Logo
শিরোনাম

১২ ঘণ্টাও ক্ষমতায় থাকতে পারলেন না সুইডিশ প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুইডেনের ১০০ বছরের ইতিহাসে প্রথম প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়েছিলেন ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন। দায়িত্ব নেওয়ার ১২ ঘণ্টা না যেতেই বুধবার পদত্যাগ করেছেন। জোটের শরিক গ্রিন পার্টি সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নিলে সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট পার্টির নেতা অ্যান্ডারসন বুধবার পদ ছাড়তে বাধ্য হন। খবর রয়টার্সের।

পদ ছাড়ার আগে পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে অ্যান্ডারসন আবারও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার আশা প্রকাশ করেন। সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হিসেবে অন্য একটি দলের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠনের কথা বলেন তিনি। গ্রিন পার্টি জোর সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করে নিয়ে সুইডেনের পার্লামেন্ট বাজেট বিল প্রত্যাখ্যান হয়।

পদত্যাগের পর এক সংবাদ সম্মেলনে অ্যান্ডারসন বলেন, আমিই স্পিকারকে বলেছিলাম যেন আমাকে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। সংখ্যাগরিষ্ঠ পার্টির নেতা হিসেবে আমি আবারও প্রধানমন্ত্রী হব।

বুধবার সুইডেনের পার্লামেন্টে ভোটাভুটিতে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন। এর আগে তিনি দেশটির অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন। একই সঙ্গে সুইডিশ রাজনৈতিক দল সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতৃত্বেও রয়েছেন ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন।

সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির এই নেতা জানান, সুইডেনের সাংবিধানিক রীতি অনুযায়ী, জোটগতভাবে গঠিত কোনো সরকার থেকে একটি দল বেরিয়ে গেলে পুরো সরকারেরই পদত্যাগ করা উচিত।  তার ভাষায়, আমি এমন কোনো সরকারের নেতৃত্বে থাকতে চাই না, যার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠবে।

এদিকে দলীয় নেতাদের সঙ্গে পরামর্শ করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সুইডিশ পার্লামেন্টের স্পিকার। জানা গেছে, গ্রিন পার্টি সমর্থন প্রত্যাহার করে নিলেও বাম দলগুলো অ্যান্ডারসনকে সমর্থন দিতে চায়। এ ক্ষেত্রে অ্যান্ডারসনের আবারও প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ আছে।

গত ১০ নভেম্বর সুইডেনের মধ্য-বামপন্থি প্রধানমন্ত্রী স্টিফান লোফভেন আনুষ্ঠানিকভাবে পদত্যাগ করায় বুধবার তার স্থলাভিষিক্ত হন ম্যাগডালেনা অ্যান্ডারসন।  প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য সুইডেনের ৩৪৯ আসনের সংসদে অ্যান্ডারসনের পক্ষে ভোট দিয়েছিলেন ১১৭ জন, ভোটদান থেকে বিরত ছিলেন ৫৭ জন, বিপক্ষে ভোট দিয়েছেন ১৭৪ জন এবং একজন অনুপস্থিত ছিলেন।

সুইডেনের সংবিধান অনুসারে, প্রধানমন্ত্রী হতে কারও তার পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোট পড়ার দরকার নেই, শুধু সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য তার বিরোধিতা না করলেই হলো।

গণতন্ত্র সূচক ও এইচডিআই সূচতে সুইডেন এগিয়ে থাকলেও লৈঙ্গিক সমতায় পিছিয়ে ইউরোপের এই দেশ। গত ১০০ বছরে এই প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী পেয়েছিল দেশটির জনগণ।  সেটিও টিকল ১২ ঘণ্টার কম।

প্রতিবেশী নরওয়েতে ৪০ বছর আগে নারী প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় এসেছিল। এশিয়ার দেশ শ্রীলংকায় প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব নেয়, ১৯৬০ সালে।


আরও খবর



খালেদা জিয়া মাঝে মাঝে রক্ত বমি করছেন: ডা. জাফরুল্লাহ

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ১০৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খালেদা জিয়া মাঝে মাঝে রক্ত বমি করছেন, শারীরিক অবস্থাও অবনতি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রর ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

বুধবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে ধানমন্ডিতে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ কথা বলেন। বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ; যত দ্রুত সম্ভব উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে পাঠানো জরুরি।

ডা. জাফরুল্লাহ আরও জানান, খালেদা জিয়া কখনও কখনও রক্ত বমি করছেন। অতি দ্রুত তাকে বিদেশে নেয়া না হলে, পরিস্থিতি কী হবে সেটা বলা মুশকিল। যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য সরকার দায়ী হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, তিনি অত্যন্ত ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে আছেন। যে কোনো মুহূর্তে মারা যেতে পারেন। মেডিক্যাল বোর্ডের ৬ চিকিৎসক আমাকে বিস্তারিত বলেছেন। আমি তাদের ফাইলের প্রত্যেকটা লেখা পড়ে দেখেছি। ওনার মুখ দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। পায়খানার রাস্তা দিয়ে রক্তপাত হচ্ছে। ব্লাড প্রেসার একশোর নিচে নেমে এসেছে। আমি সেখানে দেখেছি খালেদা জিয়াকে রক্ত দেওয়া হচ্ছে। আমি ফাইলের প্রত্যেকটা লাইন দেখেছি, কারো মুখের কথায় কিছু বলছি না। সম্ভব হলে আজ (২৪ নভেম্বর) রাতেই ওনাকে বিদেশে ফ্লাই করা উচিত। আর না হলে যে কোনো কিছু ঘটে যেতে পারে।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পরিচালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের সদস্য অ্যাডভোকেট হাসনাত কাইয়ুম, নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ক শহিদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ।


আরও খবর



গুজবই আমারে খাইলো : মেয়র জাহাঙ্গীর

প্রকাশিত:রবিবার ২১ নভেম্বর 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গাজীপুর মহানগরের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক ও সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম আটক হয়েছেন বলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে রটেছে। তবে তিনি আটক হননি বলে নিজেই নিশ্চিত করেছেন।

আজ রোববার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ৪৮ মিনিটে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তিনি বাসাতেই অবস্থান করছেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন- আমি আটক হইনি, এটা গুজব। গুজবই আমারে খাইলো। আমি বাসাতেই অবস্থান করছি।

এর আগে আজ সন্ধ্যার দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ কয়েকটি গণমাধ্যমে ব্রেকিং নিউজ আসতে থাকে মেয়র জাহাঙ্গীর আটক হয়েছেন। এর কিছুক্ষণ পরেই আবার সেই ব্রেকিং নিউজ সরিয়ে নেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের গোপনে ধারণ করা একটি ভিডিও কিছু দিন আগে ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলার কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করেন। এরপর মেয়র জাহাঙ্গীরকে শোকজ করে আওয়ামী লীগ।

গতকাল শনিবার (২০ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় গাজীপুর মহানগরীর হারিকেন এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে মেয়র জাহাঙ্গীর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমার বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়া হয়েছে।

মেয়র দাবি করেন, দুই মাস ধরে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করছেন। তবে তাকে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

এর আগে গত ১৯ নভেম্বর মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভা থেকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। গত ২২ সেপ্টেম্বর ঘরোয়া আলোচনার রেকর্ড ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর আওয়ামী লীগের একটি অংশ মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নামে।

এরপর গত ৩ অক্টোবর মেয়র জাহাঙ্গীরের ব্যাখ্যা চায় আওয়ামী লীগ। এতে তাকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়। ১৮ অক্টোবর সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই মেয়র তার ব্যাখ্যা দেন।


আরও খবর

হেফাজত মহাসচিব লাইফ সাপোর্টে

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




হাফ পাসে রাজি নন মালিকরা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শিক্ষার্থীদের গণপরিবহনে কতটুকু ভাড়া ছাড় দিলে ক্ষতি নেই তা আগামী সাত দিনের মধ্যে আলোচনা করে প্রস্তাব দিতে মালিকপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে বিআরটিএ। আজ বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে বিআরটিএ অডিটোরিয়ামে বৈঠকে এ কথা জানান সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, বাস মালিকরা হাফ পাসে রাজি নন। তারা বলেছেন, সরকার ভর্তুকি না দিকে ঢাকায় ছাত্রদের জন্য অর্ধেক ভাড়া রাখা সম্ভব না। বিআরটিএ'র পক্ষ থেকে মালিকদের কাছে প্রস্তাব চাও হয়েছে। তবে কোনো ধরনের সিদ্ধান্ত ছাড়াই আজকের বৈঠক শেষ হয়

বৈঠকে বাস মালিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বেসরকারি বাসে সরকার ভর্তুকি দিচ্ছে না। যানজটে সড়কে ট্রিপ কমে গেছে। টায়ারসহ বিভিন্ন যন্ত্রাংশের দাম বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় ঢাকাসহ বিভিন্ন মহানগরে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ পাস চালু করা হলে বাসমালিকদের লোকসান গুনতে হবে।

এর আগে বাসে হাফ ভাড়ার দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সচিবদের সঙ্গে বৈঠকে বসে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নিয়েছেন জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), পরিবহন মালিক সমিতির প্রতিনিধি ও শ্রমিক ফেডারেশনের প্রতিনিধিরা।



আরও খবর



টাস্কফোর্সে ঝুলে থাকলো শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার দাবি

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার বিষয়ে শনিবার মালিক-শ্রমিক সমিতির সঙ্গে বৈঠক করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। দুপুর পৌনে ১২টা থেকে শুরু হওয়া আড়াই ঘণ্টাব্যাপী বৈঠকে হাফ ভাড়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।

এই ইস্যুতে টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব করেছে সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি। তারা বলছে, টাস্কফোর্স বসে শিক্ষার্থীর সংখ্যা, হাফ ভাড়ায় মালিকদের ক্ষতি পুষিয়ে আনাসহ নানা বিষয়ে বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে।

বৈঠক শেষে সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবি যৌক্তিকভাবে সমাধানের চেষ্টা চলছে। ঢাকার ৮০ শতাংশ বাস মালিক গরিব। হাফ ভাড়া নিলে মালিকদের যে ক্ষতি হবে, তা সরকার কীভাবে পূরণ করবে? সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা কিছু প্রস্তাব দিয়েছি। সবার সমন্বয়ে টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব দিয়েছি।

এ সময় শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে এনায়েত উল্লাহ বলেন, হাফ ভাড়ার দাবিতে বাস ভাঙচুর, শ্রমিকদের মারধর অব্যাহত রয়েছে। শিক্ষার্থীদের প্রতি অনুরোধ, তারা যেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরে যায়।

বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার বলেন, বাসে হাফ ভাড়া বাস্তবায়নে পরিবহন নেতারা আন্তরিক। কিন্তু তাদের যে ক্ষতি হবে তা কীভাবে পূরণ করা হবে, কত ভর্তুকি দেবে সেসব বিষয়ে সিদ্ধান্তের জন্য সরকার ও পরিবহনে সম্পৃক্তদের নিয়ে টাস্কফোর্স গঠনের প্রস্তাব এসেছে।

ওই বৈঠকে বাস মালিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, যেহেতু সরকার বেসরকারি বাসে ভর্তুকি দেয় না সেহেতু ভাড়া কম নেওয়ার সুযোগ নেই। কারণ যানজটের কারণে ট্রিপের সংখ্যা কমেছে, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, গাড়ির যন্ত্রাংশের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই হাফ ভাড়া নিলে লোকসান গুনতে হবে।

সম্প্রতি ডিজেলের দাম বাড়ার কারণে আরেক দফা বাসের ভাড়া বাড়ানো হলে শিক্ষার্থীরা আবারও হাফ পাসের দাবিতে রাস্তায় নামেন।


আরও খবর



টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো ৩ স্কুলছাত্রের

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে তিন স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। সোমবার (৮ নভেম্বর) সকালে ঘাটাইল-সাগরদীঘি রাস্তায় ধলাপাড়া ভূঁইয়া বাড়ি মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঘাটাইল থানার ওসি মো. আজহারুল ইসলাম সরকার।

নিহতরা হলো, ধলাপাড়া যাইপাটা গ্রামে মো. সমীর উদ্দিনের ছেলে মো. শরীফ হোসেন (১৫), মো. সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে মো. আবু বকর (১৫) ও মো. রমজান আলীর ছেলে মো. সাঈম হেসেন (১৫)। নিহতরা সবাই উপজেলার ধলাপাড়া এসইউপি উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০২২ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী।

পুলিশ জানায়, ধলাপাড়া এসইউপি উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০২১ সালের পরীক্ষার্থীদের জন্য দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান হচ্ছিল। ওই তিন শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হয়ে তারা একটি মোটরসাইকেল নিয়ে ধলাপাড়া-সাগরদীঘি রাস্তায় বেড়াতে বের হয়। দ্রুতগতিতে চালাতে গিয়ে ভুইয়াবাড়ি মোড়ে রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলটি ধাক্কা লাগে। এতে ওই তিন ছাত্র ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। 

এসইউপি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শামছুল হক বলেন, এই ঘটনা শোনার পর আমরা ঘটনাস্থলে যাই এবং পরিবারকে সান্ত্বনা দেই।


আরও খবর