি ন্যক্কারজনক দৃষ্টান্ত স্থাপিত হয়েছে বলে মন্তব্য করে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

তিনি বলেন, একই মামলায় অন্য অভিযুক্তরা জামিন পেলেও ছয়বার আবেদন করা সত্ত্বেও মুশতাক আহমেদের জামিন না হওয়া, প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। তার চেয়েও বড় বিষয় হচ্ছে, রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি রক্ষার নামে দিনের-পর-দিন জেলখানায় আটকে রাখা এবং রাষ্ট্রীয় হেফাজতে মৃত্যুকে সরকার আর ৮-১০টি ঘটনার মতোই বিবেচনা করছে।

এক্ষেত্রে মৃত্যুর কারণ তদন্তের উদ্যোগ নেওয়া হলেও তাতে বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটিকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী বা ব্যক্তিবিশেষ দূরভিসন্ধিমূলকভাবে অপব্যবহার করছে কিনা? সে সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব পাওয়া যাবে, এমন আশা প্রায় অলীক। যদিও এমন মর্মান্তিক ঘটনার কার্যকর জবাবদিহি নিশ্চিতে এসব প্রশ্নের উত্তর জানা আজ জরুরি হয়ে পড়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও তার অপব্যবহারই যে মুশতাকের মৃত্যুর কারণ, এ কথা সরকার কীভাবে অস্বীকার করবে?

গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য বলছে, ২০২০ সালে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অধীনে ৪৫৭ ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে ১৯৭টি মামলা হয়েছে, যেখানে ৪১টি মামলায় ৭৫ জন পেশাদার গণমাধ্যমকর্মীকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। এই আইনের করা মামলার অধিকাংশেরই বাদী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নয় তো ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী।

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলছেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি যে বিরোধী মত ও সমালোচকদের কন্ঠরোধ করতেই কার্যত ব্যবহৃত হচ্ছে, তা বলাটা অত্যুক্তি হবে না। একইভাবে আইনটি বহাল রেখে দেশে বাকস্বাধীনতা ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতার চর্চা অব্যাহত রয়েছে এমন দাবি অবান্তর। অবিলম্বে এই বিতর্কিত আইনটি বাতিলের দাবি জানাচ্ছি আমরা।

নিউজ ট্যাগ: টিআইবি
Share

আরও খবর



কেন্দ্রে গিয়ে ভ্যাকসিন নিবন্ধন বন্ধ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
এখন থেকে যারা নিবন্ধন করে আসবেন, শুধু তাদেরই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। ভবিষ্যতে যদি ভ্যাকসিন প্রয়োগ কেন্দ্রে নিবন্ধনের প্রয়োজন পড়ে, তখন আবার সেটি বিবেচনায় নিয়ে জানানো হবে

দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে জাতীয় পর্যায়ে চলমান ভ্যাকসিন প্রয়োগ কার্যক্রমে কেন্দ্রে গিয়ে নিবন্ধনের সুবিধা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহীদের আগে থেকেই সুরক্ষা (https://surokkha.gov.bd/) ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নিবন্ধন করতে হবে। এরই মধ্যে এই প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে ১০ লাখেরও বেশি মানুষ ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছেন। তিন লাখের বেশি মানুষ এরইমধ্যে ভ্যাকসিন নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতর আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রত্যন্ত এলাকার মানুষ, বিশেষ করে যাদের স্মার্টফোন নেই, তাদের জন্য ভ্যাকসিন প্রয়োগ কেন্দ্রে এসে নিবন্ধনের সুযোগ রেখেছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। কিন্তু নিবন্ধন না করে অনেকেই ভ্যাকসিন নিতে আসায় বিভিন্ন কেন্দ্রে অতিরিক্ত ভিড় তৈরি হচ্ছে।

ভ্যাকদিন প্রয়োগ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে চালাতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই সুষ্ঠুভাবে ভ্যাকসিন নেওয়া হোক। আমরা বিভিন্ন রকমের জায়গা তৈরি করে দিয়েছি। এই সুন্দর পরিবেশ আমরা তৈরি করেছি। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে যারা অনস্পট রেজিস্ট্রেশন করছেন, তাদের সংখ্যাই বেশি। আর যারা রেজিস্ট্রেশন করছেন, তারাই ঢুকতে পারছেন না। বয়স্ক লোকেরা যাচ্ছেন, তাদের কষ্ট হচ্ছে। যারা ভ্যাকসিন দিচ্ছেন, সেই ডাক্তার-নার্সদের কষ্ট হচ্ছে। আমরা এই পরিস্থিতি চলতে দিতে চাই না। রেজিস্ট্রেশন যেহেতু সফলভাবে চলছে, ১০ লাখের বেশি রেজিস্ট্রেশন হয়েও গেছে, এ কারণে অনস্পট রেজিস্ট্রেশন আর করব না।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, এখন থেকে যারা নিবন্ধন করে আসবেন, শুধু তাদেরই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। ভবিষ্যতে যদি ভ্যাকসিন প্রয়োগ কেন্দ্রে নিবন্ধনের প্রয়োজন পড়ে, তখন আবার সেটি বিবেচনায় নিয়ে জানানো হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিয়ে অনেক সমালোচনা ছিল। তবে এখন আর কোনো সমালোচনা নেই। মানুষের ভ্যাকসিন নেওয়ার আগ্রহ অনেক বেড়েছে। আমি এখন দেখছি যেসব জায়গায় আগে ভিড় কম ছিল, এখন অনেক ভিড়। অনেক লোক যাচ্ছে, মানুষের কনফিডেন্স বাড়ছে। ভ্যাকসিন নিয়েও নানা কথাবার্তা ছিল। মানুষের সমস্ত কথাবার্তা ভুল প্রমাণিত করে, সবার কথার তোয়াক্কা না করে এখন সবাই ভ্যাকসিনের ওপরে আস্থা নিয়ে ভ্যাকসিন নিতে যাচ্ছে।

Share

আরও খবর



ওমানে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ বাংলাদেশির মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ওমানে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় প্রবাসী পাঁচ বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েকজন। আহতদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- মো. ওমর ফারুক, মিনহাজ, মামুন, মিলাদ ও রুবেল। এরা সবাই চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ উপজেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় ভোর ৪টার দিকে দেশটির দুকুমের একটি সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আরব সাগর থেকে মাছ ধরে ফেরার পথে গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তারা এই দুর্ঘটনার শিকার হন। গাড়িতে ১০ জন প্রবাসী বাংলাদেশি ছিলেন। তার মধ্যে পাঁচজনের মৃত্যু হয়। বাকি পাঁচজন হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

Share

আরও খবর

যুক্তরাজ্যে ফেরার অনুমতি পেলেন না শামীমা

শুক্রবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১




আরো ১৭টি মসজিদ বন্ধ করেছে ফ্রান্স

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৪৬জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
ফ্রান্সে বসবাসরত দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম জনগোষ্ঠীকে চরম বৈষম্যের মধ্যে ফেলবে বলে অভিযোগ করেছে অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। এতে মসজিদ ও মাদরাসায় বিভিন্ন বিধি-নিষেধ আরোপের কথা বলা হয়

নিরাপত্তা বিষয়ক আইন লঙ্ঘনের অজুহাতে আরো ১৭টি মসজিদ বন্ধ করেছে ফ্রান্স। গতকাল মসজিদ বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে একথা জানিয়েছেন ফ্রান্সের স্বরাস্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমানিন। ফ্রান্সে বর্তমানে দুই হাজার পাঁচ শয়ের বেশি মসজিদ চালু আছে। এর মধ্যে ৮৯টি মসজিদের সঙ্গে বিভিন্ন বিচ্ছিন্নতাবাদী কাজে সম্পৃক্ততার অভিযোগ পাওয়া গেছে বলে জানান ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তবে ফ্রান্সের প্রচলিত আইনের অভিযোগ তুলে দারমানিন জানান, ফরাসি প্রজাতন্ত্রের আইন মতে কোনো ধর্মীয় উপাসনালয় বন্ধের অনুমোদন নেই। শুধুমাত্র সন্ত্রাসে সরাসরি সম্পৃক্ততার অভিযোগ প্রমাণিত হলে এবং নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘন হলে তা বন্ধের অনুমোদন আছে। তাই বর্তমানের প্রচলিত আইন সরকারকে কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন করবে।

এর আগে গত ২৪ জানুয়ারি ইসলামী বিচ্ছিন্নতাবাদের কথা উল্লেখ করে ফরাসি সরকার প্রজাতন্ত্রের মূল্যাবোধের সনদ শিরোনামে একটি আইন প্রকাশ করে। অতঃপর তা গত ১৬ ফেব্রুয়া পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে পাশ হয়।

ফ্রান্সে বসবাসরত দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলিম জনগোষ্ঠীকে চরম বৈষম্যের মধ্যে ফেলবে বলে অভিযোগ করেছে অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। এতে মসজিদ ও মাদরাসায় বিভিন্ন বিধি-নিষেধ আরোপের কথা বলা হয়। এবং ঘরোয়াভাবে শিশুদের শিক্ষা প্রদানেও অনেক বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। এর আগে ফ্রান্সে বিশ্ববদ্যালয়ের আগ পর্যন্ত সব শিক্ষার্থীদের হিজাব পরিধানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

গত বছর অক্টোবর মাসে কিছু কট্টরপন্থী ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসসহ বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি হামলা চালায়। এর মধ্যে একজন শিক্ষকের শিরশ্ছেদের ঘটনা ঘটে, যিনি ক্লাসে আলোচনার সময় মহানবী (সা.)-এর কার্টুন দেখিয়েছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: ফ্রান্স
Share

আরও খবর