Logo
শিরোনাম

মিল্ক্কিওয়ের নতুন রহস্য উন্মোচন করল গাইয়া

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মিল্ক্কিওয়ের প্রায় দুই মিলিয়ন তারা জরিপ করে গতকাল সোমবার সেটির বিস্তারিত প্রকাশ করেছে গাইয়া মহাকাশযান। ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সি (ইএসএ) জানিয়েছে, তারকারাজির এমন বিস্তারিত তথ্য আগে কখনোই উন্মোচিত হয়নি।

গাইয়ার অনুসন্ধানে তারকারাজির রহস্যময় 'কম্পন'-এর একটি বিস্তারিত চিত্র ফুটে উঠেছে, বিজ্ঞানীরা যেটিকে 'তারকাকম্প' বলে অভিহিত করেছেন। সুনামির মতো এই কম্পনের কারণে মহাকাশে তারকারা দূর-দূরান্তে ছড়িয়ে পড়ে। গাইয়ার এই অভিযানের তথ্যের জন্য বিশ্বের সব জ্যোতির্বিজ্ঞানী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন। খবর এএফপির।

ইএসএ মহাপরিচালক জোসেফ অ্যাশবাচার সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আজকের দিনটি জ্যোতির্বিজ্ঞানের জন্য একটি স্মরণীয় দিন। এসব তথ্য মহাবিশ্বের নতুন নতুন অনুসন্ধানের পথ খুলে দেবে।

গাইয়া দলের একজন সদস্য ফ্রাঙ্কোইস মিগনার্ড বলেন, আমাদের মহাকাশযান সৌরজগতের ১৫৬,০০০-এরও বেশি গ্রহাণু অতুলনীয় নির্ভুলতার সঙ্গে গণনা করেছে। কিছু কিছু ছবি এতই পরিস্কার এসেছে যে, মনে হচ্ছে তারকাটি আমাদের বাড়ির পাশে অবস্থিত। পৃথিবী থেকে দেড় মিলিয়ন কিলোমিটার (৯৩৭,০০০ মাইল) দূরে অবস্থান করে এই ছবি তুলতে পারা অবিশ্বাস্য। আর নক্ষত্রের আকৃতি পরিবর্তনকারী বিশাল কম্পনের বিষয়টি নতুন অনুসন্ধান থেকে বেরিয়ে আসা সবচেয়ে আশ্চর্যজনক আবিস্কারগুলোর মধ্যে একটি।


আরও খবর



১২৭ জনকে চাকরি দেবে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটিতে তিনটি ভিন্ন পদে মোট ১২৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী যোগ্য প্রার্থীরা অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম:

সহকারী উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা, ক্যাশিয়ার, গাড়িচালক।

পদসংখ্যা:

মোট ১২৭ জন।

শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা:

স্বীকৃত যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে যেকোনো বিষয়ে স্নাতক/ অষ্টম শ্রেণি পাস প্রার্থীরা বিভিন্ন পদে আবেদন করতে পারবেন। কিছু কিছু পদের জন্য প্রার্থীর কম্পিউটার দক্ষতা, গাড়িচালক পদের জন্য প্রার্থীর ড্রাইভিং দক্ষতা থাকতে হবে। অনূর্ধ্ব ৩০ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। তবে বীর মুক্তিযোদ্ধা/শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও শারীরিক প্রতিবন্ধী প্রার্থীর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়স ৩২ বছর।

বেতন:

সহকারী উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা পদের বেতন ১২,০০০-৩০,২৩০/-টাকা

ক্যাশিয়ার পদের বেতন ৯,৩০০-২২,৪৯০/-টাকা

গাড়িচালক পদের বেতন ৯,৭০০-২৩,৪৯০/-টাকা

আবেদন প্রক্রিয়া:

আগ্রহী প্রার্থীরা অনলাইনে (http://dyd.teletalk.com.bd/) আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ তারিখ:

৫ জুলাই, ২০২২।

নিউজ ট্যাগ: চাকুরীর খবর

আরও খবর

মেঘনা গ্রুপে ডিজিএম পদে চাকরি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




সিরিয়া যুদ্ধে ৩ লাখের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত: জাতিসংঘ

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিরিয়া যুদ্ধের প্রথম ১০ বছরে ৩ লাখের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। একই সময়ে সিরিয়ার একটি শিবিরে ১০০ জনেরও বেশি বন্দী নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক কার্যালয়ের সিরিয়া যুদ্ধ বিষয়ক নতুন প্রতিবেদনে এ তথ্য এসেছে। এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক সংস্থা বলেছে, বেসামরিক হতাহতের তথ্যের কঠোর মূল্যায়ন ও পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে দেখা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিরিয়ায় যুদ্ধের কারণে ২০১১ সালের ১ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ৩ লাখ ৬ হাজার ৮৮৭ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘ মানবাধিকার কমিশনের প্রধান মিশেলে ব্যাশেলেট বলেন, এই প্রতিবেদনে সংঘাত-সম্পর্কিত হতাহতের পরিসংখ্যানগুলো কেবল বিমূর্ত সংখ্যার একটি সেট নয়। এতে কেবল সিরিয়া যুদ্ধের ব্যাপ্তি ও ভয়াবহতা স্পষ্টতই উপলব্ধি করা যায়।

তিনি আরও বলেন, এই যুদ্ধে ৩ লাখ ৬ হাজার ৮৮৭ বেসামরিক নাগরিক হত্যার প্রভাব তাদের প্রত্যেক পরিবার এবং সম্প্রদায়ের ওপর প্রভাব ফেলবে'।

জাতিসংঘ কর্তৃক প্রকাশিত পরিসংখ্যানে যুদ্ধের প্রভাবে খাবার, পানি কিংবা স্বাস্থ্যসেবা না পেয়ে যাদের পরোক্ষ মৃত্যু হয়েছে তাদেরকে ধরা হয়নি। এই পরিসংখ্যানে নিহত সেনা ও পুলিশ সদস্যেরও অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। যাদের নিহতের সংখ্যা হবে কয়েক হাজার। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগতি না করেই যাদের কবর দেওয়া হয়েছে তাদেরকেও এই তালিকায় রাখা হয়নি।


আরও খবর



সিলেটে আশ্রয়কেন্দ্র গুলোতে ত্রাণের জন্য হাহাকার

প্রকাশিত:সোমবার ২০ জুন ২০22 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিলেটে বন্যায় পানিবন্দী ও আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নেওয়া মানুষগুলোর মধ্যে তীব্র খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। নৌকার সংকট থাকায় বন্যাকবলিত দুর্গম এলাকাগুলোতে ত্রাণ নিয়ে যাওয়া খুব একটা সম্ভব হচ্ছে না।

এমনকি সরকারি ব্যবস্থাপনায় চালু হওয়া আশ্রয়কেন্দ্রগুলোয় খাদ্যসামগ্রী পৌঁছানো যাচ্ছে না। খাদ্যগুদামের আশপাশে পানি থাকায় অনেক ক্ষেত্রে সেখান থেকেও খাদ্যসামগ্রী বের করা যাচ্ছে না। তাতে তীব্র খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে। 

স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যায় সিলেট জেলার পরিস্থিতি মারাত্মক অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান। তিনি বলেন, সিলেটের ১৩টি উপজেলা, ৫টি পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন বন্যা উপদ্রুত।

তিনি বলেন, গত বুধবার (১৫ জুন) থেকে ভারি বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়েছে সিলেটের মানুষ।

তিনি জানান, পরিস্থিতি মোকাবেলায় পরদিন বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা করি এবং কন্ট্রোল রুম খোলা হয়। পাশাপাশি পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও কিট বক্স সরবরাহে জনস্বাস্থ্য নির্বাহী প্রকৌশল অধিদপ্তরকে অনুরোধ করি। আশ্রয় কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের সাহায্য চাওয়া হয়।

খোলা হয় ৪৯৭টি আশ্রয় কেন্দ্র। যেখানে বর্তমানে ২ লাখ ৩০ হাজার ৬৩২ জন মানুষ এবং ৩১ হাজার গবাদিপশু রয়েছে। 

উপদ্রুত এলাকায় বোতলজাত বিশুদ্ধ পানি ও ৪টি বিশুদ্ধকরণ ওয়াটার প্ল্যান্টের মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে আড়াই লাখ পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট সরবরাহ করা হয়েছে। ১৪০টি মেডিক্যাল টিম কাজ করছে।

বন্যাকবলিতদের জন্য বরাদ্দকৃত ত্রাণের মধ্যে ৬১২.৪২০ মেট্রিক টন চাল, ৮ হাজার ১১৮ প্যাকেট শুকনো খবার থেকে ৭ হাজার ৯শ’ প্যাকেট বিতরণ করা হয়।

এছাড়া নগদ ৯২ লাখ টাকা থেকে ৩৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। 

তবে বর্তমানে বরাদ্দকৃত চাল নেই। শুকনো খাবার আছে মাত্র ২১৮ প্যাকেট। অবশ্য নগদ টাকা আছে ৫৬ লাখ ৫০ হাজার।

জেলা প্রশাসক বলেন, প্রথম দিনেই (১৬ জুন) আশ্রয় কেন্দ্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশের সাহায্য চাওয়া হয়। ওইদিন ১৩ উপজেলায় জিআর চাল ৪৩২ মেট্রিক টন ১৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং ২ হাজার ৯ বস্তা শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়।

১৭ জুন, আরো ৫ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের বরাদ্দ দেন এবং ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনাক্রমে দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০১২ এর ৩০ ধারা অনুযায়ী সেনাবাহিনীর সহায়তা চাওয়া হয়। পাশাপাশি এসএসসি পরিক্ষা স্থগিত করা হয়। বন্যায় প্লাবিত নগরের বিদ্যুৎ সাবস্টেশন সুরক্ষিত রাখা হয়।

এরপর স্থানীয় প্রশাসন ও সেনাবাহিনীর ১৩টি ব্যাটালিয়ন, ৬০টি বোট বন্যার্তদের উদ্ধার, চিকিৎসা, নিরাপদ স্থানে আশ্রয়ন ও বিশুদ্ধ খাবার সরবরাহে নিয়োজিত আছে। নৌবাহিনীর ১০০ জন সদস্য ১২টি নৌকা নিয়ে তাদের কার্যক্রম সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জে চালিয়ে যাচ্ছে।

১৮ জুন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী গোয়াইনঘাট ও জৈন্তপুর এলাকা এবং আগেরদিন কোম্পানীগঞ্জ এলাকা পরিদর্শন করেন। এদিন বিভাগীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সরকারের দুযোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর, আবহাওয়া অধিদপ্তর ও পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে আগেই বন্যার বিষয়ে আগাম তথ্য না দেওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক বলেন, আগাম কোনো তথ্য না পেলেও ১৫ জুন থেকে ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় জেলা প্রশাসন দুর্গত এলাকা থেকে মানুষকে উদ্ধারে পদক্ষেপ নেওয়া হয়।

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বন্যাকবলিত এলাকায় নৌকার তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। এতে অসহায় মানুষের কাছে খুব একটা যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না। এমনকি সরকারি ব্যবস্থাপনায় চালু হওয়া আশ্রয়কেন্দ্রগুলোয় খাদ্যসামগ্রী পৌঁছানো যাচ্ছে না। এ ছাড়া খাদ্যগুদামের আশপাশে পানি থাকায় অনেক ক্ষেত্রে সেখান থেকেও খাদ্যসামগ্রী বের করা সম্ভব হচ্ছে না।

আশ্রয়কেন্দ্রে এসেও লোকজন আরেক ভোগান্তিতে রয়েছে। স্থানের তুলনায় এসব আশ্রয়কেন্দ্রে মানুষের সংখ্যা বেশি। গবাদিপশু–পাখির সঙ্গে গাদাগাদি করে একই কক্ষে আশ্রয় নেওয়া ব্যক্তিরা শুক্রবার রাত কাটিয়েছে। আশ্রয়কেন্দ্রে থাকার উপযোগী পর্যাপ্ত সুবিধা নেই। এমনকি খাবারও পাচ্ছে না অনেকে, ফলে খাবার না পেয়ে অভুক্ত অবস্থাতেই আছেন তারা।

অন্যদিকে সিলেট ও সুনামগঞ্জ জেলায় বন্যা কবলিত একালাগুলো থেকে মানুষদের উদ্ধার করতে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী, কোস্ট গার্ডের সদস্যরা যৌথভাবে কাজ করছেন। ইতোমধ্যে হাজারো মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে পৌঁছে দিয়েছেন তারা। সবমিলিয়ে কিছুটা স্বস্তিতে আছেন এসব মানুষরা, তবে খাদ্যের অভাবে ক্ষুধা নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বানভাসি মানুষরা।


আরও খবর



ইউক্রেনের শপিংমলে রুশ হামলায় নিহত ১০

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৮ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইউক্রেনের পোলটাভা অঞ্চলের ক্রেমেনচুকে একটি শপিংমলে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানলে বহু লোক হতাহত হয়। বিবিসির সবশেষ খবরে বলা হয়, এ হামলায় অন্তত ১০ জন নিহত এবং ৪০ জন আহত হয়েছেন । তবে হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি জানিয়েছেন, মধ্যাঞ্চলীয় শহর ক্রেমেনচুকের একটি জনাকীর্ণ শপিংমলে ওই হামলার সময় ভেতরে এক হাজারের বেশি মানুষ ছিল। বিপণীকেন্দ্রটিতে এখন ব্যাপক উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে অ্যামস্টোর নামের শপিং সেন্টারটিতে ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানে। ধারণা করা হচ্ছে এটি একটি 'গাইডেড মিসাইল' বা নির্দিষ্ট লক্ষ্যে আঘাত করার মত ক্ষেপণাস্ত্র ছিল।

আক্রান্ত শপিং সেন্টারটি রুশ-নিয়ন্ত্রিত এলাকা থেকে প্রায় ৮১ মাইল দূরে।

জাতিসংঘের এক মুখপাত্র স্টেফান দুজারিচ বেসামরিক স্থাপনার ওপর এমন হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন। পোলটাভা অঞ্চলের প্রশাসনের প্রধান কর্মকর্তা দিমিত্রো লুনিন এ আক্রমণকে 'যুদ্ধাপরাধ' বলে বর্ণনা করেছেন।

মধ্য ইউক্রেনে দনিপার নদীর তীরের এই শিল্পকারখানা সমৃদ্ধ শহরটিতে প্রায় ২২০,০০০ লোক বাস করে। এর আগেও শহরটির তেল শোধনাগার ও অন্যান্য স্থাপনার ওপর রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে।


আরও খবর



বড় পর্দায় বাম-কংগ্রেস সন্ত্রাস

প্রকাশিত:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সময়টা আশির দশক। কলকাতা জুড়ে বাম-কংগ্রেসের তুমুল অরাজকতা। সেই হিংসা গড়িয়েছিল কলকাতা সংলগ্ন হাওড়া, শিবপুরেও। সেখানে প্রতিদিনের ত্রাস রাজনৈতিক হত্যা। ফি-দিন চার-পাঁচ জন নিরীহ মানুষ খুন হতেন। সন্ধের পরে তাই চট করে বাইরে পা রাখার সাহস দেখাতেন না কেউ।

অবস্থা ক্রমশ যখন আয়ত্তের বাইরে তখনই রাশ টেনেছিলেন তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। তাঁর যোগ্য সহকারী আইপিএস অফিসার সুলতান সিংহ। তাঁদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ছিলেন আরও এক জন। তিনি নারী। রাজনৈতিক সন্ত্রাসের বলি তাঁর পরিবার। কতটা ভয়ঙ্কর ছিল সেই দিনগুলো। কী ভাবে হাতে প্রাণ নিয়ে প্রতিদিন বাঁচতেন স্থানীয় মানুষেরা?

বাম-কংগ্রেসের সেই সন্ত্রাস এ বার উঠে আসছে বড় পর্দায়। ছবির নাম শিবপুর। পরিচালক-প্রযোজক অরিন্দম ভট্টাচার্যের আগামী ছবি। রাজনৈতিক থ্রিলার দেখানোর পাশাপাশি তিনি আরও একটি বড় পদক্ষেপ নিয়েছেন। বহু বছর পরে তাঁর ছবিতে ফের এক সঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হতে চলেছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়-স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়।

পরিচালক জানিয়েছেন, একটা সময় যাঁদের নাম টলিউডে একসঙ্গে উচ্চারিত হত। পরে নানা কারণে তাঁরা আর পর্দা ভাগ করেননি। এঁরা ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ থাকবেন মমতাশঙ্কর, রজতাভ দত্ত, খরাজ মুখোপাধ্যায়। পরিচালকের ভাবনায় জ্যোতি বসু শুভাশিস মুখোপাধ্যায়। যদিও তাঁর সঙ্গে এখনও পাকা কথা হয়নি। এ ছাড়াও, এক নবাগতাকেও তাঁর ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় আনতে চলেছেন অরিন্দম। ছবিটির প্রযোজনা করবেন সন্দীপ সরকার এবং অজন্তা সিংহ রায়। একটি বিশেষ চরিত্রের জন্য সুস্মিতা চট্টোপাধ্যায়কেও নেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে।

পরমব্রত-স্বস্তিকা কি জুটি হিসেবে এই ছবিতে অভিনয় করতে চলেছেন? পরিচালকের কথায়, ছবিটিতে প্রেমের কোনও জায়গাই নেই। পরমব্রত অভিনয় করবেন সুলতান সিংহের ভূমিকায়। স্বস্তিকা সেই রমণী, যাঁর পরিবার সন্ত্রাসের বলি।শিবপুর সংলগ্ন এলাকা এবং নবান্ন থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে দিন-রাত শ্যুট চলবে।

শ্যুটিং শুরু হবে ৮ জুলাই। ৪ এবং ৫ জুলাই অভিনেতাদের লুক সেট হবে। সম্ভবত প্রস্থেটিক রূপটানের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে। চরিত্র অনুযায়ী পরমব্রতকে পুলিশি পোশাকের পাশাপাশি দেখা যাবে সাদা পোশাকেও। এই প্রথম স্বস্তিকা অভিনয় করবেন একেবারে রূপটান ছাড়াই, ডি-গ্ল্যাম লুকে!


আরও খবর

২৭ বছরের সম্পর্কে ইতি টানলেন মীর!

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২