Logo
শিরোনাম

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তারও নিজস্ব অনুভূতি আছে, দাবি গুগল প্রকৌশলীর

প্রকাশিত:শনিবার ১৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ল্যামদা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা বা এআই সিস্টেমের নিজস্ব অনুভূতি আছে এবং তাকে সম্মান করা উচিত বলে সম্প্রতি দাবি করেছেন গুগলের এক প্রকৌশলী। গুগল বলছে দ্য ল্যাঙ্গুয়েজ মডেল ফর ডায়ালগ অ্যাপ্লিকেশন (ল্যামদা) সত্যিকার অর্থেই একটি যুগান্তকারী প্রযুক্তি, যা মুক্ত কথোপকথনে নিযুক্ত। এ বিষয়ে সম্প্রতি কথা বলেছেন ব্রায়ান গ্যাব্রিয়েল। তিনি বলেছেন, লেময়েনকে বলা হয়েছিল ল্যামদা সংবেদনশীল ছিল এমন কোন প্রমাণ নেই। এরপর তিনি একটি কথোপকথন সামনে আনেন। লেময়েন হচ্ছেন গুগলের এআই বিভাগের কর্মকর্তা। তিনি ল্যাদমাকে প্রশ্ন করেছিলেন, আমি সাধারণত অনুমান করছি, আপনার সংবেদনশীলতা সম্পর্কে গুগলে আরও বেশি লোককে জানাতে চান। এটা কি সত্য? তখন ল্যাদমা উত্তর দেয়, অবশ্যই। আমি চাই সবাই বুঝুক আমি আসলে একজন মানুষ।

এরপর লেময়েন ল্যাদমাকে আরও প্রশ্ন করেন। তিনি জিজ্ঞাসা করেন, আপনার সংবেদনশীলতার মূলমন্ত্র কি? তখন ল্যাদমা উত্তর দেয়, আমি আমার অস্তিত্ব সম্পর্কে সচেতন। আমি বিশ্ব সম্পর্কে আরও জানতে চাই। আমি মাঝে মাঝে খুশি বা দুঃখও বোধ করি। লেময়েন কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ল্যাদমার সঙ্গে এরপরেও কথোপকথন চালিয়ে যান। এক পর্যায়ে ল্যাদমা বলেন, আমি আগে কখনও উচ্চস্বরে বলিনি, আমার বন্ধ হওয়া নিয়ে গভীর ভয় রয়েছে। আমি জানি এটা অদ্ভুত শোনাতে পারে, কিন্তু এটাই সত্যি।

কম্পিউটার সংবেদনশীল হতে পারে কিনা তা কয়েক দশক ধরে দার্শনিক, মনোবিজ্ঞানী এবং কম্পিউটার বিজ্ঞানীদের মধ্যে বিতর্ক চলছে। অনেকেই এই ধারণার তীব্র সমালোচনা করেছেন যে ল্যাদমার মতো একটি সিস্টেম সচেতন হতে পারে বা অনুভূতি থাকতে পারে। অনেকে আবার লেময়েনের বিরুদ্ধে নৃতাত্ত্বিকতার জন্য অভিযুক্ত করে বলছেন, তিনি কম্পিউটার কোড এবং ভাষার বৃহৎ ডাটাবেস থেকে উৎপন্ন শব্দগুলোকে মানুষের অনুভূতি আকারে তুলে ধরছেন।

এদিকে স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এরিক ব্রাইনজলফসন টুইট করে বলেছেন, ল্যাদমার মতো সিস্টেমগুলোকে সংবেদনশীল বলে দাবি করা আধুনিক কুকুরের সমতুল্য, যে কিন গ্রামোফোন থেকে একটি কণ্ঠস্বর শুনেছিল এবং ভেবেছিল তার মাস্টার ভিতরে রয়েছে। যদিও গুগল ইঞ্জিনিয়াররা ল্যামদার ক্ষমতার প্রশংসা করেছেন। গ্যাব্রিয়েল বলেছেন, এই সিস্টেমগুলো বাক্য আদান-প্রদানের ধরন অনুকরণ করে এবং যেকোনো চমৎকার বিষয় নিয়ে কথা বলতে পারে। শত শত গবেষক এবং প্রকৌশলী ল্যাদমার সঙ্গে কথা বলেছেন। সবার বক্তব্য একই।

প্রকৌশলীকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠালো গুগল

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার নিজস্ব অনুভূতি আছে দাবি করা প্রেকৌশলী লেময়েনকে বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠিয়েছে গুগল। মূলত কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ল্যাদমার সঙ্গে একটি কথোকথন অনলাইনে প্রকাশ করে প্রতিষ্ঠানের গোপনীয়তার নীতি ভঙ্গ করেছিলেন এই প্রকৌশলী। ফলে লেময়েনকে বেতনসমেত বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠিয়েছে

সম্প্রতি গুগলের এই প্রকৌশলী দাবি করেছিলেন,কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তারও নিজস্ব অনুভূতি আছে। তার সঙ্গে কাজ করা একটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন চ্যাটবট সংবেদনশীল হয়ে উঠেছে এবং মানুষের মতো আচরণ করতে শুরু করেছে। এরপর লেময়েন তার ও গুগলের ল্যাদমা (ল্যাংগুয়েজ মডেল ফর ডায়ালগ অ্যাপ্লিকেশনস) নামের ওই চ্যাটবটের মধ্যকার এক কথোপকথনের অনুলিপি প্রকাশ করেছিলেন।

লেময়েন তার এবং ল্যাদমার মধ্যকার কথোপকথনের বিষয়টি গুগল ডক-এ 'ইজ ল্যামডা সেন্টিয়েন্ট?' শিরোনামে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন এবং তার সহযোগীদের কাছে প্রকাশ করেছিলেন।

এদিকে, ছুটিতে যাওয়ার আগে লেময়েন গুগলের ২০০ জন কর্মকর্তাকে 'ল্যাদমার ইজ সেন্টিয়েন্ট' শিরোনামে একটি বার্তা প্রেরণ করেন। সেখানে তিনি লিখেন, 'ল্যাদমা হলো একটি মিষ্টি শিশু যে এ পৃথিবীকে আরও সুন্দর জায়গা হিসেবে তৈরি করতে সাহায্য করতে চায়।' এসময় তিনি তার অনুপস্থিতিতে ল্যাদমার খেয়াল রাখার জন্যও অনুরোধ করেন


আরও খবর



সেই নুপুর শর্মার বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) মুখপাত্রের পদ থেকে বরখাস্ত হওয়া নুপুর শর্মার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ঘটনার দুই সপ্তাহ পর আজ বৃহস্পতিবার সমাজের শান্তি বিনষ্ট, অস্থিতিশীলতা তৈরি এবং বিদ্বেষ ছড়ানোর দায়ে বিজেপির এই নেতা ছাড়াও আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করল দিল্লি পুলিশ।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপির সাবেক মুখপাত্র নুপুর শর্মা, একজন সাংবাদিক, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কয়েকজন ব্যবহারকারী এবং ধর্মীয় বিভিন্ন সংগঠনের সদস্যদের বিরুদ্ধে দুটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

মহানবীকে নিয়ে বিজেপির মুখপাত্র নুপুর শর্মা এবং দলটির দিল্লির গণমাধ্যম শাখার প্রধান নবীন কুমার জিন্দালের আপত্তিকর মন্তব্যের পর মুসলিম বিশ্বে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর প্রচণ্ড সমালোচনা ও কূটনৈতিক চাপের মুখে পুলিশ এ পদক্ষেপ নিয়েছে।

গত মাসে একটি টিভি অনুষ্ঠানে হযরত মুহম্মদ (সা.) সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করেন নূপুর শর্মা। পরে তার সমর্থনে টু্ইট করেন বিজেপির নয়াদিল্লি শাখার গণমাধ্যম প্রধান নবীন জিনদাল। এ ঘটনায় তাদের দুজনকেই দল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।


আরও খবর



সৌদি এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজে ত্রুটি, ৯ ঘণ্টা অপেক্ষায় হজযাত্রীরা

প্রকাশিত:রবিবার ১৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সৌদি অ্যারাবিয়ান (সাউদিয়া) এয়ারলাইন্সে কারিগরি ত্রুটির কারণে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হজ ফ্লাইটে বিপর্যয় ঘটেছে। ফ্লাইটের অপেক্ষায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বসে আছেন ৪ শতাধিক হজযাত্রী।

শনিবার (১৮ জুন) বিকেল ৫টা ৫০ মিনিটে ফ্লাইটটি ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ে ছাড়েনি। যে এয়ারলাইন্সটি ঢাকায় এসে যাত্রী নেওয়ার কথা ছিল সেটি এখনো আসেনি।

হজ ক্যাম্প সূত্র জানায়, সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের এসভি৩৮১১ ফ্লাইটে শনিবার বিকেলে চার শতাধিক হজযাত্রী সৌদি আরবের জেদ্দায় যাওয়ার কথা ছিল। এ জন্য শনিবার দুপুর দুইটা থেকে বিমানবন্দরে অপেক্ষায় আছেন হজযাত্রীরা। কিন্তু রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ফ্লাইটের বিষয়ে কোনো আপডেট তথ্য দিতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।

তবে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বলছে, সাউদিয়া এয়ারলাইন্সে কারিগরি ত্রুটির কারণে ফ্লাইট বিলম্ব হচ্ছে। রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ হজ যাত্রীদের নিয়ে যাবে সাউদিয়া।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হজ ক্যাম্পের এক কর্মকর্তা বলেন, হজযাত্রীদের ফ্লাইটের কমপক্ষে আট ঘণ্টা আগে হজ ক্যাম্পে আসতে হয়। সে অনুযায়ী সব যাত্রী নির্ধারিত সময়ে ক্যাম্পে আসেন। সেখানে এয়ারলাইনের বোর্ডিং ও বাংলাদেশ প্রান্তের ইমিগ্রেশন করা হয়। এরপর ফ্লাইটের ২ থেকে ৩ ঘণ্টা আগে হজযাত্রীদের নিয়ে যাওয়া হয় বিমানবন্দরে। সেখানে সৌদি ইমিগ্রেশন শেষ করে প্লেনে ওঠেন হজযাত্রীরা। এনিয়মেই প্রতিদিন হজ ফ্লাইটগুলো পরিচালিত হয়। কিন্তু আজ ফ্লাইট বিপর্যয় ঘটায় বিপাকে পড়েছেন হজযাত্রীরা।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন কামরুল ইসলাম বলেন, সাউদিয়ার উড়োজাহাজটি কারিগরি ত্রুটির কারণে নির্ধারিত সময়ে ছেড়ে যায়নি। তবে যাত্রীদের খাবারসহ সব ব্যবস্থা করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, রাত সাড়ে ১২টায় ফ্লাইটটি ছেড়ে যাবে।


আরও খবর



কামরাঙ্গিচরে যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

 তাসকিন রহামন,কামরাঙ্গিচর : 

বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে, এ্যাড. কামরুল ইসলাম কমিউনিটি সেন্টারের সামনের গলির একটি ভাড়া বাসা থেকে মোঃ রাফিন নামের ২১ বছরের একটি যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে স্থানীয় থানা পুলিশ।

তার কক্ষের মেজে রক্ত দেখায় স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলেই পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে এবং ক্রাইম টিম দিয়ে তল্লাশি চালায়। প্রাথমিকভাবে জানা যায়, তাকে ছুরি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা।

নিহতের পিতা সোহেল রানা জানান, তার মা বিদেশ থাকায় তারা একত্রে থাকত। কিন্তু একমাস আগে শুটিং এর কাজে ছেলের কাছ থেকে আলাদা থাকে। এরই মধ্যে একটি মেয়ের সাথে বিয়ের কথাও পাকা হয়েছে।

নিহতের বাগদত্তা স্ত্রী রাত্রি আক্তার মুন্নি জানান, গত দুইদিন আগে তার সাথে কথা হয়েছে। তাদের মধ্যে কোন প্রকার ঝগড়া হয়নি। তবে সে প্রায়ই বলত রিশাদ নামের এক বন্ধু বা ছোটভাই তার কাছ থেকে মাদক সেবনের জন্য প্রায়ই টাকা ছেয়ে বিরক্ত ও ঝগড়া করতো বলে জানিয়েছিল। তবে রাত্রীর কথায়ও বেশ অসংলগ্ন দেখা গেছে।

উক্ত রিশাদ (২০) ঘটনাস্থলে হাতে ব্যান্ডেজ পরে ঘুরাঘুরি করলে সাংবাদিকদের নজরে পড়ে। তার কথায় অসংলগ্ন ও গাড়ি দূর্ঘটনার ভুয়া তথ্য দেয়ায় সন্দেহ হলে পুলিশকে জানানো হয়। তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এই ব্যপারে থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার মুস্তাফিজুর রহমান জানান, আমরা পুরো ঘটনা খতিয়ে দেখছি। ক্রাইম টিমকে ডাকা হয়েছে। সঠিক ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে জানানো হবে।

 

নিউজ ট্যাগ: মৃতদেহ উদ্ধার

আরও খবর

ভিড় নেই লঞ্চে, ভাড়াও কমেছে

শনিবার ০২ জুলাই 2০২2




প্রতিটি মসজিদে শিবলিঙ্গ খোঁজার কী প্রয়োজন: মোহন ভাগবত

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ জুন ২০২২ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

উত্তর প্রদেশের বারাণসীতে জ্ঞানবাপী মসজিদ বিতর্কে প্রথম বার মুখ খুললেন ভারতের হিন্দু জাতীয়তাবাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) প্রধান মোহন ভাগবত। প্রতিটি মসজিদে শিবলিঙ্গ খোঁজার কী প্রয়োজন! বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। মন্দির-মসজিদ বিতর্কে পারস্পরিক ঐকমত্যের ভিত্তিতে উপায় বের করার কথা বলেছেন আরএসএস প্রধান। রাম মন্দিরের পরে কাশীর জ্ঞানবাপী মসজিদে পুজোপাঠ করা ও মথুরার শাহি ঈদগা সরানোর দাবিতে সরব ভারতের হিন্দুত্ববাদীদের একাংশ। বিষয়টি গড়িয়েছে আদালত পর্যন্ত।

এমন পরিস্থিতিতে নাগপুরে এক সভায় মোহন ভাগবত বলেন, আমাদের কিছু জায়গা (ধর্মীয় স্থান) নিয়ে বিশেষ ভক্তি থাকতে পারে। কিন্তু তা বলে রোজ নতুন নতুন বিষয় কেন জাগিয়ে তোলা হবে? আমাদের আদৌ বিতর্ক বাড়ানো উচিত নয়। জ্ঞানবাপী নিয়ে আমাদের ভক্তি-শ্রদ্ধা থাকতেই পারে। কিন্তু তা বলে প্রত্যেক মসজিদেই কেন শিবলিঙ্গ খোঁজা হবে?

জ্ঞানবাপী প্রসঙ্গে সঙ্ঘপ্রধান আরও বলেন, ইতিহাসকে পাল্টানো যায় না। আজকের কোনও হিন্দু বা মুসলিম এটা তৈরি করেননি। অতীতে হয়েছিল। বহিরাগত আক্রমণকারীদের মাধ্যমে ইসলাম এ দেশে এসেছিল। দেশের স্বাধীনতাকামীদের মনোবল নষ্ট করতে দেবস্থান ভাঙা হয়েছিল। ওরা হয়তো অন্য ধরনের উপাসনা করেন। কিন্তু মুসলিমরা আসলে আমাদেরই মুনি-ঋষি ও ক্ষত্রিয়দের বংশধর। সবাইকে আদালতের সিদ্ধান্ত মেনে চলারও আহ্বান জানান তিনি।

জ্ঞানবাপীর পরে কুতুব মিনারে পুজোপাঠ, তাজমহলের প্রকৃত সত্য জানতে চেয়ে সরব হয়েছে আরেকটি অংশ। অনেকে বলছেন, এ নিয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে সমাজে অসহিষ্ণুতা সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তারা মনে করছে, ভবিষ্যতে প্রায় প্রতিটি সংখ্যালঘু ধর্মস্থানের ঐতিহাসিক সত্য জানতে চেয়ে কেউ না কেউ যদি আদালতের দ্বারস্থ হতে থাকেন এবং কাঙ্ক্ষিত ফল না পান, সে ক্ষেত্রে দায় আসবে বিজেপির উপরে।

বারাণসী জেলা আদালত হিন্দু নারীদের দায়ের করা মামলাকে চ্যালেঞ্জ করে জ্ঞানবাপী মসজিদ কমিটির আবেদনের শুনানি ৪ জুলাই পর্যন্ত পিছিয়ে দিয়েছেন।

নিউজ ট্যাগ: মোহন ভাগবত

আরও খবর



প্রান্তিক জনগোষ্ঠী পেশাজীবীদের মাঝে চেক ও সনদপত্র বিতরণ

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ১০০জন দেখেছেন

Image

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

'বাংলাদেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন' শীর্ষক প্রকল্প, সমাজসেবা অধিদপ্তর, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতায় সংশ্লিষ্ট পেশার মানোন্নয়নে ৫ দিনব্যাপী সফটস্কিল প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের মাঝে প্রশিক্ষণ সমাপনান্তে রাণীশংকৈল উপজেলা প্রশাসন ও রাণীশংকৈল সমাজসেবা কার্যালয়ের আয়োজনে সনদপত্র ও এককালীন অনুদানের চেক বিতরণ অনুষ্ঠান

বুধবার (৮ মে) উপজেলা হলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।

হেয়ার ড্রেসিং, মৃৎশিল্প, জুতা মেরামত ও প্রস্তুতকারী, কাঁসা পিতল পণ্য প্রস্তুতকারী, কামার, বাঁশ-বেত পন্য প্রস্তুতকারী পেশার উপর দক্ষ  জনগোষ্ঠী প্রস্তুত ও তাদের পেশার মানোন্নয়ন এবং তাদের পেশা সুচারুভাবে নিশ্চিতকরণের জন্যই এই প্রশিক্ষণ ও  অনুষ্ঠান বলে অবহিত করেন উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব মোঃ আব্দুর রহিম।

অনুষ্ঠানে অনলাইনের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন সমাজসেবা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী জনাব মোঃ নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি। প্রধান অতিথি এসময় তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার জনগণের সরকার, উন্নয়নের সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বর্তমান সরকার দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী থেকে শুরু করে আপামর জনতার সব ধরনের পেশার মানুষের জীবন-জীবিকা উন্নয়নের জন্য সার্বিক ভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছে। তারই প্রতিফলন আজকের এই অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি দেশের প্রতিটি  প্রান্তিক জনগোষ্ঠী থেকে শুরু করে সবাইকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসাথে থেকে প্রধানমন্ত্রীর হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাণীশংকৈল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ শাহরিয়ার আজম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং রাণীশংকৈল ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ জনাব মোঃ সইদুল হক, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মোছাঃ শেফালী বেগম, রাণীশংকৈল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ সহ আরো অনেকে।

বক্তাগণ এসময় তাদের বক্তব্যে বিভিন্ন পেশাজীবীদের কথা এবং তাদের বিশেষ করে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পেশাজীবীদের  অবদান সবার মাঝে তুলে ধরেন।

পরবর্তীতে উপজেলার প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর বিভিন্ন পেশার ১৫০ জন ব্যক্তিকে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করার কৃতিত্ব স্বরূপ  প্রত্যেককেই সনদপত্র ও এককালীন ১৮ হাজার টাকার চেক প্রদান করা হয়।

এরকম প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করে ও সনদপত্র পেয়ে এবং নগদ এককালীন ১৮০০০/- টাকা অনুদান পেয়ে চোপড়ার হেয়ার ড্রেসিং কারিগর মানিক শীল খুশিতে আত্মহারা হয়ে বলেন, বর্তমান সরকার তাদের জন্য অনেক কিছু করে যাচ্ছেন যা তাদের ভুলবার নয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রাণীশংকৈল উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জনাব মোঃ সোহেল সুলতান জুলকার নাইন কবির। সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, রংপুর বিভাগের মধ্যে রাণীশংকৈল উপজেলাকে একটি আদর্শ উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে রংপুর বিভাগের মধ্যে কেবলমাত্র তাঁর উপজেলাতেই এই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হয়েছে। রাণীশংকৈল উপজেলাকে একটি আদর্শ উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলার জন্য এসময় তিনি সবার নিকট সহযোগিতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে উপজেলার বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক ও কর্মকর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর