Logo
শিরোনাম

লোকসান কাটাতে রাকাবের পরিশোধিত মূলধন বাড়াবে সরকার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের (বিকেবি) রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের শাখাগুলো নিয়ে ১৯৮৭ সালে গঠন করা হয় রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব)। লক্ষ্য ছিল, কৃষি খাতে অর্থায়নের মাধ্যমে ওই অঞ্চলের ১৬টি জেলার উন্নয়ন। সেই লক্ষ্য কম-বেশি কিছুটা পূরণ হলেও ৩৪ বছরের অধিকাংশ সময়ই লোকসানে বছর পার করেছে ব্যাংকটি। সম্প্রতি রাকাবকে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে রূপ দিতে বিভিন্ন কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে রাষ্ট্রায়ত্ত বিশেষায়িত ব্যাংকটির পরিশোধিত মূলধন ৮২৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকা করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

সূত্র জানায়, বেশ কিছুদিন থেকেই পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর অনুরোধ করে আসছিল রাকাব কর্তৃপক্ষ। এবার সে অনুরোধে সাড়া দিয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সম্প্রতি মূলধন বাড়ানোর বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে অর্থ বিভাগকে চিঠি দিয়েছে। অর্থ বিভাগও বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে যাচাই-বাছাই করছে।

অর্থ বিভাগে পাঠানো আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের চিঠিতে বলা হয়, ব্যাংকটির রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের শাখাগুলোয় কৃষি ও কৃষিভিত্তিক ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের অর্থনৈতিক কাঠামো সুদৃঢ়করণ এবং সার্বিকভাবে রাকাবের ঋণপ্রবাহ বৃদ্ধির মাধ্যমে লাভজনক ব্যাংকে উন্নীত করার লক্ষ্যে গৃহীত পরিকল্পনাগুলো বাস্তবায়নের জন্য পরিশোধিত মূলধন ৮২৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ কোটি টাকার সুপারিশ করা হচ্ছে। এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধও জানানো হয়।

আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে অনিয়ম-দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, অভ্যন্তরীণ সমস্যা ও আঞ্চলিক প্রভাবের অভিযোগ রয়েছে রাকাবের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন তদন্ত প্রতিবেদনে এসবের সত্যতাও পাওয়া গেছে। এছাড়া খেলাপি ঋণ বেশি হওয়ার কারণে ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠার পর অধিকাংশ সময় লোকসান গুনছে। তবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এসব বিষয়ে সংস্কার আনার কথা জানিয়েছে। সেই সঙ্গে ব্যাংকটিকে লাভজনক করার বিভিন্ন কার্যক্রমের একটি হিসেবে পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর অনুরোধ করে আসছিল রাকাব। তাদের অনুরোধের ভিত্তিতে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ পর্যালোচনা করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের সুপারিশ অর্থ প্রতিষ্ঠান বিভাগ পাঠিয়েছে।

অর্থ বিভাগ সূত্র জানিয়েছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সুপারিশটি তারা বেশ গুরুত্বের সঙ্গে পর্যালোচনা করছে। খুব শিগগির এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। তবে খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকটির বিরুদ্ধে যেসব অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে, সেগুলোয় সংস্কার আনতে হবে। একই সঙ্গে মূলধন বাড়ানোর পাশাপাশি ব্যাংকটির ওপর তদারকি বাড়ানো প্রয়োজন। রাকাবের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আব্দুল মান্নান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ব্যাংকটি লোকসানে রয়েছে। তার অন্যতম কারণ হচ্ছে ব্যাংকটি চরম তহবিল সংকটে ভুগছে। আমানতের বিপরীতে ব্যাংকের ঋণ বিতরণের হার প্রায় ১০০ শতাংশ, যা বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়মের বাইরে। কিন্তু এ ঋণগুলো কৃষকদের স্বল্প সুদে দেয়া হয়েছে। এছাড়া প্রাকৃতিক ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে বিভিন্ন সময়ে সরকারের নির্দেশে কৃষকদের প্রায় ৮১৫ কোটি টাকার সুদ মওকুফও করা হয়েছে। এর বিপরীতে সরকারের কাছ থেকে তেমন কোনো ভর্তুকি পাওয়া যায়নি।

এ কারণে তহবিল সংকট আরো তীব্র হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাই পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে। যদি বাড়তি মূলধন পাই, তাহলে আমরা আমানতের বিপরীতে ঋণ বিতরণের যে অসমতা রয়েছে সেটা কমিয়ে আনতে পারব। পাশাপাশি ব্যাংক কর্তৃপক্ষও আমানত বাড়াতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই মধ্যে সব ব্যাংক অনলাইনে চলে গেছে কিন্তু রাকাবে অনলাইন ব্যাংকিং না থাকার কারণে ভালো ভালো গ্রাহক অন্য ব্যাংকে চলে গেছে। তাই রাকাবও গত ২৩ মার্চ মোবাইল অ্যাপস ও ইন্টারনেট ব্যাংকিং উদ্বোধন করেছে। অনলাইন ব্যাংকিং চালুর পর আমরা গ্রাহকদের বেশ সাড়া পাচ্ছি। আমরা যদি বাড়তি পরিশোধিত মূলধন পাই একই সঙ্গে আমরা যেসব উদ্যোগ গ্রহণ করেছি, তাতে আশা করছি অল্প কিছুদিনের মধ্যে রাকাব ঘুরে দাঁড়াবে।

এদিকে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, ব্যাংকটিকে ১৯৯২-৯৩ সাল থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বিভিন্ন সময়ে প্রভিশন ঘাটতি বাবদ ৪১৭ কোটি ৭৮ লাখ টাকা দিয়েছে সরকার। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে রাকাবকে সুদ ভর্তুকি বাবদ ২৯৬ কোটি ২৭ লাখ টাকা দেয়া হয়েছে। এদিকে ব্যাংকের অটোমেশন বাস্তবায়নের জন্য ২০১৩-১৪ অর্থবছরে সরকার মূলধন পুনর্গঠন বাবদ ৮০ কোটি টাকা দিয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর শেষে রাকাবের বিতরণ করা ঋণের পরিমাণ ৬ হাজার ২৮২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ১৯ দশমিক ২৯ শতাংশ বা ১ হাজার ২১২ কোটি টাকা খেলাপি ঋণ। পাশাপাশি ব্যাংকটির মূলধন ঘাটতি রয়েছে ১ হাজার ৫০৬ কোটি টাকা। ব্যাংকটির আর্থিক প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, রাকাবের মোট ৩৮৩টি শাখা রয়েছে। এর মধ্যে শহরে রয়েছে ৫০টি, পল্লী শাখা ৩৩৩টি। এসব শাখার মধ্যে ১৫১টি লোকসানে রয়েছে। সর্বশেষ ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা লাভ করে ব্যাংকটি। এরপর টানা চার বছর লোকসান গুনছে রাকাব। সর্বশেষে গত ২০২০-২১ অর্থবছরে ৫৮১ কোটি ৪১ লাখ টাকা আয় করে ব্যাংকটি। এর বিপরীতে ব্যয় হয় ৫৮৪ কোটি ৫১ লাখ টাকা। ফলে লোকসান গুনতে হয় ৩ কোটি ১০ লাখ টাকা।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এবি মির্জ্জা মো. আজিজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকটির পরিশোধিত মূলধন বাড়ানো হচ্ছে সেটা ভালো। তবে সংস্থাটির পরিচালনা জবাবদিহির আওতায় আনতে হবে। ঋণও দেয়া হচ্ছে নিয়ম-কানুন ভেঙে। আবার অর্থ আদায়ে আইনি কাঠামোও বেশ দুর্বল। তাই ব্যাংকটির খেলপি ঋণ বেশি। এসব নিয়ন্ত্রণে ব্যাংকটির ওপর তদারকি বাড়ানো প্রয়োজন। এছাড়া ব্যাংকটি যে মডেলে চলছে, এটাও টেকসই নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।


আরও খবর



৪৬৫ রানে থামল বাংলাদেশ, লিড ৬৮

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার করা ৩৯৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুই সেঞ্চুরি এবং দুই হাফ-সেঞ্চুরির সুবাদে ৯ উইকেটে ৪৬৫ রান করে বাংলাদেশ। এরপর শরিফুল ইসলাম রিটায়ার্ড হার্ট হলে ইনিংস ঘোষণা করে টাইগাররা। ফলে ৬৮ রানের লিড পেয়েছে মুমিনুল হকরা।

এর আগে সফররত শ্রীলঙ্কার করা ৩৯৭ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিনশেষে বাংলাদেশ করেছিল ৩ উইকেটে ৩১৮ তুলেছিল বাংলাদেশ। ওই দিন ৫৩ রানে মুশফিক ও ৫৪ রানে লিটন অপরাজিত ছিলেন। প্রথম সেশন শেষে এখনও এদিন কোনো উইকেট হারাতে হয়নি বাংলাদেশকে।

লিটন-মুশফিক দুজনই ছিলেন সেঞ্চুরির পথে। কিন্তু সেঞ্চুরির কাছাকাছি এসেও সেটা পূরণ করতে পারলেন না লিটন। লাঞ্চ বিরতি থেকে ফিরে প্রথম বলেই আউট হয়ে ফিরতে হয়েছে তাকে। আউট হওয়ার আগে করেন ৮৮ রান। ১৮৯ বলে খেলা তার এই ইনিংসটি ১০টি চারে সাজানো।

লিটন আউট হওয়ার পর আবারও ব্যাট করতে আসেন রিটায়ার্ড হার্ডে মাঠ ছাড়া টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল খান। কিন্তু সুবিধা করতে পারলেন না তিনি। ক্রিজে নেমে প্রথম বলেই বোল্ড হয়েছেন তামিম। তার ব্যাট থেকে এসেছে ১৩৩ রান।

টানা দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ দলের কিছুটা ছন্দপতন ঘটে। এ সময় ষষ্ঠ উইকেটে সাকিবকে সঙ্গে নিয়ে দলকে চাপমুক্ত করেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু সাকিব তাকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি। ফিরেছেন ব্যক্তিগত ২৫ রানে।

এরপর নাঈমকে নিয়ে নিজের সেঞ্চুরির পথে এগোচ্ছিলেন মুশফিক। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ের মাধ্যমে নিজের সেঞ্চুরির পেয়ে যান তিনি। তবে ইনিংসটি ঘোষণা করা হয়নি। এম্বুলদেনিয়ার লেগ স্ট্যাম্প বরাবর করা বলে সুইপ করতে চেয়েছিলেন মুশফিক। কিন্তু সরাসরি লেগ স্ট্যাম্প বল লাগলে আউট হন তিনি। ২৮২ বলে ৪ চারে মুশফিকের ইনিংস থামে ১০৫ রানে।

এরপর নাঈম হাসান ৯ রানে এবং তাইজুল ইসলাম ২০ রানে আউট হন। আর শরিফুল ইসলাম রিটায়ার্ড হার্ট হন ৩ রানে। এদিকে শূন্যরানে অপরাজিত থাকেন খালেদ আহমেদ।

নিউজ ট্যাগ: চট্টগ্রাম টেস্ট

আরও খবর



করোনা: মৃত্যু নেই, শনাক্ত ১৯

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কারো মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন ১৯ জন। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। 

২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৬০৮টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ৪ হাজার ৬২২টি নমুনা। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার শূন্য দশমিক ৪১ শতাংশ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম ৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। গেল বছরের ৫ ও ১০ আগস্ট দুদিন সর্বাধিক ২৬৪ জন করে মারা যান।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



আইনের শাসন বলতে দেশে কিছু নেই: ফখরুল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৭৬জন দেখেছেন

Image

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ যখন গণতন্ত্রের কথা বলে তখন সেটা জনগণ ও আমাদের কাছে হাস্যকর মনে হয়। আওয়ামী লীগের সরকার পুরোপুরি আমলা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপরে নির্ভর হয়ে পড়েছে। জনগণ থেকে এই সরকার বিছিন্ন হয়ে গেছে। এ সরকারের বিরুদ্ধে কোন প্রতিবাদ করলেই তাকে জেলে নেওয়া হয় তার প্রমান কলাবাগানের মা ও ছেলে। এই ঘটনাগুলো প্রমাণ করে যে এই সরকার কতটা স্বৈরাচারী।

মঙ্গলবার(২৬ এপ্রিল) সকালে ঠাকুরগাঁও শহরের কালিবাড়ি এলাকার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিভিন্ন দেশ ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগকে স্বৈরাচারী দল হিসেবে চিহ্নিত করেছে। তার প্রমাণ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা। আর দেশের মানুষ নিজেরাই টের পাচ্ছে যে তারা একটি ফ্যাসিবাদ সরকারের আওতায় রয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপর এই সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, সরকারের পশ্রয়ে এখন মানুষের মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। আইনের শাষন বলতে দেশে কিছু নেই। এটার প্রমান হচ্ছে ঢাকা কলেজ ও নিউ মার্কেট হওয়া হামলার ঘটনা। পত্র পত্রিকায় আসলো হামলায় জড়িত আওয়ামী লীগ আর মামলা হল বিএনপির নামে। তিন দিনের রিমান্ড ও নেওয়া হল। আর এসব অপকর্মের কথা এখন কিছু কিছু মিডিয়া তুলেও ধরছে।

এ সময় অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমানসহ দলের-এর বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীরা।


আরও খবর



ইমরান খানের ‘বিদেশি ষড়যন্ত্র’ অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিশন

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তার দল তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতাদের সরকার উৎখাতে বিদেশি ষড়যন্ত্রের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত করবে পাকিস্তান সরকার। তদন্তের জন্য একটি কমিশন গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির নতুন তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব।

ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব বলেন, এমন ব্যক্তিদের নিয়ে নিপেক্ষ তদন্ত কমিশন গঠন করা হবে যাদের বিশ্বাসযোগ্যতা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে না। সত্যটা নিশ্চয়ই বেরিয়ে আসবে। আগামী মন্ত্রিসভার বৈঠকে এটি আনুষ্ঠানিকভাবে অনুমোদনের কথাও বলেন তিনি।

মরিয়ম বলেন, ইমরান খানের অভিযোগ দেশের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি করেছে এবং দেশের বৃহত্তর স্বার্থে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে একটি স্বাধীন, নিরপেক্ষ কমিশনের মাধ্যমে সত্যটা কী তা খুঁজে বের করা।

নতুন তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম বলেন, ইমরান খান র‌্যালি ও সমাবেশ করে তার স্ত্রীর ঘনিষ্ঠ বান্ধবী ফারাহ খানের দুর্নীতির বিষয়টি ঢাকতে চান। পিটিআই সরকারের সময় ২০১৮ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে ৩৪টি ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে, যেগুলোর অধিকাংশই ফারাহ খানের নামে। এই সময়ের মধ্যে এসব ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৮৭০ মিলিয়ন পাকিস্তানি রুপি স্থানান্তর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শিগগির নির্বাচনের দাবি জানিয়েছিলেন। তার ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পেছনে তিনি দাবি করেন এটি বিদেশি ষড়যন্ত্রের অংশ। পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল মূলত ২০২৩ সালের আগস্টে। কিন্তু তার আগেই অনাস্থা ভোটে হেরে ক্ষমতা ছাড়তে হয়েছে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে। অতীতের ধারা অনুসরণ করে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের পতনও হয়েছে মেয়াদ পূর্ণ করার আগেই।

পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো প্রধানমন্ত্রী অনাস্থা ভোটে হেরে বিদায় নিয়েছেন ক্ষমতা থেকে। কূটনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন, সদ্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলার শুনানি হতে পারে। রাজনীতির লড়াইয়ে গ্রেপ্তারও হতে পারেন পাকিস্তানের এই সাবেক ক্যাপ্টেন।


আরও খবর



রুশ সীমান্তে দাঁড়িয়ে ইউক্রেনীয় বাহিনীর গর্জন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ক্রমশ লক্ষ্যভ্রষ্ট হচ্ছে রাশিয়া। ২৪ ফেব্রুয়ারি যুদ্ধ শুরুর সময়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছিলেন, গোটা ইউক্রেনকে মুক্ত করবেন তাঁরা। ক্রমে সেই লক্ষ্য থেকে সরে পূর্ব ও দক্ষিণ ইউক্রেনে নজর দেয় রাশিয়া। এখন উত্তর-পূর্ব ইউক্রেনের দখলও হাতছাড়া হয়েছে মস্কোর। এ দিন একটি ভিডিয়ো ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাতে দেখা যাচ্ছে, রুশ সীমান্তে দাঁড়িয়ে ইউক্রেনীয় বাহিনীর গর্জন, আমরা এখানে মিস্টার প্রেসিডেন্ট!

এই মুহূর্তে একমাত্র মারিয়ুপোল-সহ ডনবাস অঞ্চল রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জ়েলেনস্কি অবশ্য দবি করেছেন, মারিয়ুপোলও তিনি মুক্ত করবেন। তাঁকে সমর্থন করে ইউরোপ-আমেরিকা ও জি-৭-এর মতো ধনী দেশের গোষ্ঠীও জানিয়েছে, রাশিয়া যদি ইউক্রেনের সীমান্ত বদলের চেষ্টা করে, তারা তা মান্যতা দেবে না।

রুশ সীমান্ত ঘেঁষা সুমি অঞ্চলেও মস্কোর হামলা বন্ধ হয়েছে বলে দাবি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। রুশ আগ্রাসনের শুরু থেকে এই অঞ্চলটি ভয়ানক হামলার শিকার। ইউক্রেনের পশ্চিম অংশ এখন একেবারেই শান্ত। কাল থেকে কিভে ভারতীয় দূতাবাসের কাজও চালু হয়ে যাবে। বহু অঞ্চলেই মানুষ ঘরে ফিরতে শুরু করেছে। একমাত্র ডনবাস এলাকায় এখনও রয়েছে রুশরা।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক আজ একটি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, যুদ্ধের শুরু থেকে এ পর্যন্ত স্থলবাহিনীর এক-তৃতীয়াংশ হারিয়েছে রাশিয়া। বিপুল ক্ষয়ক্ষতি ও মৃত্যুর বোঝা মস্কোর ঘাড়ে। এমনকি রাশিয়া যা-ই দাবি করুক, পূর্ব ইউক্রেনেও তেমন অগ্রগতি হয়নি ক্রেমলিনের সেনার। ব্রিটিশ মন্ত্রক বলেছে, রুশ বাহিনীর শক্তি ক্রমশ কমছে। নৈতিক দিক থেকেও তারা জোর পাচ্ছে না। বাহিনীর কর্মক্ষমতা কমেছে।

কিছু ক্ষেত্রে এমন অবস্থা যে কোনও পরিবর্তিত ব্যবস্থা নেই রাশিয়ার হাতে। ফলে রুশ অভিযান ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ছে।ব্রিটেনের গোয়েন্দা বাহিনীর দাবি, আগামী এক মাসে আরও পিছু হটতে বাধ্য হবে রাশিয়া। এ-ও শোনা গিয়েছে, মারিয়ুপোলের আজ়ভস্টল কারখানার নীচে আটকে থাকা জখম সেনাবাহিনীকে উদ্ধারে ইউক্রেন সরকারে সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে রাশিয়া। যদিও এই পরিস্থিতিতেও রাশিয়ার হামলা অব্যাহত রয়েছে। আজ তারা দাবি করেছে, কৃষ্ণসাগরে স্নেক আইল্যান্ডের কাছে ইউক্রেনের তিনটি যুদ্ধবিমান তারা গুলি করে নামিয়েছে। পূর্ব ইউক্রেনে মস্কোর ক্ষেপণাস্ত্র হানাও জারি রয়েছে।


আরও খবর