Logo
শিরোনাম

শরীরের যে সাত স্থানে রয়েছে চুমুর আলাদা মানে

প্রকাশিত:রবিবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভ্যালেন্টাইনস সপ্তাহের সবচেয়ে রোমান্টিক এবং বিশেষ দিন। এই দিনে, দম্পতিরা একে অপরকে চুম্বন করে এবং তাদের সম্পর্কের গভীরতা প্রকাশ করে। এটি একটি নির্দিষ্ট ব্যক্তির প্রতি স্নেহ, বিশ্বাস এবং ভালবাসা প্রকাশের একটি মাধ্যম। সঙ্গীকে করা প্রতিটি চুম্বনের নিজস্ব গল্প রয়েছে। প্রতি বছর ১৩ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইনস সপ্তাহে (Valentine's Week) Kiss Day হিসাবে পালিত হয়। আসুন আমরা আপনাকে চুম্বনের বিভিন্ন অর্থ ব্যাখ্যা করি।

১. গালে চুম্বন: গালে চুম্বন স্নেহ প্রকাশ করে। এটি সহযোগিতা দেখায়। এ ছাড়া আকর্ষণের প্রতীক হিসাবেও বর্ণনা করা হয়। ভালোবাসা-প্রেম প্রকাশের জন্য সঙ্গীর গালে চুমু খেতে পছন্দ করেন।

২. ঠোঁটে চুম্বন: ঠোঁটে চুম্বর তীব্র আবেগের প্রতীক। ভালোবাসা প্রকাশের এটাই অন্যতম শ্রেষ্ঠ উপায়। ঠোঁটে চুম্বন করা সঙ্গীকে বলে দেয় তাকে আরও কাছে পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা করছেন। ঠোঁট চুম্বন দম্পতিদের মধ্যে গভীর সম্পর্ক প্রকাশ করে।

৩. কলারবোনে চুম্বন: কলারবোনে চুম্বন অন্তরঙ্গতা প্রকাশ করে। এটি শারীরিক আকর্ষণ দেখানোর একটি ভালো উপায়। প্রায়শই ব্যক্তিগত স্থান বা বেডরুমের কলারবোনে তাদের সঙ্গীকে চুম্বন করা সঠিক বলে মনে করে।

৪. কানে চুম্বন: যৌন আগ্রহ প্রকাশের প্রতীক হিসাবে মনে করা হয় কানে চুম্বন-কে। যাইহোক, এর প্রভাব সম্পূর্ণরূপে চুম্বনের অভিপ্রায়ের উপর নির্ভর করে।

৫. হাতে চুম্বন: কারও প্রতি আপনার পছন্দ প্রকাশ করতে, আপনি হাতে চুম্বন করতে পারেন। এছাড়াও এটি বিশ্বাসের প্রতীক হিসাবে বিবেচিত হয়। সঙ্গীকে বিশেষ এবং আলাদা মনে করানোর জন্য তাদের হাতে চুম্বন করা হয়।

৬. কপালে চুম্বন: কপালে যা করা হয় তা সঙ্গীর প্রতি সংযুক্তি দেখায়। প্রায়শই আবেগের মুহুর্তে এটি করতে পছন্দ করেন কাপলরা। একজন ব্যক্তি সামনের ব্যক্তিকে এই বার্তা দেন যে তিনি প্রতিটি কঠিন সময়ে তার সঙ্গে দাঁড়িয়ে আছেন, যাতে সঙ্গী নিজেকে একা না ভাবেন।

৭. ফ্লাইং কিস: ফ্লাইং কিস প্রায়ই বিদায় বা গুড লাক বলার উদ্দেশ্যে করা হয়। যে কোনও সম্পর্ককে মজবুত করতে ফ্লাইং খুবই কার্যকরী। একটি উড়ন্ত চুম্বন দীর্ঘ সময়ের জন্য মানুষের স্মৃতিতে থেকে যায়।

নিউজ ট্যাগ: Kiss Day

আরও খবর

সিনেমা হল বন্ধ করে মাদ্রাসা চালু

মঙ্গলবার ১৯ এপ্রিল ২০২২




৪৪তম বিসিএস প্রিলির জন্য নতুন নির্দেশনা

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ২৭ মে (শুক্রবার) অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এ পরীক্ষায় হাতঘড়ি, অলঙ্কার ও কোনো ধরনের ডিভাইস নিয়ে পরীক্ষার কেন্দ্রে প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে কমিশন।

মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত এক নির্দেশনায় পিএসসি বলেছে, পরীক্ষার হলে যদি এসব নিষিদ্ধ সামগ্রী পাওয়া যায়, তবে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার্থীর প্রার্থিতা বাতিলসহ ভবিষ্যতে পিএসসির সব নিয়োগ পরীক্ষার জন্য তাকে অযোগ্য ঘোষণা করা হবে।

এতে বলা হয়, ৪৪তম বিসিএস পরীক্ষা-২০২১ এর প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির শর্তানুযায়ী আগামী ২৭ মে অনুষ্ঠেয় প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় বই-পুস্তক, সব রকম ঘড়ি, মুঠোফোন, ক্যালকুলেটর, সব ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস, ব্যাংক/ক্রেডিট কার্ডসদৃশ কোনো ডিভাইস, গহনা, ব্যাগসহ পরীক্ষা হলে প্রবেশ করা নিষেধ এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

পিএসসির নির্দেশনায় বলা হয়েছে, পরীক্ষা কেন্দ্রে বই-পুস্তক, সব রকম ঘড়ি, মুঠোফোন, ক্যালকুলেটর, সব ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস, ব্যাংক/ক্রেডিট কার্ডসদৃশ কোনো ডিভাইস, গহনা, ব্রেসলেট ও ব্যাগ আনা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। নিষিদ্ধ সামগ্রীসহ কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে পারবেন না।

পরীক্ষার হলের গেটে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের উপস্থিতিতে প্রবেশপত্র এবং মেটাল ডিটেক্টরের সাহায্যে মুঠোফোন, ঘড়ি, ইলেকট্রনিক ডিভাইসসহ নিষিদ্ধ সামগ্রী তল্লাশির মধ্য দিয়ে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা হলে প্রবেশ করতে হবে।

পরীক্ষার দিন উল্লিখিত নিষিদ্ধ সামগ্রী সঙ্গে না আনার জন্য সব পরীক্ষার্থীর মুঠোফোনে এসএমএস পাঠানো হবে। এসএমএসের নির্দেশনা অনুসরণ করতে হবে।

পরীক্ষার সময় পরীক্ষার্থীরা কানের ওপর কোনো আবরণ রাখবেন না, কান খোলা রাখতে হবে। কানে কোনো ধরনের হিয়ারিং এইড ব্যবহারের প্রয়োজন হলে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শপত্রসহ পূর্বেই কমিশনের অনুমোদন গ্রহণ করতে হবে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, পরীক্ষার হলে কোনো পরীক্ষার্থীর কাছে বর্ণিত নিষিদ্ধ সামগ্রী পাওয়া গেলে তা বাজেয়াপ্তসহ বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বয়স, যোগ্যতা ও সরাসরি নিয়োগের জন্য পরীক্ষা) বিধিমালা ২০১৪-এর বিধিভঙ্গের কারণে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষার্থীর প্রার্থিতা বাতিলসহ ভবিষ্যতে কর্ম কমিশন কর্তৃক গৃহীতব্য সব নিয়োগ পরীক্ষার জন্য তাকে অযোগ্য ঘোষণা করা হবে।

পরীক্ষার দিন (২৭ মে) বই-পুস্তক, সব রকম ঘড়ি, মুঠোফোন, ক্যালকুলেটর, সব ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস, ব্যাংক/ক্রেডিট কার্ডসদৃশ কোনো ডিভাইস, গহনা ও ব্যাগ না আনার জন্য সংশ্লিষ্ট সব পরীক্ষার্থীকে পুনরায় বিশেষভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে। এ বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন সংশ্লিষ্ট সবার সার্বিক সহযোগিতা প্রত্যাশা করছে।


আরও খবর



কিউবার হোটেলে বিস্ফোরণ, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিউবার রাজধানী হাভানার একটি হোটেলে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২ জনে দাঁড়িয়েছে। তবে এখনও ১৯ জন নিখোঁজ রয়েছে। রোববার দেশটির কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আনাদোলু এজেন্সি।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রাজধানী হাভানার সারাগোটা হোটেলে বিস্ফোরণ ঘটার পর ৮০ জন আহত হয়েছে। যার মধ্যে গুরুতর আহত হয়েছেন ১০ জন এবং উদ্ধার অভিযান চলছে।

স্থানীয় মিডিয়া অনুসারে, মৃতের সংখ্যা ৩২ জনে এসে ঠেকেছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছে ১৯ জন। হোটেলে সংস্কার কাজের অংশ হিসাবে গ্যাস প্রবাহ পুনঃরায় চালু হলে এই বিস্ফোরণ ঘটে।

এর আগে শনিবার কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ ক্যানেল এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, বিস্ফোরণটি সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।

১৮৮০ সালে নির্মিত এবং ১৯৯৩ সাল থেকে পরিচালিত রাজধানীর পাঁচ তারকা সারাগোটা হোটেলটি কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে গত দুই বছর ধরে বন্ধ ছিল এবং হোটেলটি চলতি বছরের ১০ মে পুনঃরায় চালু করার জন্য প্রস্তুতি চলছিল।


আরও খবর



বাগেরহাটে ‘ভাইরাসে’ মরছে চিংড়ি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাগেরহাটের রামপাল ও মোংলায় ভাইরাসে মরছে সাদা সোনা খ্যাত চিংড়ি মাছ। ফলে মৌসুমের শুরুতেই এ দুই উপজলায় কোটি টাকা লোকসানের আশংকা করছেন চিংড়ি চাষিরা। তবে মৎস্য বিভাগ বলছে, অপরিকল্পিত ঘের তৈরি আর ভাইরাসযুক্ত পোনার কারণে এমনটা হতে পারে।

জানা গেছে, রামপাল ও মোংলায় ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় ২০ হাজার চিংড়ি ঘের রয়েছে। গত এক সপ্তাহর ব্যবধানে দুই উপজলার বিভিন্ন ঘেরে হঠাৎ করে চিংড়ি মাছ মরতে শুরু করে। তবে কি কারণে মরছে চাষিরা তার কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না। তাদের ধারণা, ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই মাছ মরে যাচ্ছে।

রামপাল উপজেলার ভোজপাতিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা চিংড়ি ঘের ব্যবসায়ী নুরুল আমিন বলেন, ইউনিয়নের ৮০ ভাগ চিংড়ি ঘেরে মড়ক লেগেছে। কি কারণে মাছ মরছে তা তো কেউ বলতে পারছে না। উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়নের চিংড়ি চাষি রাজীব সরদার বলেন, ৮০ থেকে ৮৫ ভাগ ঘেরের চিংড়ি মরেছে। যারা ঋণ নিয়ে চিংড়ি চাষ করেছে তারা নিঃস্ব হয়ে গেছে। উপজেলার রাজনগর, বাইনতলা ও পেড়িখালি ইউনিয়নের সব চিংড়ি ঘেরের অবস্থা একই রকম বলে জানান তিনি।

মোংলা উপজেলার সোনাইলতলা ইউনিয়নের বাসিন্দা জসিম উদ্দিন সরদার বলেন, বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে তিন বিঘা জমিতে মাছ ছেড়েছিলাম। গত চারদিন ধরে মাছ মরতে শুরু করেছে। মরা মাছ তুলে দেখি প্রতিটি মাছের গায়ে সাদা সাদা স্পট। কি রোগে মাছ মরছে, তা তো বুঝতে পারছি না। একই উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের কাটাখালি এলাকার বাসিন্দা মারুফ হাওলাদার বলেন, এর আগেও ঘেরে মাছ মরেছে, কিন্তু এত দ্রুত কখনও মাছ মরেনি।

এ বিষয়ে জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম রাসেল বলেন, রামপাল ও মোংলা উপজেলার প্রায় ২০ হাজার চিংড়ি ঘেরের ৩৫ শতাংশে মাছ মরেছে বলে জেনেছি। মাছ মরার কারণ জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে ধারণা করা হচ্ছে, অতিরিক্ত গরম, হোয়াইট স্পট সিনড্রম ভাইরাস বা মৌসুমের শেষে ভাইরাস যুক্ত চিংড়ি ঘেরে ছাড়ায় এমনটা হতে পারে। জেলার অধিকাংশ ঘের প্রস্ততির আগে চাষিরা ব্লিচিং পাউডারসহ ভাইরাস মুক্ত করণের যে সব পদ্ধতি আছে তা প্রয়াগ করে না। এছাড়া পোনা ছাড়ার আগে সেটি ভাইরাস মুক্ত কিনা তা পিসিয়ার পরীক্ষা না করেই ছাড়ে। এসব কারণে মাছ মরতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

নিউজ ট্যাগ: বাগেরহাট

আরও খবর



শৈলকুপায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা মসজিদের ইমাম ও কলেজছাত্র নিহত হয়েছেন। বুধবার সকাল ও বিকেলে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহাসড়কের আসানগর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন শৈলকুপা উপজেলার ব্রাহিমপুর আফছার উদ্দীনের ছেলে গোলাম রহমান (৫৫) ও একই উপজেলার মহেশপুর গ্রামের ডাবলু জোয়ার্দ্দারের ছেলে অংকন জোয়ার্দ্দার (১৯)।

স্থানীয়রা জানায়, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আসানগর গ্রাম থেকে গোলাম রহমান বাইসাইকেল যোগে মহাসড়কে উঠছিল। সেসময় ঝিনাইদহ থেকে কুষ্টিয়াগামী একটি যাত্রীবাহী বাস তাকে ধাক্কা দেয়। এতে সে গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

অপরদিকে, বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে অংকন জোয়ার্দ্দার নামের এক কলেজছাত্র মোটরসাইকেল যোগে শৈলকুপার গাড়াগঞ্জ থেকে ঝিনাইদহ শহরের দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে আসাননগর এলাকায় পৌঁছনো মাত্রই মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার উপর পড়ে যায়। এ সময় ঝিনাইদহ থেকে ছেড়ে আসা কুষ্টিয়াগামী একটি ট্রাক তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হওয়ায় পরে তাকে ফরিদপুর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

ঝিনাইদহ হাইওয়ে পুলিশের ওসি মিজানুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় বাস ও ট্রাক আটক করা সম্ভব হয়নি। পুলিশের সংশ্লিষ্ট টিম তাদের আটকের চেষ্টা করছে।


আরও খবর



বিশ্ব নার্স দিবস আজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নার্স মানে নার্সিং। নার্স মানে এক নিবেদিত প্রাণ। একটি সেবা দানকারী সত্ত্বা। একজন নার্স মানে একটি অন্ধকার ঘরে আলোর ঝিলিক। একজন নার্স দেশের স্বাস্থ্যসেবার জন্য অত্যন্ত জরুরি। বিশ্ব নার্স দিবস আজ। আধুনিক নার্সিংয়ের প্রবর্তক ফ্লোরেন্স নাইটিংগেলের সেবাকর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তার জন্মদিনে আন্তর্জাতিক নার্স দিবস পালন করা হয়।

ফ্লোরেন্স নাইটিংগেলের জন্ম ১৮২০ সালের ১২ মে ইতালির ফ্লোরেন্স শহরে। তিনি ছিলেন অপূর্ব রূপসী, অন্যদিকে খুবই দয়ালু ও স্নেহপূর্ণ মনের অধিকারী। তাকে ইউরোপের অন্ধকারে আলোকবর্তিকা বলে আখ্যায়িত করা হয়।

নাইটিংগেলের বাবা ছিলেন দুটো স্টেটের মালিক এক ধনী ভূস্বামী। নাইটিংগেল যখন কেবল যৌবনে পা দেন, তখন তার ধনী বাবা পুরো পরিবারকে নিয়ে ইউরোপ ভ্রমণে বের হন। এই ভ্রমণই তরুণী নাইটিংগেলের চিন্তাধারায় ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে আসে।

নাইটিংগেল মানবসেবার প্রতি প্রথম টান অনুভব করেন ১৭ বছর বয়সে লন্ডনে থাকা অবস্থায়। পরবর্তীতে এই টানকে তিনি ঈশ্বরের ডাক বলে অভিহিত করেছিলেন। কিন্তু সেবাকে জীবনের ব্রত হিসাবে নেওয়ার কথায় প্রবল আপত্তি আসে তার পরিবার থেকে। তখন সমাজে নার্সিং ছিল নিম্নবিত্ত, অসহায়, বিধবা মহিলাদের পেশা। পরিবারের প্রবল আপত্তিকে পাশ কাটিয়ে তিনি নিজেকে নার্সিংয়ের কৌশল ও জ্ঞানে দক্ষ করে তোলেন। বিভিন্ন দেশে ভ্রমণের সুবাদে তিনি সেসব দেশের সেবা ব্যবস্থা সম্পর্কে ধারণা ও অপেক্ষাকৃত উন্নত ব্যবস্থাতে প্রশিক্ষণ লাভ করেন। ১৮৫৩ সালে লন্ডনের মেয়েদের একটি হাসপাতালে নিয়ন্ত্রকের দায়িত্ব নেন।

নাইটিংগেলের সবচেয়ে বড় অবদান ছিল ক্রিমিয়ার যুদ্ধে অসুস্থ সৈন্যদের পাশে দাঁড়ানো। রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের এই যুদ্ধে সৈন্যদের অবস্থা বিপন্ন। সে সময় প্রতিরক্ষা দপ্তরের সেক্রেটারি সিডনি হার্বাট নাইটিংগেলকে লিখলেন- যুদ্ধের এই বিশৃঙ্খল অবস্থায় আহত সৈন্যদের তত্ত্বাবধান করার মত একজনও উপযুক্ত ব্যক্তি নেই। যদি আপনি এ কাজের ভার গ্রহণ করেন, দেশ আপনার কাছে কৃতজ্ঞ থাকবে। দেশের এই ডাক নাইটিংগেল উপেক্ষা করতে পারেননি। নিজ উদ্যোগে নার্সিংয়ের জন্য ৩৮ জনের স্বেচ্ছাসেবী দল নিয়ে তিনি ছুটে যান। যা আজো নার্সিং সেবার এক অনন্য উদাহরণ হয়ে আছে।

বিশ্বে ১৯৬৫ সাল থেকে পালিত হয়ে আসলেও বাংলাদেশেও ১৯৭৪ সাল থেকে দেশে দিবসটি পালন করে আসছে। এবার করোনা পরিস্থিতিতে অনেক দিবসের মতো এই দিবসটিও আনুষ্ঠানিকভাবে উদযাপনের উপায় নেই। নার্সরা নিজেরাই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যার যার অবস্থান থেকে করোনায় আক্রান্তদের সেবা করে যাচ্ছেন।

নার্স দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় মহাখালীতে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অডিটরিয়ামে এক আলোচনা সভা ও সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

এদিকে সোসাইটি ফর নার্সেস সেফটি অ্যান্ড রাইটস (এসএনএসআর) নার্স দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভা যাত্রা, কেক কাটা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে।

বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) ১৯৭৪ সাল থেকে বাংলাদেশে দিবসটি পালন করে আসছে। অতীতে ঢাকায় স্বল্প পরিসরে দিবসটি পালিত হলেও বর্তমানে সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন ইনস্টিটিউশনে দিবসটি উদযাপন করা হচ্ছে।


আরও খবর