Logo
শিরোনাম

অস্ট্রেলিয়া ফেডারেল নির্বাচনে প্রথম বাংলাদেশি প্রার্থী সাজেদা আক্তার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৯ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৮৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশি সাজেদা আক্তার। আগামী ২১মে অনুষ্ঠেয় ফেডারেল নির্বাচনে ওয়াটসন আসন থেকে প্রথম বাংলাদেশি মহিলা হিসেবে তিনি ক্ষমতাসীন লিবারেল পার্টির মনোনয়ন পেয়েছেন।

এই নির্বাচনী এলাকায় দলমত নির্বিশেষে সবাই সাজেদা আক্তারকে সমর্থন করলে ইতিহাস সৃষ্টি করে বিজয় আনা সম্ভব। এই নির্বাচনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের স্বার্থ ও ক্ষমতায়নের প্রশ্ন। একই সঙ্গে এটি বহুজাতিক উন্নত সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় বাংলাদেশিদের নেতৃত্ব গ্রহণের যোগ্যতারও পরিচয় বহন করে।সাজেদা আক্তার বর্তমানে ক্ষমতাসীন লিবারেল দলের কাউন্সিলর।

নির্বাচনী ইশতেহারে সাজেদা আক্তার বলেছেন, বিজয়ী হলে তিনি ওয়াটসন এলাকায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি, বহুতল বিশিষ্ট পার্কিং নির্মাণ, রাস্তাগুলোতে নতুন কার্পেটিংয়ের ব্যবস্থা করবেন। এ ছাড়া মানসম্মত বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠাসহ প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য কমিউনিটি সেন্টার তৈরির অঙ্গীকার করেন তিনি। নির্বাচনে তিনি অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী সব বাংলাদেশিদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন। ব্যক্তিজীবনে স্বামী সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ জামান টিটু আর দুই ছেলেকে নিয়ে তাঁর ছোট সংসার। 


আরও খবর



পরীমণির উন্মুক্ত বেবি বাম্পের ছবি ভাইরাল

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রবিবার (৮ মে) ছিল বিশ্ব মা দিবস। বিশেষ দিনটিতে মায়ের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেছেন সবাই। তবে একটু ব্যতিক্রমভাবে মা দিবস উদযাপন করেছেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। নিজের উন্মুক্ত বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে এনেছেন তিনি। এ দিন ফেসবুকে ছবিটি আপলোড করেন পরী। যেখানে দেখা যায়, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। অনাবৃত বেবি বাম্পে হাত দিয়ে রেখেছেন। আর পেছন থেকে তাকে জড়িয়ে আছেন স্বামী শরিফুল রাজ।

ছবিটির ক্যাপশনে পরীমণি জানান, তিনি বর্তমানে গর্ভধারণের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক পর্যায়ে আছেন। সঙ্গে সবাইকে মা দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

পরী ও রাজের স্নিগ্ধ এই ছবি দেখে মুগ্ধ সবাই। মুহূর্তেই এটি ভাইরাল হয়ে যায় ফেসবুকে। কেবল পরীমণির ফেসবুক পেজেই ছবিটিতে ১ লাখ ৫০ হাজারের বেশি রিঅ্যাকশন এসেছে। পাশাপাশি বিভিন্ন গ্রুপ ও পেজে এটি প্রচুর শেয়ার হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ জানুয়ারি পরীমণি জানান, তিনি অন্তঃসত্ত্বা। সঙ্গে এ-ও জানান, তিনি অভিনেতা শরিফুল রাজকে বিয়ে করেছেন। গত বছরের ১৭ অক্টোবর গোপনে বিয়ে করেছিলেন তারা। এরপর চলতি বছরের জানুয়ারিতে পারিবারিক আয়োজনে গাঁটছড়া বাঁধেন।

এবারের ঈদ উপলক্ষে কক্সবাজারে গেছেন রাজ ও পরী। ঈদটা সেখানেই উদযাপন করেছেন তারা। বিয়ের পর সেভাবে দূরে কোথাও ঘুরতে যাননি এ দম্পতি। তাই এই কক্সবাজার ভ্রমণই তাদের জন্য হানিমুন।

নিউজ ট্যাগ: পরীমণি

আরও খবর



প্রথম বিশ্বযুদ্ধের অস্ত্র ব্যবহার করছে রাশিয়া

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ এপ্রিল 20২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যত দিন গড়াচ্ছে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের বিষয়ে তত নতুন তথ্য উঠে আসছে। অভিযোগ, এই যুদ্ধে রুশ বাহিনী অত্যাধুনিক অস্ত্রের সঙ্গে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্যবহৃত প্রাণঘাতী অস্ত্রও প্রয়োগ করেছে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে। অস্ত্র হিসাবে ক্ষেপণাস্ত্রের মধ্যে রেখে ছোট ডার্টকে ব্যবহার করা হচ্ছে । ইউক্রেনের শহর বুচাতে এই ডার্ট ব্যবহারের উদাহরণ পাওয়া গিয়েছে।

ডার্টগুলি দেখতে এক ইঞ্চি পেরেকের মতো। যেগুলির এক প্রান্তে তীরের মতো পাখনা থাকে। বাতাসের মধ্যে গিয়ে এইগুলি গতিশীল হয়ে ওঠে।বুচার বাসিন্দারা তাঁদের বাগানে এবং রাস্তা থেকে এই রকম প্রচুর ডার্ট উদ্ধার করেছেন। ডার্টগুলি বাগানে গাছের গায়ে, বাড়ির দেওয়ালে এবং গাড়ির গায়ে আটকে ছিল।

বুচার স্থানীয় এক বাসিন্দা স্বিতলানা চুমতের কথায়, আপনি যদি আমার বাড়ির দিকে তাকান তবে এ রকম জিনিস অনেক পাবেন। যুদ্ধ চলাকালীন তিনি এক দিন সকালে দেখেন তাঁর বাডি়র দেওয়ালে এবং ঘরের ভিতর এই ধরনের ডার্ট আটকে রয়েছে। এই ডার্টগুলি ছুড়ে দেওয়ার সময় শঙ্কু আকৃতির এক ধরনের ফ্লোচেট সেল ব্যবহার করছে রাশিয়া। যার মুখের ছিদ্র দিয়ে নাগাড়ে বেরোতে থাকে ডার্টগুলি। সেগুলি ৩০০ গজ দূর পর্যন্ত যেতে পারে।

যুদ্ধে এই ধরনের অস্ত্র ব্যবহারের দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মানুষ মারার জন্য ডার্ট ব্যবহার করার উদাহরণ রয়েছে। এ ছাড়া ভিয়েতনাম যুদ্ধের সময় আমেরিকা একে অ্যান্টি-পারসনেল প্রজেক্টাইল হিসাবে উল্লেখ করে এর ব্যবহার করা হত। ২০১৪ সালে গাজায় ফ্লোচেট ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে। একটি মানবাধিকার সংস্থার অভিযোগ অনুযায়ী ১৭ জুলাই খান ইউনিসের পূর্বে খুজা গ্রামের উদ্দেশে ৬টি ফ্লোচেট ছোড়ে ইজরায়েল।

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় ডার্টের মুখগুলি কিছুটা ইউ আকৃতি করা হত। কতকটা মাছের বড়শির মতো। এর ফলে শরীরে মারাত্মক ক্ষত তৈরি হত। এই ক্ষত থেকে মৃত্যুও হত। যুদ্ধে এই ধরনের অস্ত্র ব্যবহারে নিষিদ্ধ করার দাবি ওঠে কারণ এই ধরনের অস্ত্র লক্ষ্যের বাইরে অন্য কাউকে আঘাত করত। কতকটা ছররা গুলির মতো।

ইজরায়েলে ক্যামেরাকে অস্ত্র ভেবে ২০১০ সালে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের এক সাংবাদিককে ফ্লোচেট ছুড়ে আঘাত করা হয়। কিন্তু এই হামলায় সাংবাদিক ছাড়াও আরও আট জন অসমারিক ব্যক্তি আহত হন। এই ঘটনার পর ইজরায়েল ফ্লোচেট ব্যবহার বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু তার পরেও তাদের বিরুদ্ধে ২০১৪ সালে এই অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ ওঠে।

মানবাধিকার সংগঠনগুলিও যুদ্ধে এই ধরনের অস্ত্র ব্যবহারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। যদিও এই অস্ত্র ব্যবহারকে এখনও নিষিদ্ধ করেনি কোনও আন্তর্জাতিক সংগঠন। মানবাধিকার সংগঠনগুলি এর নির্বিচার ব্যবহার নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি করে আসছে। বুচা শহরটিকে দখলদার মুক্ত করার পর রাশিয়ান বাহিনীর দ্বারা পরিচালিত নৃশংসতা উন্মোচিত হয়েছিল। এর নিন্দায় সরব হয়েছিলেন আন্তর্জাতিক মহল।

বুচার রাস্তাগুলি গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছিল। অবিশ্বাস্য দ্রুততায় স্থানীয় বাসিন্দারা তা পরিষ্কার করেছেন। স্বেচ্ছাসেবকরা শহরের আশেপাশে এলাকাগুলি পরিষ্কারের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। সপ্তাহ খানেক আগে শহরের যে ছবি দেখেছিল বিশ্ব তার অনেকটাই বদল এনেছেন বাসিন্দারা।


আরও খবর



মোস্তাফিজকে নিয়ে কী করবে বিসিবি

প্রকাশিত:বুধবার ২৭ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আইপিএল নাকি টেস্ট ক্রিকেট? আচ্ছা, বিরাট কোহলিকে যদি আইপিএল ও টেস্ট ক্রিকেটের মধ্যে একটি বেছে নিতে বলা হয়, তিনি কোনটি খেলতে চাইবেন? প্রশ্নটা আর শুধুই একটি কুইজ নয়! এমন জটিল প্রশ্নেরই সম্মুখীন হতে হয় আজকালকার আধুনিক ক্রিকেটারদের।

আইপিএলের সময়ে ভারতের সিরিজ থাকে না বলে সে প্রশ্নের মোকাবিলা করতে হয় না কোহলিদের। কিন্তু অন্য অনেক দেশের ক্রিকেটারদেরই এই প্রশ্ন ফেলে দেয় মহাপরীক্ষায়। এই যেমন সর্বশেষ ঘটনাটা দক্ষিণ আফ্রিকার। আইপিএলের সময়েই প্রোটিয়াদের টেস্ট সিরিজ ছিল বাংলাদেশের সঙ্গে। দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোয়াডের ছয় সদস্য আবার আইপিএলের দলেও ছিলেন। তাঁদের সামনে তাই একেবারে সোজাসুজিই ছুড়ে দেওয়া হয়েছিল প্রশ্নটা।

তাঁরা কোনটি বেছে নিয়েছেন, সেটি আপনার যদি জানা না ও থাকে, তবু তা অনুমান করে নিতে কষ্ট হওয়ার কথা নয়। টেস্ট ক্রিকেট তাঁরা কেন বেছে নেননি, সে প্রসঙ্গ ভিন্ন। ফাফ ডু প্লেসি টেস্ট ক্রিকেট তো একেবারেই ছেড়ে দিয়েছিলেন তাঁর ক্যারিয়ার আরও দীর্ঘায়িত করার উদ্দেশ্যে। টেস্ট ক্রিকেটকে তো বলা হয় মর্যাদার ফরম্যাট! বিরাট কোহলি টেস্ট ক্রিকেটকে ভালোবাসেন, ভালোবাসেন উইলিয়ামসন-স্মিথরাও।

কিন্তু সেই সঙ্গে মর্যাদার এই ফরম্যাটটাকে উপভোগ না করাদের আজকাল পাওয়া যে যায় না, তা কিন্তু না! গত বছরেই মঈন আলী টেস্টকে বিদায় বলে দিয়েছিলেন, সাদা পোশাকের ক্রিকেটটা তিনি আর উপভোগ করছিলেন না। টি-টোয়েন্টি ও আইপিএলের যুগে বেড়ে ওঠা অনেকেরই ফরম্যাটভেদে গুরুত্বের তালিকায় আজ আর অগ্রাধিকার পায় না টেস্ট ক্রিকেট।

তাই শুরুতে করা ওই প্রশ্নের উত্তরটা হয় আইপিএল। তখন দেশ বড় না আইপিএল বড় জোরদার হয় সে আলোচনাও। সে প্রসঙ্গে আপাতত না-ই যাওয়া যাক। তবে ক্রিকেটের নতুন এই বাস্তবতার সঙ্গে ধীরে ধীরে পরিচিত হচ্ছে বাংলাদেশও। দুই ধরনের উদাহরণই যে এখন পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশে। সাকিবের ছুটি, বাংলাদেশে সবচেয়ে আলোচিত বিষয়গুলোর একটি। আর ছুটির কারণটা আইপিএল হলে তো হলোই!

সাকিব আল হাসানকেও ওই মহাপরীক্ষায় ফেলে দেওয়া প্রশ্নটার মুখে পড়তে হয়েছিল ২০২১ সালের শ্রীলঙ্কা সফর নিয়ে। ওই সিরিজের সময়েই যে আইপিএলের আসরও ছিল। আর সাকিব বোর্ডকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন, তিনি শ্রীলঙ্কা সিরিজ থেকে ছুটি চান আইপিএল খেলার জন্যই। সাকিবের আইপিএলের খেলার কথা যখন উঠেছে, মোস্তাফিজও আসবেন সেখানে।

মোস্তাফিজ যে টেস্ট খেলেন না বা টেস্ট উপভোগ করেন না, তত দিনে তা একধরনের প্রতিষ্ঠিতই। তবু সে সময় আবারও উঠল প্রশ্নটা। দলে থাকলে অবশ্যই টেস্ট খেলবেন জানিয়ে দিয়ে মোস্তাফিজ তখন পরিণত প্রশংসার পাত্রে। পরে অবশ্য মোস্তাফিজ আইপিএল খেলতেই গিয়েছিলেন। সেই মোস্তাফিজই আবার সর্বশেষ কেন্দ্রীয় চুক্তিতে টেস্টে নিজের নাম লেখাননি।

বায়ো-বাবলের কঠিন জীবনের কারণ দেখিয়েছিলেন তিনি। এবার বিভিন্ন গণমাধ্যমের মাধ্যমে মোস্তাফিজের টেস্ট খেলতে অনীহার কথাটা খোলামেলাই জানা গেল। ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতে মোস্তাফিজ মনে করেন, কিছু ত্যাগ করতে হবে। আর সেই ত্যাগ, টেস্ট ক্রিকেট! মোস্তাফিজের বয়স ২৬ পেরোয়নি এখনো। কিন্তু সেই মোস্তাফিজের মনে এখন থেকেই ক্যারিয়ার লম্বা করার চিন্তা ঢুকে গেল?

সাকিব ও মোস্তাফিজবাংলাদেশের অন্যতম সেরা এই দুই ক্রিকেটারের যেকোনো দলে থাকাটাই তো লাভ। কিন্তু বিসিবি ক্রিকেটারদের হাতেই ছেড়ে দিয়েছিল, কে কোন ফরম্যাটে খেলতে চান। সে অনুযায়ী মোস্তাফিজের খেলতে চাওয়া ফরম্যাটের তালিকায় টেস্ট জায়গা পায়নি। তখন অবশ্য বিসিবি জোর গলায়ই বারবার বলেছিল, কেউ না খেলতে চাইলে জোর করা হবে না।

এখন আবার মোস্তাফিজের শ্রীলঙ্কা সিরিজে খেলার প্রয়োজনীয়তার কথা উঠল, তখন বলা হলো, প্রয়োজন হলে অবশ্যই খেলানো হবে! আইপিএল খেলতে দেওয়া মোস্তাফিজকে ফেরানোর কথা উঠলেও প্রথম টেস্টের দলে রাখা হয়নি অবশ্য মোস্তাফিজকে। ক্রিকেট আধুনিক হচ্ছে, আর ক্রিকেটের গায়েও লাগছে নিত্যনতুন পরিবর্তনের হাওয়া!

আর এই আধুনিক যুগে ক্রিকেটকে দেখতে হচ্ছে একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলতে দেশের ক্রিকেটকে না বলছেন ক্রিকেটাররা, যুগে যুগে মর্যাদার আসনে বসে আসা টেস্ট ক্রিকেটটার জায়গা হচ্ছে অবহেলার আসনে। বাংলাদেশ ক্রিকেটও আধুনিক এই ক্রিকেটের সঙ্গে আজ পাল্লা দিয়ে চলছে। সেটাকে দুর্ভাগ্য নাকি সৌভাগ্য, কোনটা বলবেন?

বিশ্ব ক্রিকেটই এখন মুখোমুখি হচ্ছে নতুন এই বাস্তবতার সঙ্গে। সাকিবের ছুটির ঘটনা এবং মোস্তাফিজের ক্যারিয়ার দীর্ঘায়িত করার উদ্দেশ্য দুটিতেও তাই ফুটে ওঠে। বাংলাদেশের অনেক ইতিহাস তৈরিতে হাত থাকা এ দুজন এবার পরিচয় করিয়ে দিলেন নতুন এক বাস্তবতার সঙ্গেও। এবার এই বাস্তবতার সঙ্গে বাংলাদেশ মুখোমুখি হবে কোন রূপে?

এই তো আইপিএল খেলতে চাওয়ার কারণে সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজ খেলতে চাননি সাকিব। সে নিয়ে কি কম বিতর্ক হলো! শেষমেশ সাকিব খেলার অবস্থায় নেই জানিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর না করতে চেয়েও পরে গিয়েছিলেন। যদিও পরে ব্যক্তিগত কারণে টেস্টে না খেলে ওয়ানডে সিরিজ খেলেই ফিরে আসতে হয়েছিল তাঁকে।

অবশ্য দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট যে কারণে প্রথমে না খেলার মত জানিয়েছিলেন, এরপর সেই আইপিএলেই আর দল পাননি সাকিব। যদি ভবিষ্যতে আবার আইপিএল ও বাংলাদেশের কোনো সিরিজ কিংবা নির্দিষ্ট করে বললে টেস্ট সিরিজের মধ্যে কোনো একটা বেছে নিতে গিয়ে সাকিব আইপিএলই বেছে নেন, তখন বিসিবি কী করবে? ক্যারিয়ার দীর্ঘ করতে চাইলে মোস্তাফিজ কেন তাহলে অন্য ফরম্যাট ছাড়ছেন না?

মোস্তাফিজ এ প্রশ্নের উত্তরে যুক্তি দেখিয়েছেন, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে তাঁর সাফল্য তুলনামূলক বেশি বলে টেস্টটা বাদ দিচ্ছেন। মোস্তাফিজের মনে কেন এ ভাবনার উদয় হয় না, যে টেস্টে ভালো করতেই হবে। টেস্টে ভালো করার চ্যালেঞ্জ না নিলেও মোস্তাফিজকে বিসিবি কি টেস্টে ফেরাতে পারবে? এবং ফেরালেও যদি মোস্তাফিজও কখনো চেয়ে বসেন ছুটি, তখন? শুরুতে করা প্রশ্নটা তো বিসিবিকেও ফেলে দেবে মহাপরীক্ষায়!


আরও খবর



প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে পাঁচ হাজারি ক্লাবে মুশফিক

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অপেক্ষাটা দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ থেকেই। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই টেস্টের এক ইনিংসে পঞ্চাশের বেশি রান করতে পেরেছেন মুশফিক। দারুণ সেই ইনিংসটির সমাপ্তি ঘটে অসময়ে রিভার্স সুইপের মতো শটস খেলতে গিয়ে। বাকি তিন ইনিংসে উল্লেখ করার মতো কিছু করতে পারেননি। অবশেষে সাগরিকায় তীব্র গরমে স্বর্ণালি একটি দিন পার করলেন মুশফিক। টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৫ হাজারি ক্লাবের গর্বিত সদস্য তিনি।

বাংলাদেশের হয়ে ৫ হাজার রানের মাইলফলকে পৌঁছানোর মিশনে গত কয়েক বছর ধরেই তামিম-মুশফিকের লড়াই চলছে। একবার তামিম এগিয়ে যান তো আরেকবার মুশফিক। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্ট শুরুর আগে দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার ৫ হাজার রানের ক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। তামিম ১৫২ রান দূরে থেকে ইনিংস শুরু করেন। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে সাজঘরে না ফিরলে তামিমই হয়তো সবার আগে ৫ হাজার রান পূর্ণ করতে পারতেন। কিন্তু তামিমই সুযোগটা করে দিলেন মুশফিককে। ৬৮ রান দূরে থেকে চট্টগ্রাম টেস্ট শুরু করেছিলেন উইকেট কিপার এই ব্যাটার। বুধবার ৫৩ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামেন। ১৫ রান দূরে থাকা মুশফিক ধীরস্থির ভাবেই প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে অভিজাত ৫ হাজারি ক্লাবের সদস্য হয়েছেন।

মঙ্গলবার হাফসেঞ্চুরিতে পৌঁছানোর পর থেকেই সবাই মুশফিকের এমন কীর্তি দেখার অপেক্ষায় ছিলেন। ভয়ও ছিল, পারবেন তো? কেননা ক্যারিয়ারে বহুবার সুইপ, স্লগ সুইপ, রিভার্স সুইপ, প্যাডেল সুইপ, স্কুপ- এসব খেলতে  গিয়ে আত্মাহুতি দেওয়ার রেকর্ড তার আছে। এমন শঙ্কা আর ভয় নিয়েই বুধবার সকালে গ্যালারিতে এসেছিলেন কিছু সংখ্যক দর্শক। আর যারা টিভি সেটের সামনে বসেছিলেন, তাদের দীর্ঘ একঘণ্টা অপেক্ষায় রাখলেন। আগের দিনের ৫৩ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে মাইলফলকে পৌঁছালেন প্রথম সেশনের একঘণ্টারও কিছু সময় বেশি নিয়ে।

বুধবার সাগরিকায় আসিথা ফার্নান্ডোর বলটি মুশফিকের গ্লাভসে লেগে ফাইন লেগে চলে যায়। আর তাতে দুই রান তুলে নিয়ে বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটার হিসেবে ৫ হাজার রান পূর্ণ করেন তিনি। অবশ্য দারুণ মাইফলক ছুঁয়েও মুশফিক ছিলেন নির্লিপ্ত, দেখাননি কোন উদযাপন। সঙ্গী লিটন এগিয়ে গিয়ে শুধু অভিন্দন জানিয়েছেন। জহুর আহমেদ চৌধুরীর ড্রেসিং রুম থেকেও ভেসে আসে শুভেচ্ছা। শুধু হেলমেট খুলে, ব্যাট উঁচিয়ে সেটার জবাব দেন মুশফিক।

২০০৫ সালের ২৬ মে, ঐতিহাসিক লর্ডসে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার মাথায় টেস্ট ক্যাপ পরিয়ে দিয়েছিলেন তখনকার অধিনায়ক হাবিবুল বাশার। মাত্র ১৭ বছর ৩৫১ দিন বয়সে এই উইকেটকিপার ব্যাটারের অভিষেক হয়েছিল। সেই যে শুরু, এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। মুশফিক ৮১তম টেস্ট খেলতে নেমে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৫ হাজার রানের মাইফলকে পৌঁছান। তামিম আজকে এই মাইফলক ছুঁতে পারলেও এক জায়গায় এগিয়ে থাকবেন। মুশফিকের চেয়ে ১৫ টেস্ট কম খেলেছেন বামহাতি ওপেনার।

মুশফিক ৫ হাজারে রানে আগে পৌঁছালেও চার হাজার রানে সবার আগে পৌঁছেছিলেন তামিম। তার ৫৫ টেস্ট লেগেছিল, মুশফিকের ৬৬ টেস্ট। এক হাজার রানের মাইলফলক ছুঁতে মুশফিককে খেলতে হয়েছে ২০ টেস্ট। দুই হাজার রানে পৌঁছাতে মুশফিক খেলেছেন ৩৫ টেস্ট। আর ৩ হাজারে পৌঁছাতে টেস্ট খেলেন ১৫টি।

সব মিলিয়ে ৮১ টেস্টে মুশফিক ৫ হাজার রান পূর্ণ করেছেন।  বাংলাদেশের পক্ষে প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করার কৃতিত্বও তার। ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গলে ২০০ রান করেছিলেন। ২০১৮ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মিরপুরেও ২১৯ রানে অপরাজিত ছিলেন। টেস্টে এখনও এটা বাংলাদেশের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ইনিংস। দুই বছর পর ২০২০ সালে মিরপুরেই ২০৩ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন তিনি। সবচেয়ে বেশি তিনটি ডাবল সেঞ্চুরির মালিকও তিনি।


আরও খবর



বৃষ্টিতে ফোন ভিজে গেলে এই বিষয়গুলো মেনে চলুন

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এখন বৃষ্টির সময়। হঠাৎ বৃষ্টি নামলে পকেটে থাকা ফোন ভিজে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। আজকাল কিছু ফোন ওয়াটার রেসিস্ট্যান্ট হলেও বেশিরভাগ ফোনেই এখনও পানি লাগলে খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই পরিস্থিতিতে ফোন ভিজে গেলে কী করবেন জানেন কি?

কয়েকটা সহজ উপায় অবলম্বন করলে ফোনকে ভালো রাখা সম্ভব হতে পারে। চলুন জানা যাক....

> ফোন ভিজে গেলে প্রথমেই ফোন বন্ধ করে দিতে হবে। এর ফলে ফোনের ভিতরে শর্ট সার্কিটের কারণে তা খারাপ হওয়ার আশঙ্কা কমবে। ফোনের ভিতরে পানি ঢুকে যাওয়ার আগেই যদি তা বন্ধ করে দিতে পারেন তবে আপনার ফোন সুরক্ষিত থাকার সম্ভাবনা অনেকটা বেড়ে যায়।

> ফোন ভিজে গেলে সঙ্গে সঙ্গে তা শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। ফোনের বাইরে যত পানি রয়েছে, তা যত ভালো করে পরিষ্কার করবেন, ফোন ভালো থাকার সম্ভাবনা তত বাড়বে।

> ফোনে যদি ব্যাটারি খোলার সুবিধা থাকে, তাহলে ব্যাটারি দ্রুত ফোন থেকে আলাদা করে নিন। ব্যাটারির ভিতরে পানি ঢুকে গেলে বড়সড় বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। ব্যাটারি খুলে ফেলতে পারলে ফোন অনেকটা সুরক্ষিত জায়গায় চলে যাবে।

> ফোন থেকে সিম কার্ড ও মেমোরি কার্ড খুলে সেগুলো শুকনো কাপড় দিয়ে ভালো করে শুকিয়ে নিন। পানি লেগে ফোনের সিম ও মেমোরি কার্ড খারাপ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। হাতের কাছে মাইক্রোফাইবার কাপড় থাকলে তা দিয়ে ফোনটি আবারও একবার ভালো করে শুকিয়ে নিন।

> ফোনের ভেতরে কোন পানি ঢুকে থাকলে তা বের করার জন্য ফোনটিকে একটি প্লাস্টিক ব্যাগের মধ্যে ঢুকিয়ে ভ্যাকিউম করুন। এর ফলে ফোনের ভিতরে থাকা পানি বেরিয়ে আসবে অনেকটাই।

> এবার ফোনটিকে চালের পাত্রে ঢুকিয়ে দিন। এর ফলে ফোনের ভিতরে জমে থাকা আর্দ্রতা শুকিয়ে যাবে। সম্ভব হলে এই কাজে সিলিকা জেল ব্যবহার করতে পারেন। দুই থেকে তিন দিন ফোনটিকে এই অবস্থায় রেখে দিন।

> দুই-তিন দিন পরে ফোন বের করে তা অন করুন। অনেক ক্ষেত্রেই এই সময় ফোন অন হয়ে যাবে। তবে ফোনের ভেতরে অতিরিক্ত পানি ঢুকে থাকলে তা অন হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা কমে যায়। তবে অন্তত দুই দিন আপনার ফোন চালের মধ্যে রাখতে হবে। নাহলে সব আর্দ্রতা শোকানোর জন্য পর্যাপ্ত সময় মিলবে না।

নিউজ ট্যাগ: বৃষ্টি

আরও খবর

বিশ্ব মেডিটেশন দিবস আজ

শনিবার ২১ মে ২০২২